নিউইয়র্ক ১১:০৯ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন :
মঙ্গলবারের পত্রিকা সাপ্তাহিক হককথা ও হককথা.কম এ আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন +1 (347) 848-3834

সাদিকের জন্য ট্রাম্পের ছাড়

রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : ১১:০২:২২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১০ মে ২০১৬
  • / ৮১৫ বার পঠিত

ঢাকা: প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রিপাবলিকান দলের মনোনয়নপ্রত্যাশী ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্রে মুসলিমদের প্রবেশের ক্ষেত্রে তিনি যে নিষেধাজ্ঞার কথা বলেছেন, এর মধ্যে লন্ডনের নবনির্বাচিত মেয়র সাদিক খান পড়বেন না। এ ক্ষেত্রে তাঁর বিষয়টি ব্যতিক্রম বলে বিবেচিত হবে। মঙ্গলবার বিবিসি অনলাইনের প্রতিবেদনে জানানো হয়, সম্প্রতি সাদিক খানের একটি বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে ট্রাম্পের কাছ থেকে ওই প্রতিক্রিয়া এল।
উদ্বেগ প্রকাশ করে সাদিক খান বলেছিলেন, ট্রাম্প প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হলে তিনি (সাদিক) যুক্তরাষ্ট্রে যেতে পারবেন না।
গত বছর ফ্রান্সের প্যারিসে সন্ত্রাসী হামলায় শতাধিক ব্যক্তি নিহত হওয়ার পর ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রে মুসলিমদের প্রবেশের ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞার প্রস্তাব দেন।
মার্কিন রিপাবলিকান দলের আলোচিত-সমালোচিত মনোনয়নপ্রত্যাশীর ওই প্রস্তাবের ব্যাপারে সাদিকের মন্তব্যের পর ট্রাম্প বলেন, সব সময়ই ব্যতিক্রম থাকে।
ট্রাম্প বলেন, লন্ডনের নেতৃত্ব দেবেন সাদিক—এতে তিনি খুশি। ট্রাম্পের ওই মুসলিমবিদ্বেষী বক্তব্য যুক্তরাষ্ট্র ও দেশটির বাইরে ব্যাপকভাবে সমালোচিত হয়। তা সত্ত্বেও বক্তব্যে অনড় থেকে ট্রাম্প বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সাময়িকভাবে ওই নিষেধাজ্ঞার দরকার আছে।
গত সপ্তাহে যুক্তরাজ্যের ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ পার্টির প্রার্থী জ্যাক গোল্ডস্মিথকে হারিয়ে লন্ডনের মেয়র নির্বাচিত হন সাদিক। দেশটির বিরোধী দল লেবার পার্টির প্রার্থী সাদিক পাকিস্তানি বংশোদ্ভূত এবং মুসলিম।
ইসলামের নামে সন্ত্রাসবাদ নিয়ে যখন বিশ্বজুড়ে হইচই চলছে, ইউরোপের দেশগুলোতে মুসলিমদের নিয়ে বিতর্ক যখন তুঙ্গে, এ পরিস্থিতির মধ্যেই লন্ডনের প্রথম মুসলিম মেয়র নির্বাচিত হন সাদিক। ইউরোপের মহানগরগুলোতে সাদিকই প্রথম মুসলিম মেয়র। সাদিকের বিজয়কে যুক্তরাজ্যের রাজনৈতিক ইতিহাসের নতুন মোড় হিসেবে দেখা হচ্ছে।

Tag :

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

About Author Information

সাদিকের জন্য ট্রাম্পের ছাড়

প্রকাশের সময় : ১১:০২:২২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১০ মে ২০১৬

ঢাকা: প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রিপাবলিকান দলের মনোনয়নপ্রত্যাশী ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্রে মুসলিমদের প্রবেশের ক্ষেত্রে তিনি যে নিষেধাজ্ঞার কথা বলেছেন, এর মধ্যে লন্ডনের নবনির্বাচিত মেয়র সাদিক খান পড়বেন না। এ ক্ষেত্রে তাঁর বিষয়টি ব্যতিক্রম বলে বিবেচিত হবে। মঙ্গলবার বিবিসি অনলাইনের প্রতিবেদনে জানানো হয়, সম্প্রতি সাদিক খানের একটি বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে ট্রাম্পের কাছ থেকে ওই প্রতিক্রিয়া এল।
উদ্বেগ প্রকাশ করে সাদিক খান বলেছিলেন, ট্রাম্প প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হলে তিনি (সাদিক) যুক্তরাষ্ট্রে যেতে পারবেন না।
গত বছর ফ্রান্সের প্যারিসে সন্ত্রাসী হামলায় শতাধিক ব্যক্তি নিহত হওয়ার পর ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রে মুসলিমদের প্রবেশের ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞার প্রস্তাব দেন।
মার্কিন রিপাবলিকান দলের আলোচিত-সমালোচিত মনোনয়নপ্রত্যাশীর ওই প্রস্তাবের ব্যাপারে সাদিকের মন্তব্যের পর ট্রাম্প বলেন, সব সময়ই ব্যতিক্রম থাকে।
ট্রাম্প বলেন, লন্ডনের নেতৃত্ব দেবেন সাদিক—এতে তিনি খুশি। ট্রাম্পের ওই মুসলিমবিদ্বেষী বক্তব্য যুক্তরাষ্ট্র ও দেশটির বাইরে ব্যাপকভাবে সমালোচিত হয়। তা সত্ত্বেও বক্তব্যে অনড় থেকে ট্রাম্প বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সাময়িকভাবে ওই নিষেধাজ্ঞার দরকার আছে।
গত সপ্তাহে যুক্তরাজ্যের ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ পার্টির প্রার্থী জ্যাক গোল্ডস্মিথকে হারিয়ে লন্ডনের মেয়র নির্বাচিত হন সাদিক। দেশটির বিরোধী দল লেবার পার্টির প্রার্থী সাদিক পাকিস্তানি বংশোদ্ভূত এবং মুসলিম।
ইসলামের নামে সন্ত্রাসবাদ নিয়ে যখন বিশ্বজুড়ে হইচই চলছে, ইউরোপের দেশগুলোতে মুসলিমদের নিয়ে বিতর্ক যখন তুঙ্গে, এ পরিস্থিতির মধ্যেই লন্ডনের প্রথম মুসলিম মেয়র নির্বাচিত হন সাদিক। ইউরোপের মহানগরগুলোতে সাদিকই প্রথম মুসলিম মেয়র। সাদিকের বিজয়কে যুক্তরাজ্যের রাজনৈতিক ইতিহাসের নতুন মোড় হিসেবে দেখা হচ্ছে।