নিউইয়র্ক ১১:১১ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন :
মঙ্গলবারের পত্রিকা সাপ্তাহিক হককথা ও হককথা.কম এ আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন +1 (347) 848-3834

আমেরিকার ‘থ্যাঙ্কস গিভিং ডে’ ২৬ নভেম্বর বৃহস্প্রতিবার

রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : ০৯:৩৯:৪৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর ২০১৫
  • / ১১৭৪ বার পঠিত

নিউইয়র্ক: যুক্তরাষ্ট্র তথা আমেরিকায় প্রতি বছর নভেম্বর মাসের চতুর্থ সপ্তাহের বৃহস্প্রতিবার ‘থ্যাঙ্কস গিভিং ডে’। দিনটি ঘটা করেই পালিত হয়। ঘরে ঘরে টার্কি পার্টির আয়োজন থেকে শুরু করে থ্যাঙ্কস গিভিং ডে’র সবচেয়ে বড় ও আকর্ষনীয় আয়োজনের মধ্যে রয়েছে বিশ্বখ্যাত শপিং প্রতিষ্ঠান ম্যাসি’র চোখ ধাঁধানো প্যারেড। বিশ্ব বাণিজ্যের রাজধানী বলে খ্যাত নিউইয়র্কের ম্যানহাটান সিটিতে এই প্যারেডের আয়োজন হয়ে থাকে।
‘থ্যাঙ্কস গিভিং ডে’ উপলক্ষ্যে ম্যাসি’র উদ্যোগ ও আয়োজিত এবছরের প্যারেড হচ্ছে ৮৯তম। প্রায় ৮ হাজারের মতো নর-নারী প্যারেডে অংশ নেবেন। ম্যানহাটানাস্থ সেন্ট্রাল পার্কের ওয়েস্ট ৭৭ স্ট্রীট থেকে শুরু করে সাউথ ৫৯ স্ট্রীট ধরে সিক্স এভিনিউতে এসে ৩৪ স্ট্রীটস্থ ম্যাসি মলের সামনে প্যারেডের সমাপ্তি ঘটবে। সকাল ৮টা থেকে বেলা ২টা পর্যন্ত এই প্যারেডের কার্যক্রম চলবে। বর্ণাঢ্য এই প্যারেডে থাকবে নানা প্রতিষ্ঠানের বিশালাকারের রং বে রং এর বেলুনের প্রদর্শনী, স্পাইডারম্যান আর মিকি মাউস সহ আকর্ষণীয় বিষয়াদী। ধারণা করা হচ্ছে অনুমানিক সাড়ে তিন মিলিয়ন দর্শক এই প্যারেড উপভোগ করবেন। এদিকে প্যারেড উপলক্ষে সংশ্লিষ্ট রাজপথগুলো বন্ধ থাকবে এবং নিরপত্তায় সিটি পুলিশের বিশেষ ব্যবস্থা থাকবে।
দিনটি সরকারী ছুটির দিন। ফলে সকল সরকারী অফিস, পোষ্ট অফিস, বন্ধ থাকবে। বন্ধ থাকবে আবর্জনা সরানোরও কাজ। গাড়ী পার্কিং ফ্রি। এদিন মিটার পার্কিংও সাসপেন্ড থাকবে।
যুক্তরাষ্ট্রের রাজধানী ওয়াশিংটন ডিসিতে অবস্থিত প্রেসিডেন্টের অফিস কাম বাসভবন হোয়াইট হাউজের ঐতিহ্য অনুযায়ী প্রেসিডেন্ট বারাক হোসেন ওবামা থ্যাঙ্কস গিভিং ডে-তে হোয়াইট হাউজে টার্কি পার্টিতে অংশ নেবেন।
ইতিহাস বলে: ১৬২১ সালে তীর্থ যাত্রীরা আমেরিকায় এসে ফসল তোলা উপলক্ষ্যে নভেম্বর মাসে একটি বিশেষ ফিস্টের আয়োজন করতেন। এ্ই ফিস্টে ফসল উৎপাদনের জন্য, তাদের ভাগ্য পরিবর্তনের জন্য ঈশ্বরের উদ্দেশ্যে বিশেষ ধন্যবাদ আর কৃতজ্ঞতা জানানো হতো। এই বছর প্রথম থ্যাঙ্কস গিভিং ডে পালিত হলেও পরের বছরগুলোতে তার ধারাবাহিকতা রক্ষা হয়নি। ইতিহাস আরো বলে, প্রথম থ্যাঙ্কস গিভিং ডে-তে টার্কি (গৃহপালিত জাতীয় এক প্রকার প্রাণী) রোস্ট
