নিউইয়র্ক ০৭:০৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ২ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন :
মঙ্গলবারের পত্রিকা সাপ্তাহিক হককথা ও হককথা.কম এ আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন +1 (347) 848-3834

নিউইয়র্কে লকডাউন বাড়লো ১৫ মে পর্যন্ত

রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : ০৯:৩০:১৯ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৬ এপ্রিল ২০২০
  • / ১১৭ বার পঠিত

এমদাদ চৌধুরী দীপু: নিউইয়র্কে লকডাউন আগামী ১৫ মে পর্যন্ত বৃদ্বি করা হয়েছে। করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনহীন থাকায় লকডাউন তুলে দেয়ার কথা ভাবছেন না রাজ্য গভর্নর কুমো। যুক্তরাষ্ট্রে করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার জন্য নানা মুখী প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। তবে যুক্তরাষ্ট্রে কর্মরত বাংলাদেশী চিকিৎসকরা তাদের হতাশা প্রকাশ অব্যাহত রেখেছেন। আবারো কমেছে মৃত্যুর সংখ্যা, বেড়েছে সুস্থ হওয়ার রেকর্ড, একদিনে সুস্থ হয়েছেন আরো ৯হাজার। এনিয়ে মোট সুস্থ হওয়ার সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫৭ হাজারের উপরে। এর বিপরীতে একদিনে ৩৩ হাজার নতুন রোগী বৃদ্বি হয়েছে। ফলে মোট রোগীর সংখ্যা এখন ৬ লাখ ৭৭ হাজারের উপরে। নতুন করে মৃত্যু ২১৩৭ জনের। ফলে মোট মারা যাওয়ার সংখ্যা এখন ৩৪হাজার ৫৮০জন।
এদিকে আজো রাজ্যে রাজ্যে মৃত্যুর মিছিল ছিলো। সুস্থ হওয়া এবং মৃত্যু বাদ দিলে যুক্তরাষ্ট্রের ৫০ রাজ্যে বাসা-বাড়িসহ শত শত হাসপাতালে ৫ লাখ ৮৫ হাজার রোগী আর স্বজনের আহাজারী। চিকিৎসকরা মনে করেন এই রোগ শুরুতে নিয়ন্ত্রণ করতে না পারায় এখন নিয়ন্ত্রনহীন হয়ে পড়েছে। এটি একটা অংশকে আক্রান্ত করবে, আরেকটি অংশকে মানসিক করোনা রোগীতে পরিনত করবে।
অপরদিকে নিউইয়র্কে আক্রান্তের সংখ্যা ১২ হাজারের উপরে, মারা গেছেন ৬০৬ জন। বুধবার (১৫ এপ্রিল) এই সংখ্যা ছিল ৭৫২জন। আক্রান্তের সংখ্যা ২,২৬,১৯৮জন। এ পর্যন্ত মৃত্যু ১৬১০৬ জন।
যুক্তরাষ্ট্রের ৪৬টি রাজ্যেআজো মারা যাওয়ার চিত্র উদ্বেগজনক। করোনা ভাইরাসে বাংলাদেশীদের মৃত্যুর মিছিল, প্রতিদিন সকাল শুরু হয় কারো মৃত্যু সংবাদ শুনে। এ পর্যন্ত দেড় শতাধিক বাংলাদেশী মারা গেছেন বলে বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রচার করা হচ্ছে। নিউইয়র্কে আক্রান্ত রোগীর একটি উল্লেখযোগ্য সংখ্যক বাংলাদেশী এমন তথ্য দিয়েছেন এক বাংলাদেশী ডাক্তার। অপর বাংলাদেশী একজন চিকিৎসক জানিয়েছেন নিউইয়র্কে ভারতীয়, কিংবা পাকিস্তানী অভিবাসীদের চেয়ে বাংলাদেশীদের মৃত্যুর সংখ্যা বেশী। বাংলাদেশ সোসাইটর সাথে সংশ্লিস্ট একটি সূত্র জানিয়েছে তাদের ১০ জন সদস্য করোনায় আক্রান্ত হয়ে মূমুর্ষ অবস্থায় আছেন।
নিউইয়র্ক, ১৬এপ্রিল,২০২০

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

About Author Information

নিউইয়র্কে লকডাউন বাড়লো ১৫ মে পর্যন্ত

প্রকাশের সময় : ০৯:৩০:১৯ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৬ এপ্রিল ২০২০

এমদাদ চৌধুরী দীপু: নিউইয়র্কে লকডাউন আগামী ১৫ মে পর্যন্ত বৃদ্বি করা হয়েছে। করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনহীন থাকায় লকডাউন তুলে দেয়ার কথা ভাবছেন না রাজ্য গভর্নর কুমো। যুক্তরাষ্ট্রে করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার জন্য নানা মুখী প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। তবে যুক্তরাষ্ট্রে কর্মরত বাংলাদেশী চিকিৎসকরা তাদের হতাশা প্রকাশ অব্যাহত রেখেছেন। আবারো কমেছে মৃত্যুর সংখ্যা, বেড়েছে সুস্থ হওয়ার রেকর্ড, একদিনে সুস্থ হয়েছেন আরো ৯হাজার। এনিয়ে মোট সুস্থ হওয়ার সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫৭ হাজারের উপরে। এর বিপরীতে একদিনে ৩৩ হাজার নতুন রোগী বৃদ্বি হয়েছে। ফলে মোট রোগীর সংখ্যা এখন ৬ লাখ ৭৭ হাজারের উপরে। নতুন করে মৃত্যু ২১৩৭ জনের। ফলে মোট মারা যাওয়ার সংখ্যা এখন ৩৪হাজার ৫৮০জন।
এদিকে আজো রাজ্যে রাজ্যে মৃত্যুর মিছিল ছিলো। সুস্থ হওয়া এবং মৃত্যু বাদ দিলে যুক্তরাষ্ট্রের ৫০ রাজ্যে বাসা-বাড়িসহ শত শত হাসপাতালে ৫ লাখ ৮৫ হাজার রোগী আর স্বজনের আহাজারী। চিকিৎসকরা মনে করেন এই রোগ শুরুতে নিয়ন্ত্রণ করতে না পারায় এখন নিয়ন্ত্রনহীন হয়ে পড়েছে। এটি একটা অংশকে আক্রান্ত করবে, আরেকটি অংশকে মানসিক করোনা রোগীতে পরিনত করবে।
অপরদিকে নিউইয়র্কে আক্রান্তের সংখ্যা ১২ হাজারের উপরে, মারা গেছেন ৬০৬ জন। বুধবার (১৫ এপ্রিল) এই সংখ্যা ছিল ৭৫২জন। আক্রান্তের সংখ্যা ২,২৬,১৯৮জন। এ পর্যন্ত মৃত্যু ১৬১০৬ জন।
যুক্তরাষ্ট্রের ৪৬টি রাজ্যেআজো মারা যাওয়ার চিত্র উদ্বেগজনক। করোনা ভাইরাসে বাংলাদেশীদের মৃত্যুর মিছিল, প্রতিদিন সকাল শুরু হয় কারো মৃত্যু সংবাদ শুনে। এ পর্যন্ত দেড় শতাধিক বাংলাদেশী মারা গেছেন বলে বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রচার করা হচ্ছে। নিউইয়র্কে আক্রান্ত রোগীর একটি উল্লেখযোগ্য সংখ্যক বাংলাদেশী এমন তথ্য দিয়েছেন এক বাংলাদেশী ডাক্তার। অপর বাংলাদেশী একজন চিকিৎসক জানিয়েছেন নিউইয়র্কে ভারতীয়, কিংবা পাকিস্তানী অভিবাসীদের চেয়ে বাংলাদেশীদের মৃত্যুর সংখ্যা বেশী। বাংলাদেশ সোসাইটর সাথে সংশ্লিস্ট একটি সূত্র জানিয়েছে তাদের ১০ জন সদস্য করোনায় আক্রান্ত হয়ে মূমুর্ষ অবস্থায় আছেন।
নিউইয়র্ক, ১৬এপ্রিল,২০২০