নিউইয়র্ক ১১:৫৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন :
মঙ্গলবারের পত্রিকা সাপ্তাহিক হককথা ও হককথা.কম এ আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন +1 (347) 848-3834

নেপালীদের সাহায্যার্থে বাংলাদেশ কনস্যুলেটে চ্যারিটি বাজার ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন

রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : ০৬:১৯:১১ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৭ জুন ২০১৫
  • / ৯৯৬ বার পঠিত

নিউইয়র্ক: নেপালের সাম্প্রতিক ভয়াবহ ভূমিকম্পে ক্ষতিগ্রস্থ নেপালীদের সাহায্যার্থে নিউইয়র্কস্থ বাংলাদেশ কনসুলেট ব্যতিক্রমী বৈশাখী চ্যারিটি বাজার ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ইউএস কংগ্রেসওমেন গ্রেস মেং এবং বিশেষ অতিথি ছিলেন ওয়াশিংটনে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত জিয়াউদ্দিন আহমদ ও জাতিসংঘের বাংলাদেশ মিশনে নিযুক্ত স্থায়ী প্রতিনিধি ড. একে আবদুল মোমেন।
নিউইয়র্কের লং আইল্যান্ড সিটিস্থ বাংলাদেশ কনস্যুরেট অফিস মিলনায়তনে গত ৩১ মে রোববার এই অনুষ্টানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানমালার মধ্যে ছিলো বাংলাদেশ সহ চীন, ইন্দোনেশিয়া, শ্রীলংকা ও নেপালের বুটিক, শাড়ী, হস্তশিল্প, ফটো ফ্রেম, পুতুল প্রভৃুত জিনিসের স্টল, আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। খবর ইউএনএ’র।
অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন কনসাল জেনারেল মোহাম্মদ শামীম আহসান। অতিথিবৃন্ধছাড়াও অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন কুইন্স বরো প্রেসিডেন্টের কমিউনিটি অ্যাফেয়ার্স ডিরেক্টর ড. মোহাম্মদ হ্যাকসহ নেপাল, ইন্দোনেশিয়া ও ভারতীয় কনস্যুলেটের প্রতিনিধিরা।
অনুষ্ঠানে অতিথিবৃন্দ তাদের বক্তব্যে নেপালীদের সাহায্যে বাংলাদেশ সরকার ও কনস্যুলেটের এগিয়ে আসা এবং নিউইয়র্ক কনস্যুলেটের এমন আয়োজনের প্রশংসা করেন। তারা বলেন, মানুষের বিপদে মানুষকেই এগিয়ে আসতে হবে। আর এই দায়িত্ব পালনই হচ্ছে মহত্বের কাজ। বক্তারা দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলো তথা বিশ্বের সকল দেশের মধ্যকার পারষ্পারিক সৌহার্দ্য-সম্প্রীতি ও সম্পর্ক আরো জোরদার করার উপর গুরুত্বারোপ করেন।
প্রকৃতিক দূর্যোগ উপেক্ষা করে কমিউনিটির নেতৃবৃন্দ এবং বিপুল সংখ্যক প্রবাসী বাংলাদেশী অনুষ্ঠানে অংশ নেন। অনুষ্ঠানে সাংস্কৃতিক পর্বে প্রবাসের শিল্পীরা নৃত্য ও সঙ্গীত পরিবেশন করেন।
অনুষ্ঠানে আগত অতিথিদের ফুলের তোরা দিয়ে শুভেচ্ছা জানান কনসাল জেনারেল শামীম আহসান ও তার স্ত্রী প্যান্ডোরা চৌধুরী। তাদের সহযোহিতা করেন কনস্যুলেট কর্মকর্তা শাহেদ আহমেদ ও চৌধুরী পারভীন সুলতানা।
অনুষ্ঠানে ভূমিকম্পে নিহত ও যুক্তরাষ্ট্রের ভাইস প্রেসিডেন্ট জোসেফ বাইডেনের পুত্রের পরলোকগমনে গভীর শোক ও সমবেদনা প্রকাশ করা হয়। উল্লেখ্য, নেপালের সাস্প্রতিক ভয়াবহ ভূমিকম্পে প্রায় ১০ হাজারের মতো মানুষের মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছে হাজার হাজার মানুষ। তাদের সাহায্যার্থেই এই চ্যারিটি শোর আয়োজন করা হয়।

