নিউইয়র্ক ১২:৪৯ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন :
মঙ্গলবারের পত্রিকা সাপ্তাহিক হককথা ও হককথা.কম এ আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন +1 (347) 848-3834

ড. এ. মোমেন জাতিসংঘের এশিয়া প্যাসিফিক গ্রুপের চেয়ারম্যান নির্বাচিত

রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : ১১:৩৭:০১ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ৩ জুলাই ২০১৫
  • / ৯৩৯ বার পঠিত

নিউইয়র্ক, ৩০ জুন: জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশ মিশনের স্থায়ী প্রতিনিধি ও রাষ্ট্রদূত ড. এ. কে আব্দুল মোমেন জাতিসংঘের এশিয়া-প্যাসিফিক গ্রুপের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। জাতিসংঘের এশিয়া-প্যাসিফিক গ্রুপের ৫৫টি রাষ্ট্রের মধ্যে নিরঙ্কুশ সমর্থনে তিনি এ পদে অধিষ্ঠিত হলেন। উল্লেখ্য, পূর্বেও তিনি এশিয়া-প্যাসিফিক গ্রুপের চেয়ারম্যানের দায়িত্ব সুচারুভাবে পালন করেছিলেন।
Dr. Momenজাতিসংঘের কাজের সুবিধার্থে ১৯৩টি সদস্য রাষ্ট্রগুলোকে ৫টি গ্রুপে ভাগ করা হয়েছে। গ্রুপগুলো হলো আফ্রিকান, এশিয়া-প্যাসিফিক, ল্যাটিন আমেরিকান, ইস্টার্ন ও ওয়েস্টার্ন ইউরোপ। ওয়েস্টার্ন ইউরোপ গ্রুপের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, নিউজিল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া, ব্রিটেন ইত্যাদি দেশ অন্তর্ভূক্ত রয়েছে। এশিয়া-প্যাসিফিক গ্রুফের রাষ্ট্র সংখ্যা সবচেয়ে বেশি এবং এ গ্রুপের রাষ্ট্রগুলোর জনসংখ্যা, আয়োতন ও নীতি নির্ধারনে বৈষম্যও বেশি। এর ফলে এ গ্রুপের ব্যবস্থাপনাও যথেষ্ট সতর্কতার সাথে করতে হয়।

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

About Author Information

ড. এ. মোমেন জাতিসংঘের এশিয়া প্যাসিফিক গ্রুপের চেয়ারম্যান নির্বাচিত

প্রকাশের সময় : ১১:৩৭:০১ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ৩ জুলাই ২০১৫

নিউইয়র্ক, ৩০ জুন: জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশ মিশনের স্থায়ী প্রতিনিধি ও রাষ্ট্রদূত ড. এ. কে আব্দুল মোমেন জাতিসংঘের এশিয়া-প্যাসিফিক গ্রুপের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। জাতিসংঘের এশিয়া-প্যাসিফিক গ্রুপের ৫৫টি রাষ্ট্রের মধ্যে নিরঙ্কুশ সমর্থনে তিনি এ পদে অধিষ্ঠিত হলেন। উল্লেখ্য, পূর্বেও তিনি এশিয়া-প্যাসিফিক গ্রুপের চেয়ারম্যানের দায়িত্ব সুচারুভাবে পালন করেছিলেন।
Dr. Momenজাতিসংঘের কাজের সুবিধার্থে ১৯৩টি সদস্য রাষ্ট্রগুলোকে ৫টি গ্রুপে ভাগ করা হয়েছে। গ্রুপগুলো হলো আফ্রিকান, এশিয়া-প্যাসিফিক, ল্যাটিন আমেরিকান, ইস্টার্ন ও ওয়েস্টার্ন ইউরোপ। ওয়েস্টার্ন ইউরোপ গ্রুপের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, নিউজিল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া, ব্রিটেন ইত্যাদি দেশ অন্তর্ভূক্ত রয়েছে। এশিয়া-প্যাসিফিক গ্রুফের রাষ্ট্র সংখ্যা সবচেয়ে বেশি এবং এ গ্রুপের রাষ্ট্রগুলোর জনসংখ্যা, আয়োতন ও নীতি নির্ধারনে বৈষম্যও বেশি। এর ফলে এ গ্রুপের ব্যবস্থাপনাও যথেষ্ট সতর্কতার সাথে করতে হয়।