নিউইয়র্ক ০২:৪৫ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন :
মঙ্গলবারের পত্রিকা সাপ্তাহিক হককথা ও হককথা.কম এ আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন +1 (347) 848-3834

ডেমোক্র্যাট পার্টির কনভেনশনে প্রেসিডেন্ট পদে চুড়ান্ত মনোনয়ন : যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে প্রথম নারী প্রার্থী হিসেবে ইতিহাস গড়লেন হিলারী

রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : ১১:২২:৫৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৭ জুলাই ২০১৬
  • / ৯৮৬ বার পঠিত

ফিলাডেলফিয়া: যুক্তরাষ্ট্রে নতুন এক ইতিহাস রচনা করলেন হিলারী ক্লিনটন। ডেমোক্র্যাটদের জাতীয় সম্মেলনে আনুষ্ঠানিকভাবে তাকে আগামী প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে। এর মধ্য দিয়ে তিনি যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে প্রথম নারী প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হলেন। আর যদি তিনি আগামী ৮ই নভেম্বরের নির্বাচনে প্রেসিডেন্ট হতে পারেন তাহলে তা হবে আরো বড় ইতিহাস। এর আগে তিনি মনোনয়নের প্রাথমিক লড়াইয়ে শক্ত প্রতিদ্বন্দ্বি ভারমন্টের সিনেটর বার্নি স্যান্ডার্সকে পরাজিত করেন ব্যাপক ব্যবধানে। তারপর দলের চূড়ান্ত মনোনয়ন পেলেন। আর সেই মনোনয়নের পর তার স্বামী, সাবেক প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিনটন হিলারী ক্লিনটনকে ‘চেঞ্জ মেকার’ হিসেবে আখ্যায়িত করলেন। দীর্ঘ সময় তিনি বক্তব্য রাখেন হিলারীকে সমর্থন করে। এ সময় তিনি হিলারীর সঙ্গে পরিচয়, বিয়ে, সংসার জীবন, রাজনৈতিক জীবন সব তুলে ধরেন সম্মেলনে উপস্থিত নেতা, সমর্থকদের উদ্দেশে। আর মুহুর্মুহু করতালিতে যেন ফেটে পড়তে থাকে হলঘর।
হিলারিকে সমর্থন করে এদিন বক্তব্য রাখেন যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেডেলিন অলব্রাইট। তিনি তাকে প্রেসিডেন্ট হিসেবে দেখতে চান। হিলারী সবচেয়ে যোগ্য প্রেসিডেন্ট প্রার্থী বলে তার যুক্তি তুলে ধরেন। বক্তব্য রাখেন অভিনেত্রী মেরিল স্ট্রিপ, ডেমোক্র্যাট ন্যাশনাল কমিটির সাবেক চেয়ারম্যান হাওয়ার্ড ডিন সহ বিভিন্ন পর্যায়ের রাজনীতিক ও সেলিব্রেটি।
DNC_2016স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৬টা ৩৯ মিনিটে যখন সাউথ ডাকোটা থেকে হিলারী ক্লিনটনের পক্ষে ১৫টি ভোট আসার খবর প্রকাশ করা হয় তখন উল্লাসে ফেটে পড়ে হলঘর। আনন্দে, আবেগে অনেক নেতা, সমর্থক এ সময় কেঁদে ফেলেন। ডেলিগেটরা বহুরঙা ‘এইচ’ লেখা প্রচারণামূলক লগো দোলাতে থাকেন। অন্যরা একে অন্যকে জড়িয়ে ধরে আনন্দ প্রকাশ করতে থাকেন। বেশকিছু নারী যেন কিংকর্তব্যবিমূঢ় হয়ে পড়েন। তারা দিশাহারা মানুষের মতো লাফাতে থাকেন।
আরকানসাসের ডেমোক্র্যাটিক পার্টির চেয়ারম্যান ভিন্স ইনসালাকো বলেছেন, প্রথম বারের মতো একজন নারীকে প্রেসিডেন্ট পদে মনোনয়ন দেয়া এটা নিশ্চিত এক ঐতিহাসিক মুহূর্ত। এ জন্য একজন ডেমোক্র্যাট হিসেবে আমি গর্বিত। আরো গর্বিত এ জন্য যে, এই নারীকে আমরা আমাদের নিজেদের দলের ভেতর থেকে মনোনয়ন দিতে পেরেছি। এর আগে ২৫ জুলাই সোমবার মনোনয়ন বঞ্চিত ভারমন্টের সিনেটর বার্নি সেন্ডার্স নানা ঘটনার পরও হিলারীকে অকুণ্ঠ সমর্থন দেন। তিনি দলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে হিলারীর পক্ষে কাজ করার অনুপ্রেরণা দেন।
২৬ জুলাই মঙ্গলবার রাতের সম্মেলনে স্থানীয় সময় রাত ১০টার পর পরই মঞ্চে আসেন বিল ক্লিনটন। এ সময় পুরো হল করতালিতে ফেটে পড়ে। তিনি সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারী ক্লিনটনের জন্য গোপনে রক্ষিত কিছু কথা সবার সামনে শেয়ার করেন। হিলারীর সঙ্গে তার বিবাহিত জীবন কেটে গেছে ৪৫ বছর। এ সময়ে তাদের রাজনৈতিক শত্রুরা অনেক কিছু করার চেষ্টা করেছে। বিল ক্লিনটন বলেন, তার স্ত্রীকে নিয়ে তারা ‘কার্টুন’ বানিয়েছে। এর মাধ্যমে তাকে অবমাননা করার চেষ্টা করা হয়েছে। তিনি হিলারী ক্লিনটনের কিছু পুরনো বন্ধু, যারা বিপদের সময় তার পাশে এসে দাঁড়িয়েছিলেন, তাদের প্রশংসা করেন। এক্ষেত্রে হিলারী ক্লিনটনকে একজন সিনেটর হিসেবে সমর্থন দিয়েছিলেন কিছু রিপাবলিকানও। বিল ক্লিনটন বলেন, আপনারা একজন খাঁটি মানুষকে মনোনীত করেছেন। তার এ ঘোষণার পর পরই হলঘর শ্লোগান, প্রশংসায় ভরে যায়। বিল ক্লিনটনের কথা হারিয়ে যায় সেই শব্দের মাঝে। তিনি দীর্ঘক্ষণ চুপ করে দাঁড়িয়ে থাকেন। এক পর্যায়ে দু’হাত উঁচু করে সবাইকে শান্ত হওয়ার আহ্বান জানান। তিনি বক্তব্য রাখেন ৩৮ মিনিট। এ সময়ে তিনি বলেন, হিলারী আপনাদেরকে কখনো ছেড়ে যাবে না। আমাকেও ছেড়ে যাবে না। এর মধ্য দিয়ে তিনি তাদের বৈবাহিক সম্পর্কের দৃঢ়তা তুলে ধরেন। বিল ক্লিনটনের আগে বক্তব্য রাখেন অভিনেত্রী মেরিল স্ট্রিপ। তার আগে সংগীত পরিবেশন করেন সংগীত শিল্পী অ্যালিসিয়া কিস। (মানবজমিন)

