নিউইয়র্ক ১১:৪৭ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন :
মঙ্গলবারের পত্রিকা সাপ্তাহিক হককথা ও হককথা.কম এ আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন +1 (347) 848-3834

বাংলাদেশকে হারানো হয়েছে: প্রধানমন্ত্রী

রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : ০১:৩৬:২৭ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২০ মার্চ ২০১৫
  • / ৯৩৫ বার পঠিত

মেলবোর্ন (অষ্ট্রেলিয়া): আম্পায়াররা ভুল সিদ্ধান্ত না দিলে বাংলাদেশ ভারতকে হারাতে পারতো বলে মনে করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বাংলাদেশকে যেভাবে হারানো হয়েছে তা সবাই দেখেছে বলে ক্রিকেট দলের সদস্যদের সান্তনা দিয়েছেন তিনি। শুক্রবার (২০ মার্চ) মেলবোর্নে প্রবাসী বাংলাদেশীরা মাশরাফি বিন মুর্তজাদের সংবর্ধনা দেয়। অনুষ্ঠান চলাকালেই বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসানের মোবাইলে ফোন করে দলকে অভিনন্দন জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
প্রধানমন্ত্রীর অনুমতি নিয়ে লাউড স্পিকার দিয়ে ফোনটি মাইক্রোফোনের সামনে রাখেন নাজমুল। মাশরাফিদের ভালো খেলা উপহার দেওয়ার প্রশংসা করে প্রধানমন্ত্রী ফোনে বলেন, ‘আম্পায়ার যদি ডিস্টার্ব না করত, হয়ত আমরা জিতেই যেতে পারতাম। ইনশাআল্লাহ ভবিষ্যতে বাংলাদেশ জিতবে। বাংলাদেশ একদিন ওয়ার্ল্ড কাপ চ্যাম্পিয়ন হবে’। খেলোয়াড়রা বিশ্বকাপে অসাধারণ খেলেছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “আশা করি, আমাদের খেলোয়াড়রা তাদের এই পারফরম্যান্স ধরে রাখবে।”
বাংলাদেশের খেলোয়াড়দের মন খারাপ না করার পরামর্শ দেন প্রধানমন্ত্রী বলেন, “আমাদের ক্রিকেট দলের সদস্যদের বলি, মন খারাপ করার কিছু নেই। আমাদেরকে যেভাবে হারানো হলো, তা সবাই দেখেছে। ভবিষ্যতে আমরা অবশ্যই জিতব।”
গত শুক্রবার অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডে বিশ্বকাপের কোয়ার্টার-ফাইনালে ভারতের কাছে ১০৯ রানে হারে বাংলাদেশ। টস জিতে ব্যাট করতে নামা ভারতের ইনিংসের ৪০তম ওভারে ‘বিতর্কিত’ সিদ্ধান্তটি দেন আম্পায়ার আলিম দার ও ইয়ান গৌল্ড।
ওভারের চতুর্থ বলটি ফুলটস দিয়েছিলেন রুবেল হোসেন। বলটিতে বাউন্ডারি মারতে গিয়ে ডিপ মিড উইকেটে ইমরুল কায়েসকে ক্যাচ দেন ভারতের রোহিত শর্মা। তবে পাকিস্তানের আম্পায়ার দার বোলিং প্রান্তে থাকা ইংল্যান্ডের আম্পায়ার গৌল্ডকে বলটি কোমরের ওপরে ছিল বলে সংকেত দেন। গৌল্ড তখন ‘নো’ ডাকলে বিস্ময়ে হতবাক হয়ে যান বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা।
আম্পায়ারদের এই সিদ্ধান্ত নিয়ে পরে ক্রিকেট পন্ডিতদের অনেকেই সমালোচনা করেন। ক্ষোভে ফেটে পড়ে বাংলাদেশের ক্রিকেট সমর্থকরা। আইসিসি সভাপতি মোস্তফা কামালও বাংলাদেশের হারের জন্য আম্পায়ারদের পক্ষপাতমূলক আচরণকেই দায়ী করেন।
মেলবোর্ন শহরতলীর এক মিলনায়তনে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে কয়েকশ’ প্রবাসী ছিলেন। প্রবাসীদের পক্ষে বক্তব্য রাখেন ফেরদৌস আরা পারভিন ও নিরুপমা। কয়েকজিন শিশুও সেখানে বাংলাদেশ দলকে অভিনন্দন জানিয়ে বক্তব্য দেয়।
বাংলাদেশ দলের পক্ষে বক্তব্য রাখেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান ও অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা।
বিসিবি সভাপতি বলেন, ‘আইসিসি’র কর্মকর্তারা তাকে বলেছেন, এবারের বিশ্বকাপে বাংলাদেশ দলকে দেখে তারা চমকে উঠেছেন।’
মাশরাফি অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী বাংলাদেশীদের কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন, ‘এই দেশে বারবার পায়ের অপারেশন করাতে আসতাম, খুঁড়িয়ে হাঁটতাম। এবার মাথা উঁচু করে খেলে গেলাম।’ এই সফরে প্রবাসীরা দলকে যে সমর্থন দিয়েছেন তা কখনো ভুলবেন না বলে জানান মাশরাফি। অনুষ্ঠানে প্রিয় খেলোয়াড়দের সঙ্গে ছবি তোলেন প্রবাসীরা। বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

