নিউইয়র্ক ০৫:০৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ২২ জুলাই ২০২৪, ৭ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন :
মঙ্গলবারের পত্রিকা সাপ্তাহিক হককথা ও হককথা.কম এ আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন +1 (347) 848-3834

এফএএ’র অডিট রিপোর্ট পেলেই নিউইয়র্ক-ঢাকা-নিউইয়র্ক রুটে বিমান চলবে

রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : ১১:৪৬:২৫ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৫ জুলাই ২০১৫
  • / ৬৪৬ বার পঠিত

নিউইয়র্ক: যুক্তরাষ্ট্র সফররত বেসামরিক বিমান চলাচল ও পর্যটন মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন নিউইয়র্ক-ঢাকা-নিউইয়র্ক রুটে বিমান চালু প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার রাজনৈতিক প্রতিশ্রুতি হিসেবে উল্লেখ করে বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্রের ফেডালের এভিয়েশন অথরিটি (এফএএ)-অডিট রিপোর্ট পেলেই এই রুটে বিমান চালু হবে। তবে এজন্য আগামাী সেপ্টেম্বর মাস থেকে নতুন বছর পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। মন্ত্রী বলেন, জেএফকে এয়ারপোর্টে বাংলাদেশ বিমানের শ্লট আজো বরাদ্দ রয়েছে। নিউইয়র্ক-ঢাকা-নিউইয়র্ক রুটে পুনরায় বিমান চালুর ব্যাপারে গত বছর থেকেই এফএএ’র সাথে দেন-দরবার চলছে। ইতিপূর্বে এফএএ’র ৬৪টি অপত্তির মধ্যে প্রায় সবগুলো অপত্তিই ফুলফিল করা হয়েছে। এখন মাত্র ১৬টি আপত্তি ফুলফিলের পথে রয়েছে। আশা করা হচ্ছে আগামী সেপ্টেম্বর মাসের মধ্যেই এই আপত্তিগুলোরও নিষ্পত্তি হবে এবং এরপরেই রুটিতে বিমান চালু করা সম্ভব হবে। পাশাপাশি মন্ত্রী বাংলাদেশের পর্যটন শিল্পের বিকাশ ও প্রসারে প্রবাসী বাংলাদেশীদের ভূমিকা রাখার আহবান জানিয়ে বলেন, আপনাদের দেশ ভ্রমনের সময় সপরিবারে দেশের পর্যটন এলাকাগুলো ঘুরে দেখুন, পর্যটন শিল্পকে উৎসাহীত করুন।
সিটির এলামহাস্টস্থ বাংলাদেশ সোসাইটি কার্যালয়ে ১৫ জুলাই বুধবার আয়োজিত মতবিনিময় সভা ও ইফতার মাহফিলে মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন উপরোক্ত কথা বলেন। সোসাইটির সভাপতি আজমল হোসেন কুনুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন সোসাইটির ট্রাষ্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান ডা. মইনুল ইসলাম মিয়া, সাবেক সভাপতি কামাল আহমেদ ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক ফখরুল আলম।
অনুষ্ঠানের শুরুতে মন্ত্রী মেননকে সোসাইটির কর্মকর্তরা পুষ্পস্তবক দিয়ে শুভেচ্ছা জানান। এছাড়া সভাপতি আজমল হোসেন কুনু স্বাগত বক্তব্য রাখেন এবং মন্ত্রীকে প্রদত্ত স্মারকলিপি পাঠ করেন সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহীম হাওলাদার। পরে মন্ত্রীকে সোসাইটির পক্ষ থেকে ক্রেস্ট প্রদান করা হয়।
সভাপতি কুনু তার বক্তব্যে নিউইয়র্ক-ঢাকা-নিউইয়র্ক রুটে বিমান চালুর দাবী ছাড়াও লন্ডন-সিলেট রুটে বন্ধ হওয়া সরাসরি বিমান চালু, নিউইয়র্ক প্রবাসী মনসুর রহমান ঢাকায় হত্যা ও সিলেটে রাজন হত্যার বিচার দাবী করেন।
ফখরুল আলম তার বক্তব্যে নিউইয়র্ক-ঢাকা-নিউইয়র্ক রুটে বিমান চালু জোর দাবী জানিয়ে বলেন, প্রবাসীদের অর্থে দেশের অর্থনীতি সমৃদ্ধ হচ্ছে, দেশে বৈদেশিক রিজার্ভ ফান্ড বাড়ছে। সেই প্রবাসীদের যেনো এজন্য আন্দোলনে নামতে না হয়।
অনুষ্ঠানে সোসাইটির ট্রাষ্টি বোর্ডের অন্যতম সদস্য এম, কাইয়্যুম ও আলাউদ্দিন ভুলু, সাবেক সাধারণ সম্পাদক আতিকুর রহমান ইউসুফজাই (সালু) ছাড়াও অন্যান্য কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন।
বাংলাদেশ সোসাইটির স্মারকলিপিতে মূলত: যুক্তরাষ্ট্র তথা উত্তর আমেরিকা প্রবাসী বাংলাদেশীদের সুবিধা আর অধিকারের কথা বিবেচনা করে নিউইয়র্ক-ঢাকা-নিউইয়র্ক রুটে বিমান চালুর দাবী জানানো হয়।
অনুষ্ঠানে বিমান মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন বলেন, নিউইয়র্ক-ঢাকা-নিউইয়র্ক রুটে বিমান চালু সরকারের টপ প্রায়োরিটি। নানা সীমবদ্ধতার মধ্যেও সরকার প্রবাসীদের কথা বিবেচনা করে রুটটি চালুর ব্যাপারে কাজ করে চলছে। তিনি প্রবাসীদের কল্যাণে সরকারের প্রবাসী মন্ত্রনালয় সহ প্রবাসী ব্যাংক, প্রবাসী ভবন প্রভৃতির কথা তুলে ধরে এবং সরকার ঘোষিত ‘২০১৬ সালকে পর্যটন বর্ষ’-কে সফল করতে প্রবাসীদের সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেন। তিনি বলেন, দেশের কক্সবাজার ও রাঙামাটিতে আন্তর্জাতিকমানের সমুদ্র সৈকত করা হচ্ছে। এরছাড়া মন্ত্রী প্রবাসে দেশের রাজনীতি না করে মূলধারায় সম্পৃক্ত হয়ে প্রবাসী ও দেশের কল্যাণে কাজ করার জন্য কমিউনিটি নেতৃবৃন্দর প্রতি আহ্বান জানান।
নিউইয়র্কে বাংলাদেশ ভবন করার ব্যাপারে মন্ত্রী মেননের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে তিনি বলেন, বিষয়টি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বলুন। টেক্সাসের হিউস্টনে অনুষ্ঠিত বঙ্গ সম্মেলন সম্পর্কিত এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, এই সম্মেলনে সরকারের কোন ভূমিকা নেই বা সরকারের পক্ষ থেকে কোন আর্থিক অনুদান দেয়া হয়নি। সম্মেলনের বাংলাদেশ কমিটির আমন্ত্রনেই তিনি সেখানে অতিথি ছিলেন এবং দেশের কোন কোন প্রতিষ্ঠান সেখানে স্টল নিয়েছেন বলে জানান।

