নিউইয়র্ক ০১:১৮ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন :
মঙ্গলবারের পত্রিকা সাপ্তাহিক হককথা ও হককথা.কম এ আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন +1 (347) 848-3834

কানাডার রাজধানীর সেই সন্ত্রাসী মাইকেল জিহাফ-বিবিউ

রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : ১১:৪৫:৩১ অপরাহ্ন, বুধবার, ২২ অক্টোবর ২০১৪
  • / ৯৪৫ বার পঠিত

গত ২২ অক্টোবর বুধবার কানাডার রাজধানী অটোয়ায় অবস্থিত জাতীয় যুদ্ধ স্মৃতিসৌধে যে বিশ্বময় সাড়া জাগানো সন্ত্রাসী হামলা হয়েছে, সেটির ঘৃণিত নায়ক হচ্ছে মাইকেল জিহাফ-বিবিউ, যার জন্ম হয়েছিল ১৯৮২ সালে। ঘটনাস্থলে স্মৃতিসৌধের রির্জাভিস্ট কর্পোরাল নাথান সিরিলোকে হত্যার পর সে নিজেও নিরাপত্তারক্ষীদের গুলিতে নিহত হয়। সে সময় অতি সন্নিকটে পার্লামেন্টের একটি কক্ষে কানাডার প্রধানমন্ত্রী স্টিফেন হার্পার স্বয়ং আলোচনারত ছিলেন। মাত্র দু’দিনের ব্যবধানে কানাডায় এটি দ্বিতীয় সন্ত্রাসী হামলা হিসেবে চিহ্নিত হয়।
বিভিন্ন সংবাদ সূত্রে প্রকাশ, কানাডার ক্যুইবেক প্রদেশে বেড়ে ওঠা মাইকেল জিহাফ-বিবিউ ছিল ধর্মান্তরিত মুসলিম। তার প্রকৃত নাম- মাইকেল জোসেফ হল। তবে ধর্মান্তরিত হবার পর তার পুরো নাম দাঁড়ায় মাইকেল আবদুল জিহাফ বিবিউ।
গ্লোব অ্যান্ড মেইল সূত্রে প্রকাশ, রাষ্ট্রীয় কর্তৃপক্ষ তাকে ‘হাই-রিস্ক ট্রেভেলার’ প্রতিপন্ন করে তার পাসপোর্ট জব্দ করেছিল। একইভাবে দুই দিন আগের ঘটনায় অর্থাৎ ২০ অক্টোবর সোমবার মুসলিম ধর্মান্তরিত মার্টিন কোচার-রোলেউর ক্যুইবেক নগরীর সেন্ট-জ্যঁ-সু-রেচেলিউতে যে দুজন সেনা সদস্যের উপর গাড়ী তুলে দিয়ে একজনকে মৃত্যুমুখী করে, তার ক্ষেত্রেও ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার কারণে পাসপোর্ট জব্দের ঘটনা ঘটেছিল। পরে সেও পুলিশের গুলিতে নিহত হয়।
মাইকেল জিহাফ-বিবিউর ক্ষেত্রে আরো যা জানা যায় তাতে তার অতীত অপরাধ রয়েছে বলে সংবাদসূত্রে প্রকাশ। সেক্ষেত্রে ২০০৪ থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত সে সিটির ভিলারে-সেন্ট-মাইকেল-পার্ক এক্সটেনশনে বসবাস করেছে। ২০০৪ সালের ডিসেম্বরে ‘পিসিপি’ রাখার দায়ে ৬০ দিনের জেল-হাজত খেটেছে। এছাড়াও মারিজুয়েনা রাখার কারণে বাড়তি একদিন জেলে ছিল এবং জেলমুক্তির শর্ত ভঙ্গ করায় দোষী সাব্যস্ত হয়েছে। একইভাবে ২০০৬ সালে মারিজুয়েনা রাখার কারণে কোর্টে হাজিরা না দিয়ে ২০০৯ সালে দোষ স্বীকার করে। পাশাপাশি ২০১১ সালে ভ্যাংকুভারে একটি ডাকাতিতে তার সম্পৃক্ততা থাকলেও পরে শুধুই মৌখিক হুমকির দায় বর্তায়।

