নিউইয়র্ক ১১:৪৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন :
মঙ্গলবারের পত্রিকা সাপ্তাহিক হককথা ও হককথা.কম এ আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন +1 (347) 848-3834

এ-এইচ ১৬ ড্রীম ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে বিজয় দিবস পালন

রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : ১২:১০:০৯ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২২ ডিসেম্বর ২০১৫
  • / ৮২৬ বার পঠিত

নিউইয়র্ক: বাংলাদেশের মহান বিজয় দিবস বিজয় দিবস পালন এ-এইচ ১৬ ড্রীম ফাউন্ডেশন ইনক অয়োজিত আলোচনা সভায় বক্তারা ‘জাতির জনক’ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, স্বাধীনতার ঘোষক শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান (বীরোত্তম), মহান মুক্তিযুদ্ধের সর্বাধিনায়ক জেনারেল এম এ জি ওসমানী সহ জাতীয় নেতাদের দলমতের উর্ধ্বে রাখার দাবি জানিয়ে বলেন, স্বাধীনতার সঠিক ইতিহাস রচনা জরুরী। প্রয়োজন প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা প্রণয়নের পাশাপাশি তাঁদেরকে যথাযথ সম্মান প্রদর্শন করা। এটা আমাদের জাতীয় দায়িত্ব ও কর্তব্য। বক্তারা বলেন, আজ দেশের স্বাধীনতা নিয়ে রাজনীতি হচ্ছে, বাণিজ্য করা হচ্ছে। স্বাধীনতার পক্ষের শক্তি আর বিপক্ষ শক্তি বলে জাতিকে বিভক্ত করা হচ্ছে। বক্তারা বলেন, ৭১ পরবর্তী প্রজন্মের কাছে পক্ষ-বিপক্ষ বলতে কিছু নেই। দেশে সবাই বাঙালী-বাংলাদেশী। বক্তারা আরো বলেন, স্বাধীনতার পর বাংলাদেশের বড় সমস্যা হচ্ছে প্রাকৃতিক বিপর্যয়। এই বিপর্যয় মোকাবেলা করতে না পারলে পারলেন দেশ থাকবে না, দেশের মানুষও থাকবে না। বক্তারা দেশে প্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়ে স্ব স্ব অবস্থান থেকে দেশের কল্যাণে অবদান রাখার জন্য প্রবাসীদের প্রতি আহ্বান জানান এবং ড্রীম ফাউন্ডেশনের আয়োজনের প্রশংসা করেন। খবর ইউএনএ’র।
সিটির বাংলাদেশী অধ্যুষিত জ্যামাইকার কাঠাল বাগান রেষ্টুরেন্ট মিলনায়তনে ২০ ডিসেম্বর রোববার সন্ধ্যায় আয়োজিত বিজয় দিবসের আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন কেরানীগঞ্জ ফাউন্ডেশনের অন্যতম উপদেষ্টা হাজী মজিবুর রহমান। অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে মঞ্চে উপবিষ্ট ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা ও বাংলাদেশ সোসাইটির সাবেক সহ সভাপতি কাজী আজহারুল হক মিলন, সোসাইটির সাবেক সহ সভাপতি ওয়াসী চৌধুরী, কেরানীগঞ্জ ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি জোওয়াদ হাবীব ও কমিউনিটি অ্যাক্টিভিষ্ট খান শওকত।
