নিউইয়র্ক ১১:৪১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন :
মঙ্গলবারের পত্রিকা সাপ্তাহিক হককথা ও হককথা.কম এ আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন +1 (347) 848-3834

রিপাবলিকান দলের সম্মেলনে আনুষ্ঠানিক মনোনয়ন পেলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প ॥ হিলারীর ব্যাপক সমালোচনা ॥ হিলারীর জয়ের সম্ভাবনা ৭৬ শতাংশ, ট্রাম্পের ২৪ : নিউইয়র্ক টইমস

রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : ০৮:৫৭:৪১ অপরাহ্ন, বুধবার, ২০ জুলাই ২০১৬
  • / ৯৭০ বার পঠিত

নিউইয়র্ক: শেষ পর্যন্ত জয় ট্রাম্পেরই। ১৩ মাসের মনোনয়নযুদ্ধ শেষে ট্রাম্পকে মনোনয়ন দেয়া হলো। প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে দলের প্রার্থিতা নিশ্চিত করতে এই সময়ের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের ধনকুবের ডোনাল্ড ট্রাম্প ১৬ জন প্রতিদ্বন্দ্বীকে পেছনে ফেলেছেন। ফলে আগামী ৭ নভেম্বর অনুষ্ঠেয় যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রিপাবলিকান দল থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে মনোনয়ন দেয়া হলো ডোনাল্ড ট্রাম্পকে। এদিকে রিপালিকানদের সম্মেলন উপলক্ষে ক্লিভল্যান্ডে কড়া নিরাপত্তা ব্যব¯’া নেয়া হয়েছে। ব্যক্তিগত নিরাপত্তার জন্য সেখানে অনেকেই নিজেদের ‘গান’ (অস্ত্র) ব্যবহারের অনুমতি চেয়েছিলেন। কিš‘ পুলিশ প্রশাসন ব্যক্তিগত অস্ত্র ব্যবহারের অনুমতি দেননি। অপরদিকে সেখানে ট্রাম্প বিরোধী সমাবেশও হয়েছে। সম্মেলনে রিপাবলিকানরা ডেমোক্র্যাট দলীয় সম্ভাব্য প্রার্থী, সাবেক ফাস্ট লেডী হিলারী ক্লিনটনের ব্যাপক সমালোচনাও করেন। অপরদিকে নিউইয়র্ক টাইমস এক প্রতিবেদনে মঙ্গলবার জানিয়েছে, আগামী ৮ নভেম্বরের নির্বাচনে হিলারীর ৭৬ শতাংশ এবং ট্রাম্পের ২৪ শতাংশ জয়ের সম্ভাবনা রয়েছে।
অনলাইন স্কাই নিউজ-এর খবওে বলা হয়েছে: আগামী ৭ নভেম্বর অনুষ্ঠেয় যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রিপাবলিকান দল থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে মনোনয়ন দেয়া হলো ডোনাল্ড ট্রাম্পকে। ২১ জুলাই বৃহস্পতিবার তিনি আনুষ্ঠানিকভাবে মনোনয়ন গ্রহণ করবেন। এ সময় তার বক্তব্য দেয়ার কথা আছে। উল্লেখ্য, ১৮ জুলাই থেকে ওহাইও রাজ্যের ক্লিভল্যান্ডে শুরু হয়েছে রিপাবলিকান দলের ৪দিন ব্যাপী জাতীয় সম্মেলন। এ সম্মেলনেই চূড়ান্ত প্রার্থী ঘোষণা করা হয়। সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনেই ডোনাল্ড ট্রাম্পকে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে। ।
খবরে বলা হয়েছে, ডোনাল্ড ট্রাম্প মোট ১৭২৫ টি ডেলিগেট পেয়েছেন। টেক্সাসের সিনেটর টেড ক্রুজ পেয়েছেন ৪৭৫ টি ডেলিগেট। ওহাইওর গভর্নর জন কাসিচ পেয়েছেন ১২৯ টি ডেলিগেট। আর ফ্লোরিডার সিনেটর মারকো রুবিওর সংগ্রহ ১১৩টি ডেলিগেট। এ খবর জানার পর ভিডিও ম্যাসেজে ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, মনোনয়ন জেতা তার কাছে এমন কিছু, যা তিনি কোনদিন ভুলবেন না। এই লড়াই সব দিক দিয়ে চালিয়ে নিতে হবে। তিনি আরও বলেন, আগামী প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে তিনি বিজয়ী হবেন। তিনি যুক্তরাষ্ট্রে বাস্তব পরিবর্তন আনবেন। নেতৃত্ব ফিরিয়ে নেবেন ওয়াশিংটনে।
সম্মেলনে মনোনয়ন প্রক্রিয়া উদ্বোধন করেন আলাবাসার সিনেটর জেফ সেশন। তিনি ঘোষণা করেন, বিলিয়নিয়ার ট্রাম্প একজন যোদ্ধা, একজন বিজয়ী। নিউইয়র্কের প্রতিনিধি ক্রিস কলিন্স এরপরই বলেন, সন্ত্রাসকে পরাজিত করবেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। তিনি যুক্তরাষ্ট্রকে আবার নিরাপদ করবেন। এক সময় ট্রাম্পের প্রচারণা বিষয়ক ম্যানেজার ছিলেন কোরি লেওয়ানদোস্কি। গত মাসে তাকে বরখাস্ত করা হয়। তা সত্ত্বেও তিনি বলেছেন, তার নিজের রাজ্য নিউ হ্যাম্পশায়ার তার বন্ধু ও যুক্তরাষ্ট্রের পরবর্তী প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড জে ট্রাম্পকে ভোট দেবে। মনোনয়নের চূড়ান্ত ঘোষণা দেন ডোনাল্ড ট্রাম্পের ছেলে ডোনাল্ড জুনিয়র। তিনি বলেন, যে ডেলিগেট গণনা করা হয়েছে তাতে নিউইয়র্কে ডোনাল্ড ট্রাম্প পেয়েছেন ৮৯ ভোট। আর ওহাইওর গভর্নর জন কাসিচ পেয়েছেন ৬ ভোট। তিনি বলেন, ডোনাল্ট ট্রাম্পকে ডেলিগেশনের হিসেবে সবার শীর্ষে রাখার ঘোষণা আমার জন্য সম্মানের। অভিনন্দন, বাবা। আমি তোমাকে ভালবাসি। এ সময় সম্মেলন¯’ল শ্লোগানে মুখরিত হয়ে ওঠে। এর মধ্য দিয়ে আগামী ৭ নভেম্বরের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে চূড়ান্তভাবে ডেমোক্রেট দলের প্রার্থী হিলারি ক্লিনটনের মুখোমুখি হতে যা”েছন ডোনাল্ড ট্রাম্প।
RCN Convention-2016অপরদিকে বিবিসি ও রয়টার্সেও খবরে বলা হয়: যুক্তরাষ্ট্রে রিপাবলিকান দলের প্রেসিডেন্ট পদে ডোনাল্ড ট্রাম্পের মনোনয়ন চূড়ান্ত হয়েছে। ১৯ জুলাই মঙ্গলবার দলের জাতীয় সম্মেলনে তিনি আনুষ্ঠানিকভাবে মনোনয়ন পেয়েছেন। ওহাইওর ক্লিভল্যান্ডে এই সম্মেলনে বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যের প্রতিনিধিরা তার পক্ষে ভোট দেন। ২১ জুলাই বৃহস্পতিবার ট্রাম্প মনোনয়ন গ্রহণ করবেন বলে জানা গেছে। মার্কিন কংগ্রেসের নিম্নক্ষের স্পিকার পল রায়ান দলের সবাইকে ট্রাম্পের পক্ষে লড়াই করা আহবান জানিয়েছেন। সম্মেলনের শুরুতেই দলের মধ্যে বিভক্তি লক্ষ্য করা যায়। সম্মেলনে ট্রাম্পের স্ত্রীর বক্তব্য নিয়েও বিতর্কের সৃষ্টি হয়। এদিকে ট্রাম্প নির্বাচিত হলে প্রেসিডেন্ট ওবামা প্রশাসনের নিয়োগ করা চাকরিজীবীদের চাকরিচ্যুত করতে পারেন ট্রাম্প।
