নিউইয়র্ক ১২:৪৬ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন :
মঙ্গলবারের পত্রিকা সাপ্তাহিক হককথা ও হককথা.কম এ আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন +1 (347) 848-3834

যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি’র আগামী দিনের কান্ডারী জিল্লুর রহমান জিল্লু

রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : ০১:৫৫:৩০ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৪
  • / ৭৬২ বার পঠিত

‘এক জিয়া লোকান্তরে লক্ষ জিয়া ঘরে ঘরে’ শ্লোগানে ঐতিহাসিক বিপ্লব ও সংহতি দিবস এবং বিএনপি’র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ৪৯তম জন্মদিন পালন উপলক্ষ্যে যুক্তরাষ্ট্র জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল আয়োজিত আলোচনা সভায় বক্তারা অবিলম্বে ত্যাগী নেতাদের সমন্বয়ে যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি’র কমিটি প্রত্যাশা করে একই সুরে বলেছেন, দলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক জিল্লুর রহমান জিল্লুই হচ্ছেন যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি’র আগামী দিনের কান্ডারী। জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল থেকে শুরু করে বিএনপির রাজনীতিতে একজন পরীক্ষিত, সর্বজন গ্রহণযোগ্য নেতা হিসেবে তার কোন বিকল্প নেই। বক্তারা বলেন, তারেক জিয়া বাংলাদেশের আগামী দিনের নেতা। তার নেতৃত্বে দেশে-প্রবাসে বিএনপির নেতা-কর্মীরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে ‘অবৈধ’ শেখ হাসিনা সরকারের বিরুদ্ধে দূর্বার আন্দোলন গড়ে তুলবে। আন্দোলনের মাধ্যমে আওয়ামী লীগ সরকারের পতন ঘটানো হবে।
অনুষ্ঠানে কেন্দ্রীয় বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক, সাবেক এমপি নিখোঁজ ইলিয়াস আলীর সহধর্মিনী তাহমিনা রুশদী লুনা ও বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক আকরাম হাসান সেলফোনে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন।
সিটির জ্যাকসন হাইটস্থ ফুডকোর্ট রেষ্টুরেন্টে গত ১৬ নভেম্বর রোববার সন্ধ্যায় এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠান আয়োজক কমিটির আহ্বায়ক এম এ বাছিতের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি’র সাবেক সাধারণ সম্পাদক জিল্লুর রহমান জিল্লু। সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি নেতা হেলাল উদ্দিন, এমলাক হোসেন ফয়সাল, অধ্যক্ষ নূরুল আমীন পলাশ, এডভোকেট কাইয়্যুম চৌধুরী, আব্দুস কদ্দুস, এবাদ চৌধুরী, আফসানা আমিন, যুক্তরাষ্ট্র যুবদলের সাধারণ সম্পাদক আবু সাঈদ আহমেদ, যুবদল নেতা আতিকুল হক আহাদ। অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলওয়াত করেন যুবদল নেতা আমানত হোসেন আমান।
