নিউইয়র্ক ১০:৪১ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন :
মঙ্গলবারের পত্রিকা সাপ্তাহিক হককথা ও হককথা.কম এ আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন +1 (347) 848-3834

নিউইয়র্ক ষ্টেট বিএনপি’র সম্মেলন স্থগিত ॥ ইসি’র ঘোষণায় নান্নু সভাপতি বাতেন সা. সম্পাদক ॥ পাল্টা কমিটি গঠন

রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : ১০:৩৯:৪৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ অগাস্ট ২০১৬
  • / ৫৭৩ বার পঠিত

নিউইয়র্ক: কেন্দ্রীয় নেতা এহসানুল হক মিলনের তত্ত্বাবধানে অনুষ্ঠিতব্য নিউইয়র্ক ষ্টেট বিএনপি’র সম্মেলন স্থগিত ঘোষণা করা হয়েছে। এদিকে ষ্টেট বিএনপি’র সম্মেলন ঘিরে গঠিত নির্বাচন কমিশন (ইসি) নতুন কমিটি ঘোষণা করেছে। ইসি কর্তৃক আনঅফিসিয়াল ঘোষিত কমিটিতে বিএনপি নেতা মাহফুজুল মাওলা নান্নুকে সভাপতি এবং কেন্দ্রীয় যুবদলের সহ আন্তর্জাতিক সম্পাদক এম এ বাতিনকে সাধারণ সম্পাদক (বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত) করা হয়েছে। অপরদিকে যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি’র অপরাংশের নেতা-কর্মীরা পাল্টা নিউইয়র্ক ষ্টেট বিএনপি’র সম্মেলন আহ্বান করে। ১৩ আগষ্ট শনিবার পাল্টা-পাল্টি সম্মেলন হওয়ার কথা ছিলো কিন্তু তা হয়নি। অপরদিকে ষ্টেট কমিটির গঠন নিয়ে চাঁদাবাজীর অভিযোগ উঠেছে কেন্দ্রীয় নেতার বিরুদ্ধে।
যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি নয়, দীর্ঘদিন পর অনুষ্ঠিতব্য নিউইয়র্ক ষ্টেট বিএনপি’র সম্মেলন ঘিরে যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি’র নেতা-কর্মীরা আবার দ্বিধা-বিভক্ত হয়ে পড়েছেন। যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি’র কমিটি বাদ দিয়ে নিউইয়র্ক ষ্টেট বিএনপি’র কমিটি ও নির্বাচন কমিশন এবং সম্মেলনের মাধ্যমে এই কমিটি গঠন প্রক্রিয়াকে কেন্দ্র করে মূলত: বিভক্ত দলীয় নেতা-কর্মীরা। কেন্দ্রীয় নেতা মিলনের তত্ত্বাবধানে যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির সাবেক সভাপতি আব্দুল লতিফ স¤্রাট, সাবেক সিনিয়র সহ সভাপতি গিয়াস আহমেদ, সাবেক সহ সভাপতি মনজুর আহমেদ চৌধুরী প্রমুখ নেতৃত্বাধীন যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি’র একটি অংশ এই প্রক্রিয়াকে স্বাগত জানান। অপরদিকে যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি’র প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ডা. মজিবুর রহমান মজুমদার, সাবেক সাধারণ সম্পাদক জিল্লুর রহমান জিল্লু, সাবেক সিনিয়র সহ সভাপতি শরাফত হোসেন বাবু, সাবেক যুগ্ম সম্পাদক আকতার হোসেন বাদল, সাবেক কোষাধ্যক্ষ জসিম ভুঁইয়া প্রমুখ নেতৃত্বাধীন যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি’র