বিভিন্ন রাজ্যের ডেলিগেটরা ট্রাম্পকে আনুষ্ঠানিকভাবে নির্বাচিত করার পর তিনি বৃহস্পতিবার মনোনয়ন গ্রহণ করবেন বলে আশা করা হ”েছ। ক্লিভল্যান্ডে টুয়েজডে’র প্রতিপাদ্য ছিল ‘আমেরিকাকে ফের কাজের জন্য প্র¯‘ত কর’। তবে সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য হল, রিপাবলিকান বক্তারা ডেমোক্যাট দলের সম্ভাব্য প্রার্থী হিলারী ক্লিনটনের বিরুদ্ধে আক্রমণাত্মক বক্তব্য দিয়েছেন। নিউজার্সি গভর্নর ও সাবেক প্রসিকিউটর ক্রিস ক্রিস্টি হিলারির ছদ্ম বিচারের আয়োজন করেন। এ সময় উপ¯ি’ত ডেলিগেটরা ‘তাকে আটক কর’ বলে শ্লোগন দেন। ক্রিস্টি ও অন্যরা পররাষ্ট্রমন্ত্রী থাকার সময় একটি ব্যক্তিগত ই-মেইল অ্যাকউন্ট ব্যবহারের জন্যে হিলারীর সমালোচনা করেন। এফবিআই তদন্তে বলা হয়েছে, হিলারী ‘চরম দায়িত্বজ্ঞানহীন’ ছিলেন। তবে তার কর্মকান্ড অপরাধের পর্যায়ে পড়ে না। ক্রিস ক্রিস্টি বলেন, ট্রাম্প নির্বাচিত হলে ওবামা প্রশাসনের অনেককে চাকরিচ্যুত করা হতে পারে। এজন্য পার্লামেন্টে একটি আইনও পাস করা হতে পারে।
Trump Famillyসম্মেলনে ট্রাম্পের ছেলে মেয়ে: ট্রাম্পের সন্তানরা মঙ্গলবার বাবার চূড়ান্ত মনোনয়নের ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখেন। ট্রাম্পকে যখন বিজয়ী ঘোষণা ও এরপর তিনি যখন বক্তৃতা দি”িছলেন তখন তার সন্তানরা তার পাশে দাঁড়িয়ে ছিলেন। নিউইয়র্কের প্রতিনিধিদের সঙ্গে তাদের দাঁড়াতে দেখা যায়। সেখানে ট্রাম্পের ছেলে ডোনাল্ড ট্রাম্প জুনিয়রও বক্তৃতা করেন। তিনি বলেন, আমার বাবার কাছে যা কিছু অসম্ভব, সেখান থেকেই তিনি শুরু করেন, তিনি জীবনকে দেখেন এভাবেই। তিনি বাবাকে একজন রোল মডেল বলে উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, তার বাবা রিপাবলিকান কনভেনশনে প্রতিনিধিদের উপ¯ি’তি-ভোটে প্রার্থিতা নিশ্চিত করেছেন। প্রতিনিধিদের ভোটে সবার উপরে থাকা ডোনাল্ড ট্রাম্পের নাম ঘোষণা করতে পেরে আমি গর্বিত। ‘অভিনন্দন বাবা, আমরা তোমাকে ভালোবাসি।’-বলেন তিনি। ট্রাম্পের ছোট মেয়ে টিফানি ট্রাম্প তার স্কুলের প্রতিবেদন কার্ডে বাবার লেখা নোট নিয়ে স্মৃতিচারণ করেন এবং বন্ধুদের সঙ্গে তার বাবাকে পরিচয় করিয়ে দেবার সময় তিনি কেমন উত্তেজিত ছিলেন তাও উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, তার বাবা ‘জন্মগতভাবে একজন সাহসী ব্যক্তি’। তিনি সবসময় তাকে কঠোর কাজ করতে উত্সাহ যুগিয়েছেন।
