নিউইয়র্ক ০১:১৭ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন :
মঙ্গলবারের পত্রিকা সাপ্তাহিক হককথা ও হককথা.কম এ আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন +1 (347) 848-3834

নিউইয়র্কে একুশ পালনে ব্যাপক কর্মসূচী

রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : ১০:৪৫:২১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০১৬
  • / ১০৮৯ বার পঠিত

নিউইয়র্ক: অমর একুশে মহান শহীদ দিবস তথা আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস সমাগত। আগামী সপ্তাহেই অমর একুশে। যথাযোগ্য মর্যাদায় একুশ পালনের লক্ষ্যে প্রবাসে তথা নিউইয়র্কসহ উত্তর আমেরিকায় ব্যাপক কর্মসূচী গ্রহণ করা হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী বাংলাদেশীদের মাদার সংগঠন হিসেবে পরিচিত বাংলাদেশ সোসাইটি ইন্ক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলামনাই অ্যাসোসিয়েশন সহ বাংলাদেশ দূতাবাস, জাতিসংঘের বাংলাদেশ মিশন, বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন এককভাবে/যৌথভাবে অমর একুশে পালনের উদ্যোগ নিয়েছে। উল্লেখ্য, বাংলা ভাষার মর্যাদার দাবীতে ১৯৫২ সালে আতœত্যাগকারী বীর শহীদদের স্মরণে পরের বছর থেকেই দিনটি পালিত হয়ে আসছে। সালে জাতিসংঘের এদিকে অমর একুশ স্মরণে ভাষার মাস ফেব্রুয়ারীর শুরুতে জাতিসংঘ ভবনের সামনে মাসব্যাপাী প্রদর্শের জন্য স্থাপিত হয়েছে ‘একুশের ভাস্কর্য’।
ইতিহাস বলে, অমর একুশে ফেব্রুয়ারী বাংলাদেশের জনগণের গৌরবোজ্জ্বল একটি দিন। এটি শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসাবেও সুপরিচিত। বাঙালী জনগণের মায়ের ভাষা ‘বাংলা ভাষা’র মর্যাদা প্রতিষ্ঠার আন্দোলনের মর্মন্তুদ ও গৌরবোজ্জ্বল স্মৃতিবিজড়িত একটি দিন হিসেবে চিহ্নিত হয়ে আছে। ১৯৫২ সালের এই দিনে (৮ ফাল্গুন, ১৩৫৯) বাংলাকে পাকিস্তানের অন্যতম রাষ্ট্রভাষা করার দাবিতে আন্দোলনরত ছাত্রদের ওপর পুলিশের গুলিবর্ষণে রফিক, সালাম, জব্বার সহ কয়েকজন তরুণ শহীদ হন। ফলে দিনটি ‘শহীদ দিবস’ হিসেবে চিহ্নিত হয়। কানাডার ভ্যানকুভার শহরে বসবাসরত দুই বাঙ্গালী রফিকুল ইসলাম (মরহুম) এবং আবদুস সালাম প্রাথমিক উদ্যোক্তা হিসেবে একুশে ফেব্রুয়ারীকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে ঘোষণার জন্য ১৯৯৮ সালে জাতিসংঘের মহাসচিব কফি আনানের কাছে আবেদন জানিয়েছিলেন। তাদের এই আবেদনের পর গণ প্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার সহ বিভিন্ন মহলের দাবীর প্রেক্ষিতে ১৯৯৯ সালের ১৭ নভেম্বর অনুষ্ঠিত ইউনেস্কোর প্যারিস অধিবেশনে একুশে ফেব্রুয়ারীকে ‘আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস’ হিসেবে ঘোষণা করা হয় এবং ২০০০ সালের ২১ ফেব্রুয়ারী থেকে দিবসটি জাতিসংঘের সদস্যদেশসমূহে যথাযথ মর্যাদায় পালিত হচ্ছে। ২০১০ সালের ২১ অক্টোবর বৃহস্পতিবার জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৬৫তম অধিবেশনে ‘এখন থেকে প্রতিবছর একুশে ফেব্রুয়ারী আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন করবে জাতিসংঘ’ সংক্রান্ত একটি প্রস্তাব সর্বসম্মতভাবে পাস হয়। আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালনের প্রস্তাবটি সাধারণ পরিষদের ৬৫তম অধিবেশনে উত্থাপন করে বাংলাদেশ। একই বছরের মে মাসে ১১৩ সদস্যবিশিষ্ট জাতিসংঘের তথ্যবিষয়ক কমিটিতে প্রস্তাবটি সর্বসম্মতভাবে পাস হয়।
আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষ্যে বাংলাদেশ সোসাইটি ইন্্ক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলামনাই এসোসিয়েশন, জালালাবাদ এসোসিয়েশন অব আমেরিকা ইন্্ক, মুক্তধারা ও বাঙালীর চেতনা মঞ্চসহ প্রবাসের বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন বিস্তারিত কর্মসূচী গ্রহণ করেছে।
বাংলাদেশ সোসাইটি: অমর একুশে ফেব্রুয়ারী তথা আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস সম্মিলিতভাবে পালন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে প্রবাসী বাংলাদেশীদের মাদার সংগঠন হিসেবে পরিচিত বাংলাদেশ সোসাইটি ইন্্ক। একুশের অনুষ্ঠান সফল করতে গঠন করা হয়েছে কমিটি। এই কমিটির আহ্বায়ক- ফারুক হোসেন মজুমদার, সদস্য সচিব- সৈয়দ এম কে জামান, প্রধান সমন্বয়কারী- ওসমান চৌধুরী, সমন্বয়কারী- এ কে এম রফিকুল ইসলাম ডালিম, সদস্য- মহিউদ্দিন দেওয়ান, কাজী তোফায়েল ইসলাম, সৈয়দ এনায়েত আলী, নাদির এ আইয়ুব, সিরাজুল হক জামাল, আবুল কাশেম চৌধুরী ও সৈয়দ ইলিয়াস আলী। অনুষ্ঠানমালার মধ্যে থাকবে- শিশু-কিশোর প্রতিযোগিতা, আলোচানা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, স্মরণিকা প্রকাশ ও ঢাকার শহীদ মিনারের আদলে নির্মিত অস্থায়ী শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ। জ্যাকসন হাইটসের ৭২-১১ রুজভেল্ট এভিনিউস্থ নান্দুস ব্যাঙ্কুইটে ২০ ফেব্রুয়ারী শনিবার বিকেল ৫টা থেকে একুশের প্রথম প্রহর পর্যন্ত এসব কর্মসূচী চলবে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি থাকবেন নিউইয়র্কস্থ বাংলাদেশ কনস্যুলেটে নিযুক্ত কনসাল জেনারেল শামীম আহসান। এদিকে একুশের অনুষ্ঠান সফল করতে সোসাইটির উদ্যোগে গত ৭ ফেব্রুয়ারী সোসাইটি কার্যালয়ে বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দের সাথে মতবিনিময় সভার আয়োজন করা হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন সোসাইটির সভাপতি আজমল হোসেন কুনু এবং সভা পরিচালনা করেন সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহিম হাওলাদার।
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলামনাই এসোসিয়েশন: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলামনাই এসোসিয়েশনের উদ্যোগে সম্মিলত মহান একুশ উদযাপন কমিটির আয়োজনে একুশের অনুষ্ঠানমালায় থাকবে- শিশু-কিশোরদের মেধা প্রতিযোগিতা, আলোচনা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, স্মরণিকা প্রকাশ ও ঢাকার শহীদ মিনারের আদলে নির্মিত অস্থায়ী শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশন করবে বাংলাদেশ একাডেমী অব ফাইন আর্টস, বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অব পারফর্মিং আর্টস (বিপা), উদীচী যুক্তরাষ্ট্র, সুর-ছন্দ শিল্পী গোষ্ঠী, সঙ্গীত পরিষদ, বহ্নিশিখা সঙ্গীত নিকেতন, সুরবাহার বাংলাদেশ কালচারাল একাডেমী, শব্দ রিসাইটেশন ইন্সটিটিউট এন্ড কালচারাল মিডিয়া এবং সৃষ্টি একাডেমী অব পারফর্মিং আর্টস, নিউজার্সী। শিশু-কিশোরদের মেধা প্রতিযোগিতা-২০১৬ হবে ১৪ ফেব্রুয়ারী সকাল ১১টায় জ্যাকসন হাইটস্থ পিএস ৬৯ মিলনায়তনে। অপরদিকে ২০ ফেব্রয়ারী একুশের মূল অনুষ্ঠান হবে এস্টোরিয়াস্থ এনটিভি ভবন মিলনায়তনে। এদিন বিকেল ৫টা থেকে একুশের প্রথম প্রহর পর্যন্ত অনুষ্ঠান চলবে।
জালালাবাদ এসোসিয়েশন: প্রতিবছরের মতো এবছরও মহান শহীদ দিবস তথা আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন করবে জালালাবাদ এসোসিয়েশন অব আমেরিকা ইন্্ক। চলতি বছর জালালাবাদ এসোসিয়েশন বাংলাদেশ সোসাইটির সাথে সম্মিলিতভাবে একুশ পালন করবে।
মুক্তধারা ফাউন্ডেশন ও বাঙালীর চেতনা মঞ্চ: অন্যান্য বছরের মতো এবছরও জাতিসংঘ ভবনের সামনে অস্থায়ী শহীদ মিনার নির্মাণ করে অমর একুশে মহান শহীদ দিবস তথা আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন করবে মুক্তধারা ফাউন্ডেশন ও বাঙালীর চেতনা মঞ্চ। একুশ স্মরণে মুক্তধারা ফাউন্ডেশন ও বাঙালীর চেতনা মঞ্চের উদ্যোগে ইতিমধ্যেই জাতিসংঘ ভবনের সামনে (৪৭ স্ট্রীট ও ফাস্ট এভিনিউ) মাসব্যাপাী প্রদর্শের জন্য স্থাপিত হয়েছে ‘একুশের ভাস্কর্য’। এদিকে এবারই প্রথম বাংলাদেশ সময় ২০ ফেব্রুয়ারী রাত ১২টা এক মিনিটে (নিউইয়র্ক সময় ২০ ফেব্রুয়ারী দুপুর একটা এক মিনিটি) জাতিসংঘ ভবনের সামনে নির্মিত অস্থায়ী শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণের মধ্য দিয়ে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানোর উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এছাড়াও একুশেরগ্রন্থমেলা আয়োজিত হবে ২৭-২৮ ফেব্রুয়ারী জ্যাকসন হাইটস্থ পিএস ৬৯ মিলনায়তনে (৭৭ ষ্ট্রীট ও ৩৭ এভিনিউ)। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি থাকবেন বাংলাদেশের অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত এবং আমন্ত্রিত অতিথি থাকবেন যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ জিয়াউদ্দিন, জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি ও রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন ও নিউইয়র্কস্থ বাংলাদেশ কনস্যুলেটে নিযুক্ত কনসাল জেনারেল শামীম আহসান।
