নিউইয়র্ক ১১:৩২ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন :
মঙ্গলবারের পত্রিকা সাপ্তাহিক হককথা ও হককথা.কম এ আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন +1 (347) 848-3834

তিন সিটিতে জয়ের পথে আ’লীগ সমর্থিত প্রার্থীরা ॥ কারচুপির অভিযোগে বিএনপির নির্বাচন প্রত্যাখ্যান ॥ ভোট সুষ্ঠু হয়েছে: সিইসি ॥ যেকোন উপায়ে জয় আদৌ জয় নয়-বার্নিকাট ॥ অনিয়মের অভিযোগ তদন্তের আহ্বান গিবসনের

রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : ০১:১৮:৫৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ এপ্রিল ২০১৫
  • / ১০৬৬ বার পঠিত

ঢাকা: ঢাকা উত্তর দক্ষিণ ও চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচন শেষে মঙ্গলবার (২৮ এপ্রিল) রাতে প্রাপ্ত ফলাফলে বিপুল ভোটে এগিয়ে আ’লীগ সমর্থিত মেয়র প্রার্থীরা। জয়ের পথে চট্টগ্রামে আ জ ম নাসির উদ্দিন, ঢাকা উত্তরে আনিসুল হক ও দক্ষিনে সাঈদ খোকন। ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনে মোট কেন্দ্র ১০৯৩টি। প্রাপ্ত ফলাফল: ১৭০, আনিসুল হক- ৬৯,৫৬৯, তাবিথ আওয়াল- ৪৬,৯৮৬ ভোট পেয়েছেন। ঢাকা দক্ষিণে মোট ভোট কেন্দ্র ৮৮৯টি। প্রাপ্ত ফলাফল :১৯৬, সাঈদ খোকন- ১১২,৫৬৯, মির্জা আব্বাস- ৫৮,৩৮৯ ভোট পেয়েছেন। চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনে মোট ভোটকেন্দ্র ৭১৯টি। প্রাপ্ত ফলাফল: ৩৬০টি, আ জ ম নাসির উদ্দিন- ২,৪১,৬৫৩, মঞ্জুর আলম- ১৩৬,৫৪৯ ভোট পেয়েছেন। এদিকে নির্বাচনে ব্যাপক কারচুপি ও অনিয়মের অভিযোগ এনে বিএনপি তিন সিটি নির্বাচনই প্রত্যাখ্যান করেছে।
CEC Raqibuddinভোট সুষ্ঠু হয়েছে-সিইসি: সিটি করপোরেশন নির্বাচন সুষ্ঠু হয়েছে বলে দাবি করেছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী রকিবউদ্দিন আহমেদ। তিনি বলেছেন, নির্বাচনে সেনা মোতায়েনের মতো পরিস্থিতিও তৈরি হয়নি। বিচ্ছিন্ন কয়েকটি ঘটনা ছাড়া ব্যাপক ভোটার উপস্থিতি ছিল। গণমাধ্যমের খবরে দেখেছি উৎসাহ উদ্দিপনার মধ্যে ভোট সম্পন্ন হয়েছে। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় নির্বাচন কমিশনে আনুষ্ঠানিক সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, কতিপয় কেন্দ্রে অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেছিল। সেগুলো স্থগিত করে পরবর্তীতে আবার চালু করেছি। এসব কেন্দ্রের দায়িত্বরত কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। নির্বাচনে গোলযোগ হলেও কেন সেনাবাহিনী ডাকা হয়নি এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, সেনাবাহিনী ডাকার মতো পরিস্থিতি তৈরি হয়নি। বিএনপির ভোট বর্জনের বিষয়ে তিনি বলেন, নির্বাচন কমিশনে তারা কোন অভিযোগ করেনি। এ বিষয়টি তার জানা নেই।
