নিউইয়র্ক ০৩:১৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ২২ জুলাই ২০২৪, ৭ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন :
মঙ্গলবারের পত্রিকা সাপ্তাহিক হককথা ও হককথা.কম এ আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন +1 (347) 848-3834

এক স্লিপ

রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : ০৭:২৩:৩৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ১১ এপ্রিল ২০১৬
  • / ১২৩৬ বার পঠিত

নিউইয়র্ক: নিউইয়র্ক সিটির জ্যামাইকায় গেলো সপ্তাহে একটি অনুষ্ঠান কভার করতে হয়েছে। সন্ধ্যা ৭টার অনুষ্ঠান শুরু হলো রাত ৯টায়। শেষ হলো মধ্য রাত সাড়ে ১২টার পর। অনুষ্ঠানে দেখা গেলো মঞ্চে যতটা আসন, তার চেয়েও বেশী অতিথি। অগত্যা আশপাশ থেকে চেয়ার টেনে অতিথিদের মঞ্চে বসার ব্যবস্থা করা হলো। সেই সাথে একেক কর্মকর্তা একেকজনকে মঞ্চে বসানোর অনুরোধ করা শুরু করলেন। এতে বিব্রতকর পরিস্থিতির মুখোমুখি হলেন অনুষ্ঠান পরিচালক/উপস্থাপক। দেখা গেলো যেনো ‘সিন্ডিকেড’। আর এই ‘সিন্ডিকেড’ কমিউনিটির সর্বত্রই লক্ষ্য করা যাচ্ছে। ফলে প্রশ্নবিদ্ধ হয়ে পড়ছে কমিউনিটি, কমিউনিটির নেতৃত্ব। আবার ঐ অনুষ্ঠানে দেখা গেলো একের পর এক বক্তা। বক্তার তালিকা যেনো শেষ হচ্ছে না। এদিকে দর্শক-শ্রোতার সংখ্যাও ক্রমশ: কমতে শুরু করলো। রাত ১১টার দিকে এক পর্যায়ে এক দর্শক-শ্রোতাকে বলতে শোনা গেলো বক্তৃতা শেষ হচ্ছে না, পরে রয়েছে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। খাবো কখোন, ঘুমাবো কখোন! তার এ কথায় পাশে বসা আরেক দর্শক-শ্রোতা মন্তব্য করলেন আরেকটু ধৈর্য্য ধরতে হবে আর কি! একজন মিডিয়া কর্মী হিসেবে মন্তব্য নয়- দেখা-শোনা আর রিপোর্ট করাই পেশাগত কাজ বলে চুপ থাকাই শ্রেয় মনে করলাম। মনে মনে বললাম- ‘নো কমেন্টস’। ১০ এপ্রিল’২০১৬

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

About Author Information

এক স্লিপ

প্রকাশের সময় : ০৭:২৩:৩৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ১১ এপ্রিল ২০১৬

নিউইয়র্ক: নিউইয়র্ক সিটির জ্যামাইকায় গেলো সপ্তাহে একটি অনুষ্ঠান কভার করতে হয়েছে। সন্ধ্যা ৭টার অনুষ্ঠান শুরু হলো রাত ৯টায়। শেষ হলো মধ্য রাত সাড়ে ১২টার পর। অনুষ্ঠানে দেখা গেলো মঞ্চে যতটা আসন, তার চেয়েও বেশী অতিথি। অগত্যা আশপাশ থেকে চেয়ার টেনে অতিথিদের মঞ্চে বসার ব্যবস্থা করা হলো। সেই সাথে একেক কর্মকর্তা একেকজনকে মঞ্চে বসানোর অনুরোধ করা শুরু করলেন। এতে বিব্রতকর পরিস্থিতির মুখোমুখি হলেন অনুষ্ঠান পরিচালক/উপস্থাপক। দেখা গেলো যেনো ‘সিন্ডিকেড’। আর এই ‘সিন্ডিকেড’ কমিউনিটির সর্বত্রই লক্ষ্য করা যাচ্ছে। ফলে প্রশ্নবিদ্ধ হয়ে পড়ছে কমিউনিটি, কমিউনিটির নেতৃত্ব। আবার ঐ অনুষ্ঠানে দেখা গেলো একের পর এক বক্তা। বক্তার তালিকা যেনো শেষ হচ্ছে না। এদিকে দর্শক-শ্রোতার সংখ্যাও ক্রমশ: কমতে শুরু করলো। রাত ১১টার দিকে এক পর্যায়ে এক দর্শক-শ্রোতাকে বলতে শোনা গেলো বক্তৃতা শেষ হচ্ছে না, পরে রয়েছে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। খাবো কখোন, ঘুমাবো কখোন! তার এ কথায় পাশে বসা আরেক দর্শক-শ্রোতা মন্তব্য করলেন আরেকটু ধৈর্য্য ধরতে হবে আর কি! একজন মিডিয়া কর্মী হিসেবে মন্তব্য নয়- দেখা-শোনা আর রিপোর্ট করাই পেশাগত কাজ বলে চুপ থাকাই শ্রেয় মনে করলাম। মনে মনে বললাম- ‘নো কমেন্টস’। ১০ এপ্রিল’২০১৬