জ্যামাইকা বাংলাদেশ ফ্রেন্ডস সোসাইটি: অমর একুশে পালন উপলক্ষ্যে জ্যামাইকা বাংলাদেশ ফ্রেন্ডস সোসাইটি ২০ ফেব্রুয়ারী জ্যামাইকায় অস্থায়ী শহীদ মিনার নির্মাণ সহ বিভিন্ন অনুষ্ঠানমালা গ্রহণ করেছে। জ্যামাইকার হিলসাইড এভিনিউস্থ এক্সিট রিয়েলটি মিলনায়তনে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে। সন্ধ্যা ৬টা থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত অনুষ্ঠান চলবে। অনুষ্ঠানমালার মধ্যে থাকবে আলোচনা, সঙ্গীতানুষ্ঠান, একুশের প্রথম প্রহরে শহীদ বেদীতে পুষ্পস্তবক অর্পণ প্রভৃতি। গত ৮ ফেব্রুয়ারী সোমবার সন্ধ্যায় স্থানীয় কিং কাবাব রেষ্টুরেন্টে অনুষ্ঠিত ফ্রেন্ডস সোসাইটির কার্যবরী কমিটির সভায় একুশে পালনে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়। সংগঠনের সভাপতি সাইফুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভা পরিচালনা করেন সাধারণ সম্পাদক রেজাউল আজাদ ভূঁইয়া। এদিকে একুশের অনুষ্ঠান সফল করতে সংগঠনের অন্যতম উপদেষ্টা সালেহ আহমেদকে কনভেনর, সাবেক সভাপতি মোহাম্মদ মনির হোসেনকে সিনিয়র এক্সিকিউটিভ কো কনভেনর, সাংস্কৃতিক সম্পাদিক জয়ন্তী ভট্টাচার্যকে মেম্বার সেক্রেটারী ও যুগ্ম সম্পাদক ইফজাল আহমেদ চৌধুরীকে সিনিয়র এক্সিকিউটিভ মেম্বার সেক্রেটারী এবং সহ সভাপতি শেখ আসনার আলীকে প্রধান সমন্বয়কারী করে ‘একুশ পালন কমিটি’ গঠন করা হয়েছে।
ব্রঙ্কস সম্মিলিত একুশে উদযাপন: ব্রঙ্কসে সম্মিলিতভাবে বিভিন্ন সংগঠনের উদ্যোগে একুশ উদযাপন করা হবে ২০ ফেব্রুয়ারী ৫:৩০ মিনিট থেকে একুশের প্রথম প্রহর পর্যন্ত স্থানীয় গোল্ডেন প্যালেস পার্টি হলে।
এছাড়া জেবিবিএ, জ্যামাইকা থিয়েটার সহ প্রবাসের বিভিন্ন মহান একুশ স্মরণে বিস্তারিত কর্মসূচী গ্রহণ করেছে।
ফিলাডেলফিয়া:
ফিলাডেলফিয়া থেকে এম.এ.কালাম (শরীফ) জানান: পেনসেলভেনিয়ার ফিলাডেলফিয়াতে (৪৮ ইস্ট বাল্টিমোর এভিনিউ, ক্লিফটন হাইট) আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন উপলক্ষ্যে আন্তর্জাতিক শিল্পকলা কেন্দ্র আয়োজন করছে দু’দিন ব্যাপী মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, নতুন লেখক-প্রকাশকদের বইয়ের মোড়ক উন্মোচন, প্রভাতফেরী প্রভৃতি অনুষ্ঠানের। এসব অনুষ্ঠানমালর মধ্যে থাকবে ২০ ফেব্রুয়ারী শনিবার সন্ধ্যা ৬টায় বই মেলার উদ্বোধন এবং চিত্রকলা প্রদর্শনী, সন্ধ্যা ৭টায় দেশাত্মবোধক গান ও নৃত্যের সমন্বয়ে সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা, একুশের অবিনাশী কবিতা আবৃত্তি, আলোচনা সভা ও একুশে পদক বিতরণী। রাত ১১.৩০ মিনিটে থাকবে অনুষ্ঠানে আগত অতিথিবৃন্দের সম্মানে বিশেষ খাবারের আয়োজন। রাত ১২.০১ মিনিটে প্রভাতফেরী এবং শহীদ মিনারে ১৯৫২ সালে ভাষা আন্দোলনে শহীদদের স্মরণে পুস্পস্তবক অর্পণ।
২১ ফেব্রুয়ারী রোববার সন্ধ্যা ৭টায় স্থানীয় শিল্পী ও কলাকুশলীদের অংশগ্রহণে সাংস্কৃতিক অবতারণা, রাত ৮টায় নজরুল একাডেমি, নিউইয়র্কের উদ্যোগে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান এবং রণসঙ্গীত। রাত ৯টায় আলোকচিত্রী প্রদর্শনী।

