নিউইয়র্ক ১১:৫০ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন :
মঙ্গলবারের পত্রিকা সাপ্তাহিক হককথা ও হককথা.কম এ আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন +1 (347) 848-3834

নিউইয়র্কের প্রেসনোট : সাংবাদিকদের জন্য ইফতার পার্টিতে মামলার বাদী-বিবাদী এক মঞ্চে

রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : ১২:৩৪:১৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১১ অগাস্ট ২০১৫
  • / ৭৭৯ বার পঠিত

উত্তর আমেরিকায় বাংলাদেশী কমিউনিটি বিনির্মাণে সাংবাদিকদের ভূমিকা কমিউনিটির অনেক সংগঠন, প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তিবর্গ কৃতজ্ঞতার সাথে শিকার করলেও সাংবাদিক ও মিডিয়ার প্রাপ্য মর্যাদার ব্যাপারে অনেকেই উদাসীন। কিছু দিন পূর্বে এস্টোরিয়ার ক্লাব সনমে একটি আঞ্চলিক সংগঠন আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ সোসাইটি ইন্্ক নিউইয়র্কের সভাপতি আজমল হোসেন কুনু সাংবাদিকদের বিশেষ করে দীর্ঘদিন ধরে এই পেশায় জড়িত যেসকল ব্যক্তিবর্গ কমিউনিটি বিনির্মাণে অবদান রেখেছেন, তাদের প্রতি যথাযথ সম্মান প্রদর্শণের ব্যাপারে বক্তব্য তুলে ধরেন। আজমল হোসেন কুনুর বক্তব্যে কমিউনিটিতে কর্মরত পেশাদার সাংবাদিকরা যেমন অনুপ্রাণিত হয়েছেন তেমনী কিছু কিছু সংগঠন, প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তিবর্গ জনাব কুনুর বক্তব্যের মর্মার্থ অনুধাবন করতে পেরেছেন। কমিউনিটির অতি পরিচিত মুখ এটর্নী মঈন চৌধুরী সম্প্রতি শুধুমাত্র সাংবাদিকদের সম্মানে ইফতার পার্টির আয়োজন করে কমিউনিটির প্রায় সকল সাংবাদিকের কৃতজ্ঞতাভাজন হয়েছেন। এটনী মঈন চৌধুরীকে অনুসরণ করে দিন কয়েক পরেই নবাবগঞ্জ এসোসিয়েশনের সভাপতি গিয়াস উদ্দিনও সাংবাদিকদের সম্মানে এক ইফতার পার্টির আয়োজন করেন। পাশাপাশি যুক্তরাষ্ট্র যুবদলও সাংবাদিকদের সম্মানে ইফতার পার্টির আয়োজন করে। যুবদলে ইফতার পার্টির ব্যানারে সাংবাদিকদের জন্য ইফতার পার্টি আয়োজনের কথা থাকলেও সেখানে সাংবাদিকতা পেশার সাথে সংশ্লিস্ট নন এবং যুবদলের নেতা-কর্মীও নন এমন ২/১জনকে দেখা যায়। সম্প্রতি বাংলাদেশ সোসাইটি, এনএবিসি কর্তৃপক্ষ, জালালাবাদ এসোসিয়েশন, বৃহত্তর কুমিল্লা সমিতি সহ কমিউনিটির বেশকিছু সংগঠন তাদের আয়োজিত অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের উপস্থিতিকে মর্যাদা ও সম্মানের সাথে উল্লেখ করছেন। এর ব্যতিক্রমও লক্ষ্য করা যাচ্ছে। সম্প্রতি উৎসব ডট কম নামের একটি বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান জ্যাকসন হাইটসের একটি রেষ্টুরেন্টে সাংবাদিকদের সম্মানে একটি ইফতার পার্টির আয়োজন করে বলে দু’একটি পত্রিকার খবরে জানা গেছে। উক্ত অনুষ্ঠানে উৎসব ডট কমের জনৈক কর্মকর্তা বক্তব্য রাখতে গিয়ে কমিউনিটি বিনির্মাণ ও তাদের ব্যবসা প্রসারের ক্ষেত্রে কমিউনিটির মিডিয়ার ভুমিকার কথা স্বীকার করলেও ঐ অনুষ্ঠানে সকল মিডিয়াকে দাওয়াত দেয়ার উদারতাটুকুও দেখাতে পারেননি। এটা চরম হিকোক্রেসী। শুধু তাই নয়, সাংবাদিক হিসেবে যাদের মঞ্চে উঠিয়েছিলেন তাদের প্রধান সম্পাদক/সম্পাদক হওয়ার যোগ্যতা নিয়েও কমিউনিটিতে প্রশ্ন আছে। মঞ্চে আসন নেয়া কেউ কেউ চরিত্র হণনের মামলার বাদী-বিবাদীও বটে। উৎসব ডট কম-এর কর্মকর্তারা কমিউনিটির মিডিয়া সংশ্লিস্টদের ব্যাকগ্রাউন্ড কতটুকু ওয়াকিবহাল জানা মুসকিল। তবে এধরণের অনুষ্ঠান আয়োজনের আগে খোঁজ-খবর নিলে উপকৃত হতেন। তাছাড়া বেছে বেছে মিডিয়াকে আমন্ত্রণ জানানোর বিষয়টিও অকৃতজ্ঞতা, সৌজন্যহীনতার পরিচয়ও বহন করে। কমিউনিটির বিভিন্ন সংগঠন ভবিষ্যতে উৎসব ডট কম-এর আয়োজনকে অনুসরণ না করে এটর্নী মঈন চৌধুরীকে অনুসরণ করলে উপকৃত হবে। (সাপ্তাহিক পরিচয়)
২৪ জুলাই’২০১৫

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

About Author Information

নিউইয়র্কের প্রেসনোট : সাংবাদিকদের জন্য ইফতার পার্টিতে মামলার বাদী-বিবাদী এক মঞ্চে

প্রকাশের সময় : ১২:৩৪:১৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১১ অগাস্ট ২০১৫

উত্তর আমেরিকায় বাংলাদেশী কমিউনিটি বিনির্মাণে সাংবাদিকদের ভূমিকা কমিউনিটির অনেক সংগঠন, প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তিবর্গ কৃতজ্ঞতার সাথে শিকার করলেও সাংবাদিক ও মিডিয়ার প্রাপ্য মর্যাদার ব্যাপারে অনেকেই উদাসীন। কিছু দিন পূর্বে এস্টোরিয়ার ক্লাব সনমে একটি আঞ্চলিক সংগঠন আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ সোসাইটি ইন্্ক নিউইয়র্কের সভাপতি আজমল হোসেন কুনু সাংবাদিকদের বিশেষ করে দীর্ঘদিন ধরে এই পেশায় জড়িত যেসকল ব্যক্তিবর্গ কমিউনিটি বিনির্মাণে অবদান রেখেছেন, তাদের প্রতি যথাযথ সম্মান প্রদর্শণের ব্যাপারে বক্তব্য তুলে ধরেন। আজমল হোসেন কুনুর বক্তব্যে কমিউনিটিতে কর্মরত পেশাদার সাংবাদিকরা যেমন অনুপ্রাণিত হয়েছেন তেমনী কিছু কিছু সংগঠন, প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তিবর্গ জনাব কুনুর বক্তব্যের মর্মার্থ অনুধাবন করতে পেরেছেন। কমিউনিটির অতি পরিচিত মুখ এটর্নী মঈন চৌধুরী সম্প্রতি শুধুমাত্র সাংবাদিকদের সম্মানে ইফতার পার্টির আয়োজন করে কমিউনিটির প্রায় সকল সাংবাদিকের কৃতজ্ঞতাভাজন হয়েছেন। এটনী মঈন চৌধুরীকে অনুসরণ করে দিন কয়েক পরেই নবাবগঞ্জ এসোসিয়েশনের সভাপতি গিয়াস উদ্দিনও সাংবাদিকদের সম্মানে এক ইফতার পার্টির আয়োজন করেন। পাশাপাশি যুক্তরাষ্ট্র যুবদলও সাংবাদিকদের সম্মানে ইফতার পার্টির আয়োজন করে। যুবদলে ইফতার পার্টির ব্যানারে সাংবাদিকদের জন্য ইফতার পার্টি আয়োজনের কথা থাকলেও সেখানে সাংবাদিকতা পেশার সাথে সংশ্লিস্ট নন এবং যুবদলের নেতা-কর্মীও নন এমন ২/১জনকে দেখা যায়। সম্প্রতি বাংলাদেশ সোসাইটি, এনএবিসি কর্তৃপক্ষ, জালালাবাদ এসোসিয়েশন, বৃহত্তর কুমিল্লা সমিতি সহ কমিউনিটির বেশকিছু সংগঠন তাদের আয়োজিত অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের উপস্থিতিকে মর্যাদা ও সম্মানের সাথে উল্লেখ করছেন। এর ব্যতিক্রমও লক্ষ্য করা যাচ্ছে। সম্প্রতি উৎসব ডট কম নামের একটি বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান জ্যাকসন হাইটসের একটি রেষ্টুরেন্টে সাংবাদিকদের সম্মানে একটি ইফতার পার্টির আয়োজন করে বলে দু’একটি পত্রিকার খবরে জানা গেছে। উক্ত অনুষ্ঠানে উৎসব ডট কমের জনৈক কর্মকর্তা বক্তব্য রাখতে গিয়ে কমিউনিটি বিনির্মাণ ও তাদের ব্যবসা প্রসারের ক্ষেত্রে কমিউনিটির মিডিয়ার ভুমিকার কথা স্বীকার করলেও ঐ অনুষ্ঠানে সকল মিডিয়াকে দাওয়াত দেয়ার উদারতাটুকুও দেখাতে পারেননি। এটা চরম হিকোক্রেসী। শুধু তাই নয়, সাংবাদিক হিসেবে যাদের মঞ্চে উঠিয়েছিলেন তাদের প্রধান সম্পাদক/সম্পাদক হওয়ার যোগ্যতা নিয়েও কমিউনিটিতে প্রশ্ন আছে। মঞ্চে আসন নেয়া কেউ কেউ চরিত্র হণনের মামলার বাদী-বিবাদীও বটে। উৎসব ডট কম-এর কর্মকর্তারা কমিউনিটির মিডিয়া সংশ্লিস্টদের ব্যাকগ্রাউন্ড কতটুকু ওয়াকিবহাল জানা মুসকিল। তবে এধরণের অনুষ্ঠান আয়োজনের আগে খোঁজ-খবর নিলে উপকৃত হতেন। তাছাড়া বেছে বেছে মিডিয়াকে আমন্ত্রণ জানানোর বিষয়টিও অকৃতজ্ঞতা, সৌজন্যহীনতার পরিচয়ও বহন করে। কমিউনিটির বিভিন্ন সংগঠন ভবিষ্যতে উৎসব ডট কম-এর আয়োজনকে অনুসরণ না করে এটর্নী মঈন চৌধুরীকে অনুসরণ করলে উপকৃত হবে। (সাপ্তাহিক পরিচয়)
২৪ জুলাই’২০১৫