নিউইয়র্ক ০৮:০৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন :
মঙ্গলবারের পত্রিকা সাপ্তাহিক হককথা ও হককথা.কম এ আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন +1 (347) 848-3834

গাফফার চৌধুরী নিউইয়র্কে কোন সভা-সমাবেশ করতে পারবেন না

রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : ০৯:৪৯:৫০ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৮ জুলাই ২০১৫
  • / ৭১৮ বার পঠিত

নিউইয়র্ক: পবিত্র রমজান উপলক্ষ্যে সম্মিলিত জাতীয়তাবাদী পেশাজীবি পরিষদের ইফতার ও দোয়া মাহফিলে যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি নেতৃবৃন্দ জাতিসংঘের বাংলাদেশ মিশনের অনুষ্ঠানে প্রদত্ত বিশিষ্ট কলামিস্ট আব্দুল গাফফার চৌধুরীর বক্তব্যের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ করে বলেছেন, আওয়ামী লীগ নেতা লতিফ সিদ্দিকীর পথ ধরেই তিনি (গাফফার চৌধুরী) এগুচ্ছেন। তার বক্তব্যের সাথে আওয়ামী লীগারদের কথা-বক্তব্যের মিল পাওয়া যায়। তিনি নাস্তিক হয়েও মুসলমান দাবী করেন। বক্তারা বলেন, মিডিয়ায় ঘোষণা দিয়ে গাফফার চৌধুরী নিউইয়র্কে কোন সভা-সমাবেশ করতে পারবেন না। কেননা, তার বক্তব্য ধর্মপ্রাণ মুসলিম কমিউনিটিকে আঘাত করেছে। জ্যামাইকা ও ব্রুকলীনের মতো তার সকল সভা-সমাবেশ প্রতিহত করা হবে।
সিটির জ্যাকসন হাইটস্থ খাবার বাড়ীর চাংপাই চাইনিজ রেষ্টুরেন্টে গত ৭ জুলাই মঙ্গলবার এই মাহফিলের আয়োজন করা হয়। মাহফিলে সভাপতিত্ব করেন যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি’র সাবেক সহ সভাপতি সামসুল ইসলাম মজনু। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ডা. মুজিবুর রহমান মজুমদার এবং প্রধান বক্তা ছিলেন কেন্দ্রীয় সম্মিলিত পেশাজীবি পরিষদের যুগ্ম মহাসচিব ও এ্যাব-এর উপ মহাসচিব প্রকৌশলী মোহাম্মদ হারুনুর রশিদ। এছাড়া বিশেষ অতিথি ছিলেন যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি’র সাবেক সাধারন সম্পাদক জিল্লুর রহমান জিল্লু, সাবেক সহ-সভাপতি ইলিয়াস আহমেদ মাস্টার, মনজুর আহমেদ চৌধুরী, আবুল কাশেম ও মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন এবং বৃহত্তর চট্টগ্রাম জাতীয়তাবাদী ফোরাম ইউএসএ’র সভাপতি অ্যাডভোকেট কাজী খায়রুল বাশার। মাহফিল পরিচালনা করেন নিউইয়র্ক ইউনিভার্সিটির সিনিয়র সাইন্টিস্ট ডা. জাহিদ দেওয়ান শামীম।