সভায় যুক্তরাষ্ট্র জাতীয়তাবাদী ফোরামের সাধারণ সম্পাদক রাফেল তালুকদার, কানেকটিকাট বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মহিবুল কবির চৌধুরী, যুক্তরাষ্ট্র যুবদল নেতা সারোয়ার খান বাবু, আমানত হোসেন আমান, মেহবুব খান, মোহাম্মদ ফখরুল ইসলাম দেলোয়ার, বিলাল চৌধুরী, শেখ হায়দার আলী, রেজাউল আজাদ ভূইয়া, শরিফুল খালিসদার, এম এ বাসিত, সাইফুর খান হারুন, সাবেক ছাত্রদল নেতা উত্তম বণিক ও অনুষ্ঠান আয়োজক কমিটির সদস্য সচিব জাহিদ খানসহ  আরো বক্তব্য রাখেন সুয়েব চৌধুরী, আব্দুস সামাদ টিটু, রুহুল আব্দুল্লাহ রকি, রুবেল আহমেদ, মিরাজ আহমেদ, ওমেদ খান সজিব, আবু আব্বাস, এম এ রহমান, কানেকটিকাট ছাত্রদলের সভাপতি আবু সুফিয়ান, এম ডি জাকির আহমেদ, আবু জাফর চৌধুরী, আলী রেহান, মির্জা মিঠু, শামীম ভূইয়া, সাইফুল রাজা চৌধুরী, ইমতিয়াজ আহমদ, মোহাম্মদ হান্নান, কাজীম হাফিজ, রাহাত চৌধুরী, তানভীন চৌধুরী, হুসাইন আহমেদ, রাহাত আহমেদ, সাব্বির আহমেদ, মিজান আহমেদ, মাহমুদ হোসেন সামন, রাব্বি, নাহিদ খান, মাহমুদ চৌধুরী, ওবায়দুর রহমান পলাশ, আব্দুর সবুর, তারেকুল মাহরুফ, মোহাম্মদ নাঈম, দেওয়ান রানা আহমেদ চৌধুরী, সাইবুর রাজা চৌধুরী, মাওলানা আব্দুল কাইয়ুম, সুফিয়ান আহমেদ, সাবেক সেনা কর্মকর্তা মোহাম্মদ হারুণ অর রশিদ খা, মোহাম্মদ কামরুজ্জামান, আব্দুল মালিক, সাবেক ছাত্র নেতা তরিকুল ইসলাম দিপু, সাবেক ছাত্র নেতা ফজলে রাব্বী রাজিব, মাসুদ আহমেদ চৌধুরী প্রমুখ।
Catrotal (Zillu)-1সভায় জিল্লুর রহমান জিল্লু তার বক্তব্যে অনুষ্ঠান আয়োজকদের আন্তরিক ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, আমরা যদি ঐক্যবদ্ধ থাকি তাহলে কোন অপশক্তি যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি, যুবদল, ছাত্রদলের নেতা-কর্মীদের বিভক্ত করতে পারবে না। তিনি বলেন, শহীদ জিয়ার আদর্শ আর ৭ নভেম্বরের চেতনায় বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদে বিশ্বাসী সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে জাতিকে শেখ হাসিনা সরকারের অত্যাচার, নির্যাতন, জেল-জুলুম, হুলিয়া, হামলা-মামলার বন্দীদশা থেকে মুক্ত করতে হবে।
তাহমিনা রুশদী লুনা যুক্তরাষ্ট্র ছাত্রদলের নেতা-কর্মীদের শুভেচ্ছা জানিয়ে সেলফোন বার্তায় বলেন, বিএনপি নেতা ইলিয়াস আলী কোথায় আমরা সরকারের কাছে জানতে চাই। আমরা যেকোন মূল্যে ইলিয়াস আলীকে ফিরে পেতে চাই। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ সরকারের পতন না হওয়া আর ইলিয়াস আলীর সন্ধান না পাওয়া পর্যন্ত দেশে-প্রবাসে আন্দোলন চলবে। আর এই আন্দোলনে ছাত্রদল নেতা-কর্মীদের অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হবে।
