নিউইয়র্ক ১১:২৮ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন :
মঙ্গলবারের পত্রিকা সাপ্তাহিক হককথা ও হককথা.কম এ আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন +1 (347) 848-3834

মান্নাকে আদালতে হাজিরের নির্দেশনা চেয়ে পরিবারের রিট

রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : ১০:০৭:০৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০১৫
  • / ৫০৯ বার পঠিত

ঢাকা: ডাকসু’র সাবেক ভিপি ও নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্নাকে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে আদালতে হাজির করার নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে একটি রিট করা হয়েছে। ২৪ ফেব্রুয়ারী মঙ্গলবার বিকেলে আবেদনটি করেছেন তার স্ত্রী মেহের নিগার। এদিকে ২৫ ফেব্রুয়ারী বুধবার মানাকে আদালতে হাজির করা হবে বলে জানা গেছে। উল্লেখ্য, ২৩ ফেব্রুয়ারী সোমবার রাত সাড়ে ৩টার দিকে ভাতিজি শাহনামা শারমিনের বনানীর বাসা থেকে তাকে গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) সদস্যরা আটক করেছেন বলে জানিয়েছেন তার স্ত্রী মেহের নিগার।
তবে মান্না আটকের পর ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের যুগ্ম কমিশনার ও ডিএমপির মুখপাত্র মনিরুল ইসলাম মাহমুদুর রহমান মান্নাকে আটকের কথা অস্বীকার করলেও পরবর্তীতে র‌্যাব তাকে (মান্না) আটকের কথা জানায় এবং মান্নাকে গুলশান থানায় হস্তান্তরের পর ডিবি অফিসে নিয়ে যাওয়া হয়।
নিউজ পোর্টাল জাস্ট নিউজ বিডি’র খবরে বলা হয়: ডিএমপির মুখপাত্র মনিরুল ইসলাম বলেন, মাহমুদুর রহমান মান্নার বিরুদ্ধে একাধিক জিডি দায়ের করা হয়েছে। এসব ডিবির তদন্ত শেষেই হয়তো তার বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেয়া হবে। কিন্তু তাকে ডিবি পুলিশ আটক বা গ্রেপ্তার করেনি।
অপরদিকে বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম-এর এক খবরে বলা হয়েছে: সেনা বিদ্রোহের উস্কানির অভিযোগে গ্রেফতার হওয়া নাগরিক ঐক্যের আহবায়ক মাহমুদুর রহমান মান্নাকে ২৫ ফেব্রুয়ারী বুধবার সকালে আদালতে হাজির করা হবে। এর আগে মঙ্গলবার রাতে গ্রেফতারের পর ডিবি কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়া হয় তাকে। মঙ্গলবার দিবাগত রাত ১২টা ২০ মিনিটের দিকে গুলশান থানায় তাকে হস্তান্তর করে র‌্যাব। তবে তাকে থানায় না পাঠিয়ে সরাসরি তাকে গোয়েন্দা কার্যালয়ে পাঠিয়ে দেওয়া হয়।
রাত আড়াইটার দিকে গুলশান থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রফিকুল ইসলামের সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে মান্নার স্ত্রী মেহের নিগার সাংবাদিকদের বলেন, পুলিশ জানিয়েছেন তিনি ডিবি কার্যালয়ে হেফাজতে রয়েছেন। থানায় তার নামে একটি মামলা করা হয়েছে। বুধবার সকালে তাকে ডিবি কার্যালয় থেকে আদালতে হাজির করা হবে। এ সময়ই তাকে (মান্না) দেখা যাবে। এর আগে গুলশান জোনের সহকারী কমিশনার (এসি) নুরুল আলম জানান, মান্নাকে থানায় হস্তান্তরের পর ডিবি কার্যালয়ে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে।
র‌্যাবের মিডিয়া উইংয়ের সহকারী পরিচালক মাকসুদুল আলম জানান, র‌্যাব মান্নাকে আটক করেছিল। তাকে গুলশান থানায় হস্তান্তরর করা হয়েছে।
থানা সূত্র জানায়, মঙ্গলবার বিকেলে গুলশান থানার এসআই সোহেল রানা দন্ডবিধির ১৩১ ধারায় সেনা বিদ্রোহের উসকানির অভিযোগে মান্নার বিরুদ্ধে মামলা করেন। ওই মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। ২৪ ফেব্রুয়ারী দায়েরকৃত মামলা নং ৩২।
এর আগে রাত ১১ টার দিকে বনানী থানায়, রাত সাড়ে ১২ টার দিকে গুলশান থানায় এবং রাত দেড়টার দিকে ডিবি কার্যালয়ে মান্নার খোজঁ নিতে যান তার স্বজনেরা। এ সময় তার স্ত্রীর সঙ্গে ছেলে নিলয় মান্না এবং মেয়ে নিলম মান্নাও ছিলেন। শেষে রাত আড়াইটার দিকে গুলশান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মেহের নিগারকে মান্নার বর্তমান পরিস্থিতি সর্ম্পকে অবগত করেন।
উল্লেখ্য, ২২ ফেব্রুয়ারী বিএনপি নেতা সাদেক হোসেন খোকা ও মান্নার কথোপকথনের অডিও ক্লিপের ফাঁসের পর তা নিয়ে তুমুল আলোচনা চলছে দেশজুড়ে।