করা হয়েছিলো। আর ফিস্ট টেবিলে ছিলো পাকিন (সবজি জাতীয় এক প্রকার খাবার)। অনুষ্টানটি হয়েছিলো উন্মুক্ত ফসলের মাঠের পাশেই। কারণ তখন স্থায়ীয় রেড ইন্ডিয়ান সহ ইউরোপ থেকে আসা পিলগ্রিমদের একই ছাদের নীচে বসার মতো কোন ঘন বা বড় হলরুম ছিলো না।
‘থ্যাঙ্কস গিভিং’র প্রকৃত ইতিহাস নিয়ে মতান্তর থাকলেও বিশেষভাবে গৃহীত সত্য যে, ১৬৩০ সালের ৮ জুলাই যুক্তরাষ্ট্রের নিউইংল্যান্ড এলাকায় ইউরোপ থেকে আগত বসতি স্থাপনকারীরা ‘থ্যাঙ্কস গিভিং’ ডে পালন শুরু করেন। তবে আনুষ্ঠানিকভাবে ‘থ্যাঙ্কস গিভিং’ পালন শুরু করেন জেনারেল জর্জ ওয়াশিংটন ১৭৭৭ সালে পেনসিলভেনিয়ার ভ্যালি ফর্জে। এরপর প্রেসিডেন্ট জর্জ ওয়াশিংটন ১৭৮৯ সালে ২৬ নভেম্বরকে ‘থ্যাঙ্কস গিভিং’ ডে হিসেবে ঘোষণা দেন। এরপরও ‘থ্যাঙ্কস গিভিং’ পালনের ধারাবাহিকতা রক্ষা সম্ভব হয়নি। পরবর্তীতে ১৮৬৩ সালে প্রেসিডেন্ট আব্রাহাম লিঙ্কন পুনরায় থ্যাঙ্কস গিভিং ডে পালনের রেওয়াজ শুরু করেন। পরবর্তীতে ১৯৪১ সালে তৎকালীন প্রেসিডেন্ট রুজভেল্ট ‘থ্যাঙ্কস গিভিং’ ডে সংক্রান্ত একটি বিলের স্বাক্ষর করেন। এতে বলা হয় ‘প্রতি বছর নভেম্বর মাসের চতুর্থ বৃহস্প্রতিবার থ্যাঙ্কস গিভিং ডে হিসেবে পালিত হবে’। উল্লেখ্য, ‘থ্যাঙ্কস গিভিং’ ডে’র পরদিন থেকেই আমেরিকায় খৃস্টমাসের কেনাকাটা শুরু হয়ে যায়। যার ফলে শুক্রবারকে বলা হয় ‘ব্লাক ফাইডে’।
ব্লাক ফাইডে সহ বিভিন্ন সময়ে নিউইয়র্কের যেসকল শপিং মল বা সেন্টারে কেনাকাটার ধু পড়ে যায় সেগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো: নিউইয়র্ক সিটির ম্যানহাটানস্থ ৩৪ স্ট্রীটস্থ বিশ্ববিখ্যাত শপিং মল ম্যাসি, সিটির কুইন্স বরোর কুইন্স সেন্টার মল, লং আইল্যান্ডস্থ রুজভেল্ট ফিল্ড মল প্রভৃতি।
থ্যাঙ্কস গিভিং ডে উপলক্ষ্যে বাংলাদেশী কমিউনিটির অনেকেই টার্কি পার্টির আয়োজন করেছে। বাসা-বাড়ী ছাড়াও অনেকে বিশেষ পার্টিরও আয়োজন করেছেন। অনেকে বাসায় রান্না করা টার্কি বা অন্য কিছু খাবার রান্না করে বিভিন্ন পার্টিতে যোগ দিয়ে থাকেন। মূলত সন্ধ্যায় এসব পার্টি আয়োজিত হয়ে থাকে। এদিকে জ্যামাইকা, জ্যাকসন হাইটস, ব্রুকলীন, ওজনপার্ক, এস্টোরিয়া, ব্রঙ্কস প্রভৃতি বাংলাদেশী অধ্যুষিত এলাকার গ্রোসারী স্টোরগুলোতে টার্কি বেচা-কেনার ধুম পড়েছে। ২.৯৯ পাউন্ড দরে টার্কি বিক্রি হচ্ছে বিভিন্ন গ্রোসারীতে। অপরদিকে যারা টার্কি পছন্দ করেন না তারা হার্ড চিকেন ক্রয় করে ‘দুধের স্বাধ ঘোলে’ মিটাচ্ছেন বলেও খবর পাওয়া গেছে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

