নিউইয়র্ক ০৩:৫৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ২২ জুলাই ২০২৪, ৭ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন :
মঙ্গলবারের পত্রিকা সাপ্তাহিক হককথা ও হককথা.কম এ আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন +1 (347) 848-3834

জেবিবিএ নিউইয়র্কে নির্বাচনী হাওয়া : আহ্বায়ক কমিটির সাংবাদিক সম্মেলন ৮ নভেম্বর

রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : ১২:৫৯:০০ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ৬ নভেম্বর ২০১৫
  • / ৭৭৪ বার পঠিত

নিউইয়র্ক: যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী বাংলাদেশী ব্যবসায়ীদের সর্ববৃহৎ সংগঠন জ্যাকসন হাইটস বাংলাদেশী বিজনেস এসোসিয়েশন (জেবিবিএ) নিউইয়র্ক-এ নির্বাচনী হাওয়া বইছে। বিভক্ত জেবিবিএ ঐক্যবদ্ধ হওয়ার পর গঠিত সর্বদলীয় আহ্বায়ক কমিটির নেতৃত্বে চলছে নির্বাচনের প্রস্তুতি। ইতিমধ্যেই সদস্য/ভোটার নিবন্ধন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে। আগামী ৮ নভেম্বর রোববার সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে জেবিবিএ’র চুড়ান্ত সদস্য ও ভোটার তালিকা প্রকাশ এবং নির্বাচনী তফসিল সহ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে বিস্তারিত জানানো হবে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে। এদিকে ১০ অক্টোবর শনিবার ছিলো জেবিবিএ’র সদস্য হওয়ার শেষ দিন। সূত্র মতে, নির্ধারিত সময়ের মধ্যে নতুন-পুরাতন সবমিলিয়ে জেবিবিএ’র সদস্য হওয়ার জন্য ২৯০জন প্রার্থী আবেদন করেন। অপরদিকে জেবিবিএ-তে বইছে নির্বাচনী হাওয়া। কেউ প্রকাশ্যে মুখ না খুললেও সম্ভাব্য প্রার্থীরা ভিতরে ভিতরে গণ সংযোগ শুরু করেছেন। খবর ইউএনএ’র।
নিউইয়র্কে বসবাসকারী প্রবাসী বাংলাদেশী ও ব্যবসায়ীদের প্রাণকেন্দ্র হিসেবে পরিচিত জ্যাসকন হাইটস। এই জ্যাকসন হাইটসে বাংলাদেশী ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন জেবিবিএ। ১৯৯৭ সালে জেবিবিএ’র প্রতিষ্ঠার সময় এর নামকরণ করা হয় ‘জ্যাকসন হাইটস বাংলাদেশী বিজনেস এসোসিয়েশন ইনক’। প্রবাসে বাংলাদেশী ব্যবসায়ীদের সংগঠন হিসেবে জেবিবিএ কমিউনিটি ও মূলধারায় ব্যাপক পরিচিতি লাভ করে। ব্যবসায়ীদের স্বার্থ সংরক্ষণ ছাড়াও পথমেলা আয়োজন করে সবার দৃষ্টিও আকর্ষণ করে। কিন্তু নেতৃত্বের কোন্দল আর কতিপয় ব্যবসায়ীর অনাকাংখীত কর্মকান্ড এবং সর্বশেষ ২০১৩ সালের জুন মাসে ভোটার তালিকা প্রণয়ন নিয়ে বিরোধে জড়িয়ে দ্বিধাবিভক্ত হয়ে পড়ে জেবিবিএ।
বিভক্তির পর ব্যবসায়ীদের একটি অংশ ‘জ্যাকসন হাইটস বাংলাদেশী বিজনেস এসোসিয়েশন ইনক’ আর অপর অংশ ‘জ্যাকসন হাইটস বাংলাদেশী বিজনেস এসোসিয়েশন নিউইয়র্ক ইনক’ নামে বিভক্ত হয়ে পড়ে। কিন্তু এই বিভক্তিতে উভয় সংগঠনের সাধারণ ব্যবসায়ীরা অস্বস্তিবোধ করতে থাকেন। পাশাপাশি উভয় জেবিবিএ’র কর্মকর্তাদের মধ্যে নেতৃত্বের কোন্দল, বিভেদ-বিভক্তিও বাড়তে থাকে। চলে পাল্টা-পাল্টি সভা-সমাবেশ, অভিযোগ-পাল্টা অভিযোগ। এমনি প্রেক্ষাপটে সাধারণ ব্যবসায়ীদের দাবীর প্রেক্ষিতে জেবিবিএ’র প্রতিষ্ঠাতা ও সিনিয়র কর্মকর্তাদের উদ্যোগে ঐক্য প্রক্রিয়া শুরু হয় এবং সর্বশেষ গত ২৬ আগষ্ট উভয় সংগঠনের শীর্ষ নেতৃবৃন্দ ঐক্যবদ্ধ হন এবং ৫ সদস্যের আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়। নতুন নির্বাচন না হওয়া পর্যন্ত এই কমিটিই দায়িত্ব পালন করবে। আহ্বায়ক কমিটির পাঁচজনই সদস্য এবং তারা সবাই সমান পদমর্যাদার। কমিটির সদস্যরা হলেন সাঈদ রহমান মান্নান, কাজী মন্টু, মাহবুবুর রহমান, এস. রহমান ও পারভেজ কাজী। আহ্বায়ক কমিটি চার মাসের জন্য জেবিবিএ’র দায়িত্ব পালন করার কথা।
জেবিবিএ’র সর্বশেষ পরিস্থিতি সম্পর্কে আহ্বায়ক কমিটির অন্যতম সদস্য ও সাবেক সভাপতি সাঈদ রহমান মান্নান ১ নভেম্বর রোববার ইউএনএ প্রতিনিধিকে বলেন, জেবিবিএ নিউইয়র্ক-এর নির্বাচনী প্রস্তুতি এগিয়ে চলছে। তিনি বলেন, আগামী ৮ নভেম্বর রোববার সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে জেবিবিএ’র চুড়ান্ত সদস্য ও ভোটার প্রকাশ এবং নির্বাচনী তফসিল সহ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে বিস্তারিত জানানো হবে। ঐদিন জ্যাকসন হাইটস্থ হাটবাজার রেষ্টুরেন্ট মিলনায়তনে বেলা একটায় এই সাংবাদিক সম্মেলন আনুষ্ঠিত হবে।
জেবিবিএ সূত্রে জানা গেছে, আহ্বায়ক কমিটি কর্তৃক আবেদনকারী ২৯০জন নতুন সদস্য/ভোটারদের আবেদনপত্র যাছাই-বাছাই শেষ হয়েছে। এখনই চুড়ান্ত সদস্য/ভোটার তালিকা প্রকাশের সময়। সেই লক্ষ্যেই কাজ চলছে।
জেবিবিএ’র বর্তমান সদস্যদের মধ্যে অনেকেই এই প্রতিনিধির সাথে আলাপকালে জেবিবিএ’র নেতৃত্বে ‘নতুন মুখ’ দেখার প্রত্যাশা করছেন। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ইতিপূর্বে বিভক্ত জেবিবিএ’র সাবেক কর্মকর্তাদের মধ্যে সভাপতি পদে পিয়ার মোহাম্মদ, মোহাম্মদ মহসিন, মহসিন ননি, হারুন ভূইয়া ও জাকারিয়া মাসুদ জিকো এবং সাধারণ সম্পাদক পদে আবুল ফজল দিদারুল ইসলাম দিদার ও তারেক হাসান খান প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পারেন। নতুনদের মধ্যে কর্ণফুলী ইনকাম ট্যাক্স সার্ভিসেস-এর স্বত্তাধিকারী মোহাম্মদ হাসেম সাধারণ সম্পাদক পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে আগ্রহী বলে জানা গেছে। আবার ঐক্যবদ্ধ জেবিবিএ-কে নতুন করে সাজাতে কেউ কেউ সভাপতি পদে সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি সাঈদ রহমান মান্নানকেও চাচ্ছেন। এদের মধ্যে সভাপতি পদে খাবার বাড়ীর অন্যতম স্বত্তাধিকারী হারুণ ভূইয়ার নাম অনেকের মুখে। কেননা, জেবিবিএ প্রতিষ্ঠার শুরু থেকেই জেবিবিএ’র কর্মকান্ডে তার সক্রিয় ভূমিকা সবার নজর কেড়েছে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