কেন্দ্রীয় ছাত্রদল নেতা আকরাম হাসান উপস্থিত সকলকে শুভেচ্ছা জানিয়ে বলেন, ৭ নভেম্বর চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে ছাত্রদলের নেতা-কর্মীদেরকে আওয়ামী লীগ সরকারের সকল অন্যায়, অবিচার ও অত্যাচারের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে।
Catrodal (zillu)-3আলোচনা সভায় বক্তারা ঐতিহাসিক ৭ নভেম্বরের গুরুত্ব তুলে ধরে বলেন, বাংলাদেশের গণতন্ত্র এবং দেশের মানুষকে বাঁচাতে হলে আমাদের ৭ নভেম্বরের মত আরেকটি বিপ্লবের প্রস্তুতি নিতে হবে। বক্তারা বলেন, শেখ হাসিনা ৫ জানুয়ারির অবৈধ নির্বাচনের মাধ্যমে অবৈধ ভাবে প্রধানমন্ত্রী হিসাবে ক্ষমতায় রয়েছেন। এই অবৈধ সরকার বাংলাদেশে এখন আবার বাকশাল কায়েম করেছে। তাই ‘বাকশাল সরকার’-এর পতনে আন্দোলনে বিএনপির সর্বস্তরের নেতা-কর্মীদের ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।
বক্তারা আরো বলেন, যুক্তরাষ্ট্র বিএনপিতে কিছু চর আর ষড়যন্ত্রকারী রয়েছে। তাদের জন্য দলের মধ্যে বিভক্তি বাড়ছে। তারা জিল্লুর রহমান জিল্লুর ইমেজ নষ্ট করতে মিডিয়ায় বিবৃতি দিয়েছে, ছাত্রদলের নামে কয়েকজনকে নিয়ে পাল্টা সভা করে দলের নেতা-কর্মীদের মধ্যে দূরত্ব সৃষ্টি করছে। তার আজ এক কথা বলেন, তো কাল আরেক কথা বলেন। দলীয় ঐক্যের কথা তাদের মুখে মানায় না।
আলোচনা সভা শেষে বিএনপি’র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের জন্মদিন উপলক্ষ্যে কেক কাটা হয়। যুক্তরাস্ট্র বিএনপি, যুবদল ও ছাত্রদলের বিপুল সংখ্যক নেতা-কর্মী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।
আলোচনা সভাটি পরিচালনা করেন জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের সাবেক নেতা জাহিদ খান, আশফাক চৌধুরী জামি ও নাজিম চৌধুরী রিংকু। সভা পরিচালনায় সহযোগিতা করেন যুবদল নেতা আতিকুল হক আহাদ। উল্লেখ্য, অনুষ্ঠানটি সফল করতে গঠিত কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক হচ্ছেন: আব্দুস সামাদ টিটু, রুহুল আব্দুল্লাহ রকি, মিরাজ আহমেদ, উমেদ খান সজীব, আবু আব্বাস, এম এ রহমান, আবু সুফিয়ান, যুগ্ম সদস্য সচিব হচ্ছেন: এমপি জাকির আহমদ, আশফাক চৌধুরী (জামি), আবু জাফর চৌধুরী, আলী রেহান, মির্জা মিঠু, সুয়েব চৌধুরী ও শামীম ভুইয়া, প্রধান সমন্বকারী সাইফুর খান হারুন, সমন্বয়কারী ছিলেন মিজানুর রহমান মিজান, মিফতা উদ্দিন চৌধুরী, মিজান চৌধুরী, ইঞ্জিনিয়ার সায়েম, রেজাউল আজাদ চৌধুরী, মেহবুব খান, আবু আশরাফ চৌধুরী, সাইফুর রাজা চৌধুরী, ইমতিয়াজ আহমদ ও আমিনুল ইসলাম স্বপন, সার্বিক ব্যবস্থাপনায় ছিলেন ফয়েজ চৌধুরী, সৈয়দ তৌফিক আহমদ, জোবায়ের চৌধুরী শাহীন, কামাল পাশা চৌধুরী, সোয়েব আহমদ ও মোহাম্মদ হান্নান এবং সদস্য কাজিম হাফিজ, রাহাত চৌধুরী, তানভীর চৌধুরী, হুসাইন আহমেদ, রাহাত আহমেদ, সাব্বির আহমেদ, মিজান আহমেদ, মাহমুদ হোসেন সামন, রাব্বি, নাহিদ খান, মাহমুদ চৌধুরী, ওবায়দুল পলাশ, আব্দুস সবুর, তারেকুল মারুফ, মোহাম্মদ নাঈম, দেওয়ান রানা আহমদ চৌধুরী ও সাইফুর রাজা চৌধুরী।