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

About Author Information

নেপালীদের সাহায্যার্থে বাংলাদেশ কনস্যুলেটে চ্যারিটি বাজার ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন

প্রকাশের সময় : ০৬:১৯:১১ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৭ জুন ২০১৫

নিউইয়র্ক: নেপালের সাম্প্রতিক ভয়াবহ ভূমিকম্পে ক্ষতিগ্রস্থ নেপালীদের সাহায্যার্থে নিউইয়র্কস্থ বাংলাদেশ কনসুলেট ব্যতিক্রমী বৈশাখী চ্যারিটি বাজার ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ইউএস কংগ্রেসওমেন গ্রেস মেং এবং বিশেষ অতিথি ছিলেন ওয়াশিংটনে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত জিয়াউদ্দিন আহমদ ও জাতিসংঘের বাংলাদেশ মিশনে নিযুক্ত স্থায়ী প্রতিনিধি ড. একে আবদুল মোমেন।
নিউইয়র্কের লং আইল্যান্ড সিটিস্থ বাংলাদেশ কনস্যুরেট অফিস মিলনায়তনে গত ৩১ মে রোববার এই অনুষ্টানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানমালার মধ্যে ছিলো বাংলাদেশ সহ চীন, ইন্দোনেশিয়া, শ্রীলংকা ও নেপালের বুটিক, শাড়ী, হস্তশিল্প, ফটো ফ্রেম, পুতুল প্রভৃুত জিনিসের স্টল, আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। খবর ইউএনএ’র।
অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন কনসাল জেনারেল মোহাম্মদ শামীম আহসান। অতিথিবৃন্ধছাড়াও অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন কুইন্স বরো প্রেসিডেন্টের কমিউনিটি অ্যাফেয়ার্স ডিরেক্টর ড. মোহাম্মদ হ্যাকসহ নেপাল, ইন্দোনেশিয়া ও ভারতীয় কনস্যুলেটের প্রতিনিধিরা।
অনুষ্ঠানে অতিথিবৃন্দ তাদের বক্তব্যে নেপালীদের সাহায্যে বাংলাদেশ সরকার ও কনস্যুলেটের এগিয়ে আসা এবং নিউইয়র্ক কনস্যুলেটের এমন আয়োজনের প্রশংসা করেন। তারা বলেন, মানুষের বিপদে মানুষকেই এগিয়ে আসতে হবে। আর এই দায়িত্ব পালনই হচ্ছে মহত্বের কাজ। বক্তারা দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলো তথা বিশ্বের সকল দেশের মধ্যকার পারষ্পারিক সৌহার্দ্য-সম্প্রীতি ও সম্পর্ক আরো জোরদার করার উপর গুরুত্বারোপ করেন।
প্রকৃতিক দূর্যোগ উপেক্ষা করে কমিউনিটির নেতৃবৃন্দ এবং বিপুল সংখ্যক প্রবাসী বাংলাদেশী অনুষ্ঠানে অংশ নেন। অনুষ্ঠানে সাংস্কৃতিক পর্বে প্রবাসের শিল্পীরা নৃত্য ও সঙ্গীত পরিবেশন করেন।
অনুষ্ঠানে আগত অতিথিদের ফুলের তোরা দিয়ে শুভেচ্ছা জানান কনসাল জেনারেল শামীম আহসান ও তার স্ত্রী প্যান্ডোরা চৌধুরী। তাদের সহযোহিতা করেন কনস্যুলেট কর্মকর্তা শাহেদ আহমেদ ও চৌধুরী পারভীন সুলতানা।
অনুষ্ঠানে ভূমিকম্পে নিহত ও যুক্তরাষ্ট্রের ভাইস প্রেসিডেন্ট জোসেফ বাইডেনের পুত্রের পরলোকগমনে গভীর শোক ও সমবেদনা প্রকাশ করা হয়। উল্লেখ্য, নেপালের সাস্প্রতিক ভয়াবহ ভূমিকম্পে প্রায় ১০ হাজারের মতো মানুষের মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছে হাজার হাজার মানুষ। তাদের সাহায্যার্থেই এই চ্যারিটি শোর আয়োজন করা হয়।