নিউইয়র্ক ০৭:৫৪ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন :
মঙ্গলবারের পত্রিকা সাপ্তাহিক হককথা ও হককথা.কম এ আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন +1 (347) 848-3834

ইউএস কংগ্রেসে অভিশংসিত ট্রাম্প : জানুয়ারীতে সিনেটে অভিশংসন প্রস্তাব

রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : ০৯:০১:৩২ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২০ ডিসেম্বর ২০১৯
  • / ২১০ বার পঠিত

হককথা ডেস্ক: ইউএস কংগ্রেসের নিম্নকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদে অভিশংসিত হয়েছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। ক্ষমতার অপব্যবহার এবং বিচার কাজে প্রতিবন্ধকতার দুটি অভিযোগে তাকে অভিশংসিত করা হয়েছে। ক্ষমতার অপব্যবহার করায় তার বিরুদ্ধে ভোট দিয়েছেন ২৩০ জন সদস্য। বিপক্ষে ভোট দিয়েছেন ১৯৭ জন। অন্যদিকে কংগ্রেসে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টির কারণে তার বিরুদ্ধে ভোট দিয়েছেন ২২৯ জন। বিপক্ষে ভোট দিয়েছেন ১৯৮ জন। বুধবার (১৮ ডিসেম্বর) প্রতিনিধি পরিষদে এই ভোট হয়। তবে এখনই প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ক্ষমতা থেকে বিদায় নিতে হচ্ছে না।
জানুয়ারীতে কংগ্রেসের উচ্চকক্ষ সিনেটে অভিশংসন প্রস্তাবে ভোট হবে। সেখানে যদি তিনি অভিশংসিত হন তাহলেই তাকে ক্ষমতা ছাড়তে হবে। তবে তেমনটা হওয়ার আশঙ্কা কমই রয়েছে। কারণ সিনেটের নিয়ন্ত্রণ রয়েছে রিপাবলিকানদের হাতে। এ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে ট্রাম্প হচ্ছেন তৃতীয় প্রেসিডেন্ট, যার বিরুদ্ধে কংগ্রেসে অভিশংসন প্রস্তাব এনে তা ভোটে দেয়া হচ্ছে। এর আগে অভিশংসন প্রস্তাব আনা হয়েছিল প্রেসিডেন্ট অ্যানড্রু জনসন ও বিল ক্লিনটনের বিরুদ্ধে।
অনলাইন বিবিসি বলেছে, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বিরুদ্ধে প্রতিনিধি পরিষদে যখন অভিশংসন প্রস্তাব ভোটে দেয়া হয় তখন তিনি মিশিগানের ব্যাটল ক্রিকে এক জনাকীর্ণ সমাবেশে বক্তব্য রাখছিলেন। সেখানে ট্রাম্প বলেছেন, আমরা যখন কর্মসংস্থান সৃষ্টি করছি, মিশিগানের পক্ষে লড়াই করছি, তখন কংগ্রেসের উগ্ররা হিংসা, ঘৃণা এবং ক্ষোধের কারণে ক্ষয়ে যাচ্ছে। আপনারা তা দেখতে পাচ্ছেন। ওদিকে হোয়াইট হাউজ থেকে একটি বিবৃতি দেয়া হয়েছে। তাতে বলা হয়েছে, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের দৃঢ় আস্থা আছে যে, তিনি সিনেটের অভিশংসন থেকে পুরোপুরি রেহাই পাবেন।
বুধবারের অভিশংসন প্রক্রিয়াকে হতাশাজনক আখ্যায়িত করে প্রতিনিধি পরিষদে এর বিরোধিতা করতে থাকেন ট্রাম্পের রিপাবলিকান দলের সদস্যরা। তার মধ্য দিয়েই বুধবারের কর্মসূচি শুরু হয়। অভিশংসন প্রস্তাবের পক্ষে-বিপক্ষে উভয় পক্ষের মধ্যে ১০ ঘন্টার বিতর্ক চলে। অবশেষে স্থানীয় সময় রাত ৮টা ৩০ মিনিটে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বিরুদ্ধে দুটি অভিযোগ ভোটে দেয়া হয়। এর প্রথমটি হলো ক্ষমতার অপব্যবহার। এটি হলো তার রাজনৈতিক প্রতিদ্বন্দ্বী, সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের বিরুদ্ধে দুর্নীতির তদন্ত করতে ইউক্রেনকে তদন্তের জন্য চাপ দেয়া। দ্বিতীয় অভিযোগ হলো কংগ্রেসে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করা। তার বিরুদ্ধে অভিশংসন প্রক্রিয়ার তদন্তে অসহযোগিতার অভিযোগ আনা হয়েছে এতে। (সুত্র: মানবজমিন)

