নিউইয়র্ক ১২:২৩ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন :
মঙ্গলবারের পত্রিকা সাপ্তাহিক হককথা ও হককথা.কম এ আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন +1 (347) 848-3834

জাতির পিতা বিশ্বের নিপীড়িত ও নির্যাতিত মানুষের অবিস্মরণীয় নেতা : স্পীকার

রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : ০৩:৫১:১৩ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২০ মার্চ ২০১৫
  • / ১০২১ বার পঠিত

নিউইয়র্ক: স্পীকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেছেন, ‘জাতির পিতা’ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিশ্বের নিপীড়িত ও নির্যাতিত মানুষের অবিস্মরণীয় নেতা হিসেবে বিশ্ববাসীর হৃদয়ে চির জাগরুক থাকবেন। তিনি ফাঁসির মঞ্চে দাঁড়িয়েও শোষিত ও বঞ্চিত বাঙালী জাতির অধিকারের কথা বলেছেন। তাই ১৭ মার্চ বাঙালী জাতির জীবনে একটি অবিস্মরণীয় দিন।
স্পীকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী জাতিসংঘে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশন আয়োজিত ‘জাতির পিতা’ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৫তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষ্যে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় বক্তব্যদানকালে একথা বলেন।
স্থায়ী মিশনের বঙ্গবন্ধু মিলনায়তনে ১৬ মার্চ আয়োজিত এ আলোচনা সভায় জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি ড. এ. কে. আব্দুল মোমেন সভাপতিত্ব করেন।
আলোচনা সভায় ব্রাজিলে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মিজারুল কায়েস, বিশিষ্ট নাট্য ব্যক্তিত্ব জামাল উদ্দিন হোসেন, মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মুকিত চৌধুরী, ড. প্রদীপ কর ও সাংবাদিক হাকিকুল ইসলাম খোকন সহ বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ বক্তৃতা করেন।
অনুষ্ঠানে সবিতা দাসের নেতৃত্বে বহ্নিশিখা শিল্পী গোষ্ঠী সঙ্গীত পরিবেশন করেন। দিবসটি উপলক্ষ্যে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী এবং পররাষ্ট্রমন্ত্রী প্রদত্ত বাণী পাঠ করে শোনানো হয়।
IMG_8211স্পীকার বলেন, বাঙালী জাতি যাতে প্রজন্ম থেকে প্রজন্মে ‘জাতির পিতা’র আদর্শ ও মানবিক গুণাবলীর অপূর্ব সমন্বয় করে গড়ে উঠতে পারে সেজন্য ১৭ মার্চ জাতীয় শিশু দিবস হিসেবে পালন করা হচ্ছে। যাতে বাংলাদেশের বর্তমান ও ভবিষ্যৎ শিশুরা ‘জাতির পিতা’র মতো মানুষের প্রতি মমত্ববোধ ও আত্মত্যাগে উদ্বুদ্ধ হয়ে দেশসেবায় ব্রতী হতে পারে।
ড. শিরীন শারমিন বলেন, ‘জাতির পিতা’র পথ অনুসরণ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন করে যাচ্ছেন। ফলে বিশ্বব্যাপী মন্দা সত্ত্বেও বাংলাদেশ বিগত পাঁচ বছর ধরে ছয় শতাংশের বেশী প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছে। বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ, রপ্তানি আয়, রেমিটেন্স বৃদ্ধি পেয়েছে। মানব উন্নয়ন সূচকে বাংলাদেশ এখন বিশ্বে রোল মডেল।
ড. মোমেন বলেন, ‘জাতির পিতা’ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাঙালী জাতির অর্থনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক বৈষম্য দূর করার লক্ষ্যে ১৯৬৬ সালে ৬-দফা দিয়েছিলেন। ‘জাতির পিতা’র কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও সাধারণ মানুষের উন্নয়ন করে যাচ্ছেন। তিনি বলেন, দেশের উন্নয়নে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করে জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণে সকল নাগরিককে অঙ্গীকার বদ্ধ হতে হবে।
অনুষ্ঠানে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ ও এর সহযোগী সংগঠনগুলোর নেতা-কর্মী, মহাজোটের নেতৃবৃন্দ, নিউইয়র্কের বিশিষ্ট নাগরিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