barn_USA Embassadorযেকোন উপায়ে জয় আদৌ জয় নয়-বার্নিকাট: ঢাকায় নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত মার্শা বার্নিকাট বলেছেন, যেকোন উপায়ে জয় আদৌ কোন জয় নয়। বাংলাদেশের সিটি করপোরেশন নির্বাচনের প্রেক্ষাপটে মঙ্গলবার এক টুইট বার্তায় তিনি একথা বলেন। এদিকে, অল্পআগে ঢাকায় মার্কিন দূতাবাসের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, আজকে বিভিন্ন ভোট কেন্দ্রে ভোট জালিয়াতি, ভয়-ভীতি প্রদর্শন, এবং সহিংসতার যে সব ঘটনা ঘটেছে বলে প্রত্যক্ষদর্শীদের কাছ থেকে ব্যাপক ও বিশ্বাসযোগ্য প্রতিবেদন পাওয়া গেছে এবং বিএনপি সিটি করপোরেশন নির্বাচন বয়কটের যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে তাতে আমরা হতাশ। যে সমস্ত অনিয়মের ঘটনা ঘটেছে সেগুলোর স্বচ্ছ ও নিরপেক্ষ তদন্ত হওয়া জরুরী। আইনের আওতায় থেকে কাজ করার জন্য এবং যে কোনো ধরনের সহিংসতা এড়ানোর জন্য আমরা সকল পক্ষের প্রতি আহবান জানাই। রাজনৈতিক লক্ষ্য অর্জনের জন্য যে কোনো ধরনের সহিংসতার আশ্রয় গ্রহণের আমরা তীব্র নিন্দা জানাই।
Gibson_UK Embassedorভোট কেন্দ্র পরিদর্শনে রাষ্ট্রদূত: রাষ্ট্রদূত মার্শা বার্নিকাট সিটি নির্বাচন পরিস্থিতি নিয়ে হতাশা প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেন, সুষ্ঠু নির্বাচন করার বিষয়ে সরকারের প্রতিশ্রুতি ছিল। দুপুরে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন এর বনানী বিদ্যানিকেতন স্কুল এন্ড কলেজ কেন্দ্র পরিদর্শন শেষে উপস্থিত সাংবাদিকদের কাছে এ প্রতিক্রিয়া জানান তিনি। তিনি বলেন, বিভিন্ন ভোটকেন্দ্রে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থীদের পোলিং এজেন্ট না থাকার অভিযোগ নির্বাচন কমিশনের খতিয়ে দেখা উচিত। বার্নিকাট ওই কেন্দ্রে ৪০ মিনিট অবস্থান করে পুরুষ ও মহিলা কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ প্রত্যক্ষ করেন। এসময় ২৫ মিনিটে মাত্র ৪ জন ভোট প্রদান করেন। ওই সময়ে পুরুষ বুথে সরকারি দল সমর্থিত প্রার্থীদের এজেন্ট ছাড়া অন্য কোন এজেন্ট ছিল না।
অনিয়মের অভিযোগ তদন্তের আহ্বান গিবসনের: সিটি করপোরেশন নির্বাচনে অনিয়মের সকল অভিযোগ দ্রুত এবং নিরপেক্ষভাবে তদন্তের আহ্বান জানিয়েছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত বৃটিশ হাই কমিশনার রবার্ট ডব্লিউ গিবসন। এছাড়া নির্বাচন থেকে মাঝ পথে বিএনপির সরে দাঁড়ানোয় গভীর দুঃখ প্রকাশ করেছেন তিনি। তবে এতে ঢাকা এবং চট্টগ্রামে মঙ্গলবার রাতে এবং আগামী কয়েকদিন সংহিসতা বা বিঘœ সৃষ্টিকারী কোন ঘটনা ঘটবে না বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন এ কূটনীতিক। মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকার বৃটিশ হাই কমিশন থেকে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি আরও বলেন, সকল রাজনৈতিক দলের আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল থেকে আজকের ঘটনায় প্রতিক্রিয়া দেখানো উচিত। সকল ভোটারের গণতান্ত্রিক অধিবার হিসেবে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট প্রদান নিশ্চিত করতে সকল রাজনৈতিক দল, নির্বাচন কমিশন এবং আইনশৃংখলা বাহিনী সমূহের দায়িত্ব। যারা নির্বাচনে জিতবেন তাদের স্ব-স্ব শহরের অধিবাসীদের প্রয়োজন এবং ইচ্ছা অনুযায়ী তাদের সেবা প্রদানের দিকে লক্ষ্য রাখা উচিত।

