নিউইয়র্ক ০৩:৫৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ২২ জুলাই ২০২৪, ৭ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন :
মঙ্গলবারের পত্রিকা সাপ্তাহিক হককথা ও হককথা.কম এ আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন +1 (347) 848-3834

বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবসে প্রবাসে ব্যাপক আয়োজন

রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : ০১:০৫:২১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২২ মার্চ ২০১৬
  • / ৭৭১ বার পঠিত

নিউইয়র্ক: বাংলাদেশের ৪৫তম মহান স্বাধীনতা দিবস ২৬ মার্চ শনিবার। দেশের ন্যায় প্রবাসে দিবসটি পালন উপলক্ষ্যে নিউইয়র্কসহ প্রবাসে নানা প্রস্তুতি শুরু হয়েছে। প্রবাসী বাংলাদেশীদের ‘মাদার সংগঠন’ হিসেবে পরিচিত বাংলাদেশ সোসাইটি ইন্ক ছাড়াও বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন দিবসটি পালন উপলক্ষ্যে কর্মসুচী গ্রহণ করছে। এদিকে ‘একটি বাংলাদেশ তুমি জাগ্রত জনতার, সারা বিশ্বের বিস্ময় তুমি আমার অহংকার……’ এই চেতনাকে সামনে রেখে মুক্তধারা ফাউন্ডেশন উত্তর আমেরিকার সকল বাংলা সংবাদ মাধ্যম এবং সাংস্কৃতিক-সামাজিক-রাজনৈতিক-আঞ্চলিক সংগঠনগুলোর সহযোগিতায় নিউইয়র্কে প্রথমবারের মতো বাংলাদেশের স্বাধীনতার প্যারেড আয়োজন করার উদ্যোগ নিয়েছে। ২৬ মার্চ, শনিবার এই প্যারেড অনুষ্ঠিত হবে। উল্লেখ্য, ২০২১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবসের মহাগৌরবের ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে ছয় বছর ব্যাপী এই কর্মসূচী ঘোষণা করেছে মুক্তধারা ফাউন্ডেশন। খবর ইউএনএ’র।
বাংলাদেশ সোসাইটি: বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতা দিবস উদযাপন উপলক্ষ্যে বাংলাদেশ ২৬ মার্চ রোববার, সন্ধ্যা ৬ টায় সোসাইটি ভবনে (৮৬-২৪ উইটনি এভিনিউ, এলমহাষ্ট, নিউইয়র্ক-১১৩৭২) আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। সোসাইটির সভাপতি আজমল হোসেন কুনু ও সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহিম হাওলাদার মহান স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠানে সকলকে উপস্থিত থাকার জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ জানিয়েছেন।
মুক্তধারা ফাউন্ডেশন: নিউইয়র্কে প্রথমবারের মতো বাংলাদেশের পতাকা হাতে প্যারেডের মাধ্যমে স্বাধীনতা দিবসের কর্মসূচী শুরু করবে নিউইয়র্কের মুক্তধারা। ২৬ মার্চ শনিবার এই প্যারেড হবে। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে যোগ দেবেন বাংলাদেশের আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। বিশেষ অতিথি থাকবেন ওয়াশিংটনে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ জিয়াউদ্দীন, জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি মাসুদ বিন মোমেন এবং নিউইয়র্কে বাংলাদেশের কনসাল জেনারেল শামীম আহসান।
মুক্তধারার কর্ণধার বিশ্বজিত সাহা জানান, জ্যাকসন হাইটসের ডাইভারসিটি প্লাজায় ২৬ মার্চ শনিবার সকাল ১০টা থেকে সমাবেশ এবং সেখান থেকে ৭৩ স্ট্রীট হয়ে পিএস ৬৯ মিলনায়তন পর্যন্ত প্রধান রাস্তা দিয়ে প্যারেড করার অনুমতি পাওয়া গেছে। সকাল ১০টা থেকে সন্ধ্যা সাড়ে ৫টা পর্যন্ত থাকবে স্বাধীনতার গান, কবিতা, আবৃত্তি ও চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা হবে এবং সন্ধ্যা সাড়ে ৫টায় শুরু হবে প্যারেড। পিএস ৬৯ মিলনায়তনে থাকবে স্বাধীনতার চলচ্চিত্র প্রদর্শনী। মুক্তিযুদ্ধের ছবি ও গ্রন্থ প্রদর্শনী। এছাড়া থাকবে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে বহির্বিশ্বে বীরত্বপূর্ণ অবদানের জন্য সম্মাননা প্রদান।
