নিউইয়র্ক ০৪:৫১ অপরাহ্ন, সোমবার, ২২ জুলাই ২০২৪, ৭ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন :
মঙ্গলবারের পত্রিকা সাপ্তাহিক হককথা ও হককথা.কম এ আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন +1 (347) 848-3834

সরকার অবৈধ, শেখ হাসিনাকেও নিউইয়র্কে সভা করতে দেয়া হবে না

রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : ০২:০৯:৩৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ৩ জানুয়ারী ২০১৫
  • / ৪৯৬ বার পঠিত

নিউইয়র্ক: যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি ও আন্তর্জাতিক তারেক পরিষদ-এর ব্যানারে আয়োজিত সাংবাদিক সম্মেলনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোট সরকারকে অবৈধ সরকার আখ্যায়িত করে অবিলম্বের সরকারের পদত্যাগ ও নির্বাচন এবং বিএনপি দলীয় নেতা-কর্মীদের গ্রেফতারের নিন্দা জানিয়ে কেন্দ্রীয় নেতা ড. খন্দকার মোশারফ হোসেন, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, যুবদল সভাপতি মোয়াজ্জেম হোসেন আলালসহ সকলের মুক্তি দাবী করা হয়েছে। সাংবাদিক সম্মেলনে বলা হয়, দেশে মানবাধিকার লংঘন চরম পর্যায়ে পৌঁছেছে। নেই আইনের শাসন। সর্বত্রই বিরোধীদলের উপর নিপিড়ন, হামলা-মামলা চলছে। সরকার দেশকে অস্থিতিশীল পর্যায়ে নিয়ে যাচ্ছে।
সিটির জ্যাকসন হাইটস্থ খাবার বাড়ীর চাইনিজ রেষ্টুরেন্টে গত ২৮ ডিসেম্বর রোববার সন্ধ্যায় আয়োজিত সাংবাদিক সম্মেলনে প্রধান অতিথি ছিলেন আন্তর্জাতিক তারেক পরিষদ ইউএসএ’র অন্যতম উপদেষ্টা ড. শওকত আলী। যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি’র সাবেক যুগ্ম সম্পাদক ও তারেক পরিষদের চেয়ারম্যান আখতার হোসেন বাদল সহ সংগঠনের নেতৃবৃন্দের মধ্যে সাংবাদিক সম্মেলনে মোহাম্মদ বসির, মোহাম্মদ আনিসুর রহমান, জসিম উদ্দিন (ভিপি), নাসির উদ্দিন, হুমায়ুন কবীর, গোলাম আহাদ চৌধুরী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
সাংবাদিক সম্মেলনে ড. শওকত আলী বলেন, ৫ জানুয়ারীর নির্বাচনে জনগণের ভোটের কোন প্রতিফলন হয়নি। তাই শেখ হাসিনা সরকার অবৈধ সরকার। ক্ষমতার জোরে সরকার দেশে সন্ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছে। তিনি সরকারের কোন কোন মন্ত্রীর লাগামহীন ও জিয়া পরিবার সম্পর্কে আপত্তিকর বক্তব্যের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বলেন, জিয়া পুত্র তারেক রহমানের এক বক্তব্যেই সরকারের মন্ত্রীদের আঁতে ঘা লেগেছে, মন্ত্রীরা যা-তা বলছেন। তিনি বিএনপি, যুবদল ও ছাত্রদলের নেতা-কর্মীদের অবিলম্বে মুক্তি ও শেখ হাসিনাকে পদত্যাগ করে নির্বাচন দাবী করেন।
ড. শওকত আলী ঢাকার শাহজাহানপুর কলোনীতে শিশু জিহাদ হত্যার ঘটনার তীব্র নিন্দা জানান এবং অবিলম্বের তার পরিবারকে ক্ষতিপূরণ প্রদানের জন্য সরকারের প্রতি দাবী জানান।
আখতার হোসেন বাদল গাজীপুরে বিএনপির জনসভা করতে না দেয়ার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বলেন, বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াকে জনসভা করতে না দেয়া হলে ভবিষ্যতে শেখ হাসিনাকেও নিউইয়র্কের মাটিতে কোন সভা-সমাবেশ করতে দেয়া হবে না। তিনি বলেন, জোর করে ক্ষমতায় থাকা যায় না। তিনি বলেন, শেখ হাসিনার মতো তার মন্ত্রীরা জিয়া পরিবার ও বিএনপি সম্পর্কে লাগামহীন বক্তব্য দিচ্ছেন। আথচ বিএনপি চেয়ারপার্সন ধৈর্য্য ধরে শালীন ভাষায় কথা বলছেন। কেননা, বিএনপি দেশে সহিংসতা চায় না। চায় গণতান্ত্রিক আন্দোলন। কিন্তু সেই আন্দোলনেও সরকার বাধা দিচ্ছে। আওয়ামী লীগ জনবিচ্ছিন্ন দলে পরিণত হয়েছে বলেই তারা বিরোধীদলের বিরুদ্ধে ক্ষমতার চরম অপব্যবহার করছে। বাদল বলেন, বাংলাদেশের কোন কারাগার নেই যেখানে তারেক রহমানকে আটক রাখা যাবে। তিনি তারেক রহমানসহ দলীয় নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে দায়ের করা সকল মামলা অবিলম্বে প্রত্যাহার করে তাদের মুক্তি এবং শেখ হাসিনার পদত্যাগ ও নির্বাচন দাবী করেন।

