নিউইয়র্ক ০৭:০৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ২ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন :
মঙ্গলবারের পত্রিকা সাপ্তাহিক হককথা ও হককথা.কম এ আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন +1 (347) 848-3834

বিশ্বকাপ ক্রিকেট : বিজয়ের শেষ, ইমরুলের শুরু

রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : ০৯:৩৯:২২ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৫ মার্চ ২০১৫
  • / ৬০০ বার পঠিত

ঢাকা: কাঁধের ইনজুরির কারণে এনামুল হক বিজয়ের এবারের বিশ্বকাপ স্বপ্ন ভেঙে গেল। স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে ফিল্ডিং করার সময় বিজয় কাঁধে চোট পান। তাৎক্ষণিক তাকে নেয়া হয় হাসপাতালে। এমআরআই পরীক্ষার পর চিকিৎসকরা জানান তার পক্ষে আর খেলা সম্ভব নয়। এরই মধ্যে বিজয়ের পরিবর্তে ইমরুল কায়েসকে বিশ্বকাপ দলে যোগ দেয়ার জন্য অস্ট্রেলিয়া পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশ দলের প্রধান নির্বাচক ফারুক আহমেদ। তিনি বলেন, ‘বিজয়ের ইনজুরিটা গুরুতর। ওর আর বিশ্বকাপে খেলা হচ্ছে না। যে কারণে আমরা জরুরী ভিত্তিতে ইমরুল কায়েসকে অস্ট্রেলিয়া পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছি। ও আজ ৬ মার্চ রাতেই অস্ট্রেলিয়ার জন্য দেশ ছাড়বে।’
বাংলাদেশ দলের গ্রুপ পর্বে এখনও দুটি ম্যাচ বাকি। গ্রুপে বাংলাদেশের পশ্চম ম্যাচে অস্ট্রেলিয়াতে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ও শেষটি নিউজিল্যান্ডে স্বাগতিকদের বিপক্ষে। এই দুটি দলের যে কোন একটিকে হারাতে পারলে বাংলাদেশ খেলবে কোয়ার্টার ফাইনালে।
গত ৫ মার্চ নিউজিল্যান্ডের নেলসনে স্যাক্সটন ওভাল মাঠে স্কটল্যান্ড ইনিংসের ৩১তম ওভারে বাউন্ডারিতে বল ধরতে ডাইভ দেন। কিন্তু বলটি ধরে ফেললেও তার হাতটি আগে মাটিতে তার শরীরের নিচে পড়ে। আর তখন তার ডান কাঁধের পয়েন্টে চোট লাগে। এরপরই তাকে হাসপাতালে নিয়ে স্ক্যান করানো হয়। তবে জানা যায় তার এই ইনজুরি আসলে কতদিনে কাটিয়ে ওঠবেন তা নিশ্চিত করে বলতে পারেনি দলের চিকিৎসকরা। ধারণা করা হচ্ছে কাঁধের ইনজুরি অস্ত্রোপচার করা না হলে সেই ক্ষেত্রে ৩ মাস সময় লাগতে পারে। তবে সেটি পুরোপুরি পরীক্ষা-নিরীক্ষার পরই জানা যাবে। বিজয় বিশ্বকাপে বাংলাদেশের প্রথম ম্যাচটি খেলেছেন আফগানিস্তানের বিপক্ষে ৫৫ বল খেলে ২৯ রান করেছিলেন তামিম ইকবালের সঙ্গে ওপেন করতে নেমে। এরপর অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে বৃষ্টির কারণে মাঠে নামা হয়নি। এরপর শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তৃতীয় ম্যাচেও ৪৩ বলে ২৯ রান করে আউট হন তিনি।
২০১২ সালে ওয়ানডে অভিষেকের পর বিজয় বাংলাদেশ দলের হয়ে খেলেছেন ৩০টি ওয়ানডে। এর মধ্যে ৩টি সেঞ্চুরি ও ৩টি ফিফটিতে ৩৫.১৮ গড়ে সংগ্রহ করেন ৯৫০ রান। ক্যারিয়ারে বিজয়ের এটি ছিল প্রথম বিশ্বকাপ।(দৈনিক মানবজমিন)

