নিউইয়র্ক ০৬:৪৪ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন :
মঙ্গলবারের পত্রিকা সাপ্তাহিক হককথা ও হককথা.কম এ আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন +1 (347) 848-3834

লন্ডনে খালেদা জিয়া : বিমানবন্দরে মাকে জড়িয়ে কাঁদলেন তারেক

রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : ০৫:১৪:৪৫ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৫
  • / ১২৪৭ বার পঠিত

লন্ডন: লন্ডন পৌঁছেছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। বুধবার (১৬ সেপ্টেম্বর) স্থানীয় সময় সকাল সোয়া ৭টায় লন্ডনের হিথ্রো বিমানবন্দরে পৌঁছান তিনি। এরপর কিছু সময় ইমিগ্রেশনের আনুষ্ঠানিকতা সেরে লাউঞ্জে প্রবেশ করলে ফুল দিয়ে মাকে শুভেচ্ছা জানান বড় ছেলে তারেক রহমান। এ সময় তারেক রহমান মাকে জড়িয়ে ধরেন। দীর্ঘদিন পর মা-ছেলের সাক্ষাতে বিমানবন্দর লাউঞ্জে সৃষ্টি হয় এক আবেগঘন পরিবেশের। মা-ছেলে কিছু মুহূর্ত একে অন্যকে জড়িয়ে ধরে থাকেন। দু’জনই তখন কাঁদছিলেন। সেখানে উপস্থিত যুক্তরাজ্য শাখা বিএনপির সভাপতি এমএ মালেক এসব তথ্য জানিয়েছেন। ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর মৃত্যুর পর বড় ছেলের সঙ্গে এ প্রথম সাক্ষাৎ হল খালেদা জিয়ার।
বিমানবন্দর লাউঞ্জে কিছুক্ষণ অবস্থান করে দলের স্থানীয় নেতাদের সঙ্গে কুশল বিনিময় করেন খালেদা জিয়া। এরপর কালো রঙের একটি গাড়িতে উঠেন তিনি। ড্রাইভিং সিটে বসেন তারেক রহমান। নিজেই ড্রাইভ করে মাকে স্থানীয় ট্রপিক্যাল হোটেলে নিয়ে যান তারেক রহমান। সেখানে কিছুক্ষণ বিশ্রাম ও নেতা-কর্মীদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় শেষে সেন্ট্রাল লন্ডনের একটি হোটেলে উঠেন তারা। চিকিৎসা ও পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে সাক্ষাতের জন্য এই সফরে খালেদা জিয়া এ হোটেলে থাকবেন। নাতনি জাইমা রহমান, পুত্রবধূ ডা. জোবাইদা রহমান ও ছেলে তারেক রহমানও এ হোটেলেই থাকবেন বলে বিএনপি সূত্র জানিয়েছে।
যুক্তরাজ্য শাখা বিএনপির সভাপতি এমএ মালেক আরও জানান, দু-এক দিন বিশ্রামের পর চেয়ারপারসন চোখ ও হাঁটুর চিকিৎসা করাবেন। ব্যক্তিগত এ সফরে তিনি ২ সপ্তাহ লন্ডন থাকবেন। চিকিৎসার পাশাপাশি তিনি পরিবারের সঙ্গে সময় কাটাবেন। পবিত্র ঈদুল আজহার সময় তিনি পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে থাকবেন। চিকিৎসা শেষে যুক্তরাজ্য সরকারের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে তার সাক্ষাৎ হতে পারে। সবকিছু শেষ করে ১ অক্টোবর খালেদা জিয়ার দেশে ফেরার কথা রয়েছে।
বিএনপি চেয়ারপারসন মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৯টায় যুক্তরাজ্যের উদ্দেশে ঢাকার হযরত শাহজালাল (রহ.) আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ত্যাগ করেন। খালেদা জিয়ার সফরসঙ্গী হয়েছেন- তার উপদেষ্টা আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, আবদুল আউয়াল মিন্টু, মিন্টুর ছেলে তাবিথ আউয়াল, চেয়ারপারসনের একান্ত সচিব আবদুস সাত্তার ও গৃহকর্মী ফাতেমা আখতার। ব্যাংকক থেকে প্রয়াত আরাফাত রহমান কোকোর স্ত্রী শার্মিলা রহমান সিঁথি ও দুই মেয়ে জাফিয়া রহমান এবং জাহিয়া রহমান ইতিমধ্যে লন্ডন পৌঁছেছেন।