মাহফিলে ডা. মুজিবুর রহমান মজুমদার তার সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে বলেন, গাফফার চৌধুরীর চরিত্র সম্পর্কে আমরা জানি। শেখ রেহানার সাথে ‘ফস্টি-নস্টি’ করার কারণে শেখ মুজিব তাকে লন্ডনে বিতাড়িত করেছিলেন। মহান আল্লাহ, নবী-রাসুল (সা:) আর ইসলাম সম্পর্কে তার বক্তব্যের নিন্দা জানানোর ভাষা নেই। কোন দেব-দেবীর নাম আল্লাহর নাম হতে পারে না। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগারদের ধর্ম বিরোধী কর্মকান্ড ঐক্যবদ্ধভাবে প্রতিহত করতে হবে, বিএনপি আর জাতীয়তাবাদী শক্তিকে আরো শক্তিশালী করতে হবে।
প্রকৌশলী মোহাম্মদ হারুনুর রশিদ বলেন, গাফফার চৌধুরী মুসলমানদের ধর্মানুভতিতে যে আঘাত করেছেন তার নিন্দা জানানোর ভাষা নেই। তিনি আওয়ামী লীগ নেতা লতিফ সিদ্দিকীর মতই কথা বলেছেন। তার মতো লোকদের মুখেই এমন কথা মানায়। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগারদের কাছে এর চেয়ে আর কি আশা করা যায়। তিনি প্রবাসে বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদী শক্তিকে আরো শক্তিশালী করতে যুক্তরাষ্ট্রে ইঞ্জিনিয়ার, ডাক্তার, কৃষিবীদ পেশাজীবিদের নিয়ে ‘সম্মিলিত পেশাজীবি পরিষদ’ গঠনের উপর গুরুত্বারোপ করেন।
জিল্লুর রহমান জিল্লু বলেন, আওয়ামী লীগ ধর্ম নিয়ে রাজনীতি করছে। গাফফার চৌধুরীর বক্তব্য ধর্মপ্রাণ মুসলিম কমিউনিটিকে আঘাত করেছে। মিডিয়ায় ঘোষণা দিয়ে গাফফার চৌধুরী নিউইয়র্কে কোন সভা-সমাবেশ করতে পারবেন না। জ্যামাইকা ও ব্রুকলীনের মতো তার সকল সভা-সমাবেশ প্রতিহত করা হবে।
অল্প সময়ের আহ্বানে মাহফিলটি সফল করার জন্য সামসুল ইসলাম মজনু যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির নেতৃবৃন্দ সহ উপস্থিত সকলকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানান এবং বিশেষ মুনাজাত পরিচালনা করেন।
মাহফিলে যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের উল্লেখযোগ্য নেতৃবৃন্দের মধ্যে চট্টগ্রাম সমিতির সাধারণ সম্পাদক আবু তাহের সহ ড. গিয়াস মজুমদার, ডা. জামান তারেক, মাকসুদুল হক চৌধুরী, বদিউল আলম, মোহাম্মদ সোলায়মান, বিলাল আহমেদ চৌধুরী, শেখ হায়দার আলী, এএফ মিসবাহউজ্জামান, অ্যাডভোকেট কামরুজ্জামান, মোহাম্মদ হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

