নিউইয়র্ক ০৭:৫৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন :
মঙ্গলবারের পত্রিকা সাপ্তাহিক হককথা ও হককথা.কম এ আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন +1 (347) 848-3834

যুক্তরাষ্ট্র আ.লীগ : সাধারণ সম্পাদকের খোঁজ চলছে

রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : ১০:১৮:১০ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৯ জুন ২০১৬
  • / ৬৫১ বার পঠিত

নিউইয়র্ক: যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগে সাধারণ সম্পাদক পুরণের ব্যাপারে স্থানীয় পর্যায় সহ কেন্দ্র থেকে নতুন মুখ খোঁজা হচ্ছে। ইতিপূর্বে কেন্দ্র কর্তৃক সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদুর রহমান সাজ্জাদকে বহিষ্কার করা হলে এই পদে ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদ হিসেবে যুগ্ম সম্পাদক আব্দুস সামাদ আজাদ দায়িত্ব পালন করে চলেছেন। অপরদিকে সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান ব্যক্তিগত কাজে বাংলাদেশে অবস্থান করায় সংগঠনের ভারপ্রাপ্ত সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন দলের অন্যতম সহ সভাপতি সৈয়দ বসারত আলী।
যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সর্বস্তরের নেতা-কর্মীদের সাথে আলাপকালে জানা গেছে, দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ যেমন শক্তিশালী, তেমনী এই প্রবাসে অর্থাৎ যুক্তরাষ্ট্্ের সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমানের নেতৃত্বে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ শক্তিশালী। জানা গেছে, দলীয় সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ‘ড. সিদ্দিক-সাজ্জাদ’-এর নেতৃত্বে কমিটি গঠন করার পর থেকেই দলীয় নেতা-কর্মীরা চাঙ্গা হয়ে উঠেন। যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের বর্তমান নেতৃত্ব ইতিপূর্বের যে কোন কমিটির চেয়ে দলকে অধিকতর শক্তিশালী, গণমুখী, প্রবাসে দলীয় ‘ভ্যানগার্ড’ আর মুখপ্রাপ্ত হিসেবে যথাযথ ভূমিকা পালন করছে বলেই নেতা-কর্মীরা মনে করেন। বিশেষ করে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার, জননেত্রী শেখ হাসিনার ভিষণ ২০২০ কর্মসূচী, বিশ্বব্যাংক ঘেরাও, জাতিসংঘের সামনের সমাবেশ প্রভৃতি কর্মসূচী সফল করা সহ ষ্টেট ডিপার্টমেন্টে দেশ ও দলের পক্ষে কথা বলার বিষয়গুলো প্রবাস ও দেশে ভূয়সী প্রশংসিত হচ্ছে।
দলীয় নেতা-কর্মীরা মনে করেন নানা প্রতিকূলতার মাঝেও সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগকে যেভাবে গণমূখী কর্মকান্ডের মাধ্যমে দলকে সুসংহত ও সুসংগঠিত করেছেন তা অতীতের সকল রেকর্ড ছাড়িয়ে গেছে।