About Author Information

আমেরিকার ‘থ্যাঙ্কস গিভিং ডে’ ২৬ নভেম্বর বৃহস্প্রতিবার

প্রকাশের সময় : ০৯:৩৯:৪৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর ২০১৫

নিউইয়র্ক: যুক্তরাষ্ট্র তথা আমেরিকায় প্রতি বছর নভেম্বর মাসের চতুর্থ সপ্তাহের বৃহস্প্রতিবার ‘থ্যাঙ্কস গিভিং ডে’। দিনটি ঘটা করেই পালিত হয়। ঘরে ঘরে টার্কি পার্টির আয়োজন থেকে শুরু করে থ্যাঙ্কস গিভিং ডে’র সবচেয়ে বড় ও আকর্ষনীয় আয়োজনের মধ্যে রয়েছে বিশ্বখ্যাত শপিং প্রতিষ্ঠান ম্যাসি’র চোখ ধাঁধানো প্যারেড। বিশ্ব বাণিজ্যের রাজধানী বলে খ্যাত নিউইয়র্কের ম্যানহাটান সিটিতে এই প্যারেডের আয়োজন হয়ে থাকে।
‘থ্যাঙ্কস গিভিং ডে’ উপলক্ষ্যে ম্যাসি’র উদ্যোগ ও আয়োজিত এবছরের প্যারেড হচ্ছে ৮৯তম। প্রায় ৮ হাজারের মতো নর-নারী প্যারেডে অংশ নেবেন। ম্যানহাটানাস্থ সেন্ট্রাল পার্কের ওয়েস্ট ৭৭ স্ট্রীট থেকে শুরু করে সাউথ ৫৯ স্ট্রীট ধরে সিক্স এভিনিউতে এসে ৩৪ স্ট্রীটস্থ ম্যাসি মলের সামনে প্যারেডের সমাপ্তি ঘটবে। সকাল ৮টা থেকে বেলা ২টা পর্যন্ত এই প্যারেডের কার্যক্রম চলবে। বর্ণাঢ্য এই প্যারেডে থাকবে নানা প্রতিষ্ঠানের বিশালাকারের রং বে রং এর বেলুনের প্রদর্শনী, স্পাইডারম্যান আর মিকি মাউস সহ আকর্ষণীয় বিষয়াদী। ধারণা করা হচ্ছে অনুমানিক সাড়ে তিন মিলিয়ন দর্শক এই প্যারেড উপভোগ করবেন। এদিকে প্যারেড উপলক্ষে সংশ্লিষ্ট রাজপথগুলো বন্ধ থাকবে এবং নিরপত্তায় সিটি পুলিশের বিশেষ ব্যবস্থা থাকবে।
দিনটি সরকারী ছুটির দিন। ফলে সকল সরকারী অফিস, পোষ্ট অফিস, বন্ধ থাকবে। বন্ধ থাকবে আবর্জনা সরানোরও কাজ। গাড়ী পার্কিং ফ্রি। এদিন মিটার পার্কিংও সাসপেন্ড থাকবে।
যুক্তরাষ্ট্রের রাজধানী ওয়াশিংটন ডিসিতে অবস্থিত প্রেসিডেন্টের অফিস কাম বাসভবন হোয়াইট হাউজের ঐতিহ্য অনুযায়ী প্রেসিডেন্ট বারাক হোসেন ওবামা থ্যাঙ্কস গিভিং ডে-তে হোয়াইট হাউজে টার্কি পার্টিতে অংশ নেবেন।
ইতিহাস বলে: ১৬২১ সালে তীর্থ যাত্রীরা আমেরিকায় এসে ফসল তোলা উপলক্ষ্যে নভেম্বর মাসে একটি বিশেষ ফিস্টের আয়োজন করতেন। এ্ই ফিস্টে ফসল উৎপাদনের জন্য, তাদের ভাগ্য পরিবর্তনের জন্য ঈশ্বরের উদ্দেশ্যে বিশেষ ধন্যবাদ আর কৃতজ্ঞতা জানানো হতো। এই বছর প্রথম থ্যাঙ্কস গিভিং ডে পালিত হলেও পরের বছরগুলোতে তার ধারাবাহিকতা রক্ষা হয়নি। ইতিহাস আরো বলে, প্রথম থ্যাঙ্কস গিভিং ডে-তে টার্কি (গৃহপালিত জাতীয় এক প্রকার প্রাণী) রোস্ট