About Author Information

বাংলাদেশকে হারানো হয়েছে: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশের সময় : ০১:৩৬:২৭ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২০ মার্চ ২০১৫

মেলবোর্ন (অষ্ট্রেলিয়া): আম্পায়াররা ভুল সিদ্ধান্ত না দিলে বাংলাদেশ ভারতকে হারাতে পারতো বলে মনে করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বাংলাদেশকে যেভাবে হারানো হয়েছে তা সবাই দেখেছে বলে ক্রিকেট দলের সদস্যদের সান্তনা দিয়েছেন তিনি। শুক্রবার (২০ মার্চ) মেলবোর্নে প্রবাসী বাংলাদেশীরা মাশরাফি বিন মুর্তজাদের সংবর্ধনা দেয়। অনুষ্ঠান চলাকালেই বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসানের মোবাইলে ফোন করে দলকে অভিনন্দন জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
প্রধানমন্ত্রীর অনুমতি নিয়ে লাউড স্পিকার দিয়ে ফোনটি মাইক্রোফোনের সামনে রাখেন নাজমুল। মাশরাফিদের ভালো খেলা উপহার দেওয়ার প্রশংসা করে প্রধানমন্ত্রী ফোনে বলেন, ‘আম্পায়ার যদি ডিস্টার্ব না করত, হয়ত আমরা জিতেই যেতে পারতাম। ইনশাআল্লাহ ভবিষ্যতে বাংলাদেশ জিতবে। বাংলাদেশ একদিন ওয়ার্ল্ড কাপ চ্যাম্পিয়ন হবে’। খেলোয়াড়রা বিশ্বকাপে অসাধারণ খেলেছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “আশা করি, আমাদের খেলোয়াড়রা তাদের এই পারফরম্যান্স ধরে রাখবে।”
বাংলাদেশের খেলোয়াড়দের মন খারাপ না করার পরামর্শ দেন প্রধানমন্ত্রী বলেন, “আমাদের ক্রিকেট দলের সদস্যদের বলি, মন খারাপ করার কিছু নেই। আমাদেরকে যেভাবে হারানো হলো, তা সবাই দেখেছে। ভবিষ্যতে আমরা অবশ্যই জিতব।”
গত শুক্রবার অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডে বিশ্বকাপের কোয়ার্টার-ফাইনালে ভারতের কাছে ১০৯ রানে হারে বাংলাদেশ। টস জিতে ব্যাট করতে নামা ভারতের ইনিংসের ৪০তম ওভারে ‘বিতর্কিত’ সিদ্ধান্তটি দেন আম্পায়ার আলিম দার ও ইয়ান গৌল্ড।
ওভারের চতুর্থ বলটি ফুলটস দিয়েছিলেন রুবেল হোসেন। বলটিতে বাউন্ডারি মারতে গিয়ে ডিপ মিড উইকেটে ইমরুল কায়েসকে ক্যাচ দেন ভারতের রোহিত শর্মা। তবে পাকিস্তানের আম্পায়ার দার বোলিং প্রান্তে থাকা ইংল্যান্ডের আম্পায়ার গৌল্ডকে বলটি কোমরের ওপরে ছিল বলে সংকেত দেন। গৌল্ড তখন ‘নো’ ডাকলে বিস্ময়ে হতবাক হয়ে যান বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা।
আম্পায়ারদের এই সিদ্ধান্ত নিয়ে পরে ক্রিকেট পন্ডিতদের অনেকেই সমালোচনা করেন। ক্ষোভে ফেটে পড়ে বাংলাদেশের ক্রিকেট সমর্থকরা। আইসিসি সভাপতি মোস্তফা কামালও বাংলাদেশের হারের জন্য আম্পায়ারদের পক্ষপাতমূলক আচরণকেই দায়ী করেন।
মেলবোর্ন শহরতলীর এক মিলনায়তনে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে কয়েকশ’ প্রবাসী ছিলেন। প্রবাসীদের পক্ষে বক্তব্য রাখেন ফেরদৌস আরা পারভিন ও নিরুপমা। কয়েকজিন শিশুও সেখানে বাংলাদেশ দলকে অভিনন্দন জানিয়ে বক্তব্য দেয়।
বাংলাদেশ দলের পক্ষে বক্তব্য রাখেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান ও অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা।
বিসিবি সভাপতি বলেন, ‘আইসিসি’র কর্মকর্তারা তাকে বলেছেন, এবারের বিশ্বকাপে বাংলাদেশ দলকে দেখে তারা চমকে উঠেছেন।’
মাশরাফি অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী বাংলাদেশীদের কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন, ‘এই দেশে বারবার পায়ের অপারেশন করাতে আসতাম, খুঁড়িয়ে হাঁটতাম। এবার মাথা উঁচু করে খেলে গেলাম।’ এই সফরে প্রবাসীরা দলকে যে সমর্থন দিয়েছেন তা কখনো ভুলবেন না বলে জানান মাশরাফি। অনুষ্ঠানে প্রিয় খেলোয়াড়দের সঙ্গে ছবি তোলেন প্রবাসীরা। বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)