নিউইয়র্ক ০৬:৫৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ২ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন :
মঙ্গলবারের পত্রিকা সাপ্তাহিক হককথা ও হককথা.কম এ আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন +1 (347) 848-3834

কামাল আহমেদ-এর জানাজা শুক্রবার

রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : ০৬:১০:১২ অপরাহ্ন, বুধবার, ৮ এপ্রিল ২০২০
  • / ৮৭ বার পঠিত

নিউইয়র্ক (ইউএনএ): নিউইয়র্কে বাংলাদেশী কমিউনিটির অভিভাবক, সবার পরিচিতি মুখ, বাংলাদেশ সোসাইটির সভাপতি কামাল আহমেদ (৬৭)-এর নামাজে জানাজা আগামী শুক্রবার (১০ এপ্রিল) সস্পন্ন হবে। তার মরদেহে নিউইয়র্কের লং আইল্যান্ডস্থ ওয়াশিংটন মেমোরিয়াল কবর স্থানে দাফন করা হবে বলে সোসাইটির কোষাধ্যক্ষ মোহাম্মদ আলী বুধবার ইউএনএ প্রতিনিধি-কে জানান। উল্লেখ্য, গত ৫ এপ্রিল রোববার ভোর রাত ৪.৩০ মিনিট তিনি নিউইয়র্কের এলমহার্স্ট হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়াইন্না ইলাইহি রাজিউন)। তিনি এই হাসপাতালেই চিকিৎসাধীন ছিলেন। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, এক কন্যা, এক পুত্র, ৫ ভাই ও ৫ বোন সহ অসংখ্য আতœীয়-স্বজন ও শুভাকাঙ্খী রেখে গেছেন। তার ইন্তেকালের খবরে কমিউনিটিতে শোকের ছায়া নেমে আসে। তার মুত্যুতে কমিউনিটির জন্য অপূরনীয় ক্ষতি হলো বলে কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ অভিমত ব্যক্ত করেছেন। খবর ইউএনএ’র।

মোহাম্মদ আলী জানান, করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে হাসপাতালের আনুষ্ঠানিকতা মেনে মরহুম কামাল আহমেদের মরদেহ পেতে বিলম্ব হওয়ায় তাঁর নামাজে জানাজা ও দাফন সম্পন্ন হতেও সময় লাগছে। তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন, তার মরদেহে আগামী শুক্রবার, ১০ এপ্রিল পাওয়ার পর দ্রæত জানাজা শেষে নিউইয়র্কের লং আইল্যান্ডস্থ ওয়াশিংটন মেমোরিয়াল কবর স্থানে দাফন করা হবে। তিনি আরো জানান, একই অবস্থা সোসাইটির অপর কর্মকর্তা মরহুম আজাদ বাকিরের। তার মরদেহ কবে পাওয়া যাবে তা এখনো নিশ্চত হওয়া যায়নি। আজাদ বাকের গত ৬ এপ্রিল, সোমবার ভোর রাত ৩.৪০মিনিটে এলমহার্স্ট হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন।
আজাদ বাকের

এদিকে সোসাইটির সভাপতি মরহুম কামাল আহমেদ ও কার্যকরী পরিষদ সদস্য মরহুম আজাদ বাকের সহ সদ্য প্রয়াত সকল প্রবাসী বাংলাদেশীর বিদেহী আতœার শান্তি কামনায় সোসাইটির পক্ষ থেকে ১০ এপ্রিল শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টায় টেলিকনফারেন্সের মাধ্যমে বিশেষ দোয়ার আয়োজন করা হয়েছে বলে সোসাইটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আব্দুর রহীম হাওলাদার ও সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমীন সিদ্দিকী জানিয়েছেন।
নিউইয়র্কর এলমহার্স্টে বসবাসকারী কামাল আহমেদ গত ৩০ মার্চ সোমবার অসুস্থবোধ করলে তাকে স্থানীয় এলহার্স্ট হাপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তার স্বাস্থ্য পরীক্ষার পর করোনা ভাইরাস পজেটিভ ধরা পড়লে তার চিকিৎসা চলতে থাকে। এরই মধ্যে তার কিডনী বিকল হয়ে যায় এবং তিনি হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে পড়েন। পরবর্তীতে চিকিৎসকদের সকল চেষ্টা ব্যর্থ করে তিনি ৫ এপ্রিল রোববার ভোরে না ফেরার দেশে চলে যান।
সিলেটের বিয়ানীবাজারের সন্তান কামাল আহমেদ দীর্ঘ প্রায় ৪০ বছর ধরে যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী। বসবাস করতেন নিউইয়র্কে। প্রবাসী জীবনে বিভিন্ন সামাজিক কর্মকান্ডের সাথে জড়িত ছিলেন। তিনি ছিলেন বাংলাদেশ বিয়ানীবাজার সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সমিতি ইউএসএ, জালালাবাদ এসোসিয়েশন অব আমেরিকা’র নির্বাচিত সভাপতি। এছাড়াও যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী বাংলাদেশীদের আ¤্রলো সংগঠন হিসেবে পরিচিত ‘বাংলাদেশ সোসাইটি’র দু’বারের নির্বাচিত সভাপতির দায়িত্ব পালন করে চলেছিলেন।
ব্যক্তিগত জীবনে কামাল আহমেদ একজন স্বল্পভাষী, নিরহংকারী, বিনয়ী, ন¤্র-ভদ্র ও পরোপকারী মানুষ ছিলেন। তিনি ‘জাতির জনক’ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শের রাজনীতি আওয়ামী লীগ করতেন। ছিলেন নিউইয়র্ক ষ্টেট আওয়ামী লীগের অন্যতম সহ সভাপতি। তবে কমিউনটি সেবায় ছিলেন সকল রাজনীতির উর্ধ্বেও একজন সমাজকর্মী মানুষ।

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

About Author Information

কামাল আহমেদ-এর জানাজা শুক্রবার

প্রকাশের সময় : ০৬:১০:১২ অপরাহ্ন, বুধবার, ৮ এপ্রিল ২০২০

নিউইয়র্ক (ইউএনএ): নিউইয়র্কে বাংলাদেশী কমিউনিটির অভিভাবক, সবার পরিচিতি মুখ, বাংলাদেশ সোসাইটির সভাপতি কামাল আহমেদ (৬৭)-এর নামাজে জানাজা আগামী শুক্রবার (১০ এপ্রিল) সস্পন্ন হবে। তার মরদেহে নিউইয়র্কের লং আইল্যান্ডস্থ ওয়াশিংটন মেমোরিয়াল কবর স্থানে দাফন করা হবে বলে সোসাইটির কোষাধ্যক্ষ মোহাম্মদ আলী বুধবার ইউএনএ প্রতিনিধি-কে জানান। উল্লেখ্য, গত ৫ এপ্রিল রোববার ভোর রাত ৪.৩০ মিনিট তিনি নিউইয়র্কের এলমহার্স্ট হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়াইন্না ইলাইহি রাজিউন)। তিনি এই হাসপাতালেই চিকিৎসাধীন ছিলেন। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, এক কন্যা, এক পুত্র, ৫ ভাই ও ৫ বোন সহ অসংখ্য আতœীয়-স্বজন ও শুভাকাঙ্খী রেখে গেছেন। তার ইন্তেকালের খবরে কমিউনিটিতে শোকের ছায়া নেমে আসে। তার মুত্যুতে কমিউনিটির জন্য অপূরনীয় ক্ষতি হলো বলে কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ অভিমত ব্যক্ত করেছেন। খবর ইউএনএ’র।

মোহাম্মদ আলী জানান, করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে হাসপাