নিউইয়র্ক ০৩:২৮ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন :
মঙ্গলবারের পত্রিকা সাপ্তাহিক হককথা ও হককথা.কম এ আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন +1 (347) 848-3834

‘টিএলসি’র বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা নেবো’

রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : ০৭:৩৫:২২ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ৩০ জুন ২০১৫
  • / ৮১৫ বার পঠিত

নিউইয়র্ক: সাপ্তাহিক বর্ণমালা সম্পাদক ও নিউইয়র্ক বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি মাহফুজুর রহমানের শারীরিক অবস্থার উন্নতি হয়েছে। তার বিপদ কেটে গেছে এবং তিনি অফিস করছেন। উল্লেখ্য, গত ২৫ জুন বৃহষ্পতিবার দিবাগত মধ্যরাতে জ্যাকসন হাইটসের ৭৩ ষ্ট্রীটে গাড়ী পার্কিং করাকে কেন্দ্র করে জনৈক বাংলাদেশী তরুণ ক্যাবীর আঘাতে সাংবাদিক মাহফুজুর রহমান আহত হন। তিনি বুকে ও পায়ে আঘাত পান। ঘটনার পর তাকে এলমহার্স্ট হাপাতালে ভর্তি করা হয়। হাসপাতালে প্রায় ৪৮ ঘন্টা চিকিৎসাধীন থাকার পর তিনি বিপদমুক্ত হওয়ায় ২৬ জুন তাকে হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেয়া হয়।
এদিকে নিউইয়র্ক বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের সভাপতি আবু তাহের ও সাধারণ সম্পাদক এবিএম সালাহউদ্দিন আহমেদ গত ২৮ জুন রোববার বিকেলে সাংবাদিক মাহফুজুর রহমানের সাথে জ্যাকসন হাইটস্থ তার অফিসে সাক্ষাৎ করে শারীরিক আবস্থার খোঁজ-খবর নেন। প্রেসক্লাব নেতৃদ্বয় এসময় তার উপর হামলার তীব্র নিন্দা জানান এবং ঘটনার সুষ্ঠু বিচার দাবী করেন। প্রেসক্লাবের সদস্য সৈয়দ ইলিয়াস খসরু এসময় উপস্থিত ছিলেন।
সাংবাদিক মাহফুজুর রহমান বলেন, ঘটনার সময় তিনি জ্যাকসন হাইটসের খাবার বাড়ী রেষ্টুরেন্টের সামনে গাড়ী পার্ক করার সময় তার বাঁ দিক থেকে আসা তরুণ বাংলাদেশী ইয়েলো ক্যাব চালক একই স্থানে তার গাড়ী পার্ক করতে চাইলে আকস্মিকভাবে ঐ ক্যাবী তাকে উদ্দেশ্য করে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন এবং এক পর্যায়ে তার (মাহফুজুর রহমান) উপর চড়াও হয়ে বুকে ঘুষি মারেন। এতে তিনি মাটিতে পড়ে যান এবং পরবর্তীতে ক্যাবী দ্রুত স্থান ত্যাগ করার সময় তার গাড়ী মাহফুজুর রহমানের পায়ে আঘাত করে।
মাহফুজুর রহমান বলেন, ঘটনার সময় বুকে আঘাত পেয়ে তিনি শ্বাস কষ্টে ভুগছিলেন। সাথে সাথে ৯১১ এ কল করলে পুলিশ তাকে এলমহার্স্ট হাপাতালে নিয়ে যায়। তিনি বলেন, বুকে আঘাত পাওয়ার কারণে তাকে প্রায় ৪৮ ঘন্টা পর্যবেক্ষণে রাখা হয়। তার পায়ে বড় ধরনের আঘাত না পেলেও আংগুল থেতলে য়ায়। তিনি এখন বিপদ মুক্ত জানিয়ে বলেন, তাকে আঘাতকারী তরুণ ক্যাবী মানসিকভাবে বিপর্যস্ত। তাদের মতো ড্রাইভারদের ক্যাব চালানোর সুযোগ দেয়া উচিৎ নয় মন্তব্য করে তিনি বলেন, এজন্য টিএলসি কর্তৃপক্ষ দায়ী। তাই তিনি টিএলসি’র বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা নেবেন। তিনি বলেন, আইন করে এমন ক্যাবীদের মানসিক অবস্থা চেকআপ করা বাধ্যতামূলক করা উচিৎ। তা নাহলে সিটিবাসীদের জীবনের নিরাপত্তা হুমকীর মধ্যে থাকবে।
অপরদিকে সাংবাদিক মাহফুজুর রহমানকে আঘাতকারী তরুণ ক্যাবীকে ঘটনার দিন রাতেই পুলিশ আটক করেছে। তার বিরুদ্ধে ‘হিট এন্ড রান’ অভিযোগ আনা হয়েছে। এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত তার সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

