নিউইয়র্ক ০৮:০৪ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন :
মঙ্গলবারের পত্রিকা সাপ্তাহিক হককথা ও হককথা.কম এ আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন +1 (347) 848-3834

সিরিয়ায় আরো এক ব্রিটিশ-বাংলাদেশি নিহত

রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : ০১:২৪:৫৯ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৬ অক্টোবর ২০১৪
  • / ১১২১ বার পঠিত

ঢাকা: সিরিয়ায় জঙ্গিদের পক্ষে লড়াই করতে গিয়ে নিহত হয়েছেন আরো এক ব্রিটিশ-বাংলাদেশি। তার নাম মেহেদি হাসান। বয়স ১৯।

শনিবার এক প্রতিবেদনে বিবিসি জানায়, ব্রিটেনের পোর্টসমাউথ শহর থেকে ব্রিটিশ-বাংলাদেশিদের যে দলটি সিরিয়ায় ইসলামিক স্টেট জঙ্গীদের সঙ্গে যোগ দিয়েছিল তাদের মধ্যে মেহেদি হাসানও ছিলেন এবং তিনি সেখানে লড়াইয়ে নিহত হয়েছেন।

এর আগে শুক্রবার রাতে আইএস তাদের টুইটার অ্যাকাউন্টে মেহেদির নিহত হওয়ার খবর প্রকাশ করেছিল। তারা জানায়, বাংলাদেশের ওই কিশোর কোবানি লড়াইয়ে নিহত হয়েছেন।  এ নিয়ে পোর্টসমাউথের মোট চারজন ব্রিটিশ-বাংলাদেশি সিরিয়ায় জঙ্গিদের পক্ষে ‘জিহাদ’ করতে গিয়ে নিহত হলো।

পোর্টসমাউথের ওই তরুণ গত বছরের অক্টোবরে পাঁচ জনের একটি দলের সঙ্গে সিরিয়ার উদ্দেশে ব্রিটেন ছাড়েন। মেহেদির পরিবার পোর্টসমাউথের স্থানীয় একটি মসজিদকে জানিয়েছে,তারা তার মৃত্যুর খবর পেয়েছে।

মেহেদি হাসান ব্রিটেনের সাউথসি অঞ্চলের সেন্ট জনস কলেজের ছাত্র ছিলেন। একদিন বিশ্ববিদ্যালয়ে যাওয়ার বদলে সে তুরস্ক পালিয়ে যায়। সেখান থেকে আবু দুজানা ছদ্মনামে সিরিয়া প্রবেশ করেন এবং আইএসের সঙ্গে যোগ দেন।। গত ১৭ অক্টেবর তিনি তার টুইটারে শেষবারের মত কোবানি লড়াইয়ের কথা উল্লেখ করেছিলেন।
এর আগে পোর্টসমাউথের ব্রিটিশ-বাংলাদেশি তরুণ ইফতেখার জামান, মামুনুর রশিদ এবং হামিদুর রহমান সিরিয়ায় লড়াই করতে গিয়ে মারা যায়।

উল্লেখ্য, সিরিয়ায় আইএসের পক্ষে যে দুই হাজার বিদেশি যোদ্ধা লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে তাদের মধ্যে প্রায় ৫শ ব্রিটিশ নাগরিক।তারা ইরাক ও সিরিয়ায় ইসলামি খিলাফত প্রতিষ্ঠায় লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

About Author Information

সিরিয়ায় আরো এক ব্রিটিশ-বাংলাদেশি নিহত

প্রকাশের সময় : ০১:২৪:৫৯ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৬ অক্টোবর ২০১৪

ঢাকা: সিরিয়ায় জঙ্গিদের পক্ষে লড়াই করতে গিয়ে নিহত হয়েছেন আরো এক ব্রিটিশ-বাংলাদেশি। তার নাম মেহেদি হাসান। বয়স ১৯।

শনিবার এক প্রতিবেদনে বিবিসি জানায়, ব্রিটেনের পোর্টসমাউথ শহর থেকে ব্রিটিশ-বাংলাদেশিদের যে দলটি সিরিয়ায় ইসলামিক স্টেট জঙ্গীদের সঙ্গে যোগ দিয়েছিল তাদের মধ্যে মেহেদি হাসানও ছিলেন এবং তিনি সেখানে লড়াইয়ে নিহত হয়েছেন।

এর আগে শুক্রবার রাতে আইএস তাদের টুইটার অ্যাকাউন্টে মেহেদির নিহত হওয়ার খবর প্রকাশ করেছিল। তারা জানায়, বাংলাদেশের ওই কিশোর কোবানি লড়াইয়ে নিহত হয়েছেন।  এ নিয়ে পোর্টসমাউথের মোট চারজন ব্রিটিশ-বাংলাদেশি সিরিয়ায় জঙ্গিদের পক্ষে ‘জিহাদ’ করতে গিয়ে নিহত হলো।

পোর্টসমাউথের ওই তরুণ গত বছরের অক্টোবরে পাঁচ জনের একটি দলের সঙ্গে সিরিয়ার উদ্দেশে ব্রিটেন ছাড়েন। মেহেদির পরিবার পোর্টসমাউথের স্থানীয় একটি মসজিদকে জানিয়েছে,তারা তার মৃত্যুর খবর পেয়েছে।

মেহেদি হাসান ব্রিটেনের সাউথসি অঞ্চলের সেন্ট জনস কলেজের ছাত্র ছিলেন। একদিন বিশ্ববিদ্যালয়ে যাওয়ার বদলে সে তুরস্ক পালিয়ে যায়। সেখান থেকে আবু দুজানা ছদ্মনামে সিরিয়া প্রবেশ করেন এবং আইএসের সঙ্গে যোগ দেন।। গত ১৭ অক্টেবর তিনি তার টুইটারে শেষবারের মত কোবানি লড়াইয়ের কথা উল্লেখ করেছিলেন।
এর আগে পোর্টসমাউথের ব্রিটিশ-বাংলাদেশি তরুণ ইফতেখার জামান, মামুনুর রশিদ এবং হামিদুর রহমান সিরিয়ায় লড়াই করতে গিয়ে মারা যায়।

উল্লেখ্য, সিরিয়ায় আইএসের পক্ষে যে দুই হাজার বিদেশি যোদ্ধা লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে তাদের মধ্যে প্রায় ৫শ ব্রিটিশ নাগরিক।তারা ইরাক ও সিরিয়ায় ইসলামি খিলাফত প্রতিষ্ঠায় লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে।