নিউইয়র্ক ০৬:৩০ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ২ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন :
মঙ্গলবারের পত্রিকা সাপ্তাহিক হককথা ও হককথা.কম এ আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন +1 (347) 848-3834

করোনা পরিস্থিতি : যুক্তরাষ্ট্রে চিকিৎসাধীন ৫ লাখ ৭০ হাজার : রাজ্যে রাজ্যে মৃত্যুর মিছিল : চলছে গণকবর, আক্রান্তের হার উদ্বেগজনক

রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : ০৪:৩৫:৪২ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৬ এপ্রিল ২০২০
  • / ১৩০ বার পঠিত

এমদাদ চৌধুরী দীপু: যুক্তরাষ্ট্রে একদিনে সুস্থ হয়েছেন ১০ হাজারের উপরে। এটি এ যাবত রেকর্ডসংখ্যক সুস্থ হওয়ার খবর। তবে আবারো আমেরিকার রাজ্যে রাজ্যে মৃত্যুর মিছিল। ছয় লাখ অতিক্রম করে দেশটিতে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৭ লাখ স্পর্শ করতে যাচ্ছে। বুধবার (১৫ এপ্রিল) পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় আক্রান্ত ৬,৪৪,০০০ এর উপরে। এ পর্যন্ত মারা গেছেন ২৮,৫২৬ জন। গত ২৪ ঘন্টায় মৃত্যু ২৪৭৯ জনের। এ পর্যন্ত আরোগ্য ৪৮,০০০ এর উপরে। সুস্থ হওয়া এবং মৃত্যু বাদ দিলে ৫০ রাজ্যে বাসা-বাড়িসহ শত শত হাসপাতালে ৫ লাখ ৭০ হাজার রোগী আর স্বজনের আহাজারী। বুধবার একদিনে এখানে আক্রান্ত হয়েছেন ২৮,০০০ এর উপরে। চিকিৎসকরা মনে করেন এই রোগ একটা অংশকে আক্রান্ত করবে, আরেকটি অংশকে মানসিক করোনা রোগীতে পরিণত করবে।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় আবারো বেড়েছে মৃত্যু এবং আক্রান্তের সংখ্যা। একদিনে নিউইয়র্কে আক্রান্তের সংখ্যা ১০ হাজারের উপরে, মারা গেছেন ৭৫২ জন। আক্রান্তের সংখ্যা ২,১৪,৬৪৮ জন। এ পর্যন্ত মৃত্যু ১১,৫৮৬ জন। এই সপ্তাহ এবং আগামী সপ্তাহে মৃত্যু বেশী হলেও আক্রান্তের হার কমে আসবে বলে মনে করেন সংশ্লিস্টরা। অপরদিকে লকডাউন উঠে যাবে অথবা উঠে যেতে পারে এমন গুঞ্জনে পাল্টে গেছে নিউইয়র্ক রাস্তার দৃশ্যপট। প্রচুর গাড়ি রাস্তায় চলাচল করতে দেখা গেছে, রাস্তায় নেমেছেন হাজার হাজার মানুষ। এদিকে নিউইয়র্ক-এর গভর্নর এন্ড্রু কুমো এক সংবাদ সম্মেলন করে সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখা এবং করোনা পরিস্থিতি সামাল দিতে জেল, জরিমানার হুমকী দিয়েছেন। বলেছেন কঠোরভাবে এসব মেনে চলতে হবে। করোনার প্রতিষেধক এর জন্য ১৮ মাস অপেক্ষা করতে হতে পারে এমন তথ্যদিয়ে কুমো স্ব স্ব অবস্থানে সাবধানতা এবং সতর্কতার সাথে চলাচরের অনুরোধ জানিয়েছেন। সংবাদ সম্মেলনে গভর্নর করোনা মহামারীতে নাগরিকদের জীবন যাপনের নানা দিক নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন।
যুক্তরাষ্ট্রের ৪৬টি রাজ্যে আজো মারা যাওয়ার চিত্র উদ্বেগজনক। এ পর্যন্ত দেশজুড়ে ৪৮ হাজার ৭০১ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। এদিকে করোনা ভাইরাসে বাংলাদেশীদের মৃত্যুর মিছিল, প্রতিদিন সকাল শুরু হয় কারো মৃত্যু সংবাদ শুনে। তালিকা দীর্ঘতর হচ্ছে। বাংলাদেশী একজন চিকিৎসক জানিয়েছেন নিউইয়র্কে ভারতীয়, কিংবা পাকিস্তানী অভিবাসীদের চেয়ে বাংলাদেশীদের মৃত্যুর সংখ্যা বেশী ।
এদিকে নিউইয়র্কের পর উদ্বেগজনক অবস্থা নিউজার্সীতে। আক্রান্ত প্রায় ৭১ হাজারের উপরে, মারা গেছেন ৩১৫৬ জন। অবনতি হয়েছে মিশিগানের করোনা পরিস্থিতি, এখানে মৃত্যু ১৯২১জনের, নতুন করে মৃত্যু ১৫৩ জনের, মোট আক্রান্ত রোগী ২৮হাজারের উপরে।
আক্রান্ত রোগী বিবেচনায় শীর্ষ রাজ্য সমূহঃ
আক্রান্ত রোগী বেশী যেসব রাজ্যে সে তালিকায় রয়েছে- ক্যালিফোর্নিয়ায় ২৬ হজারের উপরে, ম্যাসাজয়েসটে ৩০ হাজারের উপরে, ইলিনয়সে প্রায় ২৪ হাজার। পেনসেলভেনিয়ায় ২৭ হাজারের উপরে, ফ্লোরিডায় ২২ হাজারের উপরে, লুসিয়ানায় প্রায় ২২ হাজার, জর্জিয়ায় ১ হাজার, টেক্সাসে ১৫ হাজারের উপরে, কানেকটিকাটে ১৫ হাজার, ওয়াশিংটনে আক্রান্ত ১০ হাজারের উপরে, নতুন করে আক্রান্ত কিংবা মৃত্যু নেই ইন্ডিয়ানায় এবং মেরিল্যান্ডে আক্রান্ত ১০ হাজারের উপরে।
উল্লেখযোগ্য নতুন মৃত্যুঃ
আলোচিত শীষ রাজ্যগুলোর মধ্যে ওয়াশিংটনে ০ জন, ক্যালিফোর্নিয়ায় ৮২ জন, ম্যাসাসুয়েটসে ১৫১ জন, ইলিনয়ে ৮০ জন, পেনসেলভেনিয়ায় ৮৩ জন, মিশিগানে ১৫৩ জন, ফ্লোরিডায় ৪৩ জন, লুসিয়ানায় ৯০ জন, জর্জিয়ায় ২৮ জন, টেক্সাসে ১৯ জন, কানেকটিকাটে ১৯৭ জন, ইন্ডিয়ানায় ৪৯ জন, ম্যারিল্যান্ডে ৪৭জন।
আলোচিত রাজ্যে মোট মৃত্যুঃ
কানেকটিকাটে ৮৬৮ জন, ক্যালিফোর্নিয়ায় ৮৬০ জন, ম্যাসাসুয়েটসে ১১০৮ জন, ইলিনয়েসে ৯৪৮ জন, পেনসেলভেনিয়ায় ৭৭৯ জন, মিশিগানে ১৯২১ জন, ফ্লোরিডায় ৬১৪ জন, লুসিয়ানায় ১১০৩ জন, জর্জিয়ায় ৫৫২ জন, টেক্সাসে ৩৬৪জন, ওয়াশিংটনে ৫৪৭ জন।
যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে এখন শোকের ছায়া। লাশ গণকবর দেয়া হচ্ছে। ফিউনারেল, ট্রাক, লাশঘর, অস্থায়ী বিভিন্ন স্থানে পড়ে আছে মানুষের মরদেহ। বাড়ছে মৃত্যুর মিছিল, আর্তনাদ আহাজারী। হাসপাতালে বাড়তি চাপ। নেই লাশ রাখার জায়গা। করোনা রোগীদের জন্য পর্যাপ্ত পৃথক ব্যবস্থা না থাকায় রোগী এবং স্বজনদের অভিযোগ বাড়ছে,বাড়ছে হতাশা-ক্ষোভ।
নিউইয়র্ক, ১৫এপ্রিল, ২০২০

