নিউইয়র্ক ১০:৪১ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন :
মঙ্গলবারের পত্রিকা সাপ্তাহিক হককথা ও হককথা.কম এ আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন +1 (347) 848-3834

যুক্তরাষ্ট্রের বাজেটে বাংলাদেশ উন্নয়ন সহায়তা বাড়ানোর প্রস্তাব

রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : ১০:৩৩:১০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৩ ফেব্রুয়ারী ২০১৫
  • / ৭৪৩ বার পঠিত

নিউইয়র্ক: যুক্তরাষ্ট্র সরকার ২০১৬ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে বাংলাদেশের জন্য উন্নয়ন সহযোগিতা হিসেবে নয় কোটি ২৯ লাখ ২৩ হাজার মার্কিন ডলার বরাদ্দ অনুমোদন করার সুপারিশ করেছে। একইসঙ্গে প্রস্তাবিত ওই বাজেটে সন্ত্রাসবিরোধী কর্মকান্ডে যুক্তরাষ্ট্রের অগ্রাধিকারমূলক সহযোগিতার তালিকায় বাংলাদেশ স্থান পেয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তরের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রস্তাবিত বাজেটে এই তথ্য উঠে এসেছে।
মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী, মার্কিন পার্লামেন্টের কংগ্রেসের কাছে করা উন্নয়ন সহযোগিতার সুপারিশ হিসেবে এই বরাদ্দ দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে সর্বোচ্চ। ২০১৪ অর্থবছরে বাংলাদেশের জন্য উন্নয়ন সহযোগিতার পরিমাণ ছিল আট কোটি ১৫ লাখ ৭৮ হাজার মার্কিন ডলার। অর্থাৎ ২০১৪ অর্থবছরের চেয়ে ২০১৬ অর্থবছরের চেয়ে এক কোটি ৯০ লাখ মার্কিন ডলার বাড়ানোর অনুরোধ করা হয়েছে।
এদিকে ঢাকার মার্কিন দূতাবাস সূত্র জানিয়েছে, প্রস্তাবিত মার্কিন বাজেটে উন্নয়স সহযোগিতাসহ বাংলাদেশের জন্য মোট ২০ কোটি ৫০ লাখ ৫১ হাজার মার্কিন ডলার বরাদ্দ অনুমোদনের সুপারিশ করা হয়েছে।
মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের তথ্যমতে, যুক্তরাষ্ট্রের আন্তর্জাতিক উন্নয়ন সংস্থার (ইউএসএআইডি) মাধ্যমে বাংলাদেশের স্বাস্থ্য খাতের জন্য বরাদ্দ কমানোর প্রস্তাব করা হয়েছে। এই খাতে ২০১৫ অর্থবছরের জন্য সাত কোটি ১২ লাখ মার্কিন ডলারের বরাদ্দের প্রস্তাব করা হয়েছে। ২০১৪ সালে এই বরাদ্দের পরিমাণ ছিল সাত কোটি ৯৫ লাখ মার্কিন ডলার। ২০১৬ সালের বাজেটে সন্ত্রাসবিরোধী কর্মকান্ডে যুক্তরাষ্ট্রের অগ্রাধিকারমূলক সহযোগিতার তালিকায় বাংলাদেশ স্থান পেয়েছে। বাংলাদেশ ছাড়াও এ তালিকায় ইন্দোনেশিয়া, নাইজেরিয়া ও এর প্রতিবেশী পশ্চিম আফ্রিকা, ফিলিপিন্সম, কেনিয়া ও ইয়েমেনের নাম রয়েছে।
এছাড়া যুক্তরাষ্ট্র সরকার সামরিক শিক্ষা ও প্রশিক্ষণ খাতেও বাংলাদেশের জন্য বরাদ্দ বৃদ্ধির অনুরোধ করেছে। ২০১৪ সালে এ খাতে বরাদ ছিল নয় লাখ ৯৬ হাজার মার্কিন ডলার। ২০১৬ অর্থবছরে তা বাড়িয়ে ১৫ লাখ ডলারে উন্নীত করার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। তবে বৈদেশিক সামরিক সহায়তার আওতায় বাংলাদেশের জন্য যুক্তরাষ্ট্রের সাহায্য ৫০ হাজার মার্কিন ডলার কমানোর প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে।