Tag :

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

About Author Information

যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি’র আগামী দিনের কান্ডারী জিল্লুর রহমান জিল্লু

প্রকাশের সময় : ০১:৫৫:৩০ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৪

‘এক জিয়া লোকান্তরে লক্ষ জিয়া ঘরে ঘরে’ শ্লোগানে ঐতিহাসিক বিপ্লব ও সংহতি দিবস এবং বিএনপি’র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ৪৯তম জন্মদিন পালন উপলক্ষ্যে যুক্তরাষ্ট্র জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল আয়োজিত আলোচনা সভায় বক্তারা অবিলম্বে ত্যাগী নেতাদের সমন্বয়ে যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি’র কমিটি প্রত্যাশা করে একই সুরে বলেছেন, দলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক জিল্লুর রহমান জিল্লুই হচ্ছেন যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি’র আগামী দিনের কান্ডারী। জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল থেকে শুরু করে বিএনপির রাজনীতিতে একজন পরীক্ষিত, সর্বজন গ্রহণযোগ্য নেতা হিসেবে তার কোন বিকল্প নেই। বক্তারা বলেন, তারেক জিয়া বাংলাদেশের আগামী দিনের নেতা। তার নেতৃত্বে দেশে-প্রবাসে বিএনপির নেতা-কর্মীরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে ‘অবৈধ’ শেখ হাসিনা সরকারের বিরুদ্ধে দূর্বার আন্দোলন গড়ে তুলবে। আন্দোলনের মাধ্যমে আওয়ামী লীগ সরকারের পতন ঘটানো হবে।
অনুষ্ঠানে কেন্দ্রীয় বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক, সাবেক এমপি নিখোঁজ ইলিয়াস আলীর সহধর্মিনী তাহমিনা রুশদী লুনা ও বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক আকরাম হাসান সেলফোনে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন।
সিটির জ্যাকসন হাইটস্থ ফুডকোর্ট রেষ্টুরেন্টে গত ১৬ নভেম্বর রোববার সন্ধ্যায় এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠান আয়োজক কমিটির আহ্বায়ক এম এ বাছিতের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি’র সাবেক সাধারণ সম্পাদক জিল্লুর রহমান জিল্লু। সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি নেতা হেলাল উদ্দিন, এমলাক হোসেন ফয়সাল, অধ্যক্ষ নূরুল আমীন পলাশ, এডভোকেট কাইয়্যুম চৌধুরী, আব্দুস কদ্দুস, এবাদ চৌধুরী, আফসানা আমিন, যুক্তরাষ্ট্র যুবদলের সাধারণ সম্পাদক আবু সাঈদ আহমেদ, যুবদল নেতা আতিকুল হক আহাদ। অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলওয়াত করেন যুবদল নেতা আমানত হোসেন আমান।