Tag :

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

About Author Information

কানাডার রাজধানীর সেই সন্ত্রাসী মাইকেল জিহাফ-বিবিউ

প্রকাশের সময় : ১১:৪৫:৩১ অপরাহ্ন, বুধবার, ২২ অক্টোবর ২০১৪

গত ২২ অক্টোবর বুধবার কানাডার রাজধানী অটোয়ায় অবস্থিত জাতীয় যুদ্ধ স্মৃতিসৌধে যে বিশ্বময় সাড়া জাগানো সন্ত্রাসী হামলা হয়েছে, সেটির ঘৃণিত নায়ক হচ্ছে মাইকেল জিহাফ-বিবিউ, যার জন্ম হয়েছিল ১৯৮২ সালে। ঘটনাস্থলে স্মৃতিসৌধের রির্জাভিস্ট কর্পোরাল নাথান সিরিলোকে হত্যার পর সে নিজেও নিরাপত্তারক্ষীদের গুলিতে নিহত হয়। সে সময় অতি সন্নিকটে পার্লামেন্টের একটি কক্ষে কানাডার প্রধানমন্ত্রী স্টিফেন হার্পার স্বয়ং আলোচনারত ছিলেন। মাত্র দু’দিনের ব্যবধানে কানাডায় এটি দ্বিতীয় সন্ত্রাসী হামলা হিসেবে চিহ্নিত হয়।
বিভিন্ন সংবাদ সূত্রে প্রকাশ, কানাডার ক্যুইবেক প্রদেশে বেড়ে ওঠা মাইকেল জিহাফ-বিবিউ ছিল ধর্মান্তরিত মুসলিম। তার প্রকৃত নাম- মাইকেল জোসেফ হল। তবে ধর্মান্তরিত হবার পর তার পুরো নাম দাঁড়ায় মাইকেল আবদুল জিহাফ বিবিউ।
গ্লোব অ্যান্ড মেইল সূত্রে প্রকাশ, রাষ্ট্রীয় কর্তৃপক্ষ তাকে ‘হাই-রিস্ক ট্রেভেলার’ প্রতিপন্ন করে তার পাসপোর্ট জব্দ করেছিল। একইভাবে দুই দিন আগের ঘটনায় অর্থাৎ ২০ অক্টোবর সোমবার মুসলিম ধর্মান্তরিত মার্টিন কোচার-রোলেউর ক্যুইবেক নগরীর সেন্ট-জ্যঁ-সু-রেচেলিউতে যে দুজন সেনা সদস্যের উপর গাড়ী তুলে দিয়ে একজনকে মৃত্যুমুখী করে, তার ক্ষেত্রেও ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার কারণে পাসপোর্ট জব্দের ঘটনা ঘটেছিল। পরে সেও পুলিশের গুলিতে নিহত হয়।
মাইকেল জিহাফ-বিবিউর ক্ষেত্রে আরো যা জানা যায় তাতে তার অতীত অপরাধ রয়েছে বলে সংবাদসূত্রে প্রকাশ। সেক্ষেত্রে ২০০৪ থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত সে সিটির ভিলারে-সেন্ট-মাইকেল-পার্ক এক্সটেনশনে বসবাস করেছে। ২০০৪ সালের ডিসেম্বরে ‘পিসিপি’ রাখার দায়ে ৬০ দিনের জেল-হাজত খেটেছে। এছাড়াও মারিজুয়েনা রাখার কারণে বাড়তি একদিন জেলে ছিল এবং জেলমুক্তির শর্ত ভঙ্গ করায় দোষী সাব্যস্ত হয়েছে। একইভাবে ২০০৬ সালে মারিজুয়েনা রাখার কারণে কোর্টে হাজিরা না দিয়ে ২০০৯ সালে দোষ স্বীকার করে। পাশাপাশি ২০১১ সালে ভ্যাংকুভারে একটি ডাকাতিতে তার সম্পৃক্ততা থাকলেও পরে শুধুই মৌখিক হুমকির দায় বর্তায়।