নিউইয়র্ক ১১:২৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন :
মঙ্গলবারের পত্রিকা সাপ্তাহিক হককথা ও হককথা.কম এ আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন +1 (347) 848-3834

ব্রুকলীনে ঈদের জামাতে সস্ত্রীক মেয়র ব্লাজিও

রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : ১১:০৮:৪৮ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১০ জুলাই ২০১৬
  • / ৬০৯ বার পঠিত

নিউইয়র্ক: যথাযোগ্য ধর্মীয় মর্যাদায় উৎসবমুখর পরিবেশে ৬ জুলাই বুধবার নিউইয়র্কসহ উত্তর আমেরিকায় পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপিত হয়েছে। দীর্ঘ এক মাস সিয়াম সাধনার পর এদিন উত্তর আমেরিকার সর্বত্রই বিভিন্ন ঈদ গাহঁ ও মসজিদে শান্তিপূর্ন পরিবেশে লখ লাখ মুসল্লী ঈদের নামাজ আদায় করেন। নিউইয়র্ক সিটির পাঁচ বরোর মধ্যে কুইন্সে জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টার (জেএমসি)-এর উদ্যোগে জ্যামাইকা হাই স্কুল মাঠে, ব্রুকলীনে বাংলাদেশ মুসলিম সেন্টারে, ব্রঙ্কসের পার্কচেষ্টারে আর ম্যানহাটানের মদিনা মসজিদের উদ্যোগে বড় বড় ঈদের জামাত হয়েছে।
নিউইয়র্ক সিটি মেয়র বিল ডি ব্লাজিও ঈদের দিন স্ত্রী শার্লেন ম্যাকক্রেওকে সাথে নিয়ে ব্রুকলীনের বেনসনহার্ষ্ট পার্কের খোলা মাঠে উপস্থিত হয়ে মুসল্লীসের সাথে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। উল্লেখ্য, আফ্রিকান-আমেরিকান মুসলিম কমিউনিটি এই পার্কে ঈদের জামাতের আয়োজন করেনে। খবর ইউএনএ’র।
ঈদের জামাতের আগে মেয়র ব্লাজিও-কে স্যুট-টাই আর তার স্ত্রী শার্লেন-কে হিজাব পরিধান অবস্থায় দেখা যায়। মেয়র ঈদের মাঠে উপস্থিত হলে আয়োজকরা তাদেরকে ইমামের কাছে নিয়ে যান এবং সেখানে দাঁড়িয়ে মেয়র উপস্থিত মুসল্লীদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য রাখেন এবং ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। মেয়র ব্লাজিও ‘আসসালামু আলাইকুম’ বলে