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

About Author Information

ডেমোক্র্যাট পার্টির কনভেনশনে প্রেসিডেন্ট পদে চুড়ান্ত মনোনয়ন : যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে প্রথম নারী প্রার্থী হিসেবে ইতিহাস গড়লেন হিলারী

প্রকাশের সময় : ১১:২২:৫৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৭ জুলাই ২০১৬

ফিলাডেলফিয়া: যুক্তরাষ্ট্রে নতুন এক ইতিহাস রচনা করলেন হিলারী ক্লিনটন। ডেমোক্র্যাটদের জাতীয় সম্মেলনে আনুষ্ঠানিকভাবে তাকে আগামী প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে। এর মধ্য দিয়ে তিনি যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে প্রথম নারী প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হলেন। আর যদি তিনি আগামী ৮ই নভেম্বরের নির্বাচনে প্রেসিডেন্ট হতে পারেন তাহলে তা হবে আরো বড় ইতিহাস। এর আগে তিনি মনোনয়নের প্রাথমিক লড়াইয়ে শক্ত প্রতিদ্বন্দ্বি ভারমন্টের সিনেটর বার্নি স্যান্ডার্সকে পরাজিত করেন ব্যাপক ব্যবধানে। তারপর দলের চূড়ান্ত মনোনয়ন পেলেন। আর সেই মনোনয়নের পর তার স্বামী, সাবেক প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিনটন হিলারী ক্লিনটনকে ‘চেঞ্জ মেকার’ হিসেবে আখ্যায়িত করলেন। দীর্ঘ সময় তিনি বক্তব্য রাখেন হিলারীকে সমর্থন করে। এ সময় তিনি হিলারীর সঙ্গে পরিচয়, বিয়ে, সংসার জীবন, রাজনৈতিক জীবন সব তুলে ধরেন সম্মেলনে উপস্থিত নেতা, সমর্থকদের উদ্দেশে। আর মুহুর্মুহু করতালিতে যেন ফেটে পড়তে থাকে হলঘর।
হিলারিকে সমর্থন করে এদিন বক্তব্য রাখেন যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেডেলিন অলব্রাইট। তিনি তাকে প্রেসিডেন্ট হিসেবে দেখতে চান। হিলারী সবচেয়ে যোগ্য প্রেসিডেন্ট প্রার্থী বলে তার যুক্তি তুলে ধরেন। বক্তব্য রাখেন অভিনেত্রী মেরিল স্ট্রিপ, ডেমোক্র্যাট ন্যাশনাল কমিটির সাবেক চেয়ারম্যান হাওয়ার্ড ডিন সহ বিভিন্ন পর্যায়ের রাজনীতিক ও সেলিব্রেটি।
DNC_2016স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৬টা ৩৯ মিনিটে যখন সাউথ ডাকোটা থেকে হিলারী ক্লিনটনের পক্ষে ১৫টি ভোট আসার খবর প্রকাশ করা হয় তখন উল্লাসে ফেটে পড়ে হলঘর। আনন্দে, আবেগে অনেক নেতা, সমর্থক এ সময় কেঁদে ফেলেন। ডেলিগেটরা বহুরঙা ‘এইচ’ লেখা প্রচারণামূলক লগো দোলাতে থাকেন। অন্যরা একে অন্যকে জড়িয়ে ধরে আনন্দ প্রকাশ করতে থাকেন। বেশকিছু নারী যেন কিংকর্তব্যবিমূঢ় হয়ে পড়েন। তারা দিশাহারা মানুষের মতো লাফাতে থাকেন।
আরকানসাসের ডেমোক্র্যাটিক পার্টির চেয়ারম্যান ভিন্স ইনসালাকো বলেছেন, প্রথম বারের মতো একজন নারীকে প্রেসিডেন্ট পদে মনোনয়ন দেয়া এটা নিশ্চিত এক ঐতিহাসিক মুহূর্ত। এ জন্য একজন ডেমোক্র্যাট হিসেবে আমি গর্বিত। আরো গর্বিত এ জন্য যে, এই নারীকে আমরা আমাদের নিজেদের দলের ভেতর থেকে মনোনয়ন দিতে পেরেছি। এর আগে ২৫ জুলাই সোমবার মনোনয়ন বঞ্চিত ভারমন্টের সিনেটর বার্নি সেন্ডার্স নানা ঘটনার পরও হিলারীকে অকুণ্ঠ সমর্থন দেন। তিনি দলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে হিলারীর পক্ষে কাজ করার অনুপ্রেরণা দেন।
২৬ জুলাই মঙ্গলবার রাতের সম্মেলনে স্থানীয় সময় রাত ১০টার পর পরই মঞ্চে আসেন বিল ক্লিনটন। এ সময় পুরো হল করতালিতে ফেটে পড়ে। তিনি সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারী ক্লিনটনের জন্য গোপনে রক্ষিত কিছু কথা সবার সামনে শেয়ার করেন। হিলারীর সঙ্গে তার বিবাহিত জীবন কেটে গেছে ৪৫ বছর। এ সময়ে তাদের রাজনৈতিক শত্রুরা অনেক কিছু করার চেষ্টা করেছে। বিল ক্লিনটন বলেন, তার স্ত্রীকে নিয়ে তারা ‘কার্টুন’ বানিয়েছে। এর মাধ্যমে তাকে অবমাননা করার চেষ্টা করা হয়েছে। তিনি হিলারী ক্লিনটনের কিছু পুরনো বন্ধু, যারা বিপদের সময় তার পাশে এসে দাঁড়িয়েছিলেন, তাদের প্রশংসা করেন। এক্ষেত্রে হিলারী ক্লিনটনকে একজন সিনেটর হিসেবে সমর্থন দিয়েছিলেন কিছু রিপাবলিকানও। বিল ক্লিনটন বলেন, আপনারা একজন খাঁটি মানুষকে মনোনীত করেছেন। তার এ ঘোষণার পর পরই হলঘর শ্লোগান, প্রশংসায় ভরে যায়। বিল ক্লিনটনের কথা হারিয়ে যায় সেই শব্দের মাঝে। তিনি দীর্ঘক্ষণ চুপ করে দাঁড়িয়ে থাকেন। এক পর্যায়ে দু’হাত উঁচু করে সবাইকে শান্ত হওয়ার আহ্বান জানান। তিনি বক্তব্য রাখেন ৩৮ মিনিট। এ সময়ে তিনি বলেন, হিলারী আপনাদেরকে কখনো ছেড়ে যাবে না। আমাকেও ছেড়ে যাবে না। এর মধ্য দিয়ে তিনি তাদের বৈবাহিক সম্পর্কের দৃঢ়তা তুলে ধরেন। বিল ক্লিনটনের আগে বক্তব্য রাখেন অভিনেত্রী মেরিল স্ট্রিপ। তার আগে সংগীত পরিবেশন করেন সংগীত শিল্পী অ্যালিসিয়া কিস। (মানবজমিন)