নিউইয়র্ক ০৩:১৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ২২ জুলাই ২০২৪, ৭ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন :
মঙ্গলবারের পত্রিকা সাপ্তাহিক হককথা ও হককথা.কম এ আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন +1 (347) 848-3834

ইসরায়েলের মন রেখে গাজায় নিহতদের জন্য বাইডেনের শোক

রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : ০৫:৫৫:৩২ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২০ নভেম্বর ২০২৩
  • / ১৭ বার পঠিত

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। ছবি: সংগৃহীত

হককথা ডেস্ক :যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ইসরায়েল-হামাস সংঘাত নিয়ে ইসরায়েল ও ফিলিস্তিনপন্থিদের দুটি পৃথক চিঠি পাঠিয়েছেন। এর একটিতে ইসরায়েলের প্রতি নিজের দৃঢ় সমর্থন, আর অন্যটিতে গাজায় নিহত নিরীহ ফিলিস্তিনিদের জন্য শোক জানিয়েছেন তিনি।

রোববার (১৯ নভেম্বর) যুক্তরাষ্ট্রের সম্প্রচারমাধ্যম এনবিসি নিউজ হোয়াইট হাউস থেকে পাঠানো চিঠি দুটির অনুলিপি হাতে পেয়েছে।

এনবিসি বলছে, একই বিষয়ে একটি চিঠির ভিন্ন ভিন্ন সংস্করণ তৈরি হোয়াইট হাউসের জন্য নতুন কিছু নয়। তবে নির্বাচনের আগে ইসরায়েল-ফিলিস্তিন ইস্যুতে বাইডেন যে রাজনৈতিক চাপে পড়েছেন, এই ঘটনা তারই প্রতিফলন।

গত ১ নভেম্বর পাঠানো এক চিঠিতে বাইডেন বলেছেন, ইসরায়েলি জনগণ একটি ভয়ংকর সময়ের মধ্য দিয়ে গেছে, যা ছিল হলোকাস্টের পর থেকে ইহুদিদের জন্য সবচেয়ে ভয়ানক দিন। যুক্তরাষ্ট্র ইসরায়েলের পাশে রয়েছে। আন্তর্জাতিক আইন অনুযায়ী, সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে আত্মরক্ষার জন্য ইসরায়েলের যা যা প্রয়োজন, আমরা তা নিশ্চিত করবো। অন্যদিকে, গত ৮ নভেম্বর ফিলিস্তিনপন্থিদের উদ্দেশে আরেকটি চিঠি লেখেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট। সেই চিঠিতে বাইডেন বলেন, অনেক নিরীহ ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন, আমরা তাদের জন্য শোক জানাই। খাবার, পানি ও ওষুধের মতো জীবন রক্ষাকারী সহায়তা যেন অবিলম্বে গাজার নিরীহ ফিলিস্তিনিদের কাছে পৌঁছাতে পারে, তা নিশ্চিত করতে কাজ করছে যুক্তরাষ্ট্রের প্রশাসন। সংঘাতে বেসামরিক নাগরিকদের সুরক্ষায় পাশে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের গণমাধ্যম ব্লুমবার্গ সম্প্রতি জানিয়েছে, ফিলিস্তিনের অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় বেসামরিক হতাহত এড়াতে ইসরায়েলকে মৌখিকভাবে সতর্ক করলেও, গোপনে নেতানিয়াহু বাহিনীকে সামরিক সহায়তা বাড়াচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। ইসরায়েলের অনুরোধে অস্ত্র বহনকারী অ্যাপাচি বিমানে আরও বেশি পরিমাণে লেজারযুক্ত ক্ষেপণাস্ত্র, ১৫৫ মিলিমিটার শেল, নাইট ভিশন ডিভাইস, বাংকার ধ্বংসকারী যুদ্ধাস্ত্র, নতুন ক্ষেপণাস্ত্র ও সাঁজোয়া যান অন্তর্ভুক্ত করেছে পেন্টাগন।

গত ৭ অক্টোবর ইসরায়েলে অতর্কিত কয়েক হাজার হামলা চালায় ফিলিস্তিনি স্বাধীনতাকামী সংগঠন হামাস। হামলার জবাবে ইসরায়েল গাজা উপত্যকায় স্থল ও বিমান হামলা চালিয়ে ৫ হাজার শিশুসহ ১২ হাজারের বেশি মানুষকে হত্যা করেছে। গাজার বেশিরভাগ অংশ ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে। ইসরায়েলের আরোপিত অবরোধ গাজার মানুষের খাদ্য, পানি, জ্বালানী এবং চিকিৎসা সরবরাহ পেতে অক্ষম করেছে।

