নিউইয়র্ক ০৮:১১ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন :
মঙ্গলবারের পত্রিকা সাপ্তাহিক হককথা ও হককথা.কম এ আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন +1 (347) 848-3834

বিবৃতি : মান্নাকে ‘ফেরত’ দাবী বিএনপির

রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : ১১:০৫:৪৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০১৫
  • / ৪৯০ বার পঠিত

ঢাকা: সাদেক হোসেন খোকার সঙ্গে টেলি-কথোপকথন ফাঁসের পর আলোচনার মধ্যে মাহমুদুর রহমান মান্নার অন্তর্ধানে সরকারের হাত রয়েছে দাবী করে তাকে ফেরত দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে বিএনপির নামে একটি বিবৃতি এসেছে। অজ্ঞাত স্থানে থাকা বিএনপির যুগ্মমহাসচিব সালাহ উদ্দিন আহমদের পাঠানো ওই বিবৃতিতে ভবিষ্যতে সরকারকে ‘এই জাতীয় ঘৃণ্য কর্মকান্ড’ থেকে বিরত থাকার আহ্বানও জানানো হয়।
দুটি অডিও ক্লিপ ফাঁসের পর আলোচনার মধ্যে ২৪ ফেব্রুয়ারী মঙ্গলবার ভোররাতে রাজধানীর বনানীতে ভাইয়ের বাসা থেকে গোয়েন্দা পুলিশের পরিচয়ে তুলে নেওয়া হয় নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মান্নাকে।
পুলিশ তাকে আটকের কথা নাকচ করেছে। সন্ধান চেয়ে মান্নার পরিবার সাধারণ ডায়েরী করার পর পুলিশ বলেছে, তারা নাগরিক ঐক্যের নেতাকে খুঁজে বের করতে সর্বাত্মক চেষ্টা চালাচ্ছেন।
মান্নার কথোপকথনের দুটি অডিও ক্লিপ-এর ভিত্তিতে ২২ ফেব্রুয়ারী প্রতিবেদন প্রকাশের পর তা নিয়ে ব্যাপক আলোচনা চলছে। এসব ক্লিপে মান্নাকে চলমান পরিস্থিতিতে সেনা হস্তক্ষেপের উদ্যোগে আগ্রহ প্রকাশ করতে শোনা যায়। পাশাপাশি বিএনপি জোটের আন্দোলন জোরদারে বিশ্ববিদ্যালয়ে লাশ ফেলার কথাও বলতে শোনা যায় তাকে। এর ভিত্তিতে রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগে নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মান্নাকে গ্রেপ্তারের দাবিও উঠেছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ নেতাদের মুখ থেকে।
২৪ ফেব্রুয়ারী মঙ্গলবার বিকালে বিএনপির প্যাডে পাঠানো সালাহ উদ্দিনের বিবৃতিতে বলা হয়, “দেশের বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ, বরেণ্য নাগরিক, ডাকসুর সাবেক ভিপি ও নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমানকে সাদা পোশাকধারী সরকারী আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা ্রগ্রেপ্তারী পরোয়ানা ছাড়াই তুলে নিয়ে যাওয়ার পর পুলিশের পক্ষ থেকে গ্রেপ্তার করা হয়নি এ মর্মে বক্তব্য প্রদান করায় আমরা বিস্মিত হয়েছি।
“যে প্রক্রিয়ায় দেশের এই পর্যায়ের একজন নাগরিককে তুলে নেয়া হল, তাতে রাষ্ট্রের কোনো নাগরিকের মৌলিক অধিকার, মানবাধিকার ও বেঁচে থাকার অধিকারের কোনো গ্যারান্টি অবশিষ্ট রইল না। আমরা অবিলম্বে মাহমুদুর রহমান মান্নাকে তার পরিবারের কাছে ফেরত প্রদান ও দায়ী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে যথাযখ আইনী পদক্ষেপ গ্রহণের দাবী জানাচ্ছি।”
ওই অডিও টেপে যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থানরত বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সাদেক হোসেন খোকার সঙ্গে কথোপকথনে মান্নাকে তার কর্মসূচীতে কর্মী সরবরাহ করতে পরামর্শ দিতে বলতে শোনা যায়। এছাড়া বিএনপির চলমান অবরোধ অব্যাহত রাখতেও পরামর্শ দেন তিনি।
আওয়ামী লীগ নেতাদের অভিযোগ, মান্না বিএনপির সঙ্গে যোগসাজশ করে অসাংবিধানিক শক্তিকে ক্ষমতায় আনার ষড়যন্ত্র করছিলেন।(বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)