Tag :

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

About Author Information

যুক্তরাষ্ট্রের বাজেটে বাংলাদেশ উন্নয়ন সহায়তা বাড়ানোর প্রস্তাব

প্রকাশের সময় : ১০:৩৩:১০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৩ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

নিউইয়র্ক: যুক্তরাষ্ট্র সরকার ২০১৬ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে বাংলাদেশের জন্য উন্নয়ন সহযোগিতা হিসেবে নয় কোটি ২৯ লাখ ২৩ হাজার মার্কিন ডলার বরাদ্দ অনুমোদন করার সুপারিশ করেছে। একইসঙ্গে প্রস্তাবিত ওই বাজেটে সন্ত্রাসবিরোধী কর্মকান্ডে যুক্তরাষ্ট্রের অগ্রাধিকারমূলক সহযোগিতার তালিকায় বাংলাদেশ স্থান পেয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তরের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রস্তাবিত বাজেটে এই তথ্য উঠে এসেছে।
মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী, মার্কিন পার্লামেন্টের কংগ্রেসের কাছে করা উন্নয়ন সহযোগিতার সুপারিশ হিসেবে এই বরাদ্দ দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে সর্বোচ্চ। ২০১৪ অর্থবছরে বাংলাদেশের জন্য উন্নয়ন সহযোগিতার পরিমাণ ছিল আট কোটি ১৫ লাখ ৭৮ হাজার মার্কিন ডলার। অর্থাৎ ২০১৪ অর্থবছরের চেয়ে ২০১৬ অর্থবছরের চেয়ে এক কোটি ৯০ লাখ মার্কিন ডলার বাড়ানোর অনুরোধ করা হয়েছে।
এদিকে ঢাকার মার্কিন দূতাবাস সূত্র জানিয়েছে, প্রস্তাবিত মার্কিন বাজেটে উন্নয়স সহযোগিতাসহ বাংলাদেশের জন্য মোট ২০ কোটি ৫০ লাখ ৫১ হাজার মার্কিন ডলার বরাদ্দ অনুমোদনের সুপারিশ করা হয়েছে।
মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের তথ্যমতে, যুক্তরাষ্ট্রের আন্তর্জাতিক উন্নয়ন সংস্থার (ইউএসএআইডি) মাধ্যমে বাংলাদেশের স্বাস্থ্য খাতের জন্য বরাদ্দ কমানোর প্রস্তাব করা হয়েছে। এই খাতে ২০১৫ অর্থবছরের জন্য সাত কোটি ১২ লাখ মার্কিন ডলারের বরাদ্দের প্রস্তাব করা হয়েছে। ২০১৪ সালে এই বরাদ্দের পরিমাণ ছিল সাত কোটি ৯৫ লাখ মার্কিন ডলার। ২০১৬ সালের বাজেটে সন্ত্রাসবিরোধী কর্মকান্ডে যুক্তরাষ্ট্রের অগ্রাধিকারমূলক সহযোগিতার তালিকায় বাংলাদেশ স্থান পেয়েছে। বাংলাদেশ ছাড়াও এ তালিকায় ইন্দোনেশিয়া, নাইজেরিয়া ও এর প্রতিবেশী পশ্চিম আফ্রিকা, ফিলিপিন্সম, কেনিয়া ও ইয়েমেনের নাম রয়েছে।
এছাড়া যুক্তরাষ্ট্র সরকার সামরিক শিক্ষা ও প্রশিক্ষণ খাতেও বাংলাদেশের জন্য বরাদ্দ বৃদ্ধির অনুরোধ করেছে। ২০১৪ সালে এ খাতে বরাদ ছিল নয় লাখ ৯৬ হাজার মার্কিন ডলার। ২০১৬ অর্থবছরে তা বাড়িয়ে ১৫ লাখ ডলারে উন্নীত করার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। তবে বৈদেশিক সামরিক সহায়তার আওতায় বাংলাদেশের জন্য যুক্তরাষ্ট্রের সাহায্য ৫০ হাজার মার্কিন ডলার কমানোর প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে।