নিউইয়র্ক ০৭:১০ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১২ জুলাই ২০২৪, ২৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন :
মঙ্গলবারের পত্রিকা সাপ্তাহিক হককথা ও হককথা.কম এ আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন +1 (347) 848-3834

বিনা ভোটে জাতীয় প্রেসক্লাবের কমিটি ঘোষণা : শাহজাহান সভাপতি কামরুল সা. সম্পাদক

রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : ০২:১৯:০৯ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৮ মে ২০১৫
  • / ৬৪১ বার পঠিত

ঢাকা: নির্বাচন ছাড়াই জাতীয় প্রেসক্লাবের সদস্যদের একটি অংশ নতুন ব্যবস্থাপনা কমিটি ঘোষণা করেছে। হঠাৎ করে ডাকা দ্বি বার্ষিক সভা থেকে এ কমিটি ঘোষণা করা হয়। কমিটিতে শফিকুর রহমানকে সভাপতি ও কামরুল ইসলাম চৌধুরীকে সাধারণ সম্পাদক করা হয়েছে। আওয়ামী লীগ সমর্থক সাংবাদিকদের প্রাধান্য রেখে এ কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। এতে বিএনপি-জামায়াত সমর্থক হিসেবে পরিচিত কয়েকজন সাংবাদিকও রয়েছেন। তবে এই সাধারণ সভায় একশ’র কম সদস্য উপস্থিত ছিলেন। এর আগে কামাল উদ্দিন সবুজ ও সৈয়দ আবদাল আহমেদের নেতৃত্বাধীন কমিটি নির্বাচন না হওয়া পর্যন্ত দায়িত্ব পালনের ঘোষণা দিয়েছিলেন।
২৮ মে বৃহস্প্রতিবার ঘোষিত কমিটিতে অন্যান্যদের মধ্যে আছেন সিনিয়র সহ সভাপতি- মনজুরুল আহসান বুলবুল, সহ সভাপতি- আমিরুল ইসলাম কাগজী, যুগ্ম সম্পাদক- আশরাফ আলী ও ইলিয়াস খান, কোষাধ্যক্ষ- কার্তিক চ্যাটার্জি। সদস্য করা হয়েছে আমানুল্লাহ কবির, খন্দকার মনিরুল আলম, আজিজুল ইসলাম ভুইয়া, সাইফুল আলম, শ্যামল দত্ত, শামসুদ্দিন আহমেদ চারু, মোল্লা জালাল উদ্দিন, সরদার ফরিদ আহমেদ, হাসান আরেফিন, শামসুল হক দুররানীকে। কমিটি ঘোষণা করেন এলাহী নেওয়াজ খান।
শাহজাহান মিয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত দ্বি-বার্ষিক সভায় প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী বলেন, বর্তমান কমিটি অবৈধ হয়ে গেছে। তাই সমঝোতার ভিত্তিতে কমিটি করা হয়েছে। সভায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সদস্য আরও ৫০০ বাড়িয়ে ১৫০০ করার সিদ্ধান্ত হয়।
এর আগে তিনবার নির্বাচনের তারিখ নির্ধারণ করা হলেও নির্বাচন হয়নি। গত বছর ৩০ ডিসেম্বর ক্লাবের সাধারণ নির্বাচন হওয়ার কথা ছিল। সর্বশেষ ২৯ মে নির্বাচনের তারিখ নির্ধারণ করা হয়। এতে সরকার-সমর্থক ও বিরোধী দুই পক্ষের মধ্যে সমঝোতা না হওয়ায় ১৭ মে ছয় সদস্যের নির্বাচন কমিশন নির্বাচন স্থগিত করে পদত্যাগ করলে পরিস্থিতি জটিল হয়ে পড়ে।
চলমান পরিস্থিতিতে বর্তমান ব্যবস্থাপনা কমিটি ২৫ ও ২৬ মে সভা করে ২৮ মে অনুষ্ঠেয় দ্বি-বার্ষিক সাধারণ সভা স্থগিত ঘোষণা করে এবং ২৭ে জুন অতিরিক্ত সাধারণ সভা ডাকে। এই প্রেক্ষাপটে ২৭ মে বুধবার উদ্ভূত পরিস্থিতি নিয়ে ইকবাল সোবহান চৌধুরীর সভাপতিত্বে সরকার-সমর্থক ফোরাম, শওকত মাহমুদের সভাপতিত্বে বিএনপি-জামায়াত সমর্থক ফোরাম ও আমানউল্লাহ কবিরের সভাপতিত্বে জাতীয়তাবাদী ধারার একটি ফোরাম আলাদা সভা করে।(দৈনিক মানবজমিন)

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

About Author Information

বিনা ভোটে জাতীয় প্রেসক্লাবের কমিটি ঘোষণা : শাহজাহান সভাপতি কামরুল সা. সম্পাদক

প্রকাশের সময় : ০২:১৯:০৯ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৮ মে ২০১৫

ঢাকা: নির্বাচন ছাড়াই জাতীয় প্রেসক্লাবের সদস্যদের একটি অংশ নতুন ব্যবস্থাপনা কমিটি ঘোষণা করেছে। হঠাৎ করে ডাকা দ্বি বার্ষিক সভা থেকে এ কমিটি ঘোষণা করা হয়। কমিটিতে শফিকুর রহমানকে সভাপতি ও কামরুল ইসলাম চৌধুরীকে সাধারণ সম্পাদক করা হয়েছে। আওয়ামী লীগ সমর্থক সাংবাদিকদের প্রাধান্য রেখে এ কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। এতে বিএনপি-জামায়াত সমর্থক হিসেবে পরিচিত কয়েকজন সাংবাদিকও রয়েছেন। তবে এই সাধারণ সভায় একশ’র কম সদস্য উপস্থিত ছিলেন। এর আগে কামাল উদ্দিন সবুজ ও সৈয়দ আবদাল আহমেদের নেতৃত্বাধীন কমিটি নির্বাচন না হওয়া পর্যন্ত দায়িত্ব পালনের ঘোষণা দিয়েছিলেন।
২৮ মে বৃহস্প্রতিবার ঘোষিত কমিটিতে অন্যান্যদের মধ্যে আছেন সিনিয়র সহ সভাপতি- মনজুরুল আহসান বুলবুল, সহ সভাপতি- আমিরুল ইসলাম কাগজী, যুগ্ম সম্পাদক- আশরাফ আলী ও ইলিয়াস খান, কোষাধ্যক্ষ- কার্তিক চ্যাটার্জি। সদস্য করা হয়েছে আমানুল্লাহ কবির, খন্দকার মনিরুল আলম, আজিজুল ইসলাম ভুইয়া, সাইফুল আলম, শ্যামল দত্ত, শামসুদ্দিন আহমেদ চারু, মোল্লা জালাল উদ্দিন, সরদার ফরিদ আহমেদ, হাসান আরেফিন, শামসুল হক দুররানীকে। কমিটি ঘোষণা করেন এলাহী নেওয়াজ খান।
শাহজাহান মিয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত দ্বি-বার্ষিক সভায় প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী বলেন, বর্তমান কমিটি অবৈধ হয়ে গেছে। তাই সমঝোতার ভিত্তিতে কমিটি করা হয়েছে। সভায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সদস্য আরও ৫০০ বাড়িয়ে ১৫০০ করার সিদ্ধান্ত হয়।
এর আগে তিনবার নির্বাচনের তারিখ নির্ধারণ করা হলেও নির্বাচন হয়নি। গত বছর ৩০ ডিসেম্বর ক্লাবের সাধারণ নির্বাচন হওয়ার কথা ছিল। সর্বশেষ ২৯ মে নির্বাচনের তারিখ নির্ধারণ করা হয়। এতে সরকার-সমর্থক ও বিরোধী দুই পক্ষের মধ্যে সমঝোতা না হওয়ায় ১৭ মে ছয় সদস্যের নির্বাচন কমিশন নির্বাচন স্থগিত করে পদত্যাগ করলে পরিস্থিতি জটিল হয়ে পড়ে।
চলমান পরিস্থিতিতে বর্তমান ব্যবস্থাপনা কমিটি ২৫ ও ২৬ মে সভা করে ২৮ মে অনুষ্ঠেয় দ্বি-বার্ষিক সাধারণ সভা স্থগিত ঘোষণা করে এবং ২৭ে জুন অতিরিক্ত সাধারণ সভা ডাকে। এই প্রেক্ষাপটে ২৭ মে বুধবার উদ্ভূত পরিস্থিতি নিয়ে ইকবাল সোবহান চৌধুরীর সভাপতিত্বে সরকার-সমর্থক ফোরাম, শওকত মাহমুদের সভাপতিত্বে বিএনপি-জামায়াত সমর্থক ফোরাম ও আমানউল্লাহ কবিরের সভাপতিত্বে জাতীয়তাবাদী ধারার একটি ফোরাম আলাদা সভা করে।(দৈনিক মানবজমিন)