হককথা/নাছরিন

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

ইসরায়েলের মন রেখে গাজায় নিহতদের জন্য বাইডেনের শোক

প্রকাশের সময় : ০৫:৫৫:৩২ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২০ নভেম্বর ২০২৩

হককথা ডেস্ক :যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ইসরায়েল-হামাস সংঘাত নিয়ে ইসরায়েল ও ফিলিস্তিনপন্থিদের দুটি পৃথক চিঠি পাঠিয়েছেন। এর একটিতে ইসরায়েলের প্রতি নিজের দৃঢ় সমর্থন, আর অন্যটিতে গাজায় নিহত নিরীহ ফিলিস্তিনিদের জন্য শোক জানিয়েছেন তিনি।

রোববার (১৯ নভেম্বর) যুক্তরাষ্ট্রের সম্প্রচারমাধ্যম এনবিসি নিউজ হোয়াইট হাউস থেকে পাঠানো চিঠি দুটির অনুলিপি হাতে পেয়েছে।

এনবিসি বলছে, একই বিষয়ে একটি চিঠির ভিন্ন ভিন্ন সংস্করণ তৈরি হোয়াইট হাউসের জন্য নতুন কিছু নয়। তবে নির্বাচনের আগে ইসরায়েল-ফিলিস্তিন ইস্যুতে বাইডেন যে রাজনৈতিক চাপে পড়েছেন, এই ঘটনা তারই প্রতিফলন।

গত ১ নভেম্বর পাঠানো এক চিঠিতে বাইডেন বলেছেন, ইসরায়েলি জনগণ একটি ভয়ংকর সময়ের মধ্য দিয়ে গেছে, যা ছিল হলোকাস্টের পর থেকে ইহুদিদের জন্য সবচেয়ে ভয়ানক দিন। যুক্তরাষ্ট্র ইসরায়েলের পাশে রয়েছে। আন্তর্জাতিক আইন অনুযায়ী, সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে আত্মরক্ষার জন্য ইসরায়েলের যা যা প্রয়োজন, আমরা তা নিশ্চিত করবো। অন্যদিকে, গত ৮ নভেম্বর ফিলিস্তিনপন্থিদের উদ্দেশে আরেকটি চিঠি লেখেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট। সেই চিঠিতে বাইডেন বলেন, অনেক নিরীহ ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন, আমরা তাদের জন্য শোক জানাই। খাবার, পানি ও ওষুধের মতো জীবন রক্ষাকারী সহায়তা যেন অবিলম্বে গাজার নিরীহ ফিলিস্তিনিদের কাছে পৌঁছাতে পারে, তা নিশ্চিত করতে কাজ করছে যুক্তরাষ্ট্রের প্রশাসন। সংঘাতে বেসামরিক নাগরিকদের সুরক্ষায় পাশে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের গণমাধ্যম ব্লুমবার্গ সম্প্রতি জানিয়েছে, ফিলিস্তিনের অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় বেসামরিক হতাহত এড়াতে ইসরায়েলকে মৌখিকভাবে সতর্ক করলেও, গোপনে নেতানিয়াহু বাহিনীকে সামরিক সহায়তা বাড়াচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। ইসরায়েলের অনুরোধে অস্ত্র বহনকারী অ্যাপাচি বিমানে আরও বেশি পরিমাণে লেজারযুক্ত ক্ষেপণাস্ত্র, ১৫৫ মিলিমিটার শেল, নাইট ভিশন ডিভাইস, বাংকার ধ্বংসকারী যুদ্ধাস্ত্র, নতুন ক্ষেপণাস্ত্র ও সাঁজোয়া যান অন্তর্ভুক্ত করেছে পেন্টাগন।

গত ৭ অক্টোবর ইসরায়েলে অতর্কিত কয়েক হাজার হামলা চালায় ফিলিস্তিনি স্বাধীনতাকামী সংগঠন হামাস। হামলার জবাবে ইসরায়েল গাজা উপত্যকায় স্থল ও বিমান হামলা চালিয়ে ৫ হাজার শিশুসহ ১২ হাজারের বেশি মানুষকে হত্যা করেছে। গাজার বেশিরভাগ অংশ ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে। ইসরায়েলের আরোপিত অবরোধ গাজার মানুষের খাদ্য, পানি, জ্বালানী এবং চিকিৎসা সরবরাহ পেতে অক্ষম করেছে।

হককথা/নাছরিন