Tag :

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

About Author Information

বিবৃতি : মান্নাকে ‘ফেরত’ দাবী বিএনপির

প্রকাশের সময় : ১১:০৫:৪৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

ঢাকা: সাদেক হোসেন খোকার সঙ্গে টেলি-কথোপকথন ফাঁসের পর আলোচনার মধ্যে মাহমুদুর রহমান মান্নার অন্তর্ধানে সরকারের হাত রয়েছে দাবী করে তাকে ফেরত দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে বিএনপির নামে একটি বিবৃতি এসেছে। অজ্ঞাত স্থানে থাকা বিএনপির যুগ্মমহাসচিব সালাহ উদ্দিন আহমদের পাঠানো ওই বিবৃতিতে ভবিষ্যতে সরকারকে ‘এই জাতীয় ঘৃণ্য কর্মকান্ড’ থেকে বিরত থাকার আহ্বানও জানানো হয়।
দুটি অডিও ক্লিপ ফাঁসের পর আলোচনার মধ্যে ২৪ ফেব্রুয়ারী মঙ্গলবার ভোররাতে রাজধানীর বনানীতে ভাইয়ের বাসা থেকে গোয়েন্দা পুলিশের পরিচয়ে তুলে নেওয়া হয় নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মান্নাকে।
পুলিশ তাকে আটকের কথা নাকচ করেছে। সন্ধান চেয়ে মান্নার পরিবার সাধারণ ডায়েরী করার পর পুলিশ বলেছে, তারা নাগরিক ঐক্যের নেতাকে খুঁজে বের করতে সর্বাত্মক চেষ্টা চালাচ্ছেন।
মান্নার কথোপকথনের দুটি অডিও ক্লিপ-এর ভিত্তিতে ২২ ফেব্রুয়ারী প্রতিবেদন প্রকাশের পর তা নিয়ে ব্যাপক আলোচনা চলছে। এসব ক্লিপে মান্নাকে চলমান পরিস্থিতিতে সেনা হস্তক্ষেপের উদ্যোগে আগ্রহ প্রকাশ করতে শোনা যায়। পাশাপাশি বিএনপি জোটের আন্দোলন জোরদারে বিশ্ববিদ্যালয়ে লাশ ফেলার কথাও বলতে শোনা যায় তাকে। এর ভিত্তিতে রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগে নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মান্নাকে গ্রেপ্তারের দাবিও উঠেছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ নেতাদের মুখ থেকে।
২৪ ফেব্রুয়ারী মঙ্গলবার বিকালে বিএনপির প্যাডে পাঠানো সালাহ উদ্দিনের বিবৃতিতে বলা হয়, “দেশের বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ, বরেণ্য নাগরিক, ডাকসুর সাবেক ভিপি ও নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমানকে সাদা পোশাকধারী সরকারী আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা ্রগ্রেপ্তারী পরোয়ানা ছাড়াই তুলে নিয়ে যাওয়ার পর পুলিশের পক্ষ থেকে গ্রেপ্তার করা হয়নি এ মর্মে বক্তব্য প্রদান করায় আমরা বিস্মিত হয়েছি।
“যে প্রক্রিয়ায় দেশের এই পর্যায়ের একজন নাগরিককে তুলে নেয়া হল, তাতে রাষ্ট্রের কোনো নাগরিকের মৌলিক অধিকার, মানবাধিকার ও বেঁচে থাকার অধিকারের কোনো গ্যারান্টি অবশিষ্ট রইল না। আমরা অবিলম্বে মাহমুদুর রহমান মান্নাকে তার পরিবারের কাছে ফেরত প্রদান ও দায়ী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে যথাযখ আইনী পদক্ষেপ গ্রহণের দাবী জানাচ্ছি।”
ওই অডিও টেপে যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থানরত বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সাদেক হোসেন খোকার সঙ্গে কথোপকথনে মান্নাকে তার কর্মসূচীতে কর্মী সরবরাহ করতে পরামর্শ দিতে বলতে শোনা যায়। এছাড়া বিএনপির চলমান অবরোধ অব্যাহত রাখতেও পরামর্শ দেন তিনি।
আওয়ামী লীগ নেতাদের অভিযোগ, মান্না বিএনপির সঙ্গে যোগসাজশ করে অসাংবিধানিক শক্তিকে ক্ষমতায় আনার ষড়যন্ত্র করছিলেন।(বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)