করা হয়েছিলো। আর ফিস্ট টেবিলে ছিলো পাকিন (সবজি জাতীয় এক প্রকার খাবার)। অনুষ্টানটি হয়েছিলো উন্মুক্ত ফসলের মাঠের পাশেই। কারণ তখন স্থায়ীয় রেড ইন্ডিয়ান সহ ইউরোপ থেকে আসা পিলগ্রিমদের একই ছাদের নীচে বসার মতো কোন ঘন বা বড় হলরুম ছিলো না।
‘থ্যাঙ্কস গিভিং’র প্রকৃত ইতিহাস নিয়ে মতান্তর থাকলেও বিশেষভাবে গৃহীত সত্য যে, ১৬৩০ সালের ৮ জুলাই যুক্তরাষ্ট্রের নিউইংল্যান্ড এলাকায় ইউরোপ থেকে আগত বসতি স্থাপনকারীরা ‘থ্যাঙ্কস গিভিং’ ডে পালন শুরু করেন। তবে আনুষ্ঠানিকভাবে ‘থ্যাঙ্কস গিভিং’ পালন শুরু করেন জেনারেল জর্জ ওয়াশিংটন ১৭৭৭ সালে পেনসিলভেনিয়ার ভ্যালি ফর্জে। এরপর প্রেসিডেন্ট জর্জ ওয়াশিংটন ১৭৮৯ সালে ২৬ নভেম্বরকে ‘থ্যাঙ্কস গিভিং’ ডে হিসেবে ঘোষণা দেন। এরপরও ‘থ্যাঙ্কস গিভিং’ পালনের ধারাবাহিকতা রক্ষা সম্ভব হয়নি। পরবর্তীতে ১৮৬৩ সালে প্রেসিডেন্ট আব্রাহাম লিঙ্কন পুনরায় থ্যাঙ্কস গিভিং ডে পালনের রেওয়াজ শুরু করেন। পরবর্তীতে ১৯৪১ সালে তৎকালীন প্রেসিডেন্ট রুজভেল্ট ‘থ্যাঙ্কস গিভিং’ ডে সংক্রান্ত একটি বিলের স্বাক্ষর করেন। এতে বলা হয় ‘প্রতি বছর নভেম্বর মাসের চতুর্থ বৃহস্প্রতিবার থ্যাঙ্কস গিভিং ডে হিসেবে পালিত হবে’। উল্লেখ্য, ‘থ্যাঙ্কস গিভিং’ ডে’র পরদিন থেকেই আমেরিকায় খৃস্টমাসের কেনাকাটা শুরু হয়ে যায়। যার ফলে শুক্রবারকে বলা হয় ‘ব্লাক ফাইডে’।
ব্লাক ফাইডে সহ বিভিন্ন সময়ে নিউইয়র্কের যেসকল শপিং মল বা সেন্টারে কেনাকাটার ধু পড়ে যায় সেগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো: নিউইয়র্ক সিটির ম্যানহাটানস্থ ৩৪ স্ট্রীটস্থ বিশ্ববিখ্যাত শপিং মল ম্যাসি, সিটির কুইন্স বরোর কুইন্স সেন্টার মল, লং আইল্যান্ডস্থ রুজভেল্ট ফিল্ড মল প্রভৃতি।
থ্যাঙ্কস গিভিং ডে উপলক্ষ্যে বাংলাদেশী কমিউনিটির অনেকেই টার্কি পার্টির আয়োজন করেছে। বাসা-বাড়ী ছাড়াও অনেকে বিশেষ পার্টিরও আয়োজন করেছেন। অনেকে বাসায় রান্না করা টার্কি বা অন্য কিছু খাবার রান্না করে বিভিন্ন পার্টিতে যোগ দিয়ে থাকেন। মূলত সন্ধ্যায় এসব পার্টি আয়োজিত হয়ে থাকে। এদিকে জ্যামাইকা, জ্যাকসন হাইটস, ব্রুকলীন, ওজনপার্ক, এস্টোরিয়া, ব্রঙ্কস প্রভৃতি বাংলাদেশী অধ্যুষিত এলাকার গ্রোসারী স্টোরগুলোতে টার্কি বেচা-কেনার ধুম পড়েছে। ২.৯৯ পাউন্ড দরে টার্কি বিক্রি হচ্ছে বিভিন্ন গ্রোসারীতে। অপরদিকে যারা টার্কি পছন্দ করেন না তারা হার্ড চিকেন ক্রয় করে ‘দুধের স্বাধ ঘোলে’ মিটাচ্ছেন বলেও খবর পাওয়া গেছে।