নিউইয়র্ক ১১:৪০ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন :
মঙ্গলবারের পত্রিকা সাপ্তাহিক হককথা ও হককথা.কম এ আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন +1 (347) 848-3834

‘বাংলাদেশের বিদ্রোহীকে নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র যুবলীগের বহিষ্কৃতরা’ খবরের প্রতিবাদ

রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : ০৮:১০:০৫ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ অগাস্ট ২০১৬
  • / ৫৮৮ বার পঠিত

নিউইয়র্ক: যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক (১ম) ফারুক আহমেদ এক বিবৃতিতে ‘সিলেট ভিউ অনলাইন’ পত্রিকায় প্রকাশিত ‘বাংলাদেশের বিদ্রোহীকে নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র যুবলীগের বহিষ্কৃতরা’ শীষৃক খবরের প্রতিবাদ করেছেন।
প্রতিবাদে ফারুক আহমেদ বলেন: গত বুধবার (১৭ আগষ্ট ২০১৬) প্রকাশিত সিলেট ভিউ অনলাইনে প্রকাশিত ‘বাংলাদেশের বিদ্রোহীকে নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র যুবলীগের বহিষ্কৃতরা’ খবরের তীব্র প্রতিবাদ জানাই। ঐ খবরে গত ৫ জানুয়ারী ২০১৪ নির্বাচনে সিলেট ৪ আসনে সতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে আমি প্রতিদ্বন্দিতা করি। সিলেট ভিউর খবরে ‘আওয়ামী লীগ সরকারের অধীনে কখনো নিরপেক্ষ নির্বাচন সম্ভব না এবং বিএনপির দাবী সঠিক ছিলো বলে আমার মন্তব্যের আলোকে যে বক্তব্য ছাপানো হয়েছে তা সর্বত্রে মিথ্যা, বানোয়াট ও বিভ্রান্তিকর। আমি ৫ জানুয়ারীর অপরহ্নে সিলেটে আয়োজিত সাংবাদিক সম্মেলনে বলেছিলাম আমার নির্বাচনী এলাকায় ভোলাগঞ্জ, বিচনা কান্দি ও জাফলং পাথর কুয়ারী রয়েছে। এসব কোয়ারীর কোটি কোটি টাকা এম.পি ইমরান আহমদের নেতৃত্বে কতিপয় ক্যাডার ও স্থানীয় প্রশাসনের একটি মহল সিন্ডিকেটের মাধ্যমে সরকারকে কোটি কোটি টাকার রাজস্ব ফাঁকি দিচ্ছে। এই সিন্ডিকেটই তাদের নিজস্ব স্বার্থে আমার নির্বাচনে ৩০-৩৫টি কেন্দ্রে ভোট ডাকাতির অবতারনা করে বলে আমি মন্তব্য করি। আমি দল, সরকার বা নির্বাচন কমিশন সম্পর্কে কোন মন্তব্য করিনি। আমার বক্তব্য স্থানীয় দৈনিক সিলেটের ডাক সহ সকল পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছে। আমার এই নির্বাচন দলের বিপক্ষে ছিলো না। বিএনপি জামায়াত জোট চেয়ে ছিলো বাংলাদেশের কোন আসনে যাতে মহাজোটের প্রার্থীর সাথে কেউ মনোনয়ন পত্র দাখিল না করে। আমি বিএনপি জামায়াতের বিরোধীতাকে চ্যালেঞ্জ করে নির্বাচনে অংশ নেই। সতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে নির্বাচনে আমার প্রাপ্ত ভোটের সংখ্যা ছিলো প্রায় ২৫ হাজার । কিন্তু দূভার্গ্য আমি বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রে বসবাস করি কিন্তু সিলেটভিউ অনলাইন পত্রিকার পক্ষ থেকে পরপর ২টা নিউজ আমার বিপক্ষে ছাপানো হয়েছে। খবরটি প্রকাশের আগে আমার সাথে কোন যোগাযোগ করেননি বা আমার কোন বক্তব্য নেয়নি। যা বস্তু নিষ্ট সাংবাদিকতার পরিপন্থী। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শের সৈনিক হিসাবে আমি আজীবন দলের প্রতি অনুগত একজন কর্মীমাত্র। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ তথা জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করাই আমার কাজ ও লক্ষ্য। আজীবন আমি এই কাজ করে যাবো। কোন পদ পদবী বা এমপি হওয়া বড় কথা নয়। মুজিব সৈনিকই আমার বড় পদ, বড় পরিচয়। তাই দলের মধ্যকার ঘাপটি মেরে থাকা খন্দকার মোস্তাকের প্রেতাত্ত¡াদের মিথ্যা তথ্যে কেউ বিভ্রান্ত হবেন না বলেই আমার বিশ্বাস। সিলেট ভিউ অনলাইন পত্রিকায় আগামী সংখ্যায় উপরোক্ত বক্তব্য গুরুত্বের সাথে প্রকাশ করার অনুরোধ জানাচ্ছি।

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

About Author Information

‘বাংলাদেশের বিদ্রোহীকে নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র যুবলীগের বহিষ্কৃতরা’ খবরের প্রতিবাদ

প্রকাশের সময় : ০৮:১০:০৫ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ অগাস্ট ২০১৬

নিউইয়র্ক: যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক (১ম) ফারুক আহমেদ এক বিবৃতিতে ‘সিলেট ভিউ অনলাইন’ পত্রিকায় প্রকাশিত ‘বাংলাদেশের বিদ্রোহীকে নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র যুবলীগের বহিষ্কৃতরা’ শীষৃক খবরের প্রতিবাদ করেছেন।
প্রতিবাদে ফারুক আহমেদ বলেন: গত বুধবার (১৭ আগষ্ট ২০১৬) প্রকাশিত সিলেট ভিউ অনলাইনে প্রকাশিত ‘বাংলাদেশের বিদ্রোহীকে নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র যুবলীগের বহিষ্কৃতরা’ খবরের তীব্র প্রতিবাদ জানাই। ঐ খবরে গত ৫ জানুয়ারী ২০১৪ নির্বাচনে সিলেট ৪ আসনে সতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে আমি প্রতিদ্বন্দিতা করি। সিলেট ভিউর খবরে ‘আওয়ামী লীগ সরকারের অধীনে কখনো নিরপেক্ষ নির্বাচন সম্ভব না এবং বিএনপির দাবী সঠিক ছিলো বলে আমার মন্তব্যের আলোকে যে বক্তব্য ছাপানো হয়েছে তা সর্বত্রে মিথ্যা, বানোয়াট ও বিভ্রান্তিকর। আমি ৫ জানুয়ারীর অপরহ্নে সিলেটে আয়োজিত সাংবাদিক সম্মেলনে বলেছিলাম আমার নির্বাচনী এলাকায় ভোলাগঞ্জ, বিচনা কান্দি ও জাফলং পাথর কুয়ারী রয়েছে। এসব কোয়ারীর কোটি কোটি টাকা এম.পি ইমরান আহমদের নেতৃত্বে কতিপয় ক্যাডার ও স্থানীয় প্রশাসনের একটি মহল সিন্ডিকেটের মাধ্যমে সরকারকে কোটি কোটি টাকার রাজস্ব ফাঁকি দিচ্ছে। এই সিন্ডিকেটই তাদের নিজস্ব স্বার্থে আমার নির্বাচনে ৩০-৩৫টি কেন্দ্রে ভোট ডাকাতির অবতারনা করে বলে আমি মন্তব্য করি। আমি দল, সরকার বা নির্বাচন কমিশন সম্পর্কে কোন মন্তব্য করিনি। আমার বক্তব্য স্থানীয় দৈনিক সিলেটের ডাক সহ সকল পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছে। আমার এই নির্বাচন দলের বিপক্ষে ছিলো না। বিএনপি জামায়াত জোট চেয়ে ছিলো বাংলাদেশের কোন আসনে যাতে মহাজোটের প্রার্থীর সাথে কেউ মনোনয়ন পত্র দাখিল না করে। আমি বিএনপি জামায়াতের বিরোধীতাকে চ্যালেঞ্জ করে নির্বাচনে অংশ নেই। সতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে নির্বাচনে আমার প্রাপ্ত ভোটের সংখ্যা ছিলো প্রায় ২৫ হাজার । কিন্তু দূভার্গ্য আমি বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রে বসবাস করি কিন্তু সিলেটভিউ অনলাইন পত্রিকার পক্ষ থেকে পরপর ২টা নিউজ আমার বিপক্ষে ছাপানো হয়েছে। খবরটি প্রকাশের আগে আমার সাথে কোন যোগাযোগ করেননি বা আমার কোন বক্তব্য নেয়নি। যা বস্তু নিষ্ট সাংবাদিকতার পরিপন্থী। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শের সৈনিক হিসাবে আমি আজীবন দলের প্রতি অনুগত একজন কর্মীমাত্র। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ তথা জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করাই আমার কাজ ও লক্ষ্য। আজীবন আমি এই কাজ করে যাবো। কোন পদ পদবী বা এমপি হওয়া বড় কথা নয়। মুজিব সৈনিকই আমার বড় পদ, বড় পরিচয়। তাই দলের মধ্যকার ঘাপটি মেরে থাকা খন্দকার মোস্তাকের প্রেতাত্ত¡াদের মিথ্যা তথ্যে কেউ বিভ্রান্ত হবেন না বলেই আমার বিশ্বাস। সিলেট ভিউ অনলাইন পত্রিকায় আগামী সংখ্যায় উপরোক্ত বক্তব্য গুরুত্বের সাথে প্রকাশ করার অনুরোধ জানাচ্ছি।