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

About Author Information

নিউইয়র্কে একুশ পালনে ব্যাপক কর্মসূচী

প্রকাশের সময় : ১০:৪৫:২১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০১৬

নিউইয়র্ক: অমর একুশে মহান শহীদ দিবস তথা আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস সমাগত। আগামী সপ্তাহেই অমর একুশে। যথাযোগ্য মর্যাদায় একুশ পালনের লক্ষ্যে প্রবাসে তথা নিউইয়র্কসহ উত্তর আমেরিকায় ব্যাপক কর্মসূচী গ্রহণ করা হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী বাংলাদেশীদের মাদার সংগঠন হিসেবে পরিচিত বাংলাদেশ সোসাইটি ইন্ক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলামনাই অ্যাসোসিয়েশন সহ বাংলাদেশ দূতাবাস, জাতিসংঘের বাংলাদেশ মিশন, বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন এককভাবে/যৌথভাবে অমর একুশে পালনের উদ্যোগ নিয়েছে। উল্লেখ্য, বাংলা ভাষার মর্যাদার দাবীতে ১৯৫২ সালে আতœত্যাগকারী বীর শহীদদের স্মরণে পরের বছর থেকেই দিনটি পালিত হয়ে আসছে। সালে জাতিসংঘের এদিকে অমর একুশ স্মরণে ভাষার মাস ফেব্রুয়ারীর শুরুতে জাতিসংঘ ভবনের সামনে মাসব্যাপাী প্রদর্শের জন্য স্থাপিত হয়েছে ‘একুশের ভাস্কর্য’।
ইতিহাস বলে, অমর একুশে ফেব্রুয়ারী বাংলাদেশের জনগণের গৌরবোজ্জ্বল একটি দিন। এটি শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসাবেও সুপরিচিত। বাঙালী জনগণের মায়ের ভাষা ‘বাংলা ভাষা’র মর্যাদা প্রতিষ্ঠার আন্দোলনের মর্মন্তুদ ও গৌরবোজ্জ্বল স্মৃতিবিজড়িত একটি দিন হিসেবে চিহ্নিত হয়ে আছে। ১৯৫২ সালের এই দিনে (৮ ফাল্গুন, ১৩৫৯) বাংলাকে পাকিস্তানের অন্যতম রাষ্ট্রভাষা করার দাবিতে আন্দোলনরত ছাত্রদের ওপর পুলিশের গুলিবর্ষণে রফিক, সালাম, জব্বার সহ কয়েকজন তরুণ শহীদ হন। ফলে দিনটি ‘শহীদ দিবস’ হিসেবে চিহ্নিত হয়। কানাডার ভ্যানকুভার শহরে বসবাসরত দুই বাঙ্গালী রফিকুল ইসলাম (মরহুম) এবং আবদুস সালাম প্রাথমিক উদ্যোক্তা হিসেবে একুশে ফেব্রুয়ারীকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে ঘোষণার জন্য ১৯৯৮ সালে জাতিসংঘের মহাসচিব কফি আনানের কাছে আবেদন জানিয়েছিলেন। তাদের এই আবেদনের পর গণ প্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার সহ বিভিন্ন মহলের দাবীর প্রেক্ষিতে ১৯৯৯ সালের ১৭ নভেম্বর অনুষ্ঠিত ইউনেস্কোর প্যারিস অধিবেশনে একুশে ফেব্রুয়ারীকে ‘আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস’ হিসেবে ঘোষণা করা হয় এবং ২০০০ সালের ২১ ফেব্রুয়ারী থেকে দিবসটি জাতিসংঘের সদস্যদেশসমূহে যথাযথ মর্যাদায় পালিত হচ্ছে। ২০১০ সালের ২১ অক্টোবর বৃহস্পতিবার জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৬৫তম অধিবেশনে ‘এখন থেকে প্রতিবছর একুশে ফেব্রুয়ারী আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন করবে জাতিসংঘ’ সংক্রান্ত একটি প্রস্তাব সর্বসম্মতভাবে পাস হয়। আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালনের প্রস্তাবটি সাধারণ পরিষদের ৬৫তম অধিবেশনে উত্থাপন করে বাংলাদেশ। একই বছরের মে মাসে ১১৩ সদস্যবিশিষ্ট জাতিসংঘের তথ্যবিষয়ক কমিটিতে প্রস্তাবটি সর্বসম্মতভাবে পাস হয়।
আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষ্যে বাংলাদেশ সোসাইটি ইন্্ক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলামনাই এসোসিয়েশন, জালালাবাদ এসোসিয়েশন অব আমেরিকা ইন্্ক, মুক্তধারা ও বাঙালীর চেতনা মঞ্চসহ প্রবাসের বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন বিস্তারিত কর্মসূচী গ্রহণ করেছে।
বাংলাদেশ সোসাইটি: অমর একুশে ফেব্রুয়ারী তথা আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস সম্মিলিতভাবে পালন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে প্রবাসী বাংলাদেশীদের মাদার সংগঠন হিসেবে পরিচিত বাংলাদেশ সোসাইটি ইন্্ক। একুশের অনুষ্ঠান সফল করতে গঠন করা হয়েছে কমিটি। এই কমিটির আহ্বায়ক- ফারুক হোসেন মজুমদার, সদস্য সচিব- সৈয়দ এম কে জামান, প্রধান সমন্বয়কারী- ওসমান চৌধুরী, সমন্বয়কারী- এ কে এম রফিকুল ইসলাম ডালিম, সদস্য- মহিউদ্দিন দেওয়ান, কাজী তোফায়েল ইসলাম, সৈয়দ এনায়েত আলী, নাদির এ আইয়ুব, সিরাজুল হক জামাল, আবুল কাশেম চৌধুরী ও সৈয়দ ইলিয়াস আলী। অনুষ্ঠানমালার মধ্যে থাকবে- শিশু-কিশোর প্রতিযোগিতা, আলোচানা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, স্মরণিকা প্রকাশ ও ঢাকার শহীদ মিনারের আদলে নির্মিত অস্থায়ী শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ। জ্যাকসন হাইটসের ৭২-১১ রুজভেল্ট এভিনিউস্থ নান্দুস ব্যাঙ্কুইটে ২০ ফেব্রুয়ারী শনিবার বিকেল ৫টা থেকে একুশের প্রথম প্রহর পর্যন্ত এসব কর্মসূচী চলবে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি থাকবেন নিউইয়র্কস্থ বাংলাদেশ কনস্যুলেটে নিযুক্ত কনসাল জেনারেল শামীম আহসান। এদিকে একুশের অনুষ্ঠান সফল করতে সোসাইটির উদ্যোগে গত ৭ ফেব্রুয়ারী সোসাইটি কার্যালয়ে বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দের সাথে মতবিনিময় সভার আয়োজন করা হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন সোসাইটির সভাপতি আজমল হোসেন কুনু এবং সভা পরিচালনা করেন সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহিম হাওলাদার।
