নিউইয়র্ক ১২:১৭ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন :
মঙ্গলবারের পত্রিকা সাপ্তাহিক হককথা ও হককথা.কম এ আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন +1 (347) 848-3834

এক স্লিপ

রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : ০১:৩১:৫১ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৫
  • / ৭৯১ বার পঠিত

নিউইয়র্ক: নিউইয়র্ক তথা উত্তর আমেরিকায় প্রবাসী বাংলাদেশী শিল্পীর অভাব নেই। বিশেষ করে সাম্প্রতিককালে সঙ্গীত শিল্পীর সংখ্যা বেশ বেড়েই গেছে। এসব শিল্পীদের মধ্যে হাতেগোনা কয়েকজন ছাড়া বাকী শিল্পীরা আসলেই শিল্পী হিসেবে স্বীকৃত কিনা তা গান প্রেমিক প্রবাসীরাই ভালো বলতে পারবেন। অনেক অনুষ্ঠানেই দেখা যায় এসব শিল্পীরা ‘ট্র্যাক নির্ভর’ ঠোট মেলানো শিল্পী ছাড়া আর কিছুই নয়। অথচ এরা নাকি প্রবাসের ‘জনপ্রিয় সঙ্গীত শিল্পী’। বিভিন্ন অনুষ্ঠানের বিজ্ঞাপনের ভাষায় তাই বলে! ১৪ নভেম্বর শনিবার একধিক অনুষ্ঠান কভার করার এক পর্যায়ে একটি অনুষ্ঠানের সাংস্কৃতিক পর্ব উপভোগ করতে গিয়ে দেখা গেলো প্রবাসের এক গায়ক, বাংলাদেশের এক জনপ্রিয় গায়িকার গান পরিবেশন করলেন। তাও আবার ট্র্যাকে জনপ্রিয় গায়িকার গান, প্রবাসের ‘জনপ্রিয়’ গায়কের কন্ঠে! এমন অবস্থায় আমার পাশে বসা এক দর্শক মন্তব্য করলেন- ‘এটি অবার কি? গায়িকার গান গায়কের ঠোটে। কেমন যেনো বেমানান নয়!’ সচেতন এই দর্শক-শ্রোতার কথায় না হেসে পারলাম না। পারলাম না কোন মন্তব্য করতে। শুধু মনে মনে বললাম শিল্পী হওয়া এতো সহজ নয়! তবে একথাও ঠিক যে প্রবাসে কয়েকজন শিল্পী রয়েছেন যারা সত্যিকারেই দেশের জনপ্রিয় শিল্পীদের চেয়ে তাদের কন্ঠও প্রবাসীদের কাছে কম জনপ্রিয় নয়। তাদের অনেকেরই নিজস্ব অ্যালবাম বেরিয়েছে। আমার কাছে তারাই প্রকৃত শিল্পী অন্যের জনপ্রিয় গান নয়, যারা নিজেদের গাওয়া গান গেয়ে জনপ্রিয়তা লাভ করেছেন। সৃষ্টি করেছেন নিজস্ব স্বকীয়তা। সাধুবাদ রইল তাদের জন্য। ১৫ নভেম্বর’২০১৫

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

About Author Information

এক স্লিপ

প্রকাশের সময় : ০১:৩১:৫১ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৫

নিউইয়র্ক: নিউইয়র্ক তথা উত্তর আমেরিকায় প্রবাসী বাংলাদেশী শিল্পীর অভাব নেই। বিশেষ করে সাম্প্রতিককালে সঙ্গীত শিল্পীর সংখ্যা বেশ বেড়েই গেছে। এসব শিল্পীদের মধ্যে হাতেগোনা কয়েকজন ছাড়া বাকী শিল্পীরা আসলেই শিল্পী হিসেবে স্বীকৃত কিনা তা গান প্রেমিক প্রবাসীরাই ভালো বলতে পারবেন। অনেক অনুষ্ঠানেই দেখা যায় এসব শিল্পীরা ‘ট্র্যাক নির্ভর’ ঠোট মেলানো শিল্পী ছাড়া আর কিছুই নয়। অথচ এরা নাকি প্রবাসের ‘জনপ্রিয় সঙ্গীত শিল্পী’। বিভিন্ন অনুষ্ঠানের বিজ্ঞাপনের ভাষায় তাই বলে! ১৪ নভেম্বর শনিবার একধিক অনুষ্ঠান কভার করার এক পর্যায়ে একটি অনুষ্ঠানের সাংস্কৃতিক পর্ব উপভোগ করতে গিয়ে দেখা গেলো প্রবাসের এক গায়ক, বাংলাদেশের এক জনপ্রিয় গায়িকার গান পরিবেশন করলেন। তাও আবার ট্র্যাকে জনপ্রিয় গায়িকার গান, প্রবাসের ‘জনপ্রিয়’ গায়কের কন্ঠে! এমন অবস্থায় আমার পাশে বসা এক দর্শক মন্তব্য করলেন- ‘এটি অবার কি? গায়িকার গান গায়কের ঠোটে। কেমন যেনো বেমানান নয়!’ সচেতন এই দর্শক-শ্রোতার কথায় না হেসে পারলাম না। পারলাম না কোন মন্তব্য করতে। শুধু মনে মনে বললাম শিল্পী হওয়া এতো সহজ নয়! তবে একথাও ঠিক যে প্রবাসে কয়েকজন শিল্পী রয়েছেন যারা সত্যিকারেই দেশের জনপ্রিয় শিল্পীদের চেয়ে তাদের কন্ঠও প্রবাসীদের কাছে কম জনপ্রিয় নয়। তাদের অনেকেরই নিজস্ব অ্যালবাম বেরিয়েছে। আমার কাছে তারাই প্রকৃত শিল্পী অন্যের জনপ্রিয় গান নয়, যারা নিজেদের গাওয়া গান গেয়ে জনপ্রিয়তা লাভ করেছেন। সৃষ্টি করেছেন নিজস্ব স্বকীয়তা। সাধুবাদ রইল তাদের জন্য। ১৫ নভেম্বর’২০১৫