A-H 16 Drem Foindation Pic-4অনুষ্ঠানে মহান বিজয় দিবস স্মরণে সাংবাদিকতা, সমাজকর্ম ও সঙ্গীত জগতের স্ব স্ব ক্ষেত্রে কমিউনিটিতে বিশেষ অবদান রাখার তিনজনকে প্ল্যাক প্রদানের মাধ্যমে সম্মানিত করা হয়। এরা হচ্ছেন: বার্তা সংস্থা ইউনাইটেড নিউজ অব আমেরিকা (ইউএনএ) ও হককথা সম্পাদক এবিএম সালাহউদ্দিন আহমেদ, সমাজকর্মী খান শওকত ও সঙ্গীত শিল্পী কৌশলী ইমা। উল্লেখ্য, বাংলাদেশের বিজয় দিবসকে উপলক্ষ করে ঢাকার কেরানীগঞ্জের সন্তান নিউইয়র্ক প্রবাসী আলী হোসেন তার পিতা আহাম্মদ হোসেনের নামে চলতি বছর ‘এ-এইচ ১৬ ড্রীম ফাউন্ডেশন ইনক’ প্রতিষ্ঠা করেছেন। প্রবাসী ও দেশে নিজ এলাকাবাসীদের কল্যাণই এই ফাউন্ডেশন প্রতিষ্ঠার লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য। ইতিমধ্যেই ফাউন্ডেশর উদ্যোগে আমেরিকান-বাংলাদেশী শিক্ষার্থীদের মাঝে স্কুল সাপ্লাই বিতরণ করে কমিউনিটির প্রশংসা অর্জন করেছে।
A-H 16 Drem Foindation Pic-3অনুষ্ঠানের শুরুতেই স্বাগত বক্তব্য রাখেন এ-এইচ ১৬ ড্রীম ফাউন্ডেশন ইনক’র প্রতিষ্ঠাতা ও প্রেসিডেন্ট আলী হোসেন। এরপর পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন জোওয়াদ হাবীব। পরবর্তীতে বাংলাদেশের সকল শহীদদের স্মরণে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন এবং জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন করা হয়। বিজয় দিসের আলোচনা সভায় অতিথিবৃন্দ ছাড়াও অন্যান্যের মধ্যে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন এবাদুর রহমান খালেদ, ভারতীয়-আমেরিকান বাঙালী স্বপন বসু প্রমুখ। অনুষ্ঠানে কবিতা পাঠ করেন আফরোজা মিলি, পারভীন, স্বপন বসু প্রমুখ। এছাড়া সঙ্গীত পরিবেশন করেন হাফিজুর রহমান, কৌশলী ইমা, পারভীন, জামান প্রমুখ। বাঁশি বাজান হারুনুর রশীদ। অনুষ্ঠান উপস্থাপনায় ছিলেন রোকসানা বেগম। সাউন্ড সিস্টেমে ছিলেন নিয়ামুল করীম।
Khan Sawkot Speach
Salahuddin Ahmed
Kowsoli ema
Khan Sawkot