About Author Information

‘টিএলসি’র বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা নেবো’

প্রকাশের সময় : ০৭:৩৫:২২ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ৩০ জুন ২০১৫

নিউইয়র্ক: সাপ্তাহিক বর্ণমালা সম্পাদক ও নিউইয়র্ক বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি মাহফুজুর রহমানের শারীরিক অবস্থার উন্নতি হয়েছে। তার বিপদ কেটে গেছে এবং তিনি অফিস করছেন। উল্লেখ্য, গত ২৫ জুন বৃহষ্পতিবার দিবাগত মধ্যরাতে জ্যাকসন হাইটসের ৭৩ ষ্ট্রীটে গাড়ী পার্কিং করাকে কেন্দ্র করে জনৈক বাংলাদেশী তরুণ ক্যাবীর আঘাতে সাংবাদিক মাহফুজুর রহমান আহত হন। তিনি বুকে ও পায়ে আঘাত পান। ঘটনার পর তাকে এলমহার্স্ট হাপাতালে ভর্তি করা হয়। হাসপাতালে প্রায় ৪৮ ঘন্টা চিকিৎসাধীন থাকার পর তিনি বিপদমুক্ত হওয়ায় ২৬ জুন তাকে হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেয়া হয়।
এদিকে নিউইয়র্ক বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের সভাপতি আবু তাহের ও সাধারণ সম্পাদক এবিএম সালাহউদ্দিন আহমেদ গত ২৮ জুন রোববার বিকেলে সাংবাদিক মাহফুজুর রহমানের সাথে জ্যাকসন হাইটস্থ তার অফিসে সাক্ষাৎ করে শারীরিক আবস্থার খোঁজ-খবর নেন। প্রেসক্লাব নেতৃদ্বয় এসময় তার উপর হামলার তীব্র নিন্দা জানান এবং ঘটনার সুষ্ঠু বিচার দাবী করেন। প্রেসক্লাবের সদস্য সৈয়দ ইলিয়াস খসরু এসময় উপস্থিত ছিলেন।
সাংবাদিক মাহফুজুর রহমান বলেন, ঘটনার সময় তিনি জ্যাকসন হাইটসের খাবার বাড়ী রেষ্টুরেন্টের সামনে গাড়ী পার্ক করার সময় তার বাঁ দিক থেকে আসা তরুণ বাংলাদেশী ইয়েলো ক্যাব চালক একই স্থানে তার গাড়ী পার্ক করতে চাইলে আকস্মিকভাবে ঐ ক্যাবী তাকে উদ্দেশ্য করে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন এবং এক পর্যায়ে তার (মাহফুজুর রহমান) উপর চড়াও হয়ে বুকে ঘুষি মারেন। এতে তিনি মাটিতে পড়ে যান এবং পরবর্তীতে ক্যাবী দ্রুত স্থান ত্যাগ করার সময় তার গাড়ী মাহফুজুর রহমানের পায়ে আঘাত করে।
মাহফুজুর রহমান বলেন, ঘটনার সময় বুকে আঘাত পেয়ে তিনি শ্বাস কষ্টে ভুগছিলেন। সাথে সাথে ৯১১ এ কল করলে পুলিশ তাকে এলমহার্স্ট হাপাতালে নিয়ে যায়। তিনি বলেন, বুকে আঘাত পাওয়ার কারণে তাকে প্রায় ৪৮ ঘন্টা পর্যবেক্ষণে রাখা হয়। তার পায়ে বড় ধরনের আঘাত না পেলেও আংগুল থেতলে য়ায়। তিনি এখন বিপদ মুক্ত জানিয়ে বলেন, তাকে আঘাতকারী তরুণ ক্যাবী মানসিকভাবে বিপর্যস্ত। তাদের মতো ড্রাইভারদের ক্যাব চালানোর সুযোগ দেয়া উচিৎ নয় মন্তব্য করে তিনি বলেন, এজন্য টিএলসি কর্তৃপক্ষ দায়ী। তাই তিনি টিএলসি’র বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা নেবেন। তিনি বলেন, আইন করে এমন ক্যাবীদের মানসিক অবস্থা চেকআপ করা বাধ্যতামূলক করা উচিৎ। তা নাহলে সিটিবাসীদের জীবনের নিরাপত্তা হুমকীর মধ্যে থাকবে।
অপরদিকে সাংবাদিক মাহফুজুর রহমানকে আঘাতকারী তরুণ ক্যাবীকে ঘটনার দিন রাতেই পুলিশ আটক করেছে। তার বিরুদ্ধে ‘হিট এন্ড রান’ অভিযোগ আনা হয়েছে। এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত তার সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।