অপরাংশের নেতা-কর্মীরা নিউইয়র্ক ষ্টেট বিএনপি’র কমিটি গঠন প্রক্রিয়ার বিরোধীতা করেন। পরষ্পর বিরোধী অবস্থানে থেকে উভয় গ্রুপের সভা-সমাবেশ চলতে থাকে। এরই মধ্যে এহসানুল হক মিলনের তত্বাবধানে গঠিত ষ্টেট বিএনপি’র সম্মেলনের জন্য নির্বাচন কমিশন নির্বাচনী তফসীল ঘোষণা এবং ১৩ আগষ্ট শনিবার সম্মেলনের দিন নির্ধারণ করেন। এই ঘোষণার পর ইতিপূর্বে বিভক্ত নিউইয়র্ক ষ্টেট বিএনপি’র সভাপতি মাওলানা অলিউল্লাহ মোহাম্মদ আতিকুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক সাইদুর রহমান সাঈদ একই দিন (১৩ আগষ্ট) পাল্টা সম্মেলন আহ্বান করেন। এই সম্মেলনের ব্যাপারে ডা. মুজিব-জিল্লুদের সমর্থন ছিলো বলে জানা যায়। ঐদিন বিকেল ৫টায় জ্যাকসন হাইটস্থ পালকি পার্টি সেন্টারে এই সম্মেলন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও শেষ পর্যন্ত সম্মেলন হয়নি। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, কেন্দ্রীয় নেতাদের পরামর্শে ‘আতিক-সাঈদ’ নেতৃত্তাধীন সম্মেলন আপাতত: স্থগিত করা হয়েছে। সূত্র মতে, অচিরেই দলীয় নেতা-কর্মীদের নিয়ে নিউইয়র্ক ষ্টেট বিএনপি’র আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হবে।
কেন্দ্রীয় নেতা মিলনের তত্বাবধানে অনুষ্ঠিতব্য নিউইয়র্ক ষ্টেট বিএনপি’র সম্মেলন সফল ও কমিটি গঠনের লক্ষ্যে মাথাপিছু এক ডলারের বিনিময়ে নিউইয়র্ক ষ্টেট বিএনপি’র সদস্যপদ গ্রহণ করেন দুই হাজার ৩০০ জন। এরপর নির্বাচন কমিশনের তফসিল অনুযায়ী নির্ধারিত অর্থের বিনিময়ে মনোনয়ন পত্রও ক্রয় করেন প্রার্থীরা। মনোনয়নপত্র জমাও নেয়া হয়। পারভেজ-লিটু’র নেতৃত্বে একটি আর নান্নু-বাতিন’র নেতৃত্বে আরেকটি প্যানেল তাদের মনোনয়নপত্র জমা দেন। কিন্তু ১০ আগস্ট মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন ‘পারভেজ-লিটু’ প্যানেলের পারভেজ সাজ্জাদ (সভাপতি প্রার্থী) ও মতিউর রহমান লিটু (সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী)’র নেতৃত্বাধীন প্যানেলের সকলেই তাদের মনোনয়ন প্রত্যাহার করেন।
এদিকে বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির পুন: মনোনীত আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ও সাবেক শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী এহসানুল হক মিলন ১১ আগস্ট বৃহস্পতিবার দুপুরে এক টেক্সট মেসেজ বার্তার মাধ্যমে ষ্টেট বিএনপি’র সস্মেলন স্থগিতের নির্দেশ দেন। কেন্দ্রীয় নেতা মিলনের আকস্মিক এই বার্তায় হতভম্ব হয়ে পড়েন দলীয় নেতা-কর্মীরা। বার্তায় ১৩ আগস্টের সম্মেলন ‘অনিবার্য কারণবশত: আপাতত: স্থগিত’র ঘোষণা করা হয়।