About Author Information

জেবিবিএ নিউইয়র্কে নির্বাচনী হাওয়া : আহ্বায়ক কমিটির সাংবাদিক সম্মেলন ৮ নভেম্বর

প্রকাশের সময় : ১২:৫৯:০০ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ৬ নভেম্বর ২০১৫

নিউইয়র্ক: যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী বাংলাদেশী ব্যবসায়ীদের সর্ববৃহৎ সংগঠন জ্যাকসন হাইটস বাংলাদেশী বিজনেস এসোসিয়েশন (জেবিবিএ) নিউইয়র্ক-এ নির্বাচনী হাওয়া বইছে। বিভক্ত জেবিবিএ ঐক্যবদ্ধ হওয়ার পর গঠিত সর্বদলীয় আহ্বায়ক কমিটির নেতৃত্বে চলছে নির্বাচনের প্রস্তুতি। ইতিমধ্যেই সদস্য/ভোটার নিবন্ধন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে। আগামী ৮ নভেম্বর রোববার সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে জেবিবিএ’র চুড়ান্ত সদস্য ও ভোটার তালিকা প্রকাশ এবং নির্বাচনী তফসিল সহ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে বিস্তারিত জানানো হবে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে। এদিকে ১০ অক্টোবর শনিবার ছিলো জেবিবিএ’র সদস্য হওয়ার শেষ দিন। সূত্র মতে, নির্ধারিত সময়ের মধ্যে নতুন-পুরাতন সবমিলিয়ে জেবিবিএ’র সদস্য হওয়ার জন্য ২৯০জন প্রার্থী আবেদন করেন। অপরদিকে জেবিবিএ-তে বইছে নির্বাচনী হাওয়া। কেউ প্রকাশ্যে মুখ না খুললেও সম্ভাব্য প্রার্থীরা ভিতরে ভিতরে গণ সংযোগ শুরু করেছেন। খবর ইউএনএ’র।
নিউইয়র্কে বসবাসকারী প্রবাসী বাংলাদেশী ও ব্যবসায়ীদের প্রাণকেন্দ্র হিসেবে পরিচিত জ্যাসকন হাইটস। এই জ্যাকসন হাইটসে বাংলাদেশী ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন জেবিবিএ। ১৯৯৭ সালে জেবিবিএ’র প্রতিষ্ঠার সময় এর নামকরণ করা হয় ‘জ্যাকসন হাইটস বাংলাদেশী বিজনেস এসোসিয়েশন ইনক’। প্রবাসে বাংলাদেশী ব্যবসায়ীদের সংগঠন হিসেবে জেবিবিএ কমিউনিটি ও মূলধারায় ব্যাপক পরিচিতি লাভ করে। ব্যবসায়ীদের স্বার্থ সংরক্ষণ ছাড়াও পথমেলা আয়োজন করে সবার দৃষ্টিও আকর্ষণ করে। কিন্তু নেতৃত্বের কোন্দল আর কতিপয় ব্যবসায়ীর অনাকাংখীত কর্মকান্ড এবং সর্বশেষ ২০১৩ সালের জুন মাসে ভোটার তালিকা প্রণয়ন নিয়ে বিরোধে জড়িয়ে দ্বিধাবিভক্ত হয়ে পড়ে জেবিবিএ।
বিভক্তির পর ব্যবসায়ীদের একটি অংশ ‘জ্যাকসন হাইটস বাংলাদেশী বিজনেস এসোসিয়েশন ইনক’ আর অপর অংশ ‘জ্যাকসন হাইটস বাংলাদেশী বিজনেস এসোসিয়েশন নিউইয়র্ক ইনক’ নামে বিভক্ত হয়ে পড়ে। কিন্তু এই বিভক্তিতে উভয় সংগঠনের সাধারণ ব্যবসায়ীরা অস্বস্তিবোধ করতে থাকেন। পাশাপাশি উভয় জেবিবিএ’র কর্মকর্তাদের মধ্যে নেতৃত্বের কোন্দল, বিভেদ-বিভক্তিও বাড়তে থাকে। চলে পাল্টা-পাল্টি সভা-সমাবেশ, অভিযোগ-পাল্টা অভিযোগ। এমনি