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে স্বাগত জানাতে ভোর থেকেই যুক্তরাজ্যের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে বিএনপি নেতা-কর্মীরা বিমানবন্দরে জড়ো হতে থাকেন। তারেক জিয়া বিমানবন্দর থেকে নিজে ড্রাইভিং করে মাকে নিয়ে বেরিয়ে যাওয়ার সময় রাস্তার দুই পাশে বিপুলসংখ্যক নেতা-কর্মী তাদের ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান। গাড়ি থেকে হাত নেড়ে নেতা-কর্মীদের শুভেচ্ছার জবাব দেন খালেদা জিয়া।
বিমানবন্দরের গেটের দুই পাশে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- বিএনপির আন্তর্জাতিক সম্পাদক মাহিদুর রহমান, মানবাধিকারবিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার নাসির উদ্দিন আহমেদ অসীম, প্রধানমন্ত্রীর সাবেক সহকারী প্রেস সচিব মুশফিকুল ফজল আনসারী, যুক্তরাজ্য বিএনপির সভাপতি এমএ মালেক, সাধারণ সম্পাদক কয়সর এম আহমেদ, সাবেক সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার এমএ সালাম, সাবেক ছাত্রনেতা নসরুল্লাহ খান জুনায়েদ, ব্যারিস্টার তারেক বিন আজিজ, যুক্তরাজ্য বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি আবদুল হামিদ চৌধুরী, আবুল কালাম আজাদ, মুজিবুর রহমান মুজিব, আখতার হোসেন, লুৎফর রহমান, মঞ্জুরুস সামাদ চৌধুরী মামুন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম মামুন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ খান, তাজউদ্দিন, শামসুর রহমান মাহতাব, দফতর সম্পাদক নাজমুল হাসান জাহিদ, যুবদলের আহ্বায়ক দেওয়ান মোকাদ্দেম চৌধুরী নিয়াজ, স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি নাসির আহমেদ শাহীন ও সাধারণ সম্পাদক আবুল হোসেন, জাসাস সভাপতি এমএ সালাম প্রমুখ।
আওয়ামী লীগের কালো পতাকা প্রদর্শন: বুধবার স্থানীয় সময় সকাল সোয়া ৭টায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া লন্ডনের হিথ্রো বিমানবন্দরের টার্মিনাল-৩-এ এসে পৌঁছান। যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগসহ বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে বিক্ষোভ ও কালো পতাকা প্রদর্শন করে। এ সময় তাদের হাতে বিভিন্ন প্ল্যাকার্ড ছিল। এ সময় যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সভাপতি সুলতান শরীফ, সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ ফারুক, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আনোয়ারোজ্জামান চৌধুরী, মারুফ চৌধুরী, যুক্তরাজ্য যুবলীগের সভাপতি ফখরুল ইসলাম মধু, সাধারণ সম্পাদক সেলিম খান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জামাল আহমেদ খান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
এদিকে যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগ ও যুবলীগের পক্ষ থেকে ঘোষণা দেয়া হয়েছে, লন্ডন সফরকালে খালেদা জিয়া যেখানেই কর্মসূচি পালন করতে যাবেন, সেখানেই তারা বিক্ষোভ করবে। (দৈনিক যুগান্তর)

