নিউইয়র্ক ০৩:৩৯ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন :
মঙ্গলবারের পত্রিকা সাপ্তাহিক হককথা ও হককথা.কম এ আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন +1 (347) 848-3834

জ্যামাইকায় জিম্মি ঘটনা : কয়েকটি মিডিয়ার বিভ্রান্তিকর তথ্যে তোলপাড়

রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : ০১:৫৭:৪৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৭ মার্চ ২০১৫
  • / ৮৩৯ বার পঠিত

নিউইয়র্ক: সিটির জ্যামাইকায় মুসলিম সেন্টারের সামনে একটি ভবনে এক ডাকাত ঢুকে পড়ার ঘটনা শনিবার (১৪ মার্চ) বাংলাদেশী কমিউনিটিতে ছিল আলোচনার প্রধান বিষয়। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে কয়েকটি অনলাইন মিডিয়া এবং বাংলাদেশের স্যাটেলাই চ্যানেল বিভ্রান্তিকর তথ্য দিয়ে বেকিং- নিউজ প্রচার করার পর প্রবাসী বাংলাদেশী ও বাংলাদেশে তাদের আত্মীয়স্বজনদের মধ্যে ব্যপক তোলপাড় শুরু হয়।
ঘটনার বিবরণে জানা যায়, শনিবার সকালে এক কৃষ্ণাঙ্গ ব্যক্তি একই এলাকার একটি বাড়ি থেকে চুরি করে পালানোর সময় পুলিশের নজরে পড়ে। পুলিশ তাকে আটক কারার চেষ্টা করলে সে দৌড়ে জ্যামাইকার ১৬৮ স্ট্রিটের ৮৫-২০ বাসায় প্রবেশ করে অস্ত্রের মুখে একটি গায়ানিজ পরিবারের সদস্যদের জিম্মি করে। এ ঘটনার পরে পুলিশ ওই ভবন ঘিরে রাখে। ঐ বাসায় বসবাসরত তিনটি পরিবারের মধ্যে দুটি পরিবার ছিল বাঙালী পরিবার। এই এলাকায় বেশীরভাগ অধিবাসীই বাংলাদেশী। এসময় কে বা কারা গুজব রটিয়ে দেয় যে অস্ত্রধারীরা দুটি বাংলাদেশী পরিবারের একটিকে জিম্মি করেছে। এই গুজবের ওপর ভিত্তি করে কয়েকটি অনলাইন মিডিয়া এবং বাংলাদেশের স্যাটেলাই চ্যানেলগুলো বিভ্রান্তিকর তথ্য প্রচার করতে শুরু করে। এমন কি কোনো যাচাই বাছাই না করে বা পুলিশের সাথে কথা না বলেই এমনও বলা হতে থাকে মুসলিম বলে হেট ক্রাইমের অংশ হিসাবে এই জিম্মি করা হয়েছে। একটি চ্যানেল এই ঘটনায় একজন বাংলাদেশী মহিলার গুরুতর আহত হওয়ার তথ্যও প্রচার করে।
ঐ বাসায় অবস্থানরত বাংলাদেশী পরিবারের সূত্রে জানা যায়, সকাল ৮টার দিকে একজন কৃষ্ণাঙ্গ তাদের বাসার দরজায় নক করেছিলো। কিন্তু অপরিচিত ব্যক্তি বিধায় তারা দরজা খুলেনি। তারপর সে নিচে বেইসমেন্টে চলে যায়। সেখানে বসবাসরত গায়ানিজ পরিবাটি দরজায় নক করার সাথে সাথে দরজা খুলে দেয় এবং ডাকাত তাদের বাসায় ঢুকে পড়ে। এর পরপরই পুলিশ পুরো এলাকা ঘিরে ফেলে। রাস্তায় পুলিশের গাড়ি এবং আকাশে পুলিশের হেলিকপ্টার দেখা যায়। কিছুক্ষণ চেষ্টা চালানোর পর পুলিশ ২৫ বছর বয়সী এক কৃষ্ণাঙ্গকে গ্রেফতার করে।
পুলিশ জানায়, তারা ডাকাতকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছে এবং এই ঘটনায় কোন হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। কোন বাংলাদশেী পরিবারকেও জিম্মি করা হয়নি। তবে পুলিশ তদন্তের স্বার্থে এখনো গ্রেফতারকৃত ডাকাতের নাম প্রকাশ করেনি।
এদিকে নিউইয়র্ক বাংলাদেশ কনস্যুলেটের ডেপুটি কনসাল জেনারেল মোহাম্মদ শাহেদুল ইসলাম জানান, একটি গায়ানিজ পরিবারকে এক কৃষ্ণাঙ্গ লোক জিম্মি করার খবর তারা জানতে পেরেছে। জ্যামাইকার মুসলিম সেন্টারের সামনে এই এলাকায় অনেক বাংলাদেশী বাস করেন। কিন্তু কোনও বাংলাদেশীকে জিম্মি করা হয়নি। তিনি আরও জানান, পুলিশের সঙ্গে তার কথা হয়েছে। তারা ওই কৃষ্ণাঙ্গ লোকটিকে গ্রেফতার করেছে।(সাপ্তাহিক প্রবাস)