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

About Author Information

তিন সিটিতে জয়ের পথে আ’লীগ সমর্থিত প্রার্থীরা ॥ কারচুপির অভিযোগে বিএনপির নির্বাচন প্রত্যাখ্যান ॥ ভোট সুষ্ঠু হয়েছে: সিইসি ॥ যেকোন উপায়ে জয় আদৌ জয় নয়-বার্নিকাট ॥ অনিয়মের অভিযোগ তদন্তের আহ্বান গিবসনের

প্রকাশের সময় : ০১:১৮:৫৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ এপ্রিল ২০১৫

ঢাকা: ঢাকা উত্তর দক্ষিণ ও চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচন শেষে মঙ্গলবার (২৮ এপ্রিল) রাতে প্রাপ্ত ফলাফলে বিপুল ভোটে এগিয়ে আ’লীগ সমর্থিত মেয়র প্রার্থীরা। জয়ের পথে চট্টগ্রামে আ জ ম নাসির উদ্দিন, ঢাকা উত্তরে আনিসুল হক ও দক্ষিনে সাঈদ খোকন। ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনে মোট কেন্দ্র ১০৯৩টি। প্রাপ্ত ফলাফল: ১৭০, আনিসুল হক- ৬৯,৫৬৯, তাবিথ আওয়াল- ৪৬,৯৮৬ ভোট পেয়েছেন। ঢাকা দক্ষিণে মোট ভোট কেন্দ্র ৮৮৯টি। প্রাপ্ত ফলাফল :১৯৬, সাঈদ খোকন- ১১২,৫৬৯, মির্জা আব্বাস- ৫৮,৩৮৯ ভোট পেয়েছেন। চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনে মোট ভোটকেন্দ্র ৭১৯টি। প্রাপ্ত ফলাফল: ৩৬০টি, আ জ ম নাসির উদ্দিন- ২,৪১,৬৫৩, মঞ্জুর আলম- ১৩৬,৫৪৯ ভোট পেয়েছেন। এদিকে নির্বাচনে ব্যাপক কারচুপি ও অনিয়মের অভিযোগ এনে বিএনপি তিন সিটি নির্বাচনই প্রত্যাখ্যান করেছে।
CEC Raqibuddinভোট সুষ্ঠু হয়েছে-সিইসি: সিটি করপোরেশন নির্বাচন সুষ্ঠু হয়েছে বলে দাবি করেছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী রকিবউদ্দিন আহমেদ। তিনি বলেছেন, নির্বাচনে সেনা মোতায়েনের মতো পরিস্থিতিও তৈরি হয়নি। বিচ্ছিন্ন কয়েকটি ঘটনা ছাড়া ব্যাপক ভোটার উপস্থিতি ছিল। গণমাধ্যমের খবরে দেখেছি উৎসাহ উদ্দিপনার মধ্যে ভোট সম্পন্ন হয়েছে। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় নির্বাচন কমিশনে আনুষ্ঠানিক সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, কতিপয় কেন্দ্রে অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেছিল। সেগুলো স্থগিত করে পরবর্তীতে আবার চালু করেছি। এসব কেন্দ্রের দায়িত্বরত কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। নির্বাচনে গোলযোগ হলেও কেন সেনাবাহিনী ডাকা হয়নি এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, সেনাবাহিনী ডাকার মতো পরিস্থিতি তৈরি হয়নি। বিএনপির ভোট বর্জনের বিষয়ে তিনি বলেন, নির্বাচন কমিশনে তারা কোন অভিযোগ করেনি। এ বিষয়টি তার জানা নেই।