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

About Author Information

করোনা পরিস্থিতি : যুক্তরাষ্ট্রে চিকিৎসাধীন ৫ লাখ ৭০ হাজার : রাজ্যে রাজ্যে মৃত্যুর মিছিল : চলছে গণকবর, আক্রান্তের হার উদ্বেগজনক

প্রকাশের সময় : ০৪:৩৫:৪২ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৬ এপ্রিল ২০২০

এমদাদ চৌধুরী দীপু: যুক্তরাষ্ট্রে একদিনে সুস্থ হয়েছেন ১০ হাজারের উপরে। এটি এ যাবত রেকর্ডসংখ্যক সুস্থ হওয়ার খবর। তবে আবারো আমেরিকার রাজ্যে রাজ্যে মৃত্যুর মিছিল। ছয় লাখ অতিক্রম করে দেশটিতে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৭ লাখ স্পর্শ করতে যাচ্ছে। বুধবার (১৫ এপ্রিল) পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় আক্রান্ত ৬,৪৪,০০০ এর উপরে। এ পর্যন্ত মারা গেছেন ২৮,৫২৬ জন। গত ২৪ ঘন্টায় মৃত্যু ২৪৭৯ জনের। এ পর্যন্ত আরোগ্য ৪৮,০০০ এর উপরে। সুস্থ হওয়া এবং মৃত্যু বাদ দিলে ৫০ রাজ্যে বাসা-বাড়িসহ শত শত হাসপাতালে ৫ লাখ ৭০ হাজার রোগী আর স্বজনের আহাজারী। বুধবার একদিনে এখানে আক্রান্ত হয়েছেন ২৮,০০০ এর উপরে। চিকিৎসকরা মনে করেন এই রোগ একটা অংশকে আক্রান্ত করবে, আরেকটি অংশকে মানসিক করোনা রোগীতে পরিণত করবে।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় আবারো বেড়েছে মৃত্যু এবং আক্রান্তের সংখ্যা। একদিনে নিউইয়র্কে আক্রান্তের সংখ্যা ১০ হাজারের উপরে, মারা গেছেন ৭৫২ জন। আক্রান্তের সংখ্যা ২,১৪,৬৪৮ জন। এ পর্যন্ত মৃত্যু ১১,৫৮৬ জন। এই সপ্তাহ এবং আগামী সপ্তাহে মৃত্যু বেশী হলেও আক্রান্তের হার কমে আসবে বলে মনে করেন সংশ্লিস্টরা। অপরদিকে লকডাউন উঠে যাবে অথবা উঠে যেতে পারে এমন গুঞ্জনে পাল্টে গেছে নিউইয়র্ক রাস্তার দৃশ্যপট। প্রচুর গাড়ি রাস্তায় চলাচল করতে দেখা গেছে, রাস্তায় নেমেছেন হাজার হাজার মানুষ। এদিকে নিউইয়র্ক-এর গভর্নর এন্ড্রু কুমো এক সংবাদ সম্মেলন করে সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখা এবং করোনা পরিস্থিতি সামাল দিতে জেল, জরিমানার হুমকী দিয়েছেন। বলেছেন কঠোরভাবে এসব মেনে চলতে হবে। করোনার প্রতিষেধক এর জন্য ১৮ মাস অপেক্ষা করতে হতে পারে এমন তথ্যদিয়ে কুমো স্ব স্ব অবস্থানে সাবধানতা এবং সতর্কতার সাথে চলাচরের অনুরোধ জানিয়েছেন। সংবাদ সম্মেলনে গভর্নর করোনা মহামারীতে নাগরিকদের জীবন যাপনের নানা দিক নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন।
