নিউইয়র্ক ০১:৩৬ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন :
মঙ্গলবারের পত্রিকা সাপ্তাহিক হককথা ও হককথা.কম এ আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন +1 (347) 848-3834

সকলকে সহিংসতা রোধে এগিয়ে আসতে হবে : স্পিকার

রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : ০৪:০৩:৫৫ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ জানুয়ারী ২০১৫
  • / ৬৩২ বার পঠিত
ঢাকা: জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেছেন, রাজনীতি একটি চলমান প্রক্রিয়া। কিন্তু সন্ত্রাস-সহিংসতা কোনো রাজনীতি হতে পারে না। সহিসংসতা বন্ধে কাজ করছি এবং করব। এ সময় সন্ত্রাস-সহিংসতা বন্ধে সকলকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান তিনি। ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের (ঢামেক) বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন দগ্ধদের দেখতে বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় সেখানে যান জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী। এ সময় তিনি চিকিৎসাধীন দগ্ধ ২১ জনকে ১০ হাজার করে টাকা দেন।
দগ্ধদের দেখা শেষে উপস্থিত সাংবাদিকদের স্পিকার বলেন, এ রকম পরিস্থিতিতে বার্ন ইউনিটে এসে দগ্ধ ভাই-বোনদের দেখতে হবে কখনও চিন্তা করিনি। এটা অত্যন্ত নির্মম বেদনাদায়ক। তিনি বলেন, চিকিৎসকদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, এখানে ৪৪ জন দগ্ধকে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। এদের মধ্যে তিনজন মারা গেছেন। তাদের মধ্যে বেশির ভাগই চালক। উনারা খেটে খাওয়া মানুষ। নিজেদের জীবিকা নির্বাহের জন্যই পথে বেরিয়েছিলেন। সেখানে তারা আক্রান্ত হয়েছেন এ ধরনের সন্ত্রাস ও সহিংসতার কারণে।
শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে উনারা আক্রান্ত হয়ে এসেছেন। এটা জঘন্য নারকীয়। এটি একটি কলঙ্কজনক অধ্যায় বলে মনে করি আমি। তিনি বলেন, এ ধরনের সন্ত্রাস ও সহিংসতা কোনো রাজনীতি হতে পারে না। এ সহিংসতা বন্ধের জন্য বাংলাদেশের প্রত্যেক বিবেকবান ও সচেতন মানুষের উদ্যোগ নিতে হবে।
স্পিকার বলেন, আজকে আমি এখানে জাতীয় সংসদের পক্ষ থেকে এসেছিলাম। সারাদেশের মানুষের পক্ষে আমাদের একটাই দাবি, নিরীহ মানুষদের ওপর সহিংসতা ও সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড এই মুহূর্তে বন্ধ করুন। তিনি বলেন, রাজনীতি একটি চলমান প্রক্রিয়া। প্রত্যেক দেশেই রাজনীতি আছে, থাকবে। এর মাধ্যমেই দেশ এগিয়ে যায়। কিন্তু রাজনীতির কারণ যাই থাকুক না কেন সাধারণ মানুষকে কি পুড়িয়ে মারবে, এর কি আর সমাধানের কোনো পথ নেই? এ সময় সংসদ সদস্য হাজি মোহাম্মদ সেলিম তার সঙ্গে ছিলেন।
Tag :

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

About Author Information

সকলকে সহিংসতা রোধে এগিয়ে আসতে হবে : স্পিকার

প্রকাশের সময় : ০৪:০৩:৫৫ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ জানুয়ারী ২০১৫
ঢাকা: জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেছেন, রাজনীতি একটি চলমান প্রক্রিয়া। কিন্তু সন্ত্রাস-সহিংসতা কোনো রাজনীতি হতে পারে না। সহিসংসতা বন্ধে কাজ করছি এবং করব। এ সময় সন্ত্রাস-সহিংসতা বন্ধে সকলকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান তিনি। ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের (ঢামেক) বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন দগ্ধদের দেখতে বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় সেখানে যান জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী। এ সময় তিনি চিকিৎসাধীন দগ্ধ ২১ জনকে ১০ হাজার করে টাকা দেন।
দগ্ধদের দেখা শেষে উপস্থিত সাংবাদিকদের স্পিকার বলেন, এ রকম পরিস্থিতিতে বার্ন ইউনিটে এসে দগ্ধ ভাই-বোনদের দেখতে হবে কখনও চিন্তা করিনি। এটা অত্যন্ত নির্মম বেদনাদায়ক। তিনি বলেন, চিকিৎসকদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, এখানে ৪৪ জন দগ্ধকে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। এদের মধ্যে তিনজন মারা গেছেন। তাদের মধ্যে বেশির ভাগই চালক। উনারা খেটে খাওয়া মানুষ। নিজেদের জীবিকা নির্বাহের জন্যই পথে বেরিয়েছিলেন। সেখানে তারা আক্রান্ত হয়েছেন এ ধরনের সন্ত্রাস ও সহিংসতার কারণে।
শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে উনারা আক্রান্ত হয়ে এসেছেন। এটা জঘন্য নারকীয়। এটি একটি কলঙ্কজনক অধ্যায় বলে মনে করি আমি। তিনি বলেন, এ ধরনের সন্ত্রাস ও সহিংসতা কোনো রাজনীতি হতে পারে না। এ সহিংসতা বন্ধের জন্য বাংলাদেশের প্রত্যেক বিবেকবান ও সচেতন মানুষের উদ্যোগ নিতে হবে।
স্পিকার বলেন, আজকে আমি এখানে জাতীয় সংসদের পক্ষ থেকে এসেছিলাম। সারাদেশের মানুষের পক্ষে আমাদের একটাই দাবি, নিরীহ মানুষদের ওপর সহিংসতা ও সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড এই মুহূর্তে বন্ধ করুন। তিনি বলেন, রাজনীতি একটি চলমান প্রক্রিয়া। প্রত্যেক দেশেই রাজনীতি আছে, থাকবে। এর মাধ্যমেই দেশ এগিয়ে যায়। কিন্তু রাজনীতির কারণ যাই থাকুক না কেন সাধারণ মানুষকে কি পুড়িয়ে মারবে, এর কি আর সমাধানের কোনো পথ নেই? এ সময় সংসদ সদস্য হাজি মোহাম্মদ সেলিম তার সঙ্গে ছিলেন।