সূত্র মতে, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগকে আরো শক্তিশালী করতে এখন দরকার দলের সাধারণ সম্পাদক পদটি ভারমুক্ত করা। এই লক্ষ্যে দলীয় পর্যায়ে আলোচনা চলছে। কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগও এব্যাপারে নজরও রাখছে। সূত্র মতে, দলের অন্যতম যুগ্ম সম্পাদক ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাদ আজাদ যথাযথভাবে দায়িত্ব পালন করলেও তাকে পূর্ণ সাধারণ সম্পাদক পদে বহাল করার ব্যাপারে দলীয়ভাবে কোন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়নি। জানা গেছে এই পদের জন্য প্রবাসী বৃহত্তর সিলেট কমিউনিটি থেকে একজন যোগ্য নেতার খোঁজ চলছে। ইতিপূর্বে দলের সাধারণ সম্পাদক হয়েছে বৃহত্তর সিলেট বিভাগ থেকেই। দলের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক এম এ সালাম ছাড়াও সর্বশেষ সাধারণ সম্পাদক সাজ্জদুর রহমান সাজ্জাদ সকলেই ছিলেন বৃহত্তর সিলেটের। প্রবাসে বড় কমিউনিটি হিসেবে দলের সভাপতি অথবা সাধারণ সম্পাদক পদে সিলেট বিভাগ থেকে একজনকে মনোনীত করা হয়ে থাকে বলে সংশ্লিষ্টরা জানান। সেই লক্ষ্যে বর্তমান ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক জামালপুর জেলার সন্তান আব্দুস সামাদ আজাদকে যথাযথ মর্যাদায় দলে রাখার পাশাপাশি সিলেট বিভাগ থেকে সাধারণ সম্পাদক পদের জন্য নতুন মুখের তালিকায় রয়েছেন- যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ফারুক আহমেদ ও আব্দুর রহিম বাদশা, জনসংযোগ সম্পাদক ও সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি কাজী কয়েস এবং নিউইয়র্ক ষ্টেট আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহীন আজমল।
সূত্রমতে, আব্দুস সামাদ আজাদকে সাধারণ সম্পাদকে পূর্ণ দায়িত্ব না দেয়া হলে তাকে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সহ সভাপতির পদ দেয়া হতে পারে।
এদিকে দল থেকে বহিস্কৃত সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদুর রহমান সাজ্জাদ তার বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহারের জন্য কেন্দ্রে জোর লবিং করছেন বলে জানা গেছে। এজন্য তার শুভাকাঙ্খীদের প্রত্যাশা বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক আর দলের ত্যাগী নেতা হিসেবে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ সাজ্জাদুর রহমান সাজ্জাদের বিষয়টি পুনর্বিবেচনা করে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগকে আরো শক্তিশালী করবেন। অপরদিকে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের প্রথম যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদ থেকে সাসপেন্ড হওয়া নিজাম চৌধুরী সহ অন্যান্য দলীয় নেতারাও তাদের উপর সাসপেন্ড-এর সিদ্ধান্ত বাতিলের জন্য কেন্দ্রে তদবীর করছেন বলে জানা গেছে। (সাপ্তাহিক বাংলা পত্রিকা)