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

About Author Information

এ-এইচ ১৬ ড্রীম ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে বিজয় দিবস পালন

প্রকাশের সময় : ১২:১০:০৯ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২২ ডিসেম্বর ২০১৫

নিউইয়র্ক: বাংলাদেশের মহান বিজয় দিবস বিজয় দিবস পালন এ-এইচ ১৬ ড্রীম ফাউন্ডেশন ইনক অয়োজিত আলোচনা সভায় বক্তারা ‘জাতির জনক’ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, স্বাধীনতার ঘোষক শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান (বীরোত্তম), মহান মুক্তিযুদ্ধের সর্বাধিনায়ক জেনারেল এম এ জি ওসমানী সহ জাতীয় নেতাদের দলমতের উর্ধ্বে রাখার দাবি জানিয়ে বলেন, স্বাধীনতার সঠিক ইতিহাস রচনা জরুরী। প্রয়োজন প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা প্রণয়নের পাশাপাশি তাঁদেরকে যথাযথ সম্মান প্রদর্শন করা। এটা আমাদের জাতীয় দায়িত্ব ও কর্তব্য। বক্তারা বলেন, আজ দেশের স্বাধীনতা নিয়ে রাজনীতি হচ্ছে, বাণিজ্য করা হচ্ছে। স্বাধীনতার পক্ষের শক্তি আর বিপক্ষ শক্তি বলে জাতিকে বিভক্ত করা হচ্ছে। বক্তারা বলেন, ৭১ পরবর্তী প্রজন্মের কাছে পক্ষ-বিপক্ষ বলতে কিছু নেই। দেশে সবাই বাঙালী-বাংলাদেশী। বক্তারা আরো বলেন, স্বাধীনতার পর বাংলাদেশের বড় সমস্যা হচ্ছে প্রাকৃতিক বিপর্যয়। এই বিপর্যয় মোকাবেলা করতে না পারলে পারলেন দেশ থাকবে না, দেশের মানুষও থাকবে না। বক্তারা দেশে প্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়ে স্ব স্ব অবস্থান থেকে দেশের কল্যাণে অবদান রাখার জন্য প্রবাসীদের প্রতি আহ্বান জানান এবং ড্রীম ফাউন্ডেশনের আয়োজনের প্রশংসা করেন। খবর ইউএনএ’র।
সিটির বাংলাদেশী অধ্যুষিত জ্যামাইকার কাঠাল বাগান রেষ্টুরেন্ট মিলনায়তনে ২০ ডিসেম্বর রোববার সন্ধ্যায় আয়োজিত বিজয় দিবসের আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন কেরানীগঞ্জ ফাউন্ডেশনের অন্যতম উপদেষ্টা হাজী মজিবুর রহমান। অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে মঞ্চে উপবিষ্ট ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা ও বাংলাদেশ সোসাইটির সাবেক সহ সভাপতি কাজী আজহারুল হক মিলন, সোসাইটির সাবেক সহ সভাপতি ওয়াসী চৌধুরী, কেরানীগঞ্জ ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি জোওয়াদ হাবীব ও কমিউনিটি অ্যাক্টিভিষ্ট খান শওকত।
A-H 16 Drem Foindation Pic-4অনুষ্ঠানে মহান বিজয় দিবস স্মরণে সাংবাদিকতা, সমাজকর্ম ও সঙ্গীত জগতের স্ব স্ব ক্ষেত্রে কমিউনিটিতে বিশেষ অবদান রাখার তিনজনকে প্ল্যাক প্রদানের মাধ্যমে সম্মানিত করা হয়। এরা হচ্ছেন: বার্তা সংস্থা ইউনাইটেড নিউজ অব আমেরিকা (ইউএনএ) ও হককথা সম্পাদক এবিএম সালাহউদ্দিন আহমেদ, সমাজকর্মী খান শওকত ও সঙ্গীত শিল্পী কৌশলী ইমা। উল্লেখ্য, বাংলাদেশের বিজয় দিবসকে উপলক্ষ করে ঢাকার কেরানীগঞ্জের সন্তান নিউইয়র্ক প্রবাসী আলী হোসেন তার পিতা আহাম্মদ হোসেনের নামে চলতি বছর ‘এ-এইচ ১৬ ড্রীম ফাউন্ডেশন ইনক’ প্রতিষ্ঠা করেছেন। প্রবাসী ও দেশে নিজ এলাকাবাসীদের কল্যাণই এই ফাউন্ডেশন প্রতিষ্ঠার লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য। ইতিমধ্যেই ফাউন্ডেশর উদ্যোগে আমেরিকান-বাংলাদেশী শিক্ষার্থীদের মাঝে স্কুল সাপ্লাই বিতরণ করে কমিউনিটির প্রশংসা অর্জন করেছে।
A-H 16 Drem Foindation Pic-3অনুষ্ঠানের শুরুতেই স্বাগত বক্তব্য রাখেন এ-এইচ ১৬ ড্রীম ফাউন্ডেশন ইনক’র প্রতিষ্ঠাতা ও প্রেসিডেন্ট আলী হোসেন। এরপর পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন জোওয়াদ হাবীব। পরবর্তীতে বাংলাদেশের সকল শহীদদের স্মরণে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন এবং জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন করা হয়। বিজয় দিসের আলোচনা সভায় অতিথিবৃন্দ ছাড়াও অন্যান্যের মধ্যে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন এবাদুর রহমান খালেদ, ভারতীয়-আমেরিকান বাঙালী স্বপন বসু প্রমুখ। অনুষ্ঠানে কবিতা পাঠ করেন আফরোজা মিলি, পারভীন, স্বপন বসু প্রমুখ। এছাড়া সঙ্গীত পরিবেশন করেন হাফিজুর রহমান, কৌশলী ইমা, পারভীন, জামান প্রমুখ। বাঁশি বাজান হারুনুর রশীদ। অনুষ্ঠান উপস্থাপনায় ছিলেন রোকসানা বেগম। সাউন্ড সিস্টেমে ছিলেন নিয়ামুল করীম।
Khan Sawkot Speach
Salahuddin Ahmed
Kowsoli ema
Khan Sawkot