নিউইয়র্ক ০৭:০২ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন :
মঙ্গলবারের পত্রিকা সাপ্তাহিক হককথা ও হককথা.কম এ আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন +1 (347) 848-3834

এক স্লিপ

রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : ০৭:৩৮:২৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ৯ জানুয়ারী ২০১৬
  • / ৭৩৪ বার পঠিত

নিউইয়র্ক: আরো একটি বছর চলে গেলো, নতুন হলো নতুন বছর। স্বাগত ২০১৬, বিদায় ২০১৫। সকল পাঠককে ইংরেজী নতুন বছরের শুভেচ্ছা। নতুন বছর উপলক্ষ্যে ২ জানুয়ারী শনিবার সন্ধ্যায় এক অনুষ্ঠান কভার করছিলাম। জমজমাট আয়োজন। বাংলাদেশী-আমেরিকানদের আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে দেশী-বিদেশী অতিথিদের ভীড়। আসন না পেয়ে কেউ কেউ দাঁড়িয়ে অনুষ্ঠানটি উপভোগ করছেন। এমন অনুষ্ঠান সচরাচর কমিউনিটিতে খুব একটা হয় না বা দেখা যায় না। অনুষ্ঠানটিতে অতিথিদের বক্তব্য ছাড়াও অন্যান্য আকর্ষনীয় পর্বের মধ্যে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান থাকলেও বরাবরের মতো কোন কোন বাংলাদেশীদের বক্তব্য দর্শক-শ্রোতাদের হতাশ করে, বিরক্তির উদ্রেগ করে। ভুক্তভোগীদের ভাষায় ‘বক্তাদের সময় জ্ঞানের অভাব’। কখন কোন কথা, কত সময় নিয়ে বলা যাবে সে ব্যাপারে অনেকেরই ‘বোধ-জ্ঞান’ কম বলেই মনে হয়। অনুষ্ঠানটিতে এমনি মন্তব্য করেন আমার পাশে থাকা এক দর্শক-শ্রোতা। আবার অনুষ্ঠানের সাংস্কৃতিক পর্বে আয়োজকদের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে আরেক দর্শক-শ্রোতা প্রায় চিৎকার করে বলেই উঠলেন- ‘হিন্দি নয়, বাংলা গান চাই’। সম্প্রতি এক অনুষ্ঠানে এক বক্তার বক্তব্যকে কেন্দ্র করে অনুষ্ঠানের এক অতিথিকে দেখে আরেক অতিথি উঠে চলেই যান। যা মিডিয়ার শিরোনাম হয়ে উঠে। বিষয়গুলো নিয়ে ফিসফাস করলেন আরেক সহকর্মী বন্ধু। তার প্রশ্ন ‘আমাদের বাস্তব জ্ঞান হবে কবে’? ০৩ জানুয়ারী’২০১৫ (সাপ্তাহিক বাংলা পত্রিকা)

Tag :

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

About Author Information

এক স্লিপ

প্রকাশের সময় : ০৭:৩৮:২৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ৯ জানুয়ারী ২০১৬

নিউইয়র্ক: আরো একটি বছর চলে গেলো, নতুন হলো নতুন বছর। স্বাগত ২০১৬, বিদায় ২০১৫। সকল পাঠককে ইংরেজী নতুন বছরের শুভেচ্ছা। নতুন বছর উপলক্ষ্যে ২ জানুয়ারী শনিবার সন্ধ্যায় এক অনুষ্ঠান কভার করছিলাম। জমজমাট আয়োজন। বাংলাদেশী-আমেরিকানদের আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে দেশী-বিদেশী অতিথিদের ভীড়। আসন না পেয়ে কেউ কেউ দাঁড়িয়ে অনুষ্ঠানটি উপভোগ করছেন। এমন অনুষ্ঠান সচরাচর কমিউনিটিতে খুব একটা হয় না বা দেখা যায় না। অনুষ্ঠানটিতে অতিথিদের বক্তব্য ছাড়াও অন্যান্য আকর্ষনীয় পর্বের মধ্যে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান থাকলেও বরাবরের মতো কোন কোন বাংলাদেশীদের বক্তব্য দর্শক-শ্রোতাদের হতাশ করে, বিরক্তির উদ্রেগ করে। ভুক্তভোগীদের ভাষায় ‘বক্তাদের সময় জ্ঞানের অভাব’। কখন কোন কথা, কত সময় নিয়ে বলা যাবে সে ব্যাপারে অনেকেরই ‘বোধ-জ্ঞান’ কম বলেই মনে হয়। অনুষ্ঠানটিতে এমনি মন্তব্য করেন আমার পাশে থাকা এক দর্শক-শ্রোতা। আবার অনুষ্ঠানের সাংস্কৃতিক পর্বে আয়োজকদের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে আরেক দর্শক-শ্রোতা প্রায় চিৎকার করে বলেই উঠলেন- ‘হিন্দি নয়, বাংলা গান চাই’। সম্প্রতি এক অনুষ্ঠানে এক বক্তার বক্তব্যকে কেন্দ্র করে অনুষ্ঠানের এক অতিথিকে দেখে আরেক অতিথি উঠে চলেই যান। যা মিডিয়ার শিরোনাম হয়ে উঠে। বিষয়গুলো নিয়ে ফিসফাস করলেন আরেক সহকর্মী বন্ধু। তার প্রশ্ন ‘আমাদের বাস্তব জ্ঞান হবে কবে’? ০৩ জানুয়ারী’২০১৫ (সাপ্তাহিক বাংলা পত্রিকা)