সভায় যুক্তরাষ্ট্র জাতীয়তাবাদী ফোরামের সাধারণ সম্পাদক রাফেল তালুকদার, কানেকটিকাট বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মহিবুল কবির চৌধুরী, যুক্তরাষ্ট্র যুবদল নেতা সারোয়ার খান বাবু, আমানত হোসেন আমান, মেহবুব খান, মোহাম্মদ ফখরুল ইসলাম দেলোয়ার, বিলাল চৌধুরী, শেখ হায়দার আলী, রেজাউল আজাদ ভূইয়া, শরিফুল খালিসদার, এম এ বাসিত, সাইফুর খান হারুন, সাবেক ছাত্রদল নেতা উত্তম বণিক ও অনুষ্ঠান আয়োজক কমিটির সদস্য সচিব জাহিদ খানসহ  আরো বক্তব্য রাখেন সুয়েব চৌধুরী, আব্দুস সামাদ টিটু, রুহুল আব্দুল্লাহ রকি, রুবেল আহমেদ, মিরাজ আহমেদ, ওমেদ খান সজিব, আবু আব্বাস, এম এ রহমান, কানেকটিকাট ছাত্রদলের সভাপতি আবু সুফিয়ান, এম ডি জাকির আহমেদ, আবু জাফর চৌধুরী, আলী রেহান, মির্জা মিঠু, শামীম ভূইয়া, সাইফুল রাজা চৌধুরী, ইমতিয়াজ আহমদ, মোহাম্মদ হান্নান, কাজীম হাফিজ, রাহাত চৌধুরী, তানভীন চৌধুরী, হুসাইন আহমেদ, রাহাত আহমেদ, সাব্বির আহমেদ, মিজান আহমেদ, মাহমুদ হোসেন সামন, রাব্বি, নাহিদ খান, মাহমুদ চৌধুরী, ওবায়দুর রহমান পলাশ, আব্দুর সবুর, তারেকুল মাহরুফ, মোহাম্মদ নাঈম, দেওয়ান রানা আহমেদ চৌধুরী, সাইবুর রাজা চৌধুরী, মাওলানা আব্দুল কাইয়ুম, সুফিয়ান আহমেদ, সাবেক সেনা কর্মকর্তা মোহাম্মদ হারুণ অর রশিদ খা, মোহাম্মদ কামরুজ্জামান, আব্দুল মালিক, সাবেক ছাত্র নেতা তরিকুল ইসলাম দিপু, সাবেক ছাত্র নেতা ফজলে রাব্বী রাজিব, মাসুদ আহমেদ চৌধুরী প্রমুখ।
Catrotal (Zillu)-1সভায় জিল্লুর রহমান জিল্লু তার বক্তব্যে অনুষ্ঠান আয়োজকদের আন্তরিক ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, আমরা যদি ঐক্যবদ্ধ থাকি তাহলে কোন অপশক্তি যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি, যুবদল, ছাত্রদলের নেতা-কর্মীদের বিভক্ত করতে পারবে না। তিনি বলেন, শহীদ জিয়ার আদর্শ আর ৭ নভেম্বরের চেতনায় বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদে বিশ্বাসী সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে জাতিকে শেখ হাসিনা সরকারের অত্যাচার, নির্যাতন, জেল-জুলুম, হুলিয়া, হামলা-মামলার বন্দীদশা থেকে মুক্ত করতে হবে।
তাহমিনা রুশদী লুনা যুক্তরাষ্ট্র ছাত্রদলের নেতা-কর্মীদের শুভেচ্ছা জানিয়ে সেলফোন বার্তায় বলেন, বিএনপি নেতা ইলিয়াস আলী কোথায় আমরা সরকারের কাছে জানতে চাই। আমরা যেকোন মূল্যে ইলিয়াস আলীকে ফিরে পেতে চাই। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ সরকারের পতন না হওয়া আর ইলিয়াস আলীর সন্ধান না পাওয়া পর্যন্ত দেশে-প্রবাসে আন্দোলন চলবে। আর এই আন্দোলনে ছাত্রদল নেতা-কর্মীদের অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হবে।
কেন্দ্রীয় ছাত্রদল নেতা আকরাম হাসান উপস্থিত সকলকে শুভেচ্ছা জানিয়ে বলেন, ৭ নভেম্বর চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে ছাত্রদলের নেতা-কর্মীদেরকে আওয়ামী লীগ সরকারের সকল অন্যায়, অবিচার ও অত্যাচারের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে।