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

About Author Information

ইউএস কংগ্রেসে অভিশংসিত ট্রাম্প : জানুয়ারীতে সিনেটে অভিশংসন প্রস্তাব

প্রকাশের সময় : ০৯:০১:৩২ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২০ ডিসেম্বর ২০১৯

হককথা ডেস্ক: ইউএস কংগ্রেসের নিম্নকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদে অভিশংসিত হয়েছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। ক্ষমতার অপব্যবহার এবং বিচার কাজে প্রতিবন্ধকতার দুটি অভিযোগে তাকে অভিশংসিত করা হয়েছে। ক্ষমতার অপব্যবহার করায় তার বিরুদ্ধে ভোট দিয়েছেন ২৩০ জন সদস্য। বিপক্ষে ভোট দিয়েছেন ১৯৭ জন। অন্যদিকে কংগ্রেসে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টির কারণে তার বিরুদ্ধে ভোট দিয়েছেন ২২৯ জন। বিপক্ষে ভোট দিয়েছেন ১৯৮ জন। বুধবার (১৮ ডিসেম্বর) প্রতিনিধি পরিষদে এই ভোট হয়। তবে এখনই প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ক্ষমতা থেকে বিদায় নিতে হচ্ছে না।
জানুয়ারীতে কংগ্রেসের উচ্চকক্ষ সিনেটে অভিশংসন প্রস্তাবে ভোট হবে। সেখানে যদি তিনি অভিশংসিত হন তাহলেই তাকে ক্ষমতা ছাড়তে হবে। তবে তেমনটা হওয়ার আশঙ্কা কমই রয়েছে। কারণ সিনেটের নিয়ন্ত্রণ রয়েছে রিপাবলিকানদের হাতে। এ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে ট্রাম্প হচ্ছেন তৃতীয় প্রেসিডেন্ট, যার বিরুদ্ধে কংগ্রেসে অভিশংসন প্রস্তাব এনে তা ভোটে দেয়া হচ্ছে। এর আগে অভিশংসন প্রস্তাব আনা হয়েছিল প্রেসিডেন্ট অ্যানড্রু জনসন ও বিল ক্লিনটনের বিরুদ্ধে।
অনলাইন বিবিসি বলেছে, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বিরুদ্ধে প্রতিনিধি পরিষদে যখন অভিশংসন প্রস্তাব ভোটে দেয়া হয় তখন তিনি মিশিগানের ব্যাটল ক্রিকে এক জনাকীর্ণ সমাবেশে বক্তব্য রাখছিলেন। সেখানে ট্রাম্প বলেছেন, আমরা যখন কর্মসংস্থান সৃষ্টি করছি, মিশিগানের পক্ষে লড়াই করছি, তখন কংগ্রেসের উগ্ররা হিংসা, ঘৃণা এবং ক্ষোধের কারণে ক্ষয়ে যাচ্ছে। আপনারা তা দেখতে পাচ্ছেন। ওদিকে হোয়াইট হাউজ থেকে একটি বিবৃতি দেয়া হয়েছে। তাতে বলা হয়েছে, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের দৃঢ় আস্থা আছে যে, তিনি সিনেটের অভিশংসন থেকে পুরোপুরি রেহাই পাবেন।
বুধবারের অভিশংসন প্রক্রিয়াকে হতাশাজনক আখ্যায়িত করে প্রতিনিধি পরিষদে এর বিরোধিতা করতে থাকেন ট্রাম্পের রিপাবলিকান দলের সদস্যরা। তার মধ্য দিয়েই বুধবারের কর্মসূচি শুরু হয়। অভিশংসন প্রস্তাবের পক্ষে-বিপক্ষে উভয় পক্ষের মধ্যে ১০ ঘন্টার বিতর্ক চলে। অবশেষে স্থানীয় সময় রাত ৮টা ৩০ মিনিটে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বিরুদ্ধে দুটি অভিযোগ ভোটে দেয়া হয়। এর প্রথমটি হলো ক্ষমতার অপব্যবহার। এটি হলো তার রাজনৈতিক প্রতিদ্বন্দ্বী, সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের বিরুদ্ধে দুর্নীতির তদন্ত করতে ইউক্রেনকে তদন্তের জন্য চাপ দেয়া। দ্বিতীয় অভিযোগ হলো কংগ্রেসে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করা। তার বিরুদ্ধে অভিশংসন প্রক্রিয়ার তদন্তে অসহযোগিতার অভিযোগ আনা হয়েছে এতে। (সুত্র: মানবজমিন)