শেষ পর্যন্ত জয় ট্রাম্পেরই: ১৩ মাসের মনোনয়নযুদ্ধ শেষে ট্রাম্পকে মনোনয়ন দেয়া হলো। প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে দলের প্রার্থিতা নিশ্চিত করতে এই সময়ের মধ্যে মার্কিন ধনকুবের ট্রাম্প ১৬ জন প্রতিদ্বন্দ্বীকে পেছনে ফেলেছেন। বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যের প্রাইমারি ও ককাসে ট্রাম্প সব মিলিয়ে ১৭২৫ জন রিপাবলিকান প্রতিনিধির সমর্থন পেয়েছেন। প্রার্থিতা নিশ্চিত করতে তার প্রয়োজন ছিল ১২৩৭ জনের সমর্থন। প্রতিদ্বন্দ্বী সিনেটর টেড ক্রুজ পেয়েছিলেন ৪৭৫ জন প্রতিনিধির সমর্থন, ওহাইও অঙ্গরাজ্যের গভর্নর কাসিচ পেয়েছিলেন ১২০ জনের সমর্থন; আর ফ্লোরিডার সিনেটর মার্কো রুবিও’র পক্ষে ছিলেন ১১৪ জন। মনোনয়ন যুদ্ধের সময়ই ট্রাম্প ছাড়া সবাই সরে দাঁড়ালে ট্রাম্পের প্রার্থিতা প্রায় নিশ্চিত হয়ে গিয়েছিল। মঙ্গলবার জাতীয় কনভেনশনে তার ‘প্রার্থিতার’ আনুষ্ঠানিক ঘোষণা এল। কনভেনশনে প্রতিনিধিরা কণ্ঠভোটে মাইক পেন্সকে ট্রাম্পের রানিংমেট হিসেবে মনোনয়ন দিয়েছেন।
এদিকে নভেম্বরের নির্বাচনে হিলারী ক্লিনটনের বিরুদ্ধে লড়বেন আবাসন ব্যবসায়ী ট্রাম্প। এখনো চূড়ান্ত মনোনয়ন না পাওয়া হিলারী আগামী ২৫ জুলাই সোমবার থেকে শুরু হওয়ার ডেমক্রেটিক ন্যাশনাল কনভেনশনে প্রার্থিতা নিশ্চিত করবেন বলে ধারণা করা হ”েছ। ট্রাম্পের প্রার্থিতা নিশ্চিত হওয়ার পর ট্যুইটারে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন সাবেক ফার্স্টলেডি হিলারী। মাত্রই ডোনাল্ড ট্রাম্পকে প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা করেছে রিপাবলিকান পার্টি। ওভাল অফিসে তার পা পড়বে না এমনটা নিশ্চিত করাই এখন আমাদের দায়িত্ব।

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

About Author Information

রিপাবলিকান দলের সম্মেলনে আনুষ্ঠানিক মনোনয়ন পেলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প ॥ হিলারীর ব্যাপক সমালোচনা ॥ হিলারীর জয়ের সম্ভাবনা ৭৬ শতাংশ, ট্রাম্পের ২৪ : নিউইয়র্ক টইমস

প্রকাশের সময় : ০৮:৫৭:৪১ অপরাহ্ন, বুধবার, ২০ জুলাই ২০১৬

নিউইয়র্ক: শেষ পর্যন্ত জয় ট্রাম্পেরই। ১৩ মাসের মনোনয়নযুদ্ধ শেষে ট্রাম্পকে মনোনয়ন দেয়া হলো। প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে দলের প্রার্থিতা নিশ্চিত করতে এই সময়ের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের ধনকুবের ডোনাল্ড ট্রাম্প ১৬ জন প্রতিদ্বন্দ্বীকে পেছনে ফেলেছেন। ফলে আগামী ৭ নভেম্বর অনুষ্ঠেয় যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রিপাবলিকান দল থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে মনোনয়ন দেয়া হলো ডোনাল্ড ট্রাম্পকে। এদিকে রিপালিকানদের সম্মেলন উপলক্ষে ক্লিভল্যান্ডে কড়া নিরাপত্তা ব্যব¯’া নেয়া হয়েছে। ব্যক্তিগত নিরাপত্তার জন্য সেখানে অনেকেই নিজেদের ‘গান’ (অস্ত্র) ব্যবহারের অনুমতি চেয়েছিলেন। কিš‘ পুলিশ প্রশাসন ব্যক্তিগত অস্ত্র ব্যবহারের অনুমতি দেননি। অপরদিকে সেখানে ট্রাম্প বিরোধী সমাবেশও হয়েছে। সম্মেলনে রিপাবলিকানরা ডেমোক্র্যাট দলীয় সম্ভাব্য প্রার্থী, সাবেক ফাস্ট লেডী হিলারী ক্লিনটনের ব্যাপক সমালোচনাও করেন। অপরদিকে নিউইয়র্ক টাইমস এক প্রতিবেদনে মঙ্গলবার জানিয়েছে, আগামী ৮ নভেম্বরের নির্বাচনে হিলারীর ৭৬ শতাংশ এবং ট্রাম্পের ২৪ শতাংশ জয়ের সম্ভাবনা রয়েছে।