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

About Author Information

লন্ডনে খালেদা জিয়া : বিমানবন্দরে মাকে জড়িয়ে কাঁদলেন তারেক

প্রকাশের সময় : ০৫:১৪:৪৫ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৫

লন্ডন: লন্ডন পৌঁছেছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। বুধবার (১৬ সেপ্টেম্বর) স্থানীয় সময় সকাল সোয়া ৭টায় লন্ডনের হিথ্রো বিমানবন্দরে পৌঁছান তিনি। এরপর কিছু সময় ইমিগ্রেশনের আনুষ্ঠানিকতা সেরে লাউঞ্জে প্রবেশ করলে ফুল দিয়ে মাকে শুভেচ্ছা জানান বড় ছেলে তারেক রহমান। এ সময় তারেক রহমান মাকে জড়িয়ে ধরেন। দীর্ঘদিন পর মা-ছেলের সাক্ষাতে বিমানবন্দর লাউঞ্জে সৃষ্টি হয় এক আবেগঘন পরিবেশের। মা-ছেলে কিছু মুহূর্ত একে অন্যকে জড়িয়ে ধরে থাকেন। দু’জনই তখন কাঁদছিলেন। সেখানে উপস্থিত যুক্তরাজ্য শাখা বিএনপির সভাপতি এমএ মালেক এসব তথ্য জানিয়েছেন। ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর মৃত্যুর পর বড় ছেলের সঙ্গে এ প্রথম সাক্ষাৎ হল খালেদা জিয়ার।
বিমানবন্দর লাউঞ্জে কিছুক্ষণ অবস্থান করে দলের স্থানীয় নেতাদের সঙ্গে কুশল বিনিময় করেন খালেদা জিয়া। এরপর কালো রঙের একটি গাড়িতে উঠেন তিনি। ড্রাইভিং সিটে বসেন তারেক রহমান। নিজেই ড্রাইভ করে মাকে স্থানীয় ট্রপিক্যাল হোটেলে নিয়ে যান তারেক রহমান। সেখানে কিছুক্ষণ বিশ্রাম ও নেতা-কর্মীদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় শেষে সেন্ট্রাল লন্ডনের একটি হোটেলে উঠেন তারা। চিকিৎসা ও পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে সাক্ষাতের জন্য এই সফরে খালেদা জিয়া এ হোটেলে থাকবেন। নাতনি জাইমা রহমান, পুত্রবধূ ডা. জোবাইদা রহমান ও ছেলে তারেক রহমানও এ হোটেলেই থাকবেন বলে বিএনপি সূত্র জানিয়েছে।
যুক্তরাজ্য শাখা বিএনপির সভাপতি এমএ মালেক আরও জানান, দু-এক দিন বিশ্রামের পর চেয়ারপারসন চোখ ও হাঁটুর চিকিৎসা করাবেন। ব্যক্তিগত এ সফরে তিনি ২ সপ্তাহ লন্ডন থাকবেন। চিকিৎসার পাশাপাশি তিনি পরিবারের সঙ্গে সময় কাটাবেন। পবিত্র ঈদুল আজহার সময় তিনি পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে থাকবেন। চিকিৎসা শেষে যুক্তরাজ্য সরকারের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে তার সাক্ষাৎ হতে পারে। সবকিছু শেষ করে ১ অক্টোবর খালেদা জিয়ার দেশে ফেরার কথা রয়েছে।
বিএনপি চেয়ারপারসন মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৯টায় যুক্তরাজ্যের উদ্দেশে ঢাকার হযরত শাহজালাল (রহ.) আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ত্যাগ করেন। খালেদা জিয়ার সফরসঙ্গী হয়েছেন- তার উপদেষ্টা আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, আবদুল আউয়াল মিন্টু, মিন্টুর ছেলে তাবিথ আউয়াল, চেয়ারপারসনের একান্ত সচিব আবদুস সাত্তার ও গৃহকর্মী ফাতেমা আখতার। ব্যাংকক থেকে প্রয়াত আরাফাত রহমান কোকোর স্ত্রী শার্মিলা রহমান সিঁথি ও দুই মেয়ে জাফিয়া রহমান এবং জাহিয়া রহমান ইতিমধ্যে লন্ডন পৌঁছেছেন।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে স্বাগত জানাতে ভোর থেকেই যুক্তরাজ্যের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে বিএনপি নেতা-কর্মীরা বিমানবন্দরে জড়ো হতে থাকেন। তারেক জিয়া বিমানবন্দর থেকে নিজে ড্রাইভিং করে মাকে নিয়ে বেরিয়ে যাওয়ার সময় রাস্তার দুই পাশে বিপুলসংখ্যক নেতা-কর্মী তাদের ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান। গাড়ি থেকে হাত নেড়ে নেতা-কর্মীদের শুভেচ্ছার জবাব দেন খালেদা জিয়া।
বিমানবন্দরের গেটের দুই পাশে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- বিএনপির আন্তর্জাতিক সম্পাদক মাহিদুর রহমান, মানবাধিকারবিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার নাসির উদ্দিন আহমেদ অসীম, প্রধানমন্ত্রীর সাবেক সহকারী প্রেস সচিব মুশফিকুল ফজল আনসারী, যুক্তরাজ্য বিএনপির সভাপতি এমএ মালেক, সাধারণ সম্পাদক কয়সর এম আহমেদ, সাবেক সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার এমএ সালাম, সাবেক ছাত্রনেতা নসরুল্লাহ খান জুনায়েদ, ব্যারিস্টার তারেক বিন আজিজ, যুক্তরাজ্য বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি আবদুল হামিদ চৌধুরী, আবুল কালাম আজাদ, মুজিবুর রহমান মুজিব, আখতার হোসেন, লুৎফর রহমান, মঞ্জুরুস সামাদ চৌধুরী মামুন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম মামুন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ খান, তাজউদ্দিন, শামসুর রহমান মাহতাব, দফতর সম্পাদক নাজমুল হাসান জাহিদ, যুবদলের আহ্বায়ক দেওয়ান মোকাদ্দেম চৌধুরী নিয়াজ, স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি নাসির আহমেদ শাহীন ও সাধারণ সম্পাদক আবুল হোসেন, জাসাস সভাপতি এমএ সালাম প্রমুখ।
আওয়ামী লীগের কালো পতাকা প্রদর্শন: বুধবার স্থানীয় সময় সকাল সোয়া ৭টায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া লন্ডনের হিথ্রো বিমানবন্দরের টার্মিনাল-৩-এ এসে পৌঁছান। যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগসহ বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে বিক্ষোভ ও কালো পতাকা প্রদর্শন করে। এ সময় তাদের হাতে বিভিন্ন প্ল্যাকার্ড ছিল। এ সময় যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সভাপতি সুলতান শরীফ, সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ ফারুক, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আনোয়ারোজ্জামান চৌধুরী, মারুফ চৌধুরী, যুক্তরাজ্য যুবলীগের সভাপতি ফখরুল ইসলাম মধু, সাধারণ সম্পাদক সেলিম খান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জামাল আহমেদ খান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
এদিকে যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগ ও যুবলীগের পক্ষ থেকে ঘোষণা দেয়া হয়েছে, লন্ডন সফরকালে খালেদা জিয়া যেখানেই কর্মসূচি পালন করতে যাবেন, সেখানেই তারা বিক্ষোভ করবে। (দৈনিক যুগান্তর)