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলামনাই এসোসিয়েশন: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলামনাই এসোসিয়েশনের উদ্যোগে সম্মিলত মহান একুশ উদযাপন কমিটির আয়োজনে একুশের অনুষ্ঠানমালায় থাকবে- শিশু-কিশোরদের মেধা প্রতিযোগিতা, আলোচনা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, স্মরণিকা প্রকাশ ও ঢাকার শহীদ মিনারের আদলে নির্মিত অস্থায়ী শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশন করবে বাংলাদেশ একাডেমী অব ফাইন আর্টস, বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অব পারফর্মিং আর্টস (বিপা), উদীচী যুক্তরাষ্ট্র, সুর-ছন্দ শিল্পী গোষ্ঠী, সঙ্গীত পরিষদ, বহ্নিশিখা সঙ্গীত নিকেতন, সুরবাহার বাংলাদেশ কালচারাল একাডেমী, শব্দ রিসাইটেশন ইন্সটিটিউট এন্ড কালচারাল মিডিয়া এবং সৃষ্টি একাডেমী অব পারফর্মিং আর্টস, নিউজার্সী। শিশু-কিশোরদের মেধা প্রতিযোগিতা-২০১৬ হবে ১৪ ফেব্রুয়ারী সকাল ১১টায় জ্যাকসন হাইটস্থ পিএস ৬৯ মিলনায়তনে। অপরদিকে ২০ ফেব্রয়ারী একুশের মূল অনুষ্ঠান হবে এস্টোরিয়াস্থ এনটিভি ভবন মিলনায়তনে। এদিন বিকেল ৫টা থেকে একুশের প্রথম প্রহর পর্যন্ত অনুষ্ঠান চলবে।
জালালাবাদ এসোসিয়েশন: প্রতিবছরের মতো এবছরও মহান শহীদ দিবস তথা আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন করবে জালালাবাদ এসোসিয়েশন অব আমেরিকা ইন্্ক। চলতি বছর জালালাবাদ এসোসিয়েশন বাংলাদেশ সোসাইটির সাথে সম্মিলিতভাবে একুশ পালন করবে।
মুক্তধারা ফাউন্ডেশন ও বাঙালীর চেতনা মঞ্চ: অন্যান্য বছরের মতো এবছরও জাতিসংঘ ভবনের সামনে অস্থায়ী শহীদ মিনার নির্মাণ করে অমর একুশে মহান শহীদ দিবস তথা আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন করবে মুক্তধারা ফাউন্ডেশন ও বাঙালীর চেতনা মঞ্চ। একুশ স্মরণে মুক্তধারা ফাউন্ডেশন ও বাঙালীর চেতনা মঞ্চের উদ্যোগে ইতিমধ্যেই জাতিসংঘ ভবনের সামনে (৪৭ স্ট্রীট ও ফাস্ট এভিনিউ) মাসব্যাপাী প্রদর্শের জন্য স্থাপিত হয়েছে ‘একুশের ভাস্কর্য’। এদিকে এবারই প্রথম বাংলাদেশ সময় ২০ ফেব্রুয়ারী রাত ১২টা এক মিনিটে (নিউইয়র্ক সময় ২০ ফেব্রুয়ারী দুপুর একটা এক মিনিটি) জাতিসংঘ ভবনের সামনে নির্মিত অস্থায়ী শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণের মধ্য দিয়ে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানোর উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এছাড়াও একুশেরগ্রন্থমেলা আয়োজিত হবে ২৭-২৮ ফেব্রুয়ারী জ্যাকসন হাইটস্থ পিএস ৬৯ মিলনায়তনে (৭৭ ষ্ট্রীট ও ৩৭ এভিনিউ)। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি থাকবেন বাংলাদেশের অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত এবং আমন্ত্রিত অতিথি থাকবেন যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ জিয়াউদ্দিন, জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি ও রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন ও নিউইয়র্কস্থ বাংলাদেশ কনস্যুলেটে নিযুক্ত কনসাল জেনারেল শামীম আহসান।
