নিউইয়র্ক ১২:০৮ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন :
মঙ্গলবারের পত্রিকা সাপ্তাহিক হককথা ও হককথা.কম এ আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন +1 (347) 848-3834

কমরেড মোহাম্মদ ফরহাদের জন্মদিন ৫ জুলাই

রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : ০১:৪১:৫৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ৫ জুলাই ২০১৫
  • / ১১৮২ বার পঠিত

সিডনী (অষ্ট্রেলিয়া): মুক্তিযুদ্ধ, স্বাধীনতা, গণতন্ত্র ও সমাজতন্ত্রের সংগ্রামে অন্যতম সংগঠক কমরেড মোহাম্মদ ফরহাদ ১৯৩৮ সালের ৫ জুলাই বাবার কর্মস্থল পাবনায় জন্মগ্রহণ করেন। তাঁদের পৈতৃক নিবাস পঞ্চগড়ে। বাবা আহমেদ সাদাকাতুল বারী সরকারি স্কুলশিক্ষক, মা তৈয়বুন্নেসা। ১৯৫৩ সালে দিনাজপুর জিলা স্কুল থেকে ম্যাট্রিক, দিনাজপুর সুরেন্দ্রনাথ কলেজ থেকে আইএ, বিএ ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রাষ্ট্রবিজ্ঞানে (১৯৬১) এমএ ডিগ্রি অর্জন করেন। ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলনে দিনাজপুরে সক্রিয় ভূমিকা পালন করেন তিনি। ছাত্রজীবন থেকে ছাত্র ইউনিয়নের সঙ্গে যুক্ত থাকা ফরহাদ ১৯৫৪ সালে প্রথম গ্রেপ্তার হন। আট মাস কারাভোগের পর মুক্তি পান এবং কমিউনিস্ট পার্টিতে যোগ দেন। এ সময় ‘দৈনিক সংবাদ’ পত্রিকার সহকারী সম্পাদক পদে কিছু দিন দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৬২ সালের আইয়ুব খানের সামরিক শিক্ষানীতিবিরোধী ও হামদুর রহমান শিক্ষা কমিশন রিপোর্ট বিরোধী ছাত্র আন্দোলনের অন্যতম সংগঠক ছিলেন তিনি। আন্দোলনকারীদের নামে হুলিয়া জারি হলে, গ্রেপ্তার এড়ানোর জন্য আত্মগোপনে যান। মুক্তিযুদ্ধে সক্রিয় ভূমিকা পালনকারী ফরহাদ স্বাধীন দেশে কমিউনিস্ট পার্টি বঙ্গবন্ধু সরকারকে সহযোগিতা করবে- এই সিদ্ধান্তের পক্ষে অগ্রণী ভূমিকা পালন করেন। ১৯৭৫ সালে কমিউনিস্ট পার্টি নিজেদের অস্তিত্ব বিলুপ্ত করে বাকশালের সঙ্গে একীভূত হলে এর কেন্দ্রীয় সদস্য ও রাজনৈতিক প্রশিক্ষক নিযুক্ত হন তিনি। ১৯৮২ সালে সেনাপ্রধান এরশাদের ক্ষমতা দখলের পর সামরিক শাসনবিরোধী রাজনৈতিক ঐক্য, জাতীয় দাবি পাঁচ দফা প্রণয়ন ও যুগপৎ আন্দোলন গড়ে তোলায় বলিষ্ঠ ও অগ্রণী ভূমিকা পালন করেন। ৩৫ বছরের ঘটনাবহুল রাজনৈতিক জীবনে তিনি দীর্ঘ প্রায় ১৪ বছর আত্মগোপন বা কারান্তরালে ছিলেন। ১৯৮৬ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নিজ এলাকা থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। ১৯৮৭ সালের ৯ অক্টোবর মস্কোতে সংগ্রামী এই নেতা ইন্তেকাল করেন।

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

About Author Information

কমরেড মোহাম্মদ ফরহাদের জন্মদিন ৫ জুলাই

প্রকাশের সময় : ০১:৪১:৫৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ৫ জুলাই ২০১৫

সিডনী (অষ্ট্রেলিয়া): মুক্তিযুদ্ধ, স্বাধীনতা, গণতন্ত্র ও সমাজতন্ত্রের সংগ্রামে অন্যতম সংগঠক কমরেড মোহাম্মদ ফরহাদ ১৯৩৮ সালের ৫ জুলাই বাবার কর্মস্থল পাবনায় জন্মগ্রহণ করেন। তাঁদের পৈতৃক নিবাস পঞ্চগড়ে। বাবা আহমেদ সাদাকাতুল বারী সরকারি স্কুলশিক্ষক, মা তৈয়বুন্নেসা। ১৯৫৩ সালে দিনাজপুর জিলা স্কুল থেকে ম্যাট্রিক, দিনাজপুর সুরেন্দ্রনাথ কলেজ থেকে আইএ, বিএ ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রাষ্ট্রবিজ্ঞানে (১৯৬১) এমএ ডিগ্রি অর্জন করেন। ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলনে দিনাজপুরে সক্রিয় ভূমিকা পালন করেন তিনি। ছাত্রজীবন থেকে ছাত্র ইউনিয়নের সঙ্গে যুক্ত থাকা ফরহাদ ১৯৫৪ সালে প্রথম গ্রেপ্তার হন। আট মাস কারাভোগের পর মুক্তি পান এবং কমিউনিস্ট পার্টিতে যোগ দেন। এ সময় ‘দৈনিক সংবাদ’ পত্রিকার সহকারী সম্পাদক পদে কিছু দিন দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৬২ সালের আইয়ুব খানের সামরিক শিক্ষানীতিবিরোধী ও হামদুর রহমান শিক্ষা কমিশন রিপোর্ট বিরোধী ছাত্র আন্দোলনের অন্যতম সংগঠক ছিলেন তিনি। আন্দোলনকারীদের নামে হুলিয়া জারি হলে, গ্রেপ্তার এড়ানোর জন্য আত্মগোপনে যান। মুক্তিযুদ্ধে সক্রিয় ভূমিকা পালনকারী ফরহাদ স্বাধীন দেশে কমিউনিস্ট পার্টি বঙ্গবন্ধু সরকারকে সহযোগিতা করবে- এই সিদ্ধান্তের পক্ষে অগ্রণী ভূমিকা পালন করেন। ১৯৭৫ সালে কমিউনিস্ট পার্টি নিজেদের অস্তিত্ব বিলুপ্ত করে বাকশালের সঙ্গে একীভূত হলে এর কেন্দ্রীয় সদস্য ও রাজনৈতিক প্রশিক্ষক নিযুক্ত হন তিনি। ১৯৮২ সালে সেনাপ্রধান এরশাদের ক্ষমতা দখলের পর সামরিক শাসনবিরোধী রাজনৈতিক ঐক্য, জাতীয় দাবি পাঁচ দফা প্রণয়ন ও যুগপৎ আন্দোলন গড়ে তোলায় বলিষ্ঠ ও অগ্রণী ভূমিকা পালন করেন। ৩৫ বছরের ঘটনাবহুল রাজনৈতিক জীবনে তিনি দীর্ঘ প্রায় ১৪ বছর আত্মগোপন বা কারান্তরালে ছিলেন। ১৯৮৬ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নিজ এলাকা থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। ১৯৮৭ সালের ৯ অক্টোবর মস্কোতে সংগ্রামী এই নেতা ইন্তেকাল করেন।