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

About Author Information

বিশ্বকাপ ক্রিকেট : বিজয়ের শেষ, ইমরুলের শুরু

প্রকাশের সময় : ০৯:৩৯:২২ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৫ মার্চ ২০১৫

ঢাকা: কাঁধের ইনজুরির কারণে এনামুল হক বিজয়ের এবারের বিশ্বকাপ স্বপ্ন ভেঙে গেল। স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে ফিল্ডিং করার সময় বিজয় কাঁধে চোট পান। তাৎক্ষণিক তাকে নেয়া হয় হাসপাতালে। এমআরআই পরীক্ষার পর চিকিৎসকরা জানান তার পক্ষে আর খেলা সম্ভব নয়। এরই মধ্যে বিজয়ের পরিবর্তে ইমরুল কায়েসকে বিশ্বকাপ দলে যোগ দেয়ার জন্য অস্ট্রেলিয়া পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশ দলের প্রধান নির্বাচক ফারুক আহমেদ। তিনি বলেন, ‘বিজয়ের ইনজুরিটা গুরুতর। ওর আর বিশ্বকাপে খেলা হচ্ছে না। যে কারণে আমরা জরুরী ভিত্তিতে ইমরুল কায়েসকে অস্ট্রেলিয়া পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছি। ও আজ ৬ মার্চ রাতেই অস্ট্রেলিয়ার জন্য দেশ ছাড়বে।’
বাংলাদেশ দলের গ্রুপ পর্বে এখনও দুটি ম্যাচ বাকি। গ্রুপে বাংলাদেশের পশ্চম ম্যাচে অস্ট্রেলিয়াতে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ও শেষটি নিউজিল্যান্ডে স্বাগতিকদের বিপক্ষে। এই দুটি দলের যে কোন একটিকে হারাতে পারলে বাংলাদেশ খেলবে কোয়ার্টার ফাইনালে।
গত ৫ মার্চ নিউজিল্যান্ডের নেলসনে স্যাক্সটন ওভাল মাঠে স্কটল্যান্ড ইনিংসের ৩১তম ওভারে বাউন্ডারিতে বল ধরতে ডাইভ দেন। কিন্তু বলটি ধরে ফেললেও তার হাতটি আগে মাটিতে তার শরীরের নিচে পড়ে। আর তখন তার ডান কাঁধের পয়েন্টে চোট লাগে। এরপরই তাকে হাসপাতালে নিয়ে স্ক্যান করানো হয়। তবে জানা যায় তার এই ইনজুরি আসলে কতদিনে কাটিয়ে ওঠবেন তা নিশ্চিত করে বলতে পারেনি দলের চিকিৎসকরা। ধারণা করা হচ্ছে কাঁধের ইনজুরি অস্ত্রোপচার করা না হলে সেই ক্ষেত্রে ৩ মাস সময় লাগতে পারে। তবে সেটি পুরোপুরি পরীক্ষা-নিরীক্ষার পরই জানা যাবে। বিজয় বিশ্বকাপে বাংলাদেশের প্রথম ম্যাচটি খেলেছেন আফগানিস্তানের বিপক্ষে ৫৫ বল খেলে ২৯ রান করেছিলেন তামিম ইকবালের সঙ্গে ওপেন করতে নেমে। এরপর অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে বৃষ্টির কারণে মাঠে নামা হয়নি। এরপর শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তৃতীয় ম্যাচেও ৪৩ বলে ২৯ রান করে আউট হন তিনি।
২০১২ সালে ওয়ানডে অভিষেকের পর বিজয় বাংলাদেশ দলের হয়ে খেলেছেন ৩০টি ওয়ানডে। এর মধ্যে ৩টি সেঞ্চুরি ও ৩টি ফিফটিতে ৩৫.১৮ গড়ে সংগ্রহ করেন ৯৫০ রান। ক্যারিয়ারে বিজয়ের এটি ছিল প্রথম বিশ্বকাপ।(দৈনিক মানবজমিন)