নিউইয়র্ক ১০:৫৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন :
মঙ্গলবারের পত্রিকা সাপ্তাহিক হককথা ও হককথা.কম এ আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন +1 (347) 848-3834

প্যানেল গঠনে কৌশল অবলম্বন করছেন প্রার্থীরা

রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : ১০:২৯:২৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ অগাস্ট ২০১৬
  • / ৫২৩ বার পঠিত

নিউইয়র্ক: বাংলাদেশ সোসাইটি ইনক’র দ্বি-বার্ষিক (২০১৭-২০১৮) নির্বাচনের তারিখ ঘোষিত হলেও নির্বাচন কমিশন (ইসি) এখনো নির্বাচনী তফসিল ঘোষণা করেননি। গত সপ্তাহে সোসাইটির কার্যকরী পরিষদ ও ইসি’র মধ্যে অনুষ্ঠিত যৌথ সভার সিদ্ধান্ত মোতাবেক আগামী ২৩ অক্টোবর রোববার নির্বাচনের দিন ঘোষিত হয়েছে। ঐদিন ভোটার তালিকাও ইসি’র কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এদিকে সোসাইটির নির্বাচনী প্যানেল গঠনে কৌশল অবলম্বন করছেন প্রার্থীরা।
জানা গেছে, বাংলাদেশ সোসাইটির আসন্ন নির্বাচনে দু’টি প্যানেল প্রতিদ্বন্দ্বিতায় আসছেন। সম্ভাব্য ‘কুনু-আজম’ ও ‘কামাল-রুহুল’ শীর্ষক প্যানেলের একটির নেতৃত্বে আছেন সোসাইটির বর্তমান সভাপতি আজমল হোসেন কুনু ও চট্টগ্রাম সমিতি ইউএসএ’র সাবেক সভাপতি কাজী আজম (কুনু-আজম প্যানেল)। অপর প্যানেলের নেতৃত্বে রয়েছেন সোসাইটির সাবেক সভাপতি কামাল আহমেদ ও সোসাইটির সাবেক কোষাধ্যক্ষ রুহুল আমীন সিদ্দিকী।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, নির্বাচন কমিশন নির্বাচনী তফসিল বিষয়ে অচিরেই বৈঠকে মিলিত হবেন। এব্যাপারে দিন-তারিখ- সময় চুলচেরা বিশ্লেষন করছেন কমিশনের সদস্যরা। সোসাইটির আসন্ন নির্বাচন সুষ্ঠু, অবাধ ও নিরপেক্ষ করতে ইসি সবরকম ব্যবস্থা নিতে যাচ্ছে বলেন কমিশনের সদস্যরা জানিয়েছেন।
এদিকে সোসাইটির নির্বাচনী প্যানেল গঠনে কৌশল অবলম্বন করছেন প্রার্থীরা। কিন্তু থেমে নেই নির্বাচনী প্রচারণা। যদিও পানেল ভিত্তিক প্রচারণা এখনো শুরু হয়নি। দুই প্যানেলের সম্ভাব্য প্রার্থীরা ব্যক্তিগত গণ সংযোগের পাশাপাশি কমিউনিটির বিভিন্ন সভা-সমাবেশন ও বনভোজন অনুষ্ঠানে যোগ নিয়ে দোয়া কামনা করছেন। সূত্র মতে, দুই প্যানেলের শীর্ষ নেতৃবৃন্দ অপেক্ষা করছেন কারা আগে প্যানেল ঘোষণা করেন।
অপরদিকে বাংলাদেশ সোসাইটির সামগ্রিক পরিস্থিতিতে সোসাইটির সাবেক নেতৃবৃন্দের মধ্যে অনেকেই ‘মুখ ফিরিয়ে’ নিয়েছেন সোসাইটি থেকে। অনেক সাবেক নেতা নিষ্ক্রিয় হয়ে পড়েছেন। আবার সোসাইটির সাথে সম্পৃক্ত অনেকে নেতার ব্যাপারে কমিউনিটিতে নানা প্রশ্ন উঠেছে। প্রশ্ন দেখা দিয়েছে অনেকের ‘নেতৃত্ব’র যোগ্যতা নিয়েও। ফলে নির্বাচন পরিচালনায় ‘অভিজ্ঞ’ ব্যক্তিদের সঙ্কট দেখা দিয়েছে প্যানেলগুলোতে।(সাপ্তাহিক বাংলা পত্রিকা)

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

About Author Information

প্যানেল গঠনে কৌশল অবলম্বন করছেন প্রার্থীরা

প্রকাশের সময় : ১০:২৯:২৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ অগাস্ট ২০১৬

নিউইয়র্ক: বাংলাদেশ সোসাইটি ইনক’র দ্বি-বার্ষিক (২০১৭-২০১৮) নির্বাচনের তারিখ ঘোষিত হলেও নির্বাচন কমিশন (ইসি) এখনো নির্বাচনী তফসিল ঘোষণা করেননি। গত সপ্তাহে সোসাইটির কার্যকরী পরিষদ ও ইসি’র মধ্যে অনুষ্ঠিত যৌথ সভার সিদ্ধান্ত মোতাবেক আগামী ২৩ অক্টোবর রোববার নির্বাচনের দিন ঘোষিত হয়েছে। ঐদিন ভোটার তালিকাও ইসি’র কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এদিকে সোসাইটির নির্বাচনী প্যানেল গঠনে কৌশল অবলম্বন করছেন প্রার্থীরা।
জানা গেছে, বাংলাদেশ সোসাইটির আসন্ন নির্বাচনে দু’টি প্যানেল প্রতিদ্বন্দ্বিতায় আসছেন। সম্ভাব্য ‘কুনু-আজম’ ও ‘কামাল-রুহুল’ শীর্ষক প্যানেলের একটির নেতৃত্বে আছেন সোসাইটির বর্তমান সভাপতি আজমল হোসেন কুনু ও চট্টগ্রাম সমিতি ইউএসএ’র সাবেক সভাপতি কাজী আজম (কুনু-আজম প্যানেল)। অপর প্যানেলের নেতৃত্বে রয়েছেন সোসাইটির সাবেক সভাপতি কামাল আহমেদ ও সোসাইটির সাবেক কোষাধ্যক্ষ রুহুল আমীন সিদ্দিকী।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, নির্বাচন কমিশন নির্বাচনী তফসিল বিষয়ে অচিরেই বৈঠকে মিলিত হবেন। এব্যাপারে দিন-তারিখ- সময় চুলচেরা বিশ্লেষন করছেন কমিশনের সদস্যরা। সোসাইটির আসন্ন নির্বাচন সুষ্ঠু, অবাধ ও নিরপেক্ষ করতে ইসি সবরকম ব্যবস্থা নিতে যাচ্ছে বলেন কমিশনের সদস্যরা জানিয়েছেন।
এদিকে সোসাইটির নির্বাচনী প্যানেল গঠনে কৌশল অবলম্বন করছেন প্রার্থীরা। কিন্তু থেমে নেই নির্বাচনী প্রচারণা। যদিও পানেল ভিত্তিক প্রচারণা এখনো শুরু হয়নি। দুই প্যানেলের সম্ভাব্য প্রার্থীরা ব্যক্তিগত গণ সংযোগের পাশাপাশি কমিউনিটির বিভিন্ন সভা-সমাবেশন ও বনভোজন অনুষ্ঠানে যোগ নিয়ে দোয়া কামনা করছেন। সূত্র মতে, দুই প্যানেলের শীর্ষ নেতৃবৃন্দ অপেক্ষা করছেন কারা আগে প্যানেল ঘোষণা করেন।
অপরদিকে বাংলাদেশ সোসাইটির সামগ্রিক পরিস্থিতিতে সোসাইটির সাবেক নেতৃবৃন্দের মধ্যে অনেকেই ‘মুখ ফিরিয়ে’ নিয়েছেন সোসাইটি থেকে। অনেক সাবেক নেতা নিষ্ক্রিয় হয়ে পড়েছেন। আবার সোসাইটির সাথে সম্পৃক্ত অনেকে নেতার ব্যাপারে কমিউনিটিতে নানা প্রশ্ন উঠেছে। প্রশ্ন দেখা দিয়েছে অনেকের ‘নেতৃত্ব’র যোগ্যতা নিয়েও। ফলে নির্বাচন পরিচালনায় ‘অভিজ্ঞ’ ব্যক্তিদের সঙ্কট দেখা দিয়েছে প্যানেলগুলোতে।(সাপ্তাহিক বাংলা পত্রিকা)