অনলাইন স্কাই নিউজ-এর খবওে বলা হয়েছে: আগামী ৭ নভেম্বর অনুষ্ঠেয় যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রিপাবলিকান দল থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে মনোনয়ন দেয়া হলো ডোনাল্ড ট্রাম্পকে। ২১ জুলাই বৃহস্পতিবার তিনি আনুষ্ঠানিকভাবে মনোনয়ন গ্রহণ করবেন। এ সময় তার বক্তব্য দেয়ার কথা আছে। উল্লেখ্য, ১৮ জুলাই থেকে ওহাইও রাজ্যের ক্লিভল্যান্ডে শুরু হয়েছে রিপাবলিকান দলের ৪দিন ব্যাপী জাতীয় সম্মেলন। এ সম্মেলনেই চূড়ান্ত প্রার্থী ঘোষণা করা হয়। সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনেই ডোনাল্ড ট্রাম্পকে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে। ।
খবরে বলা হয়েছে, ডোনাল্ড ট্রাম্প মোট ১৭২৫ টি ডেলিগেট পেয়েছেন। টেক্সাসের সিনেটর টেড ক্রুজ পেয়েছেন ৪৭৫ টি ডেলিগেট। ওহাইওর গভর্নর জন কাসিচ পেয়েছেন ১২৯ টি ডেলিগেট। আর ফ্লোরিডার সিনেটর মারকো রুবিওর সংগ্রহ ১১৩টি ডেলিগেট। এ খবর জানার পর ভিডিও ম্যাসেজে ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, মনোনয়ন জেতা তার কাছে এমন কিছু, যা তিনি কোনদিন ভুলবেন না। এই লড়াই সব দিক দিয়ে চালিয়ে নিতে হবে। তিনি আরও বলেন, আগামী প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে তিনি বিজয়ী হবেন। তিনি যুক্তরাষ্ট্রে বাস্তব পরিবর্তন আনবেন। নেতৃত্ব ফিরিয়ে নেবেন ওয়াশিংটনে।
সম্মেলনে মনোনয়ন প্রক্রিয়া উদ্বোধন করেন আলাবাসার সিনেটর জেফ সেশন। তিনি ঘোষণা করেন, বিলিয়নিয়ার ট্রাম্প একজন যোদ্ধা, একজন বিজয়ী। নিউইয়র্কের প্রতিনিধি ক্রিস কলিন্স এরপরই বলেন, সন্ত্রাসকে পরাজিত করবেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। তিনি যুক্তরাষ্ট্রকে আবার নিরাপদ করবেন। এক সময় ট্রাম্পের প্রচারণা বিষয়ক ম্যানেজার ছিলেন কোরি লেওয়ানদোস্কি। গত মাসে তাকে বরখাস্ত করা হয়। তা সত্ত্বেও তিনি বলেছেন, তার নিজের রাজ্য নিউ হ্যাম্পশায়ার তার বন্ধু ও যুক্তরাষ্ট্রের পরবর্তী প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড জে ট্রাম্পকে ভোট দেবে। মনোনয়নের চূড়ান্ত ঘোষণা দেন ডোনাল্ড ট্রাম্পের ছেলে ডোনাল্ড জুনিয়র। তিনি বলেন, যে ডেলিগেট গণনা করা হয়েছে তাতে নিউইয়র্কে ডোনাল্ড ট্রাম্প পেয়েছেন ৮৯ ভোট। আর ওহাইওর গভর্নর জন