তার বক্তব্য শুরু করেন। মেয়র বলেন, আমি আর আমার স্ত্রী পবিত্র রমজান শেষে আজকের এই বিশেষ দিনের জন্য অপেক্ষায় ছিলাম। আপনাদের আনন্দের দিনে আপনাদের মাঝে আসতে পেরে আমি আনন্দিত, সম্মানিত। তিনি বলেন, আমরা টলারেন্স আর পারষ্পারিক শ্রদ্ধায় বিশ্বাসী। তারপরও নিউইয়র্ক সিটি সন্ত্রাসী ঘটনার শিকার হয়েছে। আমরা সেই দিনের ক্ষত আমরা কাটিয়ে উঠেছি, সেআ অভিজ্ঞতা আমাদের ঐক্যবদ্ধভাবে দাঁড়াতে আর শক্তিশালী হতে শিখিয়েছে। মেয়রর বলেন, আমরা নিউইয়র্কের সিটির সকল ধর্ম, বর্ণ, মত আর পথের বৈচিত্রকেই শক্তি মনে করি। সকল ধর্মের মানুষ আমাদেরকে শক্তিশালী করেছে। আর তাই আমরা কোন কমিউনিটির বিরুদ্ধে কোন প্রকার ঘৃণা সহ্য করবো না, পক্ষপাতিত্ব করবো না।
ঈদের আগের সপ্তাহে পবিত্র মদিয়া সিটিতে সন্ত্রাসী ঘটনার জন্য তিনি দু:খ প্রকাশ বলেন, আমরা নিউইয়র্ক সিটির মানুষরা সবাই ঐক্যবদ্ধ এবং শক্ত ভিত্তির উপর দাঁড়িয়ে আছি। এই সিটিতে সকল ধর্মের মানুষ গভীর সৌহার্দের বন্ধনে আবদ্ধ, তার দৃষ্টান্ত আজকের জামাত। তিনি বলেন, নিউইয়র্ক সিটি পৃথিবীর সামনে চমৎকার দৃষ্টান্ত।
মেয়র ব্লাজিও বলেন, আমরা সকল মুসলিম ভাই-বোনের সাথে আছি। আমরা আমাদের সিটিকে ‘ওয়ান স্টপ’ সিটি বানানোর লক্ষ্যে কাজ করছি বলেই মুসলিম কমিউনিটির ওপর নজরদারী কর্মসূচী বন্ধ করা হয়েছে। সিটি হল সবার জন্য উন্মুক্ত করা হয়েছে। প্রসঙ্গত মেয়র বলেন, মেয়র অফিসে সারা সাঈদকে সিনিয়র অ্যাডভাইজার হিসেবে পেয়ে আমরা গর্বিত। ইতিমধ্যেই তিনি তার কর্মদক্ষতা প্রমাণ করেছেন।
মেয়র বলেন, সিটি হলের ক্লার্জি অ্যাডভাইজার কমিটিতে মুসলিম নেতৃবৃন্দকে সংযুক্ত করা হয়েছে। সিটির পাবলিক স্কুলগুলোতে দুই ঈদের ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। তিনি বলেন, এনওয়াইপিডি-তে ৯০০ মুসলিম পুলিশ সদস্য প্রতিদিন আমাদের নিরাপত্তা দিয়ে আসছেন। তাদেরকে আমি ধন্যবাদ জানাই। ঈদ মুবারক আর আসসালামু আলাইকুম বলে মেয়র ব্লাজিও তার বক্তব্য শেষ করেন।