About Author Information

গাফফার চৌধুরী নিউইয়র্কে কোন সভা-সমাবেশ করতে পারবেন না

প্রকাশের সময় : ০৯:৪৯:৫০ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৮ জুলাই ২০১৫

নিউইয়র্ক: পবিত্র রমজান উপলক্ষ্যে সম্মিলিত জাতীয়তাবাদী পেশাজীবি পরিষদের ইফতার ও দোয়া মাহফিলে যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি নেতৃবৃন্দ জাতিসংঘের বাংলাদেশ মিশনের অনুষ্ঠানে প্রদত্ত বিশিষ্ট কলামিস্ট আব্দুল গাফফার চৌধুরীর বক্তব্যের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ করে বলেছেন, আওয়ামী লীগ নেতা লতিফ সিদ্দিকীর পথ ধরেই তিনি (গাফফার চৌধুরী) এগুচ্ছেন। তার বক্তব্যের সাথে আওয়ামী লীগারদের কথা-বক্তব্যের মিল পাওয়া যায়। তিনি নাস্তিক হয়েও মুসলমান দাবী করেন। বক্তারা বলেন, মিডিয়ায় ঘোষণা দিয়ে গাফফার চৌধুরী নিউইয়র্কে কোন সভা-সমাবেশ করতে পারবেন না। কেননা, তার বক্তব্য ধর্মপ্রাণ মুসলিম কমিউনিটিকে আঘাত করেছে। জ্যামাইকা ও ব্রুকলীনের মতো তার সকল সভা-সমাবেশ প্রতিহত করা হবে।
সিটির জ্যাকসন হাইটস্থ খাবার বাড়ীর চাংপাই চাইনিজ রেষ্টুরেন্টে গত ৭ জুলাই মঙ্গলবার এই মাহফিলের আয়োজন করা হয়। মাহফিলে সভাপতিত্ব করেন যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি’র সাবেক সহ সভাপতি সামসুল ইসলাম মজনু। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ডা. মুজিবুর রহমান মজুমদার এবং প্রধান বক্তা ছিলেন কেন্দ্রীয় সম্মিলিত পেশাজীবি পরিষদের যুগ্ম মহাসচিব ও এ্যাব-এর উপ মহাসচিব প্রকৌশলী মোহাম্মদ হারুনুর রশিদ। এছাড়া বিশেষ অতিথি ছিলেন যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি’র সাবেক সাধারন সম্পাদক জিল্লুর রহমান জিল্লু, সাবেক সহ-সভাপতি ইলিয়াস আহমেদ মাস্টার, মনজুর আহমেদ চৌধুরী, আবুল কাশেম ও মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন এবং বৃহত্তর চট্টগ্রাম জাতীয়তাবাদী ফোরাম ইউএসএ’র সভাপতি অ্যাডভোকেট কাজী খায়রুল বাশার। মাহফিল পরিচালনা করেন নিউইয়র্ক ইউনিভার্সিটির সিনিয়র সাইন্টিস্ট ডা. জাহিদ দেওয়ান শামীম।
মাহফিলে ডা. মুজিবুর রহমান মজুমদার তার সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে বলেন, গাফফার চৌধুরীর চরিত্র সম্পর্কে আমরা জানি। শেখ রেহানার সাথে ‘ফস্টি-নস্টি’ করার কারণে শেখ মুজিব তাকে লন্ডনে বিতাড়িত করেছিলেন। মহান আল্লাহ, নবী-রাসুল (সা:) আর ইসলাম সম্পর্কে তার বক্তব্যের নিন্দা জানানোর ভাষা নেই। কোন দেব-দেবীর নাম আল্লাহর নাম হতে পারে না। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগারদের ধর্ম বিরোধী কর্মকান্ড ঐক্যবদ্ধভাবে প্রতিহত করতে হবে, বিএনপি আর জাতীয়তাবাদী শক্তিকে আরো শক্তিশালী করতে হবে।
প্রকৌশলী মোহাম্মদ হারুনুর রশিদ বলেন, গাফফার চৌধুরী মুসলমানদের ধর্মানুভতিতে যে আঘাত করেছেন তার নিন্দা জানানোর ভাষা নেই। তিনি আওয়ামী লীগ নেতা লতিফ সিদ্দিকীর মতই কথা বলেছেন। তার মতো লোকদের মুখেই এমন কথা মানায়। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগারদের কাছে এর চেয়ে আর কি আশা করা যায়। তিনি প্রবাসে বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদী শক্তিকে আরো শক্তিশালী করতে যুক্তরাষ্ট্রে ইঞ্জিনিয়ার, ডাক্তার, কৃষিবীদ পেশাজীবিদের নিয়ে ‘সম্মিলিত পেশাজীবি পরিষদ’ গঠনের উপর গুরুত্বারোপ করেন।
জিল্লুর রহমান জিল্লু বলেন, আওয়ামী লীগ ধর্ম নিয়ে রাজনীতি করছে। গাফফার চৌধুরীর বক্তব্য ধর্মপ্রাণ মুসলিম কমিউনিটিকে আঘাত করেছে। মিডিয়ায় ঘোষণা দিয়ে গাফফার চৌধুরী নিউইয়র্কে কোন সভা-সমাবেশ করতে পারবেন না। জ্যামাইকা ও ব্রুকলীনের মতো তার সকল সভা-সমাবেশ প্রতিহত করা হবে।
অল্প সময়ের আহ্বানে মাহফিলটি সফল করার জন্য সামসুল ইসলাম মজনু যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির নেতৃবৃন্দ সহ উপস্থিত সকলকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানান এবং বিশেষ মুনাজাত পরিচালনা করেন।
মাহফিলে যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের উল্লেখযোগ্য নেতৃবৃন্দের মধ্যে চট্টগ্রাম সমিতির সাধারণ সম্পাদক আবু তাহের সহ ড. গিয়াস মজুমদার, ডা. জামান তারেক, মাকসুদুল হক চৌধুরী, বদিউল আলম, মোহাম্মদ সোলায়মান, বিলাল আহমেদ চৌধুরী, শেখ হায়দার আলী, এএফ মিসবাহউজ্জামান, অ্যাডভোকেট কামরুজ্জামান, মোহাম্মদ হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।