কেন্দ্রীয় নেতা মিলন কর্র্তৃক সস্মেলন স্থগিত করার ঘোষণাকে ‘চাঁদাবাজি আর ধাপ্পাবাজির অভিনব কৌশল হিসেবে অভিহিত’ করেন যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি’র সাবেক যুগ্ম সম্পাদক আকতার হোসেন বাদল ও পাল্টা সম্মেলন আহ্বানকারী নিউইয়র্ক ষ্টেট বিএনপির বিদ্যমান কমিটির সভাপতি মাওলানা অলিউল¬াহ মোহাম্মদ আতিকুর রহমান সহ একাধিক নেতা-কর্মী। তারা মিলনের বিরুদ্ধে ষ্টেট কমিটি গঠনের নামে চাঁদাবাজীরও অভিযোগ তোলেন ।
অপরদিকে নিউইয়র্ক ষ্টেট বিএিনপি’র সম্মেলন তথা নির্বাচন পরিচালনার জন্য গঠিত নির্বাচন কমিশন (ইসি) তফসিল অনুযায়ী চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা ১১ আগস্ট বৃহস্পতিবার রাতে প্রকাশ করা হয়। এতে মাহফুজুল মাওলা নান্নুকে সভাপতি, মো: আবু তাহেরকে সিনিয়র সহ সভাপতি, এম এ বাতিনকে সাধারণ সম্পাদক, মো: সোহরাব হোসেনকে সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক, মো: খলকু মিয়াকে সাংগঠনিক সম্পাদক এবং মো: এস সাদীকে কোষাধ্যক্ষ পদে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত (আনঅফিসিয়াল) ঘোষণা করা হয়। ষ্টেট বিএনপির সম্মেলনের জন্যে গঠিত নির্বাচন কমিশনের প্রধান এম আজিজ, কমিশনের সদস্য অধ্যাপক দেলোয়ার হোসেন, এডভোকেট জামাল আহমেদ জনি, আজহারুল হক মিলন, এডভোকেট এম এ আজিজ এবং ফারুক মজুমদারের উপস্থিতিতে এবং তাদের স্বাক্ষরিত প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে চুড়ান্ত প্রার্থী তালিকা তথা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজয়ীদের তালিকা প্রকাশ করা হয়। এই তালিকা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকেও পোষ্ট করা হয়।
নিউইয়র্ক ষ্টেট বিএনপি’র সাম্প্রতিক ঘটনার ব্যাপারে এহসানুল হক মিলনের সাথে ফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।
এব্যাপারে ষ্টেট বিএনপি’র সভাপতি পদের অন্যতম প্রার্থী পারভেজ সাজ্জাদের সাথে যোগাযোগ করা হতে ১২ আগষ্ট শুক্রবার তিনি এই প্রতিবেদককে বলেন, কি আর বলবো। যা দেখছেন, শুনছেন তাই। জনাব মিলন সাহেব যা বলেছেন, তাই করেছি। তিনি মনোননয়নপত্র নিতে বলেছিলেন, মনোনয়নপত্র নিয়েছিলাম। আবার প্রত্যাহার করতে বলেছেন, প্রত্যাহার করেছি। এর চেয়ে আর কিছু বলার নেই।
আরো একটি পাল্টা কমিটি: রোববার রাতে প্রেরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে: গত ১৩ আগষ্ট শনিবার রাত ১১টা ৩০ মিনিটে জ্যাকসন হাইটসের নর্দান বুলুভার্ডস্থ টেষ্ট অফ লাহোর রেষ্টুরেন্ট-এ নিউইয়র্ক ষ্টেট বিএনপি’র সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ এ.কে. আজাদ-এর আহ্বানে কার্যকরী কমিটির এক জরুরী সভা আনুষ্ঠিত হয়। সভায় ইমরান শাহ্ রনকে সভাপতি ও দেলোয়ার হোসেন শিপনকে সাধারণ সম্পাদক করে নিউইয়র্ক ষ্টেট বিএনপি’র কমিটি গঠন করা হয়। সভায় বাংলাদেশে বিরাজমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জাাতিসংঘ সফরকালীন সময়ে নিউইয়র্ক ষ্টেট বিএনপি’র প্রতিরোধ কর্মসূচী সংক্রান্ত বিস্তারিত আলোচনা করা হয়। (সাপ্তাহিক বাংলা পত্রিকা)

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

About Author Information

নিউইয়র্ক ষ্টেট বিএনপি’র সম্মেলন স্থগিত ॥ ইসি’র ঘোষণায় নান্নু সভাপতি বাতেন সা. সম্পাদক ॥ পাল্টা কমিটি গঠন

প্রকাশের সময় : ১০:৩৯:৪৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ অগাস্ট ২০১৬

নিউইয়র্ক: কেন্দ্রীয় নেতা এহসানুল হক মিলনের তত্ত্বাবধানে অনুষ্ঠিতব্য নিউইয়র্ক ষ্টেট বিএনপি’র সম্মেলন স্থগিত ঘোষণা করা হয়েছে। এদিকে ষ্টেট বিএনপি’র সম্মেলন ঘিরে গঠিত নির্বাচন কমিশন (ইসি) নতুন কমিটি ঘোষণা করেছে। ইসি কর্তৃক আনঅফিসিয়াল ঘোষিত কমিটিতে বিএনপি নেতা মাহফুজুল মাওলা নান্নুকে সভাপতি এবং কেন্দ্রীয় যুবদলের সহ আন্তর্জাতিক সম্পাদক এম এ বাতিনকে সাধারণ সম্পাদক (বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত) করা হয়েছে। অপরদিকে যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি’র অপরাংশের নেতা-কর্মীরা পাল্টা নিউইয়র্ক ষ্টেট বিএনপি’র সম্মেলন আহ্বান করে। ১৩ আগষ্ট শনিবার পাল্টা-পাল্টি সম্মেলন হওয়ার কথা ছিলো কিন্তু তা হয়নি। অপরদিকে ষ্টেট কমিটির গঠন নিয়ে চাঁদাবাজীর অভিযোগ উঠেছে কেন্দ্রীয় নেতার বিরুদ্ধে।
যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি নয়, দীর্ঘদিন পর অনুষ্ঠিতব্য নিউইয়র্ক ষ্টেট বিএনপি’র সম্মেলন ঘিরে যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি’র নেতা-কর্মীরা আবার দ্বিধা-বিভক্ত হয়ে পড়েছেন। যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি’র কমিটি বাদ দিয়ে নিউইয়র্ক ষ্টেট বিএনপি’র কমিটি ও নির্বাচন কমিশন এবং সম্মেলনের মাধ্যমে এই কমিটি গঠন প্রক্রিয়াকে কেন্দ্র করে মূলত: বিভক্ত দলীয় নেতা-কর্মীরা। কেন্দ্রীয় নেতা মিলনের তত্ত্বাবধানে যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির সাবেক সভাপতি আব্দুল লতিফ স¤্রাট, সাবেক সিনিয়র সহ সভাপতি গিয়াস আহমেদ, সাবেক সহ সভাপতি মনজুর আহমেদ চৌধুরী প্রমুখ নেতৃত্বাধীন যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি’র একটি অংশ এই প্রক্রিয়াকে স্বাগত জানান। অপরদিকে যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি’র প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ডা. মজিবুর রহমান মজুমদার, সাবেক সাধারণ সম্পাদক জিল্লুর রহমান জিল্লু, সাবেক সিনিয়র সহ সভাপতি শরাফত হোসেন বাবু, সাবেক যুগ্ম সম্পাদক আকতার হোসেন বাদল, সাবেক কোষাধ্যক্ষ জসিম ভুঁইয়া প্রমুখ নেতৃত্বাধীন যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি’র অপরাংশের নেতা-কর্মীরা নিউইয়র্ক ষ্টেট বিএনপি’র কমিটি গঠন প্রক্রিয়ার বিরোধীতা করেন। পরষ্পর