Tag :

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

About Author Information

জাতির পিতা বিশ্বের নিপীড়িত ও নির্যাতিত মানুষের অবিস্মরণীয় নেতা : স্পীকার

প্রকাশের সময় : ০৩:৫১:১৩ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২০ মার্চ ২০১৫

নিউইয়র্ক: স্পীকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেছেন, ‘জাতির পিতা’ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিশ্বের নিপীড়িত ও নির্যাতিত মানুষের অবিস্মরণীয় নেতা হিসেবে বিশ্ববাসীর হৃদয়ে চির জাগরুক থাকবেন। তিনি ফাঁসির মঞ্চে দাঁড়িয়েও শোষিত ও বঞ্চিত বাঙালী জাতির অধিকারের কথা বলেছেন। তাই ১৭ মার্চ বাঙালী জাতির জীবনে একটি অবিস্মরণীয় দিন।
স্পীকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী জাতিসংঘে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশন আয়োজিত ‘জাতির পিতা’ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৫তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষ্যে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় বক্তব্যদানকালে একথা বলেন।
স্থায়ী মিশনের বঙ্গবন্ধু মিলনায়তনে ১৬ মার্চ আয়োজিত এ আলোচনা সভায় জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি ড. এ. কে. আব্দুল মোমেন সভাপতিত্ব করেন।
আলোচনা সভায় ব্রাজিলে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মিজারুল কায়েস, বিশিষ্ট নাট্য ব্যক্তিত্ব জামাল উদ্দিন হোসেন, মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মুকিত চৌধুরী, ড. প্রদীপ কর ও সাংবাদিক হাকিকুল ইসলাম খোকন সহ বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ বক্তৃতা করেন।
অনুষ্ঠানে সবিতা দাসের নেতৃত্বে বহ্নিশিখা শিল্পী গোষ্ঠী সঙ্গীত পরিবেশন করেন। দিবসটি উপলক্ষ্যে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী এবং পররাষ্ট্রমন্ত্রী প্রদত্ত বাণী পাঠ করে শোনানো হয়।
IMG_8211স্পীকার বলেন, বাঙালী জাতি যাতে প্রজন্ম থেকে প্রজন্মে ‘জাতির পিতা’র আদর্শ ও মানবিক গুণাবলীর অপূর্ব সমন্বয় করে গড়ে উঠতে পারে সেজন্য ১৭ মার্চ জাতীয় শিশু দিবস হিসেবে পালন করা হচ্ছে। যাতে বাংলাদেশের বর্তমান ও ভবিষ্যৎ শিশুরা ‘জাতির পিতা’র মতো মানুষের প্রতি মমত্ববোধ ও আত্মত্যাগে উদ্বুদ্ধ হয়ে দেশসেবায় ব্রতী হতে পারে।
ড. শিরীন শারমিন বলেন, ‘জাতির পিতা’র পথ অনুসরণ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন করে যাচ্ছেন। ফলে বিশ্বব্যাপী মন্দা সত্ত্বেও বাংলাদেশ বিগত পাঁচ বছর ধরে ছয় শতাংশের বেশী প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছে। বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ, রপ্তানি আয়, রেমিটেন্স বৃদ্ধি পেয়েছে। মানব উন্নয়ন সূচকে বাংলাদেশ এখন বিশ্বে রোল মডেল।
ড. মোমেন বলেন, ‘জাতির পিতা’ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাঙালী জাতির অর্থনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক বৈষম্য দূর করার লক্ষ্যে ১৯৬৬ সালে ৬-দফা দিয়েছিলেন। ‘জাতির পিতা’র কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও সাধারণ মানুষের উন্নয়ন করে যাচ্ছেন। তিনি বলেন, দেশের উন্নয়নে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করে জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণে সকল নাগরিককে অঙ্গীকার বদ্ধ হতে হবে।
অনুষ্ঠানে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ ও এর সহযোগী সংগঠনগুলোর নেতা-কর্মী, মহাজোটের নেতৃবৃন্দ, নিউইয়র্কের বিশিষ্ট নাগরিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।