barn_USA Embassadorযেকোন উপায়ে জয় আদৌ জয় নয়-বার্নিকাট: ঢাকায় নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত মার্শা বার্নিকাট বলেছেন, যেকোন উপায়ে জয় আদৌ কোন জয় নয়। বাংলাদেশের সিটি করপোরেশন নির্বাচনের প্রেক্ষাপটে মঙ্গলবার এক টুইট বার্তায় তিনি একথা বলেন। এদিকে, অল্পআগে ঢাকায় মার্কিন দূতাবাসের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, আজকে বিভিন্ন ভোট কেন্দ্রে ভোট জালিয়াতি, ভয়-ভীতি প্রদর্শন, এবং সহিংসতার যে সব ঘটনা ঘটেছে বলে প্রত্যক্ষদর্শীদের কাছ থেকে ব্যাপক ও বিশ্বাসযোগ্য প্রতিবেদন পাওয়া গেছে এবং বিএনপি সিটি করপোরেশন নির্বাচন বয়কটের যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে তাতে আমরা হতাশ। যে সমস্ত অনিয়মের ঘটনা ঘটেছে সেগুলোর স্বচ্ছ ও নিরপেক্ষ তদন্ত হওয়া জরুরী। আইনের আওতায় থেকে কাজ করার জন্য এবং যে কোনো ধরনের সহিংসতা এড়ানোর জন্য আমরা সকল পক্ষের প্রতি আহবান জানাই। রাজনৈতিক লক্ষ্য অর্জনের জন্য যে কোনো ধরনের সহিংসতার আশ্রয় গ্রহণের আমরা তীব্র নিন্দা জানাই।
Gibson_UK Embassedorভোট কেন্দ্র পরিদর্শনে রাষ্ট্রদূত: রাষ্ট্রদূত মার্শা বার্নিকাট সিটি নির্বাচন পরিস্থিতি নিয়ে হতাশা প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেন, সুষ্ঠু নির্বাচন করার বিষয়ে সরকারের প্রতিশ্রুতি ছিল। দুপুরে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন এর বনানী বিদ্যানিকেতন স্কুল এন্ড কলেজ কেন্দ্র পরিদর্শন শেষে উপস্থিত সাংবাদিকদের কাছে এ প্রতিক্রিয়া জানান তিনি। তিনি বলেন, বিভিন্ন ভোটকেন্দ্রে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থীদের পোলিং এজেন্ট না থাকার অভিযোগ নির্বাচন কমিশনের খতিয়ে দেখা উচিত। বার্নিকাট ওই কেন্দ্রে ৪০ মিনিট অবস্থান করে পুরুষ ও মহিলা কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ প্রত্যক্ষ করেন। এসময় ২৫ মিনিটে মাত্র ৪ জন ভোট প্রদান করেন। ওই সময়ে পুরুষ বুথে সরকারি দল সমর্থিত প্রার্থীদের এজেন্ট ছাড়া অন্য কোন এজেন্ট ছিল না।
অনিয়মের অভিযোগ তদন্তের আহ্বান গিবসনের: সিটি করপোরেশন নির্বাচনে অনিয়মের সকল অভিযোগ দ্রুত এবং নিরপেক্ষভাবে তদন্তের আহ্বান জানিয়েছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত বৃটিশ হাই কমিশনার রবার্ট ডব্লিউ গিবসন। এছাড়া নির্বাচন থেকে মাঝ পথে বিএনপির সরে দাঁড়ানোয় গভীর দুঃখ প্রকাশ করেছেন তিনি। তবে এতে ঢাকা এবং চট্টগ্রামে মঙ্গলবার রাতে এবং আগামী কয়েকদিন সংহিসতা বা বিঘœ সৃষ্টিকারী কোন ঘটনা ঘটবে না বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন এ কূটনীতিক। মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকার বৃটিশ হাই কমিশন থেকে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি আরও বলেন, সকল রাজনৈতিক দলের আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল থেকে আজকের ঘটনায় প্রতিক্রিয়া দেখানো উচিত। সকল ভোটারের গণতান্ত্রিক অধিবার হিসেবে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট প্রদান নিশ্চিত করতে সকল রাজনৈতিক দল, নির্বাচন কমিশন এবং আইনশৃংখলা বাহিনী সমূহের দায়িত্ব। যারা নির্বাচনে জিতবেন তাদের স্ব-স্ব শহরের অধিবাসীদের প্রয়োজন এবং ইচ্ছা অনুযায়ী তাদের সেবা প্রদানের দিকে লক্ষ্য রাখা উচিত।