তিনি বলেন, অনুষ্ঠানটি ব্যতিক্রমী ও অর্থবহ করার জন্য ইতিমধ্যে ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে যেসব আমেরিকান অবদান রেখেছেন তাদের সহ নিউইয়র্ক স্টেট এবং সিটির আমেরিকার মূলধারার রাজনীতিবিদ ছাড়াও উত্তর আমেরিকার বিভিন্ন স্থানে বসবাসরত মুক্তিযোদ্ধাদের আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। এ অনুষ্ঠানে যারাই যোগ দেবেন তাদের সকলের হাতে তুলে দেয়া হবে বাংলাদেশের পতাকা। আয়োজকরা জানিয়েছেন, স্বাধীনতা দিবসের ৫০ বছরের রজত জয়ন্তী অনুষ্ঠানে যাতে সকলে সমবেত হতে পারেন তার জন্য সকল সংগঠনের নাম ‘গর্বিত অংশীদার’ হিসেবে প্রকাশ করা হবে বলে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে। আগামী ২৬ মাচর্, শনিবার অনুষ্ঠান শেষে আগামী ৫ বছরের কর্মসূচীও এক এক করে ঘোষণা করা হবে।
এছাড়া কানাডা সহ যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশী অধ্যুষিত বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যে মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষ্যে নানা কর্মসূচী গ্রহণ করেছে বলে জানা গেছে।
চবি এলামনাই এসোসিয়েশন: মহান স্বাধীনতা দিবস পালন উপলক্ষে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় এলামনাই এসোসিয়েশন অব ইউএসএ আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে। ২৫ মার্চ শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টায় জ্যাকসন হাইটস্থ হাটবাজার পার্টি সেন্টারে আয়োজিত অনুষ্ঠানটি সফল করতে সবার সহযোগিতা কামনা করেছেন সংগঠনের সভাপতি প্রফেসর কাজী মু: ইসমাইল ও সাধারণ সম্পাদক এমলাক হোসেন ফয়সাল।
বিয়ানীবাজার সমিতি: মহান স্বাধীনতা দিবস পালন উপলক্ষে বাংলাদেশ বিয়ানীবাজার সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সমিতি ইউএসএ ইন্্ক ২৭ মার্চ রোববার বিকেল চারটায় ওজনপার্কস্থ ফিউশন ক্যাটারিং হল-এ মুক্তিযুদ্ধের উপর শিশু-কিশোরদের চিত্রাঙ্কন, প্রবন্ধ ও কবিতা আবৃত্তি প্রতিযোগিতা, আলোচনা, মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মাননা প্রদান ও শিশু-কিশোরদের পুরষ্কার বিতরণ ও সঙ্গীতানুষ্ঠানের আয়োজন করেছে। অনুষ্ঠানটি সফল করতে আবুল কালামতে আহ্বায়ক, আহমদ মস্তোফাকে যুগ্ম আহ্বায়ক, মোহাম্মদ জহিরুল ইসলামকে সদস্য সচিব, মোহাম্মদ জাকির হোসেনকে যুগ্ম সদস্য সচিব, মোহাম্মদ আমিনুল হোসেনকে সমন্বয়কারী এবং হেলিম উদ্দিনকে অর্থ সচিব করে স্বাধীনতা দিবস উদযাপন কমিটি গঠন করা হয়েছে।
সমিতির সভাপতি মাসুদুল হক ছানু ও সাধারণ সম্পাদক মহিবুর রহমান রুহুল সকল প্রবাসীকে অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকার জন্য আমন্ত্রণ জানিয়েছেন।
এ-এইচ ১৬ ড্রিম ফাউন্ডেশন: বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতা দিবস পালন উপলক্ষ্যে এ-এইচ ১৬ ড্রিম ফাউন্ডেশন ইন্ক আগামী ২৭ মার্চ রোববার সন্ধ্যায় আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে। ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি আলী হোসেন বলেন, ঐদিন সন্ধ্যা ৭টায় জ্যামাইকার পারসন্স বুলেভার্ডস্থ কাঠালবাগান রেষ্টুরেন্টে স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়েছে। অনুষ্ঠানটি সফল করতে তিনি সকল প্রবাসীর সহযোগিতা ও উপস্থিত কামনা করেছেন।
জেনোসাইড’৭১ ফাউন্ডেশন: মহান স্বাধীনতা দিবস পালন উপলক্ষে জেনোসাইড’৭১ ফাউন্ডেশন ইউএসএ ২৫ মার্চ শুক্রবার জ্যাকসন হাইটস্থ পালকি পার্টি সেন্টারে ‘কালরাত্রি’ স্মরণ ও স্বাধীনতা দিবস উদযাপনের কর্মসূচী গ্রহণ করেছে। ঐদিনগত রাত ৮টা থেকে মধ্যরাত ১২:০১ মিনিট পর্যন্ত নানা অনুষ্ঠান থাকবে। অনুষ্ঠানমালার মধ্যে থাকবে: গণহত্যায় শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন, জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মাননা জানানো, দেশের গান ও কবিতা আবৃত্তি, গণহত্যা শীর্ষক সেমিনার ও আলোচনা প্রভৃতি।