বিরোধী অবস্থানে থেকে উভয় গ্রুপের সভা-সমাবেশ চলতে থাকে। এরই মধ্যে এহসানুল হক মিলনের তত্বাবধানে গঠিত ষ্টেট বিএনপি’র সম্মেলনের জন্য নির্বাচন কমিশন নির্বাচনী তফসীল ঘোষণা এবং ১৩ আগষ্ট শনিবার সম্মেলনের দিন নির্ধারণ করেন। এই ঘোষণার পর ইতিপূর্বে বিভক্ত নিউইয়র্ক ষ্টেট বিএনপি’র সভাপতি মাওলানা অলিউল্লাহ মোহাম্মদ আতিকুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক সাইদুর রহমান সাঈদ একই দিন (১৩ আগষ্ট) পাল্টা সম্মেলন আহ্বান করেন। এই সম্মেলনের ব্যাপারে ডা. মুজিব-জিল্লুদের সমর্থন ছিলো বলে জানা যায়। ঐদিন বিকেল ৫টায় জ্যাকসন হাইটস্থ পালকি পার্টি সেন্টারে এই সম্মেলন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও শেষ পর্যন্ত সম্মেলন হয়নি। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, কেন্দ্রীয় নেতাদের পরামর্শে ‘আতিক-সাঈদ’ নেতৃত্তাধীন সম্মেলন আপাতত: স্থগিত করা হয়েছে। সূত্র মতে, অচিরেই দলীয় নেতা-কর্মীদের নিয়ে নিউইয়র্ক ষ্টেট বিএনপি’র আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হবে।
কেন্দ্রীয় নেতা মিলনের তত্বাবধানে অনুষ্ঠিতব্য নিউইয়র্ক ষ্টেট বিএনপি’র সম্মেলন সফল ও কমিটি গঠনের লক্ষ্যে মাথাপিছু এক ডলারের বিনিময়ে নিউইয়র্ক ষ্টেট বিএনপি’র সদস্যপদ গ্রহণ করেন দুই হাজার ৩০০ জন। এরপর নির্বাচন কমিশনের তফসিল অনুযায়ী নির্ধারিত অর্থের বিনিময়ে মনোনয়ন পত্রও ক্রয় করেন প্রার্থীরা। মনোনয়নপত্র জমাও নেয়া হয়। পারভেজ-লিটু’র নেতৃত্বে একটি আর নান্নু-বাতিন’র নেতৃত্বে আরেকটি প্যানেল তাদের মনোনয়নপত্র জমা দেন। কিন্তু ১০ আগস্ট মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন ‘পারভেজ-লিটু’ প্যানেলের পারভেজ সাজ্জাদ (সভাপতি প্রার্থী) ও মতিউর রহমান লিটু (সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী)’র নেতৃত্বাধীন প্যানেলের সকলেই তাদের মনোনয়ন প্রত্যাহার করেন।
এদিকে বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির পুন: মনোনীত আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ও সাবেক শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী এহসানুল হক মিলন ১১ আগস্ট বৃহস্পতিবার দুপুরে এক টেক্সট মেসেজ বার্তার মাধ্যমে ষ্টেট বিএনপি’র সস্মেলন স্থগিতের নির্দেশ দেন। কেন্দ্রীয় নেতা মিলনের আকস্মিক এই বার্তায় হতভম্ব হয়ে পড়েন দলীয় নেতা-কর্মীরা। বার্তায় ১৩ আগস্টের সম্মেলন ‘অনিবার্য কারণবশত: আপাতত: স্থগিত’র ঘোষণা করা হয়।
কেন্দ্রীয় নেতা মিলন কর্র্তৃক সস্মেলন স্থগিত করার ঘোষণাকে ‘চাঁদাবাজি আর ধাপ্পাবাজির অভিনব কৌশল হিসেবে অভিহিত’ করেন যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি’র সাবেক যুগ্ম সম্পাদক আকতার হোসেন বাদল ও পাল্টা সম্মেলন আহ্বানকারী নিউইয়র্ক ষ্টেট বিএনপির বিদ্যমান কমিটির সভাপতি মাওলানা অলিউল¬াহ মোহাম্মদ আতিকুর রহমান সহ একাধিক নেতা-কর্মী। তারা মিলনের বিরুদ্ধে ষ্টেট কমিটি গঠনের নামে চাঁদাবাজীরও অভিযোগ তোলেন ।