প্রেক্ষাপটে সাধারণ ব্যবসায়ীদের দাবীর প্রেক্ষিতে জেবিবিএ’র প্রতিষ্ঠাতা ও সিনিয়র কর্মকর্তাদের উদ্যোগে ঐক্য প্রক্রিয়া শুরু হয় এবং সর্বশেষ গত ২৬ আগষ্ট উভয় সংগঠনের শীর্ষ নেতৃবৃন্দ ঐক্যবদ্ধ হন এবং ৫ সদস্যের আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়। নতুন নির্বাচন না হওয়া পর্যন্ত এই কমিটিই দায়িত্ব পালন করবে। আহ্বায়ক কমিটির পাঁচজনই সদস্য এবং তারা সবাই সমান পদমর্যাদার। কমিটির সদস্যরা হলেন সাঈদ রহমান মান্নান, কাজী মন্টু, মাহবুবুর রহমান, এস. রহমান ও পারভেজ কাজী। আহ্বায়ক কমিটি চার মাসের জন্য জেবিবিএ’র দায়িত্ব পালন করার কথা।
জেবিবিএ’র সর্বশেষ পরিস্থিতি সম্পর্কে আহ্বায়ক কমিটির অন্যতম সদস্য ও সাবেক সভাপতি সাঈদ রহমান মান্নান ১ নভেম্বর রোববার ইউএনএ প্রতিনিধিকে বলেন, জেবিবিএ নিউইয়র্ক-এর নির্বাচনী প্রস্তুতি এগিয়ে চলছে। তিনি বলেন, আগামী ৮ নভেম্বর রোববার সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে জেবিবিএ’র চুড়ান্ত সদস্য ও ভোটার প্রকাশ এবং নির্বাচনী তফসিল সহ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে বিস্তারিত জানানো হবে। ঐদিন জ্যাকসন হাইটস্থ হাটবাজার রেষ্টুরেন্ট মিলনায়তনে বেলা একটায় এই সাংবাদিক সম্মেলন আনুষ্ঠিত হবে।
জেবিবিএ সূত্রে জানা গেছে, আহ্বায়ক কমিটি কর্তৃক আবেদনকারী ২৯০জন নতুন সদস্য/ভোটারদের আবেদনপত্র যাছাই-বাছাই শেষ হয়েছে। এখনই চুড়ান্ত সদস্য/ভোটার তালিকা প্রকাশের সময়। সেই লক্ষ্যেই কাজ চলছে।
জেবিবিএ’র বর্তমান সদস্যদের মধ্যে অনেকেই এই প্রতিনিধির সাথে আলাপকালে জেবিবিএ’র নেতৃত্বে ‘নতুন মুখ’ দেখার প্রত্যাশা করছেন। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ইতিপূর্বে বিভক্ত জেবিবিএ’র সাবেক কর্মকর্তাদের মধ্যে সভাপতি পদে পিয়ার মোহাম্মদ, মোহাম্মদ মহসিন, মহসিন ননি, হারুন ভূইয়া ও জাকারিয়া মাসুদ জিকো এবং সাধারণ সম্পাদক পদে আবুল ফজল দিদারুল ইসলাম দিদার ও তারেক হাসান খান প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পারেন। নতুনদের মধ্যে কর্ণফুলী ইনকাম ট্যাক্স সার্ভিসেস-এর স্বত্তাধিকারী মোহাম্মদ হাসেম সাধারণ সম্পাদক পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে আগ্রহী বলে জানা গেছে। আবার ঐক্যবদ্ধ জেবিবিএ-কে নতুন করে সাজাতে কেউ কেউ সভাপতি পদে সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি সাঈদ রহমান মান্নানকেও চাচ্ছেন। এদের মধ্যে সভাপতি পদে খাবার বাড়ীর অন্যতম স্বত্তাধিকারী হারুণ ভূইয়ার নাম অনেকের মুখে। কেননা, জেবিবিএ প্রতিষ্ঠার শুরু থেকেই জেবিবিএ’র কর্মকান্ডে তার সক্রিয় ভূমিকা সবার নজর কেড়েছে।