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

About Author Information

বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবসে প্রবাসে ব্যাপক আয়োজন

প্রকাশের সময় : ০১:০৫:২১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২২ মার্চ ২০১৬

নিউইয়র্ক: বাংলাদেশের ৪৫তম মহান স্বাধীনতা দিবস ২৬ মার্চ শনিবার। দেশের ন্যায় প্রবাসে দিবসটি পালন উপলক্ষ্যে নিউইয়র্কসহ প্রবাসে নানা প্রস্তুতি শুরু হয়েছে। প্রবাসী বাংলাদেশীদের ‘মাদার সংগঠন’ হিসেবে পরিচিত বাংলাদেশ সোসাইটি ইন্ক ছাড়াও বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন দিবসটি পালন উপলক্ষ্যে কর্মসুচী গ্রহণ করছে। এদিকে ‘একটি বাংলাদেশ তুমি জাগ্রত জনতার, সারা বিশ্বের বিস্ময় তুমি আমার অহংকার……’ এই চেতনাকে সামনে রেখে মুক্তধারা ফাউন্ডেশন উত্তর আমেরিকার সকল বাংলা সংবাদ মাধ্যম এবং সাংস্কৃতিক-সামাজিক-রাজনৈতিক-আঞ্চলিক সংগঠনগুলোর সহযোগিতায় নিউইয়র্কে প্রথমবারের মতো বাংলাদেশের স্বাধীনতার প্যারেড আয়োজন করার উদ্যোগ নিয়েছে। ২৬ মার্চ, শনিবার এই প্যারেড অনুষ্ঠিত হবে। উল্লেখ্য, ২০২১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবসের মহাগৌরবের ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে ছয় বছর ব্যাপী এই কর্মসূচী ঘোষণা করেছে মুক্তধারা ফাউন্ডেশন। খবর ইউএনএ’র।
বাংলাদেশ সোসাইটি: বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতা দিবস উদযাপন উপলক্ষ্যে বাংলাদেশ ২৬ মার্চ রোববার, সন্ধ্যা ৬ টায় সোসাইটি ভবনে (৮৬-২৪ উইটনি এভিনিউ, এলমহাষ্ট, নিউইয়র্ক-১১৩৭২) আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। সোসাইটির সভাপতি আজমল হোসেন কুনু ও সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহিম হাওলাদার মহান স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠানে সকলকে উপস্থিত থাকার জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ জানিয়েছেন।
মুক্তধারা ফাউন্ডেশন: নিউইয়র্কে প্রথমবারের মতো বাংলাদেশের পতাকা হাতে প্যারেডের মাধ্যমে স্বাধীনতা দিবসের কর্মসূচী শুরু করবে নিউইয়র্কের মুক্তধারা। ২৬ মার্চ শনিবার এই প্যারেড হবে। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে যোগ দেবেন বাংলাদেশের আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। বিশেষ অতিথি থাকবেন ওয়াশিংটনে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ জিয়াউদ্দীন, জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি মাসুদ বিন মোমেন এবং নিউইয়র্কে বাংলাদেশের কনসাল জেনারেল শামীম আহসান।
মুক্তধারার কর্ণধার বিশ্বজিত সাহা জানান, জ্যাকসন হাইটসের ডাইভারসিটি প্লাজায় ২৬ মার্চ শনিবার সকাল ১০টা থেকে সমাবেশ এবং সেখান থেকে ৭৩ স্ট্রীট হয়ে পিএস ৬৯ মিলনায়তন পর্যন্ত প্রধান রাস্তা দিয়ে প্যারেড করার অনুমতি পাওয়া গেছে। সকাল ১০টা থেকে সন্ধ্যা সাড়ে ৫টা পর্যন্ত থাকবে স্বাধীনতার গান, কবিতা, আবৃত্তি ও চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা হবে এবং সন্ধ্যা সাড়ে ৫টায় শুরু হবে প্যারেড। পিএস ৬৯ মিলনায়তনে থাকবে স্বাধীনতার চলচ্চিত্র প্রদর্শনী। মুক্তিযুদ্ধের ছবি ও গ্রন্থ প্রদর্শনী। এছাড়া থাকবে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে বহির্বিশ্বে বীরত্বপূর্ণ অবদানের জন্য সম্মাননা প্রদান।