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

About Author Information

ব্রুকলীনে ঈদের জামাতে সস্ত্রীক মেয়র ব্লাজিও

প্রকাশের সময় : ১১:০৮:৪৮ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১০ জুলাই ২০১৬

নিউইয়র্ক: যথাযোগ্য ধর্মীয় মর্যাদায় উৎসবমুখর পরিবেশে ৬ জুলাই বুধবার নিউইয়র্কসহ উত্তর আমেরিকায় পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপিত হয়েছে। দীর্ঘ এক মাস সিয়াম সাধনার পর এদিন উত্তর আমেরিকার সর্বত্রই বিভিন্ন ঈদ গাহঁ ও মসজিদে শান্তিপূর্ন পরিবেশে লখ লাখ মুসল্লী ঈদের নামাজ আদায় করেন। নিউইয়র্ক সিটির পাঁচ বরোর মধ্যে কুইন্সে জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টার (জেএমসি)-এর উদ্যোগে জ্যামাইকা হাই স্কুল মাঠে, ব্রুকলীনে বাংলাদেশ মুসলিম সেন্টারে, ব্রঙ্কসের পার্কচেষ্টারে আর ম্যানহাটানের মদিনা মসজিদের উদ্যোগে বড় বড় ঈদের জামাত হয়েছে।
নিউইয়র্ক সিটি মেয়র বিল ডি ব্লাজিও ঈদের দিন স্ত্রী শার্লেন ম্যাকক্রেওকে সাথে নিয়ে ব্রুকলীনের বেনসনহার্ষ্ট পার্কের খোলা মাঠে উপস্থিত হয়ে মুসল্লীসের সাথে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। উল্লেখ্য, আফ্রিকান-আমেরিকান মুসলিম কমিউনিটি এই পার্কে ঈদের জামাতের আয়োজন করেনে। খবর ইউএনএ’র।
ঈদের জামাতের আগে মেয়র ব্লাজিও-কে স্যুট-টাই আর তার স্ত্রী শার্লেন-কে হিজাব পরিধান অবস্থায় দেখা যায়। মেয়র ঈদের মাঠে উপস্থিত হলে আয়োজকরা তাদেরকে ইমামের কাছে নিয়ে যান এবং সেখানে দাঁড়িয়ে মেয়র উপস্থিত মুসল্লীদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য রাখেন এবং ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। মেয়র ব্লাজিও ‘আসসালামু আলাইকুম’ বলে তার বক্তব্য শুরু করেন। মেয়র বলেন, আমি আর আমার স্ত্রী পবিত্র রমজান শেষে আজকের এই বিশেষ দিনের জন্য অপেক্ষায় ছিলাম। আপনাদের আনন্দের দিনে আপনাদের মাঝে আসতে পেরে আমি আনন্দিত, সম্মানিত। তিনি বলেন, আমরা টলারেন্স আর পারষ্পারিক শ্রদ্ধায় বিশ্বাসী। তারপরও নিউইয়র্ক সিটি সন্ত্রাসী ঘটনার শিকার হয়েছে। আমরা সেই দিনের ক্ষত আমরা কাটিয়ে উঠেছি, সেআ অভিজ্ঞতা আমাদের ঐক্যবদ্ধভাবে দাঁড়াতে আর শক্তিশালী হতে শিখিয়েছে। মেয়রর বলেন, আমরা নিউইয়র্কের সিটির সকল ধর্ম, বর্ণ, মত আর পথের বৈচিত্রকেই শক্তি মনে করি। সকল ধর্মের মানুষ আমাদেরকে শক্তিশালী করেছে। আর তাই আমরা কোন কমিউনিটির বিরুদ্ধে কোন প্রকার ঘৃণা সহ্য করবো না, পক্ষপাতিত্ব করবো না।
ঈদের আগের সপ্তাহে পবিত্র মদিয়া সিটিতে সন্ত্রাসী ঘটনার জন্য তিনি দু:খ প্রকাশ বলেন, আমরা নিউইয়র্ক সিটির মানুষরা সবাই ঐক্যবদ্ধ এবং শক্ত ভিত্তির উপর দাঁড়িয়ে আছি। এই সিটিতে সকল ধর্মের মানুষ গভীর সৌহার্দের বন্ধনে আবদ্ধ, তার দৃষ্টান্ত আজকের জামাত। তিনি বলেন, নিউইয়র্ক সিটি পৃথিবীর সামনে চমৎকার দৃষ্টান্ত।
মেয়র ব্লাজিও বলেন, আমরা সকল মুসলিম ভাই-বোনের সাথে আছি। আমরা আমাদের সিটিকে ‘ওয়ান স্টপ’ সিটি বানানোর লক্ষ্যে কাজ করছি বলেই মুসলিম কমিউনিটির ওপর নজরদারী কর্মসূচী বন্ধ করা হয়েছে। সিটি হল সবার জন্য উন্মুক্ত করা হয়েছে। প্রসঙ্গত মেয়র বলেন, মেয়র অফিসে সারা সাঈদকে সিনিয়র অ্যাডভাইজার হিসেবে পেয়ে আমরা গর্বিত। ইতিমধ্যেই তিনি তার কর্মদক্ষতা প্রমাণ করেছেন।
মেয়র বলেন, সিটি হলের ক্লার্জি অ্যাডভাইজার কমিটিতে মুসলিম নেতৃবৃন্দকে সংযুক্ত করা হয়েছে। সিটির পাবলিক স্কুলগুলোতে দুই ঈদের ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। তিনি বলেন, এনওয়াইপিডি-তে ৯০০ মুসলিম পুলিশ সদস্য প্রতিদিন আমাদের নিরাপত্তা দিয়ে আসছেন। তাদেরকে আমি ধন্যবাদ জানাই। ঈদ মুবারক আর আসসালামু আলাইকুম বলে মেয়র ব্লাজিও তার বক্তব্য শেষ করেন।