নিউইয়র্ক ১১:২৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন :
মঙ্গলবারের পত্রিকা সাপ্তাহিক হককথা ও হককথা.কম এ আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন +1 (347) 848-3834

জাকাতের কাপড় নিতে গিয়ে ময়মনসিংহে নিহত ২৩ : আটক ৮

রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : ০১:১২:৩৪ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১০ জুলাই ২০১৫
  • / ৫৯১ বার পঠিত

ময়মনসিংহ: ময়মনসিংহ শহরে জাকাতের কাপড় নিতে গিয়ে হুড়োহুড়িতে পদদলিত হয়ে শিশুসহ ২৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছে অর্ধশতাধিক। আহতদের ময়মনসিংহ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় ৮ জনকে আটক করেছে পুলিশ। ১০ জুলাই শুক্রবার ভোরে ময়মনসিংহ শহরের পৌরসভা সংলগ্ন অতুল চক্রবর্তী সড়কে নূরানী জরদা ফ্যাক্টরি কার্যালয়ে এই হতাহতের ঘটনা ঘটে। মর্মান্তিক এই ঘটনায় এলাকায় কান্নার রোল পড়েছে। আহাজারী জলছে নিহতদের পরিবারে। পুলিশ সুপার মইনুল হক জানান, এই ঘটনায় ওই ফ্যাক্টরির মালিক শামীম ওরফে নূরানী তালুকদার ওরফে শামীমসহ ৮ জনকে আটক করা হয়েছে। এ পর্যন্ত ২৩ জনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছেন তিনি। মৃতের সংখ্যা বাড়তে পারে বলেও জানিয়েছেন।
হতাহতের খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস, পুলিশ, এলাকাবাসী আহতদের উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।
জানা গেছে, ময়মনসিংহ পৌরসভা কার্যালয়ের পাশে ব্যবসায়ী শামীমের নূরানী জরদা কারখানা কার্যালয়ে শুক্রবার সকালে জাকাতের কাপড় দেয়ার কথা ছিল। এই খবরে শহরের বস্তি এবং ব্রহ্মপুত্র পাড়ের চর এলাকার নারী, পুরুষ ও শিশু বৃহস্পতিবার রাত ১০ টার পর থেকে ভিড় জমাতে থাকে। শুক্রবার সেহরির সময় জরদা ফ্যাক্টরির মূল গেইট খুলে দিলে সবাই একসঙ্গে কাপড়ের জন্য হুমড়ি খেয়ে পড়ে। পরে ধাক্কাধাক্কির এক পর্যায়ে পদদলিত হয়ে ২৩ জনের মৃত্যু হয়। তবে হতাহতের
সর্বশেষ খবরে জানা গেছে, জেলা ও পুলিশ প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। ঘটনার ব্যাপারে মামলা দায়ের এবং তিন সদস্যের পৃথক পৃথক দুটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। নিহতদের মরদেহ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর চলছে। সূত্র: দৈনিক ইত্তেফাক।

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

About Author Information

জাকাতের কাপড় নিতে গিয়ে ময়মনসিংহে নিহত ২৩ : আটক ৮

প্রকাশের সময় : ০১:১২:৩৪ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১০ জুলাই ২০১৫

ময়মনসিংহ: ময়মনসিংহ শহরে জাকাতের কাপড় নিতে গিয়ে হুড়োহুড়িতে পদদলিত হয়ে শিশুসহ ২৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছে অর্ধশতাধিক। আহতদের ময়মনসিংহ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় ৮ জনকে আটক করেছে পুলিশ। ১০ জুলাই শুক্রবার ভোরে ময়মনসিংহ শহরের পৌরসভা সংলগ্ন অতুল চক্রবর্তী সড়কে নূরানী জরদা ফ্যাক্টরি কার্যালয়ে এই হতাহতের ঘটনা ঘটে। মর্মান্তিক এই ঘটনায় এলাকায় কান্নার রোল পড়েছে। আহাজারী জলছে নিহতদের পরিবারে। পুলিশ সুপার মইনুল হক জানান, এই ঘটনায় ওই ফ্যাক্টরির মালিক শামীম ওরফে নূরানী তালুকদার ওরফে শামীমসহ ৮ জনকে আটক করা হয়েছে। এ পর্যন্ত ২৩ জনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছেন তিনি। মৃতের সংখ্যা বাড়তে পারে বলেও জানিয়েছেন।
হতাহতের খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস, পুলিশ, এলাকাবাসী আহতদের উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।
জানা গেছে, ময়মনসিংহ পৌরসভা কার্যালয়ের পাশে ব্যবসায়ী শামীমের নূরানী জরদা কারখানা কার্যালয়ে শুক্রবার সকালে জাকাতের কাপড় দেয়ার কথা ছিল। এই খবরে শহরের বস্তি এবং ব্রহ্মপুত্র পাড়ের চর এলাকার নারী, পুরুষ ও শিশু বৃহস্পতিবার রাত ১০ টার পর থেকে ভিড় জমাতে থাকে। শুক্রবার সেহরির সময় জরদা ফ্যাক্টরির মূল গেইট খুলে দিলে সবাই একসঙ্গে কাপড়ের জন্য হুমড়ি খেয়ে পড়ে। পরে ধাক্কাধাক্কির এক পর্যায়ে পদদলিত হয়ে ২৩ জনের মৃত্যু হয়। তবে হতাহতের
সর্বশেষ খবরে জানা গেছে, জেলা ও পুলিশ প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। ঘটনার ব্যাপারে মামলা দায়ের এবং তিন সদস্যের পৃথক পৃথক দুটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। নিহতদের মরদেহ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর চলছে। সূত্র: দৈনিক ইত্তেফাক।