কাসিচ পেয়েছেন ৬ ভোট। তিনি বলেন, ডোনাল্ট ট্রাম্পকে ডেলিগেশনের হিসেবে সবার শীর্ষে রাখার ঘোষণা আমার জন্য সম্মানের। অভিনন্দন, বাবা। আমি তোমাকে ভালবাসি। এ সময় সম্মেলন¯’ল শ্লোগানে মুখরিত হয়ে ওঠে। এর মধ্য দিয়ে আগামী ৭ নভেম্বরের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে চূড়ান্তভাবে ডেমোক্রেট দলের প্রার্থী হিলারি ক্লিনটনের মুখোমুখি হতে যা”েছন ডোনাল্ড ট্রাম্প।
RCN Convention-2016অপরদিকে বিবিসি ও রয়টার্সেও খবরে বলা হয়: যুক্তরাষ্ট্রে রিপাবলিকান দলের প্রেসিডেন্ট পদে ডোনাল্ড ট্রাম্পের মনোনয়ন চূড়ান্ত হয়েছে। ১৯ জুলাই মঙ্গলবার দলের জাতীয় সম্মেলনে তিনি আনুষ্ঠানিকভাবে মনোনয়ন পেয়েছেন। ওহাইওর ক্লিভল্যান্ডে এই সম্মেলনে বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যের প্রতিনিধিরা তার পক্ষে ভোট দেন। ২১ জুলাই বৃহস্পতিবার ট্রাম্প মনোনয়ন গ্রহণ করবেন বলে জানা গেছে। মার্কিন কংগ্রেসের নিম্নক্ষের স্পিকার পল রায়ান দলের সবাইকে ট্রাম্পের পক্ষে লড়াই করা আহবান জানিয়েছেন। সম্মেলনের শুরুতেই দলের মধ্যে বিভক্তি লক্ষ্য করা যায়। সম্মেলনে ট্রাম্পের স্ত্রীর বক্তব্য নিয়েও বিতর্কের সৃষ্টি হয়। এদিকে ট্রাম্প নির্বাচিত হলে প্রেসিডেন্ট ওবামা প্রশাসনের নিয়োগ করা চাকরিজীবীদের চাকরিচ্যুত করতে পারেন ট্রাম্প।
বিভিন্ন রাজ্যের ডেলিগেটরা ট্রাম্পকে আনুষ্ঠানিকভাবে নির্বাচিত করার পর তিনি বৃহস্পতিবার মনোনয়ন গ্রহণ করবেন বলে আশা করা হ”েছ। ক্লিভল্যান্ডে টুয়েজডে’র প্রতিপাদ্য ছিল ‘আমেরিকাকে ফের কাজের জন্য প্র¯‘ত কর’। তবে সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য হল, রিপাবলিকান বক্তারা ডেমোক্যাট দলের সম্ভাব্য প্রার্থী হিলারী ক্লিনটনের বিরুদ্ধে আক্রমণাত্মক বক্তব্য দিয়েছেন। নিউজার্সি গভর্নর ও সাবেক প্রসিকিউটর ক্রিস ক্রিস্টি হিলারির ছদ্ম বিচারের আয়োজন করেন। এ সময় উপ¯ি’ত ডেলিগেটরা ‘তাকে আটক কর’ বলে শ্লোগন দেন। ক্রিস্টি ও অন্যরা পররাষ্ট্রমন্ত্রী থাকার সময় একটি ব্যক্তিগত ই-মেইল অ্যাকউন্ট ব্যবহারের জন্যে হিলারীর সমালোচনা করেন। এফবিআই তদন্তে বলা হয়েছে, হিলারী ‘চরম দায়িত্বজ্ঞানহীন’ ছিলেন। তবে তার কর্মকান্ড অপরাধের পর্যায়ে পড়ে না। ক্রিস ক্রিস্টি বলেন, ট্রাম্প নির্বাচিত হলে ওবামা প্রশাসনের অনেককে চাকরিচ্যুত করা হতে পারে। এজন্য পার্লামেন্টে একটি আইনও পাস করা হতে পারে।