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

About Author Information

জ্যামাইকায় জিম্মি ঘটনা : কয়েকটি মিডিয়ার বিভ্রান্তিকর তথ্যে তোলপাড়

প্রকাশের সময় : ০১:৫৭:৪৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৭ মার্চ ২০১৫

নিউইয়র্ক: সিটির জ্যামাইকায় মুসলিম সেন্টারের সামনে একটি ভবনে এক ডাকাত ঢুকে পড়ার ঘটনা শনিবার (১৪ মার্চ) বাংলাদেশী কমিউনিটিতে ছিল আলোচনার প্রধান বিষয়। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে কয়েকটি অনলাইন মিডিয়া এবং বাংলাদেশের স্যাটেলাই চ্যানেল বিভ্রান্তিকর তথ্য দিয়ে বেকিং- নিউজ প্রচার করার পর প্রবাসী বাংলাদেশী ও বাংলাদেশে তাদের আত্মীয়স্বজনদের মধ্যে ব্যপক তোলপাড় শুরু হয়।
ঘটনার বিবরণে জানা যায়, শনিবার সকালে এক কৃষ্ণাঙ্গ ব্যক্তি একই এলাকার একটি বাড়ি থেকে চুরি করে পালানোর সময় পুলিশের নজরে পড়ে। পুলিশ তাকে আটক কারার চেষ্টা করলে সে দৌড়ে জ্যামাইকার ১৬৮ স্ট্রিটের ৮৫-২০ বাসায় প্রবেশ করে অস্ত্রের মুখে একটি গায়ানিজ পরিবারের সদস্যদের জিম্মি করে। এ ঘটনার পরে পুলিশ ওই ভবন ঘিরে রাখে। ঐ বাসায় বসবাসরত তিনটি পরিবারের মধ্যে দুটি পরিবার ছিল বাঙালী পরিবার। এই এলাকায় বেশীরভাগ অধিবাসীই বাংলাদেশী। এসময় কে বা কারা গুজব রটিয়ে দেয় যে অস্ত্রধারীরা দুটি বাংলাদেশী পরিবারের একটিকে জিম্মি করেছে। এই গুজবের ওপর ভিত্তি করে কয়েকটি অনলাইন মিডিয়া এবং বাংলাদেশের স্যাটেলাই চ্যানেলগুলো বিভ্রান্তিকর তথ্য প্রচার করতে শুরু করে। এমন কি কোনো যাচাই বাছাই না করে বা পুলিশের সাথে কথা না বলেই এমনও বলা হতে থাকে মুসলিম বলে হেট ক্রাইমের অংশ হিসাবে এই জিম্মি করা হয়েছে। একটি চ্যানেল এই ঘটনায় একজন বাংলাদেশী মহিলার গুরুতর আহত হওয়ার তথ্যও প্রচার করে।
ঐ বাসায় অবস্থানরত বাংলাদেশী পরিবারের সূত্রে জানা যায়, সকাল ৮টার দিকে একজন কৃষ্ণাঙ্গ তাদের বাসার দরজায় নক করেছিলো। কিন্তু অপরিচিত ব্যক্তি বিধায় তারা দরজা খুলেনি। তারপর সে নিচে বেইসমেন্টে চলে যায়। সেখানে বসবাসরত গায়ানিজ পরিবাটি দরজায় নক করার সাথে সাথে দরজা খুলে দেয় এবং ডাকাত তাদের বাসায় ঢুকে পড়ে। এর পরপরই পুলিশ পুরো এলাকা ঘিরে ফেলে। রাস্তায় পুলিশের গাড়ি এবং আকাশে পুলিশের হেলিকপ্টার দেখা যায়। কিছুক্ষণ চেষ্টা চালানোর পর পুলিশ ২৫ বছর বয়সী এক কৃষ্ণাঙ্গকে গ্রেফতার করে।
পুলিশ জানায়, তারা ডাকাতকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছে এবং এই ঘটনায় কোন হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। কোন বাংলাদশেী পরিবারকেও জিম্মি করা হয়নি। তবে পুলিশ তদন্তের স্বার্থে এখনো গ্রেফতারকৃত ডাকাতের নাম প্রকাশ করেনি।
এদিকে নিউইয়র্ক বাংলাদেশ কনস্যুলেটের ডেপুটি কনসাল জেনারেল মোহাম্মদ শাহেদুল ইসলাম জানান, একটি গায়ানিজ পরিবারকে এক কৃষ্ণাঙ্গ লোক জিম্মি করার খবর তারা জানতে পেরেছে। জ্যামাইকার মুসলিম সেন্টারের সামনে এই এলাকায় অনেক বাংলাদেশী বাস করেন। কিন্তু কোনও বাংলাদেশীকে জিম্মি করা হয়নি। তিনি আরও জানান, পুলিশের সঙ্গে তার কথা হয়েছে। তারা ওই কৃষ্ণাঙ্গ লোকটিকে গ্রেফতার করেছে।(সাপ্তাহিক প্রবাস)