যুক্তরাষ্ট্রের ৪৬টি রাজ্যে আজো মারা যাওয়ার চিত্র উদ্বেগজনক। এ পর্যন্ত দেশজুড়ে ৪৮ হাজার ৭০১ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। এদিকে করোনা ভাইরাসে বাংলাদেশীদের মৃত্যুর মিছিল, প্রতিদিন সকাল শুরু হয় কারো মৃত্যু সংবাদ শুনে। তালিকা দীর্ঘতর হচ্ছে। বাংলাদেশী একজন চিকিৎসক জানিয়েছেন নিউইয়র্কে ভারতীয়, কিংবা পাকিস্তানী অভিবাসীদের চেয়ে বাংলাদেশীদের মৃত্যুর সংখ্যা বেশী ।
এদিকে নিউইয়র্কের পর উদ্বেগজনক অবস্থা নিউজার্সীতে। আক্রান্ত প্রায় ৭১ হাজারের উপরে, মারা গেছেন ৩১৫৬ জন। অবনতি হয়েছে মিশিগানের করোনা পরিস্থিতি, এখানে মৃত্যু ১৯২১জনের, নতুন করে মৃত্যু ১৫৩ জনের, মোট আক্রান্ত রোগী ২৮হাজারের উপরে।
আক্রান্ত রোগী বিবেচনায় শীর্ষ রাজ্য সমূহঃ
আক্রান্ত রোগী বেশী যেসব রাজ্যে সে তালিকায় রয়েছে- ক্যালিফোর্নিয়ায় ২৬ হজারের উপরে, ম্যাসাজয়েসটে ৩০ হাজারের উপরে, ইলিনয়সে প্রায় ২৪ হাজার। পেনসেলভেনিয়ায় ২৭ হাজারের উপরে, ফ্লোরিডায় ২২ হাজারের উপরে, লুসিয়ানায় প্রায় ২২ হাজার, জর্জিয়ায় ১ হাজার, টেক্সাসে ১৫ হাজারের উপরে, কানেকটিকাটে ১৫ হাজার, ওয়াশিংটনে আক্রান্ত ১০ হাজারের উপরে, নতুন করে আক্রান্ত কিংবা মৃত্যু নেই ইন্ডিয়ানায় এবং মেরিল্যান্ডে আক্রান্ত ১০ হাজারের উপরে।
উল্লেখযোগ্য নতুন মৃত্যুঃ
আলোচিত শীষ রাজ্যগুলোর মধ্যে ওয়াশিংটনে ০ জন, ক্যালিফোর্নিয়ায় ৮২ জন, ম্যাসাসুয়েটসে ১৫১ জন, ইলিনয়ে ৮০ জন, পেনসেলভেনিয়ায় ৮৩ জন, মিশিগানে ১৫৩ জন, ফ্লোরিডায় ৪৩ জন, লুসিয়ানায় ৯০ জন, জর্জিয়ায় ২৮ জন, টেক্সাসে ১৯ জন, কানেকটিকাটে ১৯৭ জন, ইন্ডিয়ানায় ৪৯ জন, ম্যারিল্যান্ডে ৪৭জন।
আলোচিত রাজ্যে মোট মৃত্যুঃ
কানেকটিকাটে ৮৬৮ জন, ক্যালিফোর্নিয়ায় ৮৬০ জন, ম্যাসাসুয়েটসে ১১০৮ জন, ইলিনয়েসে ৯৪৮ জন, পেনসেলভেনিয়ায় ৭৭৯ জন, মিশিগানে ১৯২১ জন, ফ্লোরিডায় ৬১৪ জন, লুসিয়ানায় ১১০৩ জন, জর্জিয়ায় ৫৫২ জন, টেক্সাসে ৩৬৪জন, ওয়াশিংটনে ৫৪৭ জন।
যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে এখন শোকের ছায়া। লাশ গণকবর দেয়া হচ্ছে। ফিউনারেল, ট্রাক, লাশঘর, অস্থায়ী বিভিন্ন স্থানে পড়ে আছে মানুষের মরদেহ। বাড়ছে মৃত্যুর মিছিল, আর্তনাদ আহাজারী। হাসপাতালে বাড়তি চাপ। নেই লাশ রাখার জায়গা। করোনা রোগীদের জন্য পর্যাপ্ত পৃথক ব্যবস্থা না থাকায় রোগী এবং স্বজনদের অভিযোগ বাড়ছে,বাড়ছে হতাশা-ক্ষোভ।
নিউইয়র্ক, ১৫এপ্রিল, ২০২০