জ্যামাইকা বাংলাদেশ ফ্রেন্ডস সোসাইটি: অমর একুশে পালন উপলক্ষ্যে জ্যামাইকা বাংলাদেশ ফ্রেন্ডস সোসাইটি ২০ ফেব্রুয়ারী জ্যামাইকায় অস্থায়ী শহীদ মিনার নির্মাণ সহ বিভিন্ন অনুষ্ঠানমালা গ্রহণ করেছে। জ্যামাইকার হিলসাইড এভিনিউস্থ এক্সিট রিয়েলটি মিলনায়তনে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে। সন্ধ্যা ৬টা থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত অনুষ্ঠান চলবে। অনুষ্ঠানমালার মধ্যে থাকবে আলোচনা, সঙ্গীতানুষ্ঠান, একুশের প্রথম প্রহরে শহীদ বেদীতে পুষ্পস্তবক অর্পণ প্রভৃতি। গত ৮ ফেব্রুয়ারী সোমবার সন্ধ্যায় স্থানীয় কিং কাবাব রেষ্টুরেন্টে অনুষ্ঠিত ফ্রেন্ডস সোসাইটির কার্যবরী কমিটির সভায় একুশে পালনে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়। সংগঠনের সভাপতি সাইফুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভা পরিচালনা করেন সাধারণ সম্পাদক রেজাউল আজাদ ভূঁইয়া। এদিকে একুশের অনুষ্ঠান সফল করতে সংগঠনের অন্যতম উপদেষ্টা সালেহ আহমেদকে কনভেনর, সাবেক সভাপতি মোহাম্মদ মনির হোসেনকে সিনিয়র এক্সিকিউটিভ কো কনভেনর, সাংস্কৃতিক সম্পাদিক জয়ন্তী ভট্টাচার্যকে মেম্বার সেক্রেটারী ও যুগ্ম সম্পাদক ইফজাল আহমেদ চৌধুরীকে সিনিয়র এক্সিকিউটিভ মেম্বার সেক্রেটারী এবং সহ সভাপতি শেখ আসনার আলীকে প্রধান সমন্বয়কারী করে ‘একুশ পালন কমিটি’ গঠন করা হয়েছে।
ব্রঙ্কস সম্মিলিত একুশে উদযাপন: ব্রঙ্কসে সম্মিলিতভাবে বিভিন্ন সংগঠনের উদ্যোগে একুশ উদযাপন করা হবে ২০ ফেব্রুয়ারী ৫:৩০ মিনিট থেকে একুশের প্রথম প্রহর পর্যন্ত স্থানীয় গোল্ডেন প্যালেস পার্টি হলে।
এছাড়া জেবিবিএ, জ্যামাইকা থিয়েটার সহ প্রবাসের বিভিন্ন মহান একুশ স্মরণে বিস্তারিত কর্মসূচী গ্রহণ করেছে।
ফিলাডেলফিয়া:
ফিলাডেলফিয়া থেকে এম.এ.কালাম (শরীফ) জানান: পেনসেলভেনিয়ার ফিলাডেলফিয়াতে (৪৮ ইস্ট বাল্টিমোর এভিনিউ, ক্লিফটন হাইট) আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন উপলক্ষ্যে আন্তর্জাতিক শিল্পকলা কেন্দ্র আয়োজন করছে দু’দিন ব্যাপী মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, নতুন লেখক-প্রকাশকদের বইয়ের মোড়ক উন্মোচন, প্রভাতফেরী প্রভৃতি অনুষ্ঠানের। এসব অনুষ্ঠানমালর মধ্যে থাকবে ২০ ফেব্রুয়ারী শনিবার সন্ধ্যা ৬টায় বই মেলার উদ্বোধন এবং চিত্রকলা প্রদর্শনী, সন্ধ্যা ৭টায় দেশাত্মবোধক গান ও নৃত্যের সমন্বয়ে সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা, একুশের অবিনাশী কবিতা আবৃত্তি, আলোচনা সভা ও একুশে পদক বিতরণী। রাত ১১.৩০ মিনিটে থাকবে অনুষ্ঠানে আগত অতিথিবৃন্দের সম্মানে বিশেষ খাবারের আয়োজন। রাত ১২.০১ মিনিটে প্রভাতফেরী এবং শহীদ মিনারে ১৯৫২ সালে ভাষা আন্দোলনে শহীদদের স্মরণে পুস্পস্তবক অর্পণ।
২১ ফেব্রুয়ারী রোববার সন্ধ্যা ৭টায় স্থানীয় শিল্পী ও কলাকুশলীদের অংশগ্রহণে সাংস্কৃতিক অবতারণা, রাত ৮টায় নজরুল একাডেমি, নিউইয়র্কের উদ্যোগে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান এবং রণসঙ্গীত। রাত ৯টায় আলোকচিত্রী প্রদর্শনী।