নিউইয়র্ক ০৩:০৯ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন :
মঙ্গলবারের পত্রিকা সাপ্তাহিক হককথা ও হককথা.কম এ আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন +1 (347) 848-3834

লটারির মাধ্যমে প্রথম শ্রেণিতে ভর্তি

রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : ০১:৫৭:৫৭ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৪ নভেম্বর ২০১৫
  • / ৭৭৬ বার পঠিত

ঢাকা:প্রথম শ্রেণিতে ভর্তির জন্য শিশুদের এখন থেকে লটারির মাধ্যমে নির্বাচন করা হবে। ফলে তাদের আর ভর্তি পরীক্ষা দিতে হবে না। ‘শিক্ষার্থী ভর্তি নীতিমালা ২০১৫’-তে এই নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। শিক্ষা মন্ত্রণালয় প্রণীত এই নির্দেশনা ২০১৬ সাল থেকে কার্যকর হবে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মতে, কিছু বিদ্যালয় মানসম্মত হওয়ায় প্রথম শ্রেণিতে ভর্তি পরীক্ষায় প্রচণ্ড প্রতিযোগিতা হয়। অনেক ক্ষেত্রে একটি আসনের বিপরীতে ৫০ জন শিশুও প্রতিযোগিতা করে। এই ধরনের প্রতিযোগিতা বন্ধ করতেই এই লটারির ব্যবস্থা। নীতিমালা অনুযায়ী, স্কুলগুলোকে বাধ্যতামূলকভাবে লটারির মাধ্যমে শিক্ষার্থী নির্বাচন করতে হবে। শিক্ষার্থী নির্বাচনের পাশাপশি শূন্য আসনের জন্য অপেক্ষমান তালিকাও প্রকাশ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তবে এই নীতিমালা অনুযায়ী দ্বিতীয় থেকে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত ভর্তির জন্য লিখিত পরীক্ষা দিতে হবে। পরীক্ষায় অংশ নেওয়া শিক্ষার্থীদের মেধাক্রম অনুযায়ী শিক্ষার্থী ভর্তি করতে হবে। নীতিমালায় আরো বলা হয়েছে, ২০১৭ সাল থেকে দেশের সব সরকারি মাধ্যমিক স্কুলগুলোতে ভর্তি প্রক্রিয়ার সকল কার্যক্রম অনলাইন পদ্ধতিতে সম্পন্ন করতে হবে। সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ‘শিক্ষার্থী ভর্তি নীতিমালা-২০১৫’ শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে (www.moedu.gov.bd) পাওয়া যাবে।

Tag :

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

About Author Information

লটারির মাধ্যমে প্রথম শ্রেণিতে ভর্তি

প্রকাশের সময় : ০১:৫৭:৫৭ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৪ নভেম্বর ২০১৫

ঢাকা:প্রথম শ্রেণিতে ভর্তির জন্য শিশুদের এখন থেকে লটারির মাধ্যমে নির্বাচন করা হবে। ফলে তাদের আর ভর্তি পরীক্ষা দিতে হবে না। ‘শিক্ষার্থী ভর্তি নীতিমালা ২০১৫’-তে এই নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। শিক্ষা মন্ত্রণালয় প্রণীত এই নির্দেশনা ২০১৬ সাল থেকে কার্যকর হবে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মতে, কিছু বিদ্যালয় মানসম্মত হওয়ায় প্রথম শ্রেণিতে ভর্তি পরীক্ষায় প্রচণ্ড প্রতিযোগিতা হয়। অনেক ক্ষেত্রে একটি আসনের বিপরীতে ৫০ জন শিশুও প্রতিযোগিতা করে। এই ধরনের প্রতিযোগিতা বন্ধ করতেই এই লটারির ব্যবস্থা। নীতিমালা অনুযায়ী, স্কুলগুলোকে বাধ্যতামূলকভাবে লটারির মাধ্যমে শিক্ষার্থী নির্বাচন করতে হবে। শিক্ষার্থী নির্বাচনের পাশাপশি শূন্য আসনের জন্য অপেক্ষমান তালিকাও প্রকাশ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তবে এই নীতিমালা অনুযায়ী দ্বিতীয় থেকে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত ভর্তির জন্য লিখিত পরীক্ষা দিতে হবে। পরীক্ষায় অংশ নেওয়া শিক্ষার্থীদের মেধাক্রম অনুযায়ী শিক্ষার্থী ভর্তি করতে হবে। নীতিমালায় আরো বলা হয়েছে, ২০১৭ সাল থেকে দেশের সব সরকারি মাধ্যমিক স্কুলগুলোতে ভর্তি প্রক্রিয়ার সকল কার্যক্রম অনলাইন পদ্ধতিতে সম্পন্ন করতে হবে। সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ‘শিক্ষার্থী ভর্তি নীতিমালা-২০১৫’ শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে (www.moedu.gov.bd) পাওয়া যাবে।