Catrodal (zillu)-3আলোচনা সভায় বক্তারা ঐতিহাসিক ৭ নভেম্বরের গুরুত্ব তুলে ধরে বলেন, বাংলাদেশের গণতন্ত্র এবং দেশের মানুষকে বাঁচাতে হলে আমাদের ৭ নভেম্বরের মত আরেকটি বিপ্লবের প্রস্তুতি নিতে হবে। বক্তারা বলেন, শেখ হাসিনা ৫ জানুয়ারির অবৈধ নির্বাচনের মাধ্যমে অবৈধ ভাবে প্রধানমন্ত্রী হিসাবে ক্ষমতায় রয়েছেন। এই অবৈধ সরকার বাংলাদেশে এখন আবার বাকশাল কায়েম করেছে। তাই ‘বাকশাল সরকার’-এর পতনে আন্দোলনে বিএনপির সর্বস্তরের নেতা-কর্মীদের ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।
বক্তারা আরো বলেন, যুক্তরাষ্ট্র বিএনপিতে কিছু চর আর ষড়যন্ত্রকারী রয়েছে। তাদের জন্য দলের মধ্যে বিভক্তি বাড়ছে। তারা জিল্লুর রহমান জিল্লুর ইমেজ নষ্ট করতে মিডিয়ায় বিবৃতি দিয়েছে, ছাত্রদলের নামে কয়েকজনকে নিয়ে পাল্টা সভা করে দলের নেতা-কর্মীদের মধ্যে দূরত্ব সৃষ্টি করছে। তার আজ এক কথা বলেন, তো কাল আরেক কথা বলেন। দলীয় ঐক্যের কথা তাদের মুখে মানায় না।
আলোচনা সভা শেষে বিএনপি’র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের জন্মদিন উপলক্ষ্যে কেক কাটা হয়। যুক্তরাস্ট্র বিএনপি, যুবদল ও ছাত্রদলের বিপুল সংখ্যক নেতা-কর্মী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।
আলোচনা সভাটি পরিচালনা করেন জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের সাবেক নেতা জাহিদ খান, আশফাক চৌধুরী জামি ও নাজিম চৌধুরী রিংকু। সভা পরিচালনায় সহযোগিতা করেন যুবদল নেতা আতিকুল হক আহাদ। উল্লেখ্য, অনুষ্ঠানটি সফল করতে গঠিত কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক হচ্ছেন: আব্দুস সামাদ টিটু, রুহুল আব্দুল্লাহ রকি, মিরাজ আহমেদ, উমেদ খান সজীব, আবু আব্বাস, এম এ রহমান, আবু সুফিয়ান, যুগ্ম সদস্য সচিব হচ্ছেন: এমপি জাকির আহমদ, আশফাক চৌধুরী (জামি), আবু জাফর চৌধুরী, আলী রেহান, মির্জা মিঠু, সুয়েব চৌধুরী ও শামীম ভুইয়া, প্রধান সমন্বকারী সাইফুর খান হারুন, সমন্বয়কারী ছিলেন মিজানুর রহমান মিজান, মিফতা উদ্দিন চৌধুরী, মিজান চৌধুরী, ইঞ্জিনিয়ার সায়েম, রেজাউল আজাদ চৌধুরী, মেহবুব খান, আবু আশরাফ চৌধুরী, সাইফুর রাজা চৌধুরী, ইমতিয়াজ আহমদ ও আমিনুল ইসলাম স্বপন, সার্বিক ব্যবস্থাপনায় ছিলেন ফয়েজ চৌধুরী, সৈয়দ তৌফিক আহমদ, জোবায়ের চৌধুরী শাহীন, কামাল পাশা চৌধুরী, সোয়েব আহমদ ও মোহাম্মদ হান্নান এবং সদস্য কাজিম হাফিজ, রাহাত চৌধুরী, তানভীর চৌধুরী, হুসাইন আহমেদ, রাহাত আহমেদ, সাব্বির আহমেদ, মিজান আহমেদ, মাহমুদ হোসেন সামন, রাব্বি, নাহিদ খান, মাহমুদ চৌধুরী, ওবায়দুল পলাশ, আব্দুস সবুর, তারেকুল মারুফ, মোহাম্মদ নাঈম, দেওয়ান রানা আহমদ চৌধুরী ও সাইফুর রাজা চৌধুরী।