তিনি বলেন, অনুষ্ঠানটি ব্যতিক্রমী ও অর্থবহ করার জন্য ইতিমধ্যে ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে যেসব আমেরিকান অবদান রেখেছেন তাদের সহ নিউইয়র্ক স্টেট এবং সিটির আমেরিকার মূলধারার রাজনীতিবিদ ছাড়াও উত্তর আমেরিকার বিভিন্ন স্থানে বসবাসরত মুক্তিযোদ্ধাদের আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। এ অনুষ্ঠানে যারাই যোগ দেবেন তাদের সকলের হাতে তুলে দেয়া হবে বাংলাদেশের পতাকা। আয়োজকরা জানিয়েছেন, স্বাধীনতা দিবসের ৫০ বছরের রজত জয়ন্তী অনুষ্ঠানে যাতে সকলে সমবেত হতে পারেন তার জন্য সকল সংগঠনের নাম ‘গর্বিত অংশীদার’ হিসেবে প্রকাশ করা হবে বলে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে। আগামী ২৬ মাচর্, শনিবার অনুষ্ঠান শেষে আগামী ৫ বছরের কর্মসূচীও এক এক করে ঘোষণা করা হবে।
এছাড়া কানাডা সহ যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশী অধ্যুষিত বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যে মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষ্যে নানা কর্মসূচী গ্রহণ করেছে বলে জানা গেছে।
চবি এলামনাই এসোসিয়েশন: মহান স্বাধীনতা দিবস পালন উপলক্ষে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় এলামনাই এসোসিয়েশন অব ইউএসএ আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে। ২৫ মার্চ শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টায় জ্যাকসন হাইটস্থ হাটবাজার পার্টি সেন্টারে আয়োজিত অনুষ্ঠানটি সফল করতে সবার সহযোগিতা কামনা করেছেন সংগঠনের সভাপতি প্রফেসর কাজী মু: ইসমাইল ও সাধারণ সম্পাদক এমলাক হোসেন ফয়সাল।
বিয়ানীবাজার সমিতি: মহান স্বাধীনতা দিবস পালন উপলক্ষে বাংলাদেশ বিয়ানীবাজার সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সমিতি ইউএসএ ইন্্ক ২৭ মার্চ রোববার বিকেল চারটায় ওজনপার্কস্থ ফিউশন ক্যাটারিং হল-এ মুক্তিযুদ্ধের উপর শিশু-কিশোরদের চিত্রাঙ্কন, প্রবন্ধ ও কবিতা আবৃত্তি প্রতিযোগিতা, আলোচনা, মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মাননা প্রদান ও শিশু-কিশোরদের পুরষ্কার বিতরণ ও সঙ্গীতানুষ্ঠানের আয়োজন করেছে। অনুষ্ঠানটি সফল করতে আবুল কালামতে আহ্বায়ক, আহমদ মস্তোফাকে যুগ্ম আহ্বায়ক, মোহাম্মদ জহিরুল ইসলামকে সদস্য সচিব, মোহাম্মদ জাকির হোসেনকে যুগ্ম সদস্য সচিব, মোহাম্মদ আমিনুল হোসেনকে সমন্বয়কারী এবং হেলিম উদ্দিনকে অর্থ সচিব করে স্বাধীনতা দিবস উদযাপন কমিটি গঠন করা হয়েছে।
সমিতির সভাপতি মাসুদুল হক ছানু ও সাধারণ সম্পাদক মহিবুর রহমান রুহুল সকল প্রবাসীকে অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকার জন্য আমন্ত্রণ জানিয়েছেন।
এ-এইচ ১৬ ড্রিম ফাউন্ডেশন: বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতা দিবস পালন উপলক্ষ্যে এ-এইচ ১৬ ড্রিম ফাউন্ডেশন ইন্ক আগামী ২৭ মার্চ রোববার সন্ধ্যায় আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে। ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি আলী হোসেন বলেন, ঐদিন সন্ধ্যা ৭টায় জ্যামাইকার পারসন্স বুলেভার্ডস্থ কাঠালবাগান রেষ্টুরেন্টে স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়েছে। অনুষ্ঠানটি সফল করতে তিনি সকল প্রবাসীর সহযোগিতা ও উপস্থিত কামনা করেছেন।
জেনোসাইড’৭১ ফাউন্ডেশন: মহান স্বাধীনতা দিবস পালন উপলক্ষে জেনোসাইড’৭১ ফাউন্ডেশন ইউএসএ ২৫ মার্চ শুক্রবার জ্যাকসন হাইটস্থ পালকি পার্টি সেন্টারে ‘কালরাত্রি’ স্মরণ ও স্বাধীনতা দিবস উদযাপনের কর্মসূচী গ্রহণ করেছে। ঐদিনগত রাত ৮টা থেকে মধ্যরাত ১২:০১ মিনিট পর্যন্ত নানা অনুষ্ঠান থাকবে। অনুষ্ঠানমালার মধ্যে থাকবে: গণহত্যায় শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন, জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মাননা জানানো, দেশের গান ও কবিতা আবৃত্তি, গণহত্যা শীর্ষক সেমিনার ও আলোচনা প্রভৃতি।