Trump Famillyসম্মেলনে ট্রাম্পের ছেলে মেয়ে: ট্রাম্পের সন্তানরা মঙ্গলবার বাবার চূড়ান্ত মনোনয়নের ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখেন। ট্রাম্পকে যখন বিজয়ী ঘোষণা ও এরপর তিনি যখন বক্তৃতা দি”িছলেন তখন তার সন্তানরা তার পাশে দাঁড়িয়ে ছিলেন। নিউইয়র্কের প্রতিনিধিদের সঙ্গে তাদের দাঁড়াতে দেখা যায়। সেখানে ট্রাম্পের ছেলে ডোনাল্ড ট্রাম্প জুনিয়রও বক্তৃতা করেন। তিনি বলেন, আমার বাবার কাছে যা কিছু অসম্ভব, সেখান থেকেই তিনি শুরু করেন, তিনি জীবনকে দেখেন এভাবেই। তিনি বাবাকে একজন রোল মডেল বলে উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, তার বাবা রিপাবলিকান কনভেনশনে প্রতিনিধিদের উপ¯ি’তি-ভোটে প্রার্থিতা নিশ্চিত করেছেন। প্রতিনিধিদের ভোটে সবার উপরে থাকা ডোনাল্ড ট্রাম্পের নাম ঘোষণা করতে পেরে আমি গর্বিত। ‘অভিনন্দন বাবা, আমরা তোমাকে ভালোবাসি।’-বলেন তিনি। ট্রাম্পের ছোট মেয়ে টিফানি ট্রাম্প তার স্কুলের প্রতিবেদন কার্ডে বাবার লেখা নোট নিয়ে স্মৃতিচারণ করেন এবং বন্ধুদের সঙ্গে তার বাবাকে পরিচয় করিয়ে দেবার সময় তিনি কেমন উত্তেজিত ছিলেন তাও উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, তার বাবা ‘জন্মগতভাবে একজন সাহসী ব্যক্তি’। তিনি সবসময় তাকে কঠোর কাজ করতে উত্সাহ যুগিয়েছেন।
শেষ পর্যন্ত জয় ট্রাম্পেরই: ১৩ মাসের মনোনয়নযুদ্ধ শেষে ট্রাম্পকে মনোনয়ন দেয়া হলো। প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে দলের প্রার্থিতা নিশ্চিত করতে এই সময়ের মধ্যে মার্কিন ধনকুবের ট্রাম্প ১৬ জন প্রতিদ্বন্দ্বীকে পেছনে ফেলেছেন। বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যের প্রাইমারি ও ককাসে ট্রাম্প সব মিলিয়ে ১৭২৫ জন রিপাবলিকান প্রতিনিধির সমর্থন পেয়েছেন। প্রার্থিতা নিশ্চিত করতে তার প্রয়োজন ছিল ১২৩৭ জনের সমর্থন। প্রতিদ্বন্দ্বী সিনেটর টেড ক্রুজ পেয়েছিলেন ৪৭৫ জন প্রতিনিধির সমর্থন, ওহাইও অঙ্গরাজ্যের গভর্নর কাসিচ পেয়েছিলেন ১২০ জনের সমর্থন; আর ফ্লোরিডার সিনেটর মার্কো রুবিও’র পক্ষে ছিলেন ১১৪ জন। মনোনয়ন যুদ্ধের সময়ই ট্রাম্প ছাড়া সবাই সরে দাঁড়ালে ট্রাম্পের প্রার্থিতা প্রায় নিশ্চিত হয়ে গিয়েছিল। মঙ্গলবার জাতীয় কনভেনশনে তার ‘প্রার্থিতার’ আনুষ্ঠানিক ঘোষণা এল। কনভেনশনে প্রতিনিধিরা কণ্ঠভোটে মাইক পেন্সকে ট্রাম্পের রানিংমেট হিসেবে মনোনয়ন দিয়েছেন।
এদিকে নভেম্বরের নির্বাচনে হিলারী ক্লিনটনের বিরুদ্ধে লড়বেন আবাসন ব্যবসায়ী ট্রাম্প। এখনো চূড়ান্ত মনোনয়ন না পাওয়া হিলারী আগামী ২৫ জুলাই সোমবার থেকে শুরু হওয়ার ডেমক্রেটিক ন্যাশনাল কনভেনশনে প্রার্থিতা নিশ্চিত করবেন বলে ধারণা করা হ”েছ। ট্রাম্পের প্রার্থিতা নিশ্চিত হওয়ার পর ট্যুইটারে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন সাবেক ফার্স্টলেডি হিলারী। মাত্রই ডোনাল্ড ট্রাম্পকে প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা করেছে রিপাবলিকান পার্টি। ওভাল অফিসে তার পা পড়বে না এমনটা নিশ্চিত করাই এখন আমাদের দায়িত্ব।