অপরদিকে নিউইয়র্ক ষ্টেট বিএিনপি’র সম্মেলন তথা নির্বাচন পরিচালনার জন্য গঠিত নির্বাচন কমিশন (ইসি) তফসিল অনুযায়ী চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা ১১ আগস্ট বৃহস্পতিবার রাতে প্রকাশ করা হয়। এতে মাহফুজুল মাওলা নান্নুকে সভাপতি, মো: আবু তাহেরকে সিনিয়র সহ সভাপতি, এম এ বাতিনকে সাধারণ সম্পাদক, মো: সোহরাব হোসেনকে সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক, মো: খলকু মিয়াকে সাংগঠনিক সম্পাদক এবং মো: এস সাদীকে কোষাধ্যক্ষ পদে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত (আনঅফিসিয়াল) ঘোষণা করা হয়। ষ্টেট বিএনপির সম্মেলনের জন্যে গঠিত নির্বাচন কমিশনের প্রধান এম আজিজ, কমিশনের সদস্য অধ্যাপক দেলোয়ার হোসেন, এডভোকেট জামাল আহমেদ জনি, আজহারুল হক মিলন, এডভোকেট এম এ আজিজ এবং ফারুক মজুমদারের উপস্থিতিতে এবং তাদের স্বাক্ষরিত প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে চুড়ান্ত প্রার্থী তালিকা তথা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজয়ীদের তালিকা প্রকাশ করা হয়। এই তালিকা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকেও পোষ্ট করা হয়।
নিউইয়র্ক ষ্টেট বিএনপি’র সাম্প্রতিক ঘটনার ব্যাপারে এহসানুল হক মিলনের সাথে ফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।
এব্যাপারে ষ্টেট বিএনপি’র সভাপতি পদের অন্যতম প্রার্থী পারভেজ সাজ্জাদের সাথে যোগাযোগ করা হতে ১২ আগষ্ট শুক্রবার তিনি এই প্রতিবেদককে বলেন, কি আর বলবো। যা দেখছেন, শুনছেন তাই। জনাব মিলন সাহেব যা বলেছেন, তাই করেছি। তিনি মনোননয়নপত্র নিতে বলেছিলেন, মনোনয়নপত্র নিয়েছিলাম। আবার প্রত্যাহার করতে বলেছেন, প্রত্যাহার করেছি। এর চেয়ে আর কিছু বলার নেই।
আরো একটি পাল্টা কমিটি: রোববার রাতে প্রেরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে: গত ১৩ আগষ্ট শনিবার রাত ১১টা ৩০ মিনিটে জ্যাকসন হাইটসের নর্দান বুলুভার্ডস্থ টেষ্ট অফ লাহোর রেষ্টুরেন্ট-এ নিউইয়র্ক ষ্টেট বিএনপি’র সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ এ.কে. আজাদ-এর আহ্বানে কার্যকরী কমিটির এক জরুরী সভা আনুষ্ঠিত হয়। সভায় ইমরান শাহ্ রনকে সভাপতি ও দেলোয়ার হোসেন শিপনকে সাধারণ সম্পাদক করে নিউইয়র্ক ষ্টেট বিএনপি’র কমিটি গঠন করা হয়। সভায় বাংলাদেশে বিরাজমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জাাতিসংঘ সফরকালীন সময়ে নিউইয়র্ক ষ্টেট বিএনপি’র প্রতিরোধ কর্মসূচী সংক্রান্ত বিস্তারিত আলোচনা করা হয়। (সাপ্তাহিক বাংলা পত্রিকা)