Tag :

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

About Author Information

মান্নাকে আদালতে হাজিরের নির্দেশনা চেয়ে পরিবারের রিট

প্রকাশের সময় : ১০:০৭:০৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

ঢাকা: ডাকসু’র সাবেক ভিপি ও নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্নাকে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে আদালতে হাজির করার নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে একটি রিট করা হয়েছে। ২৪ ফেব্রুয়ারী মঙ্গলবার বিকেলে আবেদনটি করেছেন তার স্ত্রী মেহের নিগার। এদিকে ২৫ ফেব্রুয়ারী বুধবার মানাকে আদালতে হাজির করা হবে বলে জানা গেছে। উল্লেখ্য, ২৩ ফেব্রুয়ারী সোমবার রাত সাড়ে ৩টার দিকে ভাতিজি শাহনামা শারমিনের বনানীর বাসা থেকে তাকে গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) সদস্যরা আটক করেছেন বলে জানিয়েছেন তার স্ত্রী মেহের নিগার।
তবে মান্না আটকের পর ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের যুগ্ম কমিশনার ও ডিএমপির মুখপাত্র মনিরুল ইসলাম মাহমুদুর রহমান মান্নাকে আটকের কথা অস্বীকার করলেও পরবর্তীতে র‌্যাব তাকে (মান্না) আটকের কথা জানায় এবং মান্নাকে গুলশান থানায় হস্তান্তরের পর ডিবি অফিসে নিয়ে যাওয়া হয়।
নিউজ পোর্টাল জাস্ট নিউজ বিডি’র খবরে বলা হয়: ডিএমপির মুখপাত্র মনিরুল ইসলাম বলেন, মাহমুদুর রহমান মান্নার বিরুদ্ধে একাধিক জিডি দায়ের করা হয়েছে। এসব ডিবির তদন্ত শেষেই হয়তো তার বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেয়া হবে। কিন্তু তাকে ডিবি পুলিশ আটক বা গ্রেপ্তার করেনি।
অপরদিকে বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম-এর এক খবরে বলা হয়েছে: সেনা বিদ্রোহের উস্কানির অভিযোগে গ্রেফতার হওয়া নাগরিক ঐক্যের আহবায়ক মাহমুদুর রহমান মান্নাকে ২৫ ফেব্রুয়ারী বুধবার সকালে আদালতে হাজির করা হবে। এর আগে মঙ্গলবার রাতে গ্রেফতারের পর ডিবি কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়া হয় তাকে। মঙ্গলবার দিবাগত রাত ১২টা ২০ মিনিটের দিকে গুলশান থানায় তাকে হস্তান্তর করে র‌্যাব। তবে তাকে থানায় না পাঠিয়ে সরাসরি তাকে গোয়েন্দা কার্যালয়ে পাঠিয়ে দেওয়া হয়।
রাত আড়াইটার দিকে গুলশান থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রফিকুল ইসলামের সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে মান্নার স্ত্রী মেহের নিগার সাংবাদিকদের বলেন, পুলিশ জানিয়েছেন তিনি ডিবি কার্যালয়ে হেফাজতে রয়েছেন। থানায় তার নামে একটি মামলা করা হয়েছে। বুধবার সকালে তাকে ডিবি কার্যালয় থেকে আদালতে হাজির করা হবে। এ সময়ই তাকে (মান্না) দেখা যাবে। এর আগে গুলশান জোনের সহকারী কমিশনার (এসি) নুরুল আলম জানান, মান্নাকে থানায় হস্তান্তরের পর ডিবি কার্যালয়ে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে।
র‌্যাবের মিডিয়া উইংয়ের সহকারী পরিচালক মাকসুদুল আলম জানান, র‌্যাব মান্নাকে আটক করেছিল। তাকে গুলশান থানায় হস্তান্তরর করা হয়েছে।
থানা সূত্র জানায়, মঙ্গলবার বিকেলে গুলশান থানার এসআই সোহেল রানা দন্ডবিধির ১৩১ ধারায় সেনা বিদ্রোহের উসকানির অভিযোগে মান্নার বিরুদ্ধে মামলা করেন। ওই মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। ২৪ ফেব্রুয়ারী দায়েরকৃত মামলা নং ৩২।
এর আগে রাত ১১ টার দিকে বনানী থানায়, রাত সাড়ে ১২ টার দিকে গুলশান থানায় এবং রাত দেড়টার দিকে ডিবি কার্যালয়ে মান্নার খোজঁ নিতে যান তার স্বজনেরা। এ সময় তার স্ত্রীর সঙ্গে ছেলে নিলয় মান্না এবং মেয়ে নিলম মান্নাও ছিলেন। শেষে রাত আড়াইটার দিকে গুলশান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মেহের নিগারকে মান্নার বর্তমান পরিস্থিতি সর্ম্পকে অবগত করেন।
উল্লেখ্য, ২২ ফেব্রুয়ারী বিএনপি নেতা সাদেক হোসেন খোকা ও মান্নার কথোপকথনের অডিও ক্লিপের ফাঁসের পর তা নিয়ে তুমুল আলোচনা চলছে দেশজুড়ে।