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

About Author Information

এফএএ’র অডিট রিপোর্ট পেলেই নিউইয়র্ক-ঢাকা-নিউইয়র্ক রুটে বিমান চলবে

প্রকাশের সময় : ১১:৪৬:২৫ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৫ জুলাই ২০১৫

নিউইয়র্ক: যুক্তরাষ্ট্র সফররত বেসামরিক বিমান চলাচল ও পর্যটন মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন নিউইয়র্ক-ঢাকা-নিউইয়র্ক রুটে বিমান চালু প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার রাজনৈতিক প্রতিশ্রুতি হিসেবে উল্লেখ করে বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্রের ফেডালের এভিয়েশন অথরিটি (এফএএ)-অডিট রিপোর্ট পেলেই এই রুটে বিমান চালু হবে। তবে এজন্য আগামাী সেপ্টেম্বর মাস থেকে নতুন বছর পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। মন্ত্রী বলেন, জেএফকে এয়ারপোর্টে বাংলাদেশ বিমানের শ্লট আজো বরাদ্দ রয়েছে। নিউইয়র্ক-ঢাকা-নিউইয়র্ক রুটে পুনরায় বিমান চালুর ব্যাপারে গত বছর থেকেই এফএএ’র সাথে দেন-দরবার চলছে। ইতিপূর্বে এফএএ’র ৬৪টি অপত্তির মধ্যে প্রায় সবগুলো অপত্তিই ফুলফিল করা হয়েছে। এখন মাত্র ১৬টি আপত্তি ফুলফিলের পথে রয়েছে। আশা করা হচ্ছে আগামী সেপ্টেম্বর মাসের মধ্যেই এই আপত্তিগুলোরও নিষ্পত্তি হবে এবং এরপরেই রুটিতে বিমান চালু করা সম্ভব হবে। পাশাপাশি মন্ত্রী বাংলাদেশের পর্যটন শিল্পের বিকাশ ও প্রসারে প্রবাসী বাংলাদেশীদের ভূমিকা রাখার আহবান জানিয়ে বলেন, আপনাদের দেশ ভ্রমনের সময় সপরিবারে দেশের পর্যটন এলাকাগুলো ঘুরে দেখুন, পর্যটন শিল্পকে উৎসাহীত করুন।
সিটির এলামহাস্টস্থ বাংলাদেশ সোসাইটি কার্যালয়ে ১৫ জুলাই বুধবার আয়োজিত মতবিনিময় সভা ও ইফতার মাহফিলে মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন উপরোক্ত কথা বলেন। সোসাইটির সভাপতি আজমল হোসেন কুনুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন সোসাইটির ট্রাষ্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান ডা. মইনুল ইসলাম মিয়া, সাবেক সভাপতি কামাল আহমেদ ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক ফখরুল আলম।
অনুষ্ঠানের শুরুতে মন্ত্রী মেননকে সোসাইটির কর্মকর্তরা পুষ্পস্তবক দিয়ে শুভেচ্ছা জানান। এছাড়া সভাপতি আজমল হোসেন কুনু স্বাগত বক্তব্য রাখেন এবং মন্ত্রীকে প্রদত্ত স্মারকলিপি পাঠ করেন সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহীম হাওলাদার। পরে মন্ত্রীকে সোসাইটির পক্ষ থেকে ক্রেস্ট প্রদান করা হয়।
সভাপতি কুনু তার বক্তব্যে নিউইয়র্ক-ঢাকা-নিউইয়র্ক রুটে বিমান চালুর দাবী ছাড়াও লন্ডন-সিলেট রুটে বন্ধ হওয়া সরাসরি বিমান চালু, নিউইয়র্ক প্রবাসী মনসুর রহমান ঢাকায় হত্যা ও সিলেটে রাজন হত্যার বিচার দাবী করেন।
ফখরুল আলম তার বক্তব্যে নিউইয়র্ক-ঢাকা-নিউইয়র্ক রুটে বিমান চালু জোর দাবী জানিয়ে বলেন, প্রবাসীদের অর্থে দেশের অর্থনীতি সমৃদ্ধ হচ্ছে, দেশে বৈদেশিক রিজার্ভ ফান্ড বাড়ছে। সেই প্রবাসীদের যেনো এজন্য আন্দোলনে নামতে না হয়।
অনুষ্ঠানে সোসাইটির ট্রাষ্টি বোর্ডের অন্যতম সদস্য এম, কাইয়্যুম ও আলাউদ্দিন ভুলু, সাবেক সাধারণ সম্পাদক আতিকুর রহমান ইউসুফজাই (সালু) ছাড়াও অন্যান্য কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন।
বাংলাদেশ সোসাইটির স্মারকলিপিতে মূলত: যুক্তরাষ্ট্র তথা উত্তর আমেরিকা প্রবাসী বাংলাদেশীদের সুবিধা আর অধিকারের কথা বিবেচনা করে নিউইয়র্ক-ঢাকা-নিউইয়র্ক রুটে বিমান চালুর দাবী জানানো হয়।
অনুষ্ঠানে বিমান মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন বলেন, নিউইয়র্ক-ঢাকা-নিউইয়র্ক রুটে বিমান চালু সরকারের টপ প্রায়োরিটি। নানা সীমবদ্ধতার মধ্যেও সরকার প্রবাসীদের কথা বিবেচনা করে রুটটি চালুর ব্যাপারে কাজ করে চলছে। তিনি প্রবাসীদের কল্যাণে সরকারের প্রবাসী মন্ত্রনালয় সহ প্রবাসী ব্যাংক, প্রবাসী ভবন প্রভৃতির কথা তুলে ধরে এবং সরকার ঘোষিত ‘২০১৬ সালকে পর্যটন বর্ষ’-কে সফল করতে প্রবাসীদের সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেন। তিনি বলেন, দেশের কক্সবাজার ও রাঙামাটিতে আন্তর্জাতিকমানের সমুদ্র সৈকত করা হচ্ছে। এরছাড়া মন্ত্রী প্রবাসে দেশের রাজনীতি না করে মূলধারায় সম্পৃক্ত হয়ে প্রবাসী ও দেশের কল্যাণে কাজ করার জন্য কমিউনিটি নেতৃবৃন্দর প্রতি আহ্বান জানান।
নিউইয়র্কে বাংলাদেশ ভবন করার ব্যাপারে মন্ত্রী মেননের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে তিনি বলেন, বিষয়টি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বলুন। টেক্সাসের হিউস্টনে অনুষ্ঠিত বঙ্গ সম্মেলন সম্পর্কিত এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, এই সম্মেলনে সরকারের কোন ভূমিকা নেই বা সরকারের পক্ষ থেকে কোন আর্থিক অনুদান দেয়া হয়নি। সম্মেলনের বাংলাদেশ কমিটির আমন্ত্রনেই তিনি সেখানে অতিথি ছিলেন এবং দেশের কোন কোন প্রতিষ্ঠান সেখানে স্টল নিয়েছেন বলে জানান।