Tag :

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

About Author Information

সরকার অবৈধ, শেখ হাসিনাকেও নিউইয়র্কে সভা করতে দেয়া হবে না

প্রকাশের সময় : ০২:০৯:৩৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ৩ জানুয়ারী ২০১৫

নিউইয়র্ক: যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি ও আন্তর্জাতিক তারেক পরিষদ-এর ব্যানারে আয়োজিত সাংবাদিক সম্মেলনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোট সরকারকে অবৈধ সরকার আখ্যায়িত করে অবিলম্বের সরকারের পদত্যাগ ও নির্বাচন এবং বিএনপি দলীয় নেতা-কর্মীদের গ্রেফতারের নিন্দা জানিয়ে কেন্দ্রীয় নেতা ড. খন্দকার মোশারফ হোসেন, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, যুবদল সভাপতি মোয়াজ্জেম হোসেন আলালসহ সকলের মুক্তি দাবী করা হয়েছে। সাংবাদিক সম্মেলনে বলা হয়, দেশে মানবাধিকার লংঘন চরম পর্যায়ে পৌঁছেছে। নেই আইনের শাসন। সর্বত্রই বিরোধীদলের উপর নিপিড়ন, হামলা-মামলা চলছে। সরকার দেশকে অস্থিতিশীল পর্যায়ে নিয়ে যাচ্ছে।
সিটির জ্যাকসন হাইটস্থ খাবার বাড়ীর চাইনিজ রেষ্টুরেন্টে গত ২৮ ডিসেম্বর রোববার সন্ধ্যায় আয়োজিত সাংবাদিক সম্মেলনে প্রধান অতিথি ছিলেন আন্তর্জাতিক তারেক পরিষদ ইউএসএ’র অন্যতম উপদেষ্টা ড. শওকত আলী। যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি’র সাবেক যুগ্ম সম্পাদক ও তারেক পরিষদের চেয়ারম্যান আখতার হোসেন বাদল সহ সংগঠনের নেতৃবৃন্দের মধ্যে সাংবাদিক সম্মেলনে মোহাম্মদ বসির, মোহাম্মদ আনিসুর রহমান, জসিম উদ্দিন (ভিপি), নাসির উদ্দিন, হুমায়ুন কবীর, গোলাম আহাদ চৌধুরী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
সাংবাদিক সম্মেলনে ড. শওকত আলী বলেন, ৫ জানুয়ারীর নির্বাচনে জনগণের ভোটের কোন প্রতিফলন হয়নি। তাই শেখ হাসিনা সরকার অবৈধ সরকার। ক্ষমতার জোরে সরকার দেশে সন্ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছে। তিনি সরকারের কোন কোন মন্ত্রীর লাগামহীন ও জিয়া পরিবার সম্পর্কে আপত্তিকর বক্তব্যের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বলেন, জিয়া পুত্র তারেক রহমানের এক বক্তব্যেই সরকারের মন্ত্রীদের আঁতে ঘা লেগেছে, মন্ত্রীরা যা-তা বলছেন। তিনি বিএনপি, যুবদল ও ছাত্রদলের নেতা-কর্মীদের অবিলম্বে মুক্তি ও শেখ হাসিনাকে পদত্যাগ করে নির্বাচন দাবী করেন।
ড. শওকত আলী ঢাকার শাহজাহানপুর কলোনীতে শিশু জিহাদ হত্যার ঘটনার তীব্র নিন্দা জানান এবং অবিলম্বের তার পরিবারকে ক্ষতিপূরণ প্রদানের জন্য সরকারের প্রতি দাবী জানান।
আখতার হোসেন বাদল গাজীপুরে বিএনপির জনসভা করতে না দেয়ার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বলেন, বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াকে জনসভা করতে না দেয়া হলে ভবিষ্যতে শেখ হাসিনাকেও নিউইয়র্কের মাটিতে কোন সভা-সমাবেশ করতে দেয়া হবে না। তিনি বলেন, জোর করে ক্ষমতায় থাকা যায় না। তিনি বলেন, শেখ হাসিনার মতো তার মন্ত্রীরা জিয়া পরিবার ও বিএনপি সম্পর্কে লাগামহীন বক্তব্য দিচ্ছেন। আথচ বিএনপি চেয়ারপার্সন ধৈর্য্য ধরে শালীন ভাষায় কথা বলছেন। কেননা, বিএনপি দেশে সহিংসতা চায় না। চায় গণতান্ত্রিক আন্দোলন। কিন্তু সেই আন্দোলনেও সরকার বাধা দিচ্ছে। আওয়ামী লীগ জনবিচ্ছিন্ন দলে পরিণত হয়েছে বলেই তারা বিরোধীদলের বিরুদ্ধে ক্ষমতার চরম অপব্যবহার করছে। বাদল বলেন, বাংলাদেশের কোন কারাগার নেই যেখানে তারেক রহমানকে আটক রাখা যাবে। তিনি তারেক রহমানসহ দলীয় নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে দায়ের করা সকল মামলা অবিলম্বে প্রত্যাহার করে তাদের মুক্তি এবং শেখ হাসিনার পদত্যাগ ও নির্বাচন দাবী করেন।