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

About Author Information

যুক্তরাষ্ট্র আ.লীগ : সাধারণ সম্পাদকের খোঁজ চলছে

প্রকাশের সময় : ১০:১৮:১০ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৯ জুন ২০১৬

নিউইয়র্ক: যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগে সাধারণ সম্পাদক পুরণের ব্যাপারে স্থানীয় পর্যায় সহ কেন্দ্র থেকে নতুন মুখ খোঁজা হচ্ছে। ইতিপূর্বে কেন্দ্র কর্তৃক সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদুর রহমান সাজ্জাদকে বহিষ্কার করা হলে এই পদে ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদ হিসেবে যুগ্ম সম্পাদক আব্দুস সামাদ আজাদ দায়িত্ব পালন করে চলেছেন। অপরদিকে সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান ব্যক্তিগত কাজে বাংলাদেশে অবস্থান করায় সংগঠনের ভারপ্রাপ্ত সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন দলের অন্যতম সহ সভাপতি সৈয়দ বসারত আলী।
যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সর্বস্তরের নেতা-কর্মীদের সাথে আলাপকালে জানা গেছে, দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ যেমন শক্তিশালী, তেমনী এই প্রবাসে অর্থাৎ যুক্তরাষ্ট্্ের সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমানের নেতৃত্বে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ শক্তিশালী। জানা গেছে, দলীয় সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ‘ড. সিদ্দিক-সাজ্জাদ’-এর নেতৃত্বে কমিটি গঠন করার পর থেকেই দলীয় নেতা-কর্মীরা চাঙ্গা হয়ে উঠেন। যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের বর্তমান নেতৃত্ব ইতিপূর্বের যে কোন কমিটির চেয়ে দলকে অধিকতর শক্তিশালী, গণমুখী, প্রবাসে দলীয় ‘ভ্যানগার্ড’ আর মুখপ্রাপ্ত হিসেবে যথাযথ ভূমিকা পালন করছে বলেই নেতা-কর্মীরা মনে করেন। বিশেষ করে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার, জননেত্রী শেখ হাসিনার ভিষণ ২০২০ কর্মসূচী, বিশ্বব্যাংক ঘেরাও, জাতিসংঘের সামনের সমাবেশ প্রভৃতি কর্মসূচী সফল করা সহ ষ্টেট ডিপার্টমেন্টে দেশ ও দলের পক্ষে কথা বলার বিষয়গুলো প্রবাস ও দেশে ভূয়সী প্রশংসিত হচ্ছে।
দলীয় নেতা-কর্মীরা মনে করেন নানা প্রতিকূলতার মাঝেও সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগকে যেভাবে গণমূখী কর্মকান্ডের মাধ্যমে দলকে সুসংহত ও সুসংগঠিত করেছেন তা অতীতের সকল রেকর্ড ছাড়িয়ে গেছে।
সূত্র মতে, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগকে আরো শক্তিশালী করতে এখন দরকার দলের সাধারণ সম্পাদক পদটি ভারমুক্ত করা। এই লক্ষ্যে দলীয় পর্যায়ে আলোচনা চলছে। কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগও এব্যাপারে নজরও রাখছে। সূত্র মতে, দলের অন্যতম যুগ্ম সম্পাদক ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাদ আজাদ যথাযথভাবে দায়িত্ব পালন করলেও তাকে পূর্ণ সাধারণ সম্পাদক পদে বহাল করার ব্যাপারে দলীয়ভাবে কোন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়নি। জানা গেছে এই পদের জন্য প্রবাসী বৃহত্তর সিলেট কমিউনিটি থেকে একজন যোগ্য নেতার খোঁজ চলছে। ইতিপূর্বে দলের সাধারণ সম্পাদক হয়েছে বৃহত্তর সিলেট বিভাগ থেকেই। দলের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক এম এ সালাম ছাড়াও সর্বশেষ সাধারণ সম্পাদক সাজ্জদুর রহমান সাজ্জাদ সকলেই ছিলেন বৃহত্তর সিলেটের। প্রবাসে বড় কমিউনিটি হিসেবে দলের সভাপতি অথবা সাধারণ সম্পাদক পদে সিলেট বিভাগ থেকে একজনকে মনোনীত করা হয়ে থাকে বলে সংশ্লিষ্টরা জানান। সেই লক্ষ্যে বর্তমান ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক জামালপুর জেলার সন্তান আব্দুস সামাদ আজাদকে যথাযথ মর্যাদায় দলে রাখার পাশাপাশি সিলেট বিভাগ থেকে সাধারণ সম্পাদক পদের জন্য নতুন মুখের তালিকায় রয়েছেন- যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ফারুক আহমেদ ও আব্দুর রহিম বাদশা, জনসংযোগ সম্পাদক ও সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি কাজী কয়েস এবং নিউইয়র্ক ষ্টেট আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহীন আজমল।
সূত্রমতে, আব্দুস সামাদ আজাদকে সাধারণ সম্পাদকে পূর্ণ দায়িত্ব না দেয়া হলে তাকে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সহ সভাপতির পদ দেয়া হতে পারে।
এদিকে দল থেকে বহিস্কৃত সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদুর রহমান সাজ্জাদ তার বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহারের জন্য কেন্দ্রে জোর লবিং করছেন বলে জানা গেছে। এজন্য তার শুভাকাঙ্খীদের প্রত্যাশা বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক আর দলের ত্যাগী নেতা হিসেবে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ সাজ্জাদুর রহমান সাজ্জাদের বিষয়টি পুনর্বিবেচনা করে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগকে আরো শক্তিশালী করবেন। অপরদিকে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের প্রথম যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদ থেকে সাসপেন্ড হওয়া নিজাম চৌধুরী সহ অন্যান্য দলীয় নেতারাও তাদের উপর সাসপেন্ড-এর সিদ্ধান্ত বাতিলের জন্য কেন্দ্রে তদবীর করছেন বলে জানা গেছে। (সাপ্তাহিক বাংলা পত্রিকা)