নিউইয়র্ক ০৭:১০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন :
মঙ্গলবারের পত্রিকা সাপ্তাহিক হককথা ও হককথা.কম এ আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন +1 (347) 848-3834

ফেব্রুয়ারী কেন ২৮ দিনের

রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : ০৮:৫৩:০৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৩০ জানুয়ারী ২০১৫
  • / ৭৫৮ বার পঠিত

নিউইয়র্ক: ইংরেজী ক্যালেন্ডারের ১১ মাসই ৩০ বা ৩১ দিনের। ফেব্রুয়ারীটা কেন ২৮ দিনের হলো? ৩১ দিন বিশিষ্ট দুটি মাস থেকে দুটি দিন আনায়াসেই এর সাথে যোগ করা যেত। এর পেছনে রয়েছে দীর্ঘ ইতিহাস। প্রথম দিককার একটি রোমান ক্যালেন্ডারে (খ্রীস্টপূর্ব সময়কালে) শীতের মাসগুলোর হিসাব রাখা হতো না। তাতে কেবল ৩০৪ দিন এবং ১০ মাস (মার্চ থেকে ডিসেম্বর) ছিল। এগুলোর ছয়টি ছিল ৩০ দিনের, বাকি চারটি ছিল ৩১ দিনের। কিংবদন্তি অনুযায়ী, রোমের দ্বিতীয় রাজা অতিরিক্ত দুটি মাস (জানুয়ারী ও ফেব্রুয়ারী) এবং ৫০টি দিন যোগ করেন। মাস দুটিকে দীর্ঘায়িত করার জন্য (এবং জোড় সংখ্যার প্রতি রোমান কুসংস্কার বজায় রাখার জন্য) তিনি ৩০ দিনের মাসগুলো থেকে এক দিন করে কমিয়ে দিলেন। ফলে জানুয়ারী ও ফেব্রুয়ারী- এই দুই মাসের জন্য থাকল মোট ৫৬ দিন (কিংবা উভয় মাসের প্রতিটির জন্য ২৮ দিন করে)। আবারো কুসংস্কার জয়ী হলো, যখন জানুয়ারীর সাথে এক যোগ করে সেটাকে ২৯ করা হলো। ফেব্রুয়ারী সেই ২৮ দিনেই রয়ে গেল। এই মাসটিকে ঘোষণা করা হলো ‘চিরন্তন ঈশ্বরের’ মাস হিসেবে। এভাবেই সংক্ষিপ্ততম মাসটির জন্ম হলো।

Tag :

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

About Author Information

ফেব্রুয়ারী কেন ২৮ দিনের

প্রকাশের সময় : ০৮:৫৩:০৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৩০ জানুয়ারী ২০১৫

নিউইয়র্ক: ইংরেজী ক্যালেন্ডারের ১১ মাসই ৩০ বা ৩১ দিনের। ফেব্রুয়ারীটা কেন ২৮ দিনের হলো? ৩১ দিন বিশিষ্ট দুটি মাস থেকে দুটি দিন আনায়াসেই এর সাথে যোগ করা যেত। এর পেছনে রয়েছে দীর্ঘ ইতিহাস। প্রথম দিককার একটি রোমান ক্যালেন্ডারে (খ্রীস্টপূর্ব সময়কালে) শীতের মাসগুলোর হিসাব রাখা হতো না। তাতে কেবল ৩০৪ দিন এবং ১০ মাস (মার্চ থেকে ডিসেম্বর) ছিল। এগুলোর ছয়টি ছিল ৩০ দিনের, বাকি চারটি ছিল ৩১ দিনের। কিংবদন্তি অনুযায়ী, রোমের দ্বিতীয় রাজা অতিরিক্ত দুটি মাস (জানুয়ারী ও ফেব্রুয়ারী) এবং ৫০টি দিন যোগ করেন। মাস দুটিকে দীর্ঘায়িত করার জন্য (এবং জোড় সংখ্যার প্রতি রোমান কুসংস্কার বজায় রাখার জন্য) তিনি ৩০ দিনের মাসগুলো থেকে এক দিন করে কমিয়ে দিলেন। ফলে জানুয়ারী ও ফেব্রুয়ারী- এই দুই মাসের জন্য থাকল মোট ৫৬ দিন (কিংবা উভয় মাসের প্রতিটির জন্য ২৮ দিন করে)। আবারো কুসংস্কার জয়ী হলো, যখন জানুয়ারীর সাথে এক যোগ করে সেটাকে ২৯ করা হলো। ফেব্রুয়ারী সেই ২৮ দিনেই রয়ে গেল। এই মাসটিকে ঘোষণা করা হলো ‘চিরন্তন ঈশ্বরের’ মাস হিসেবে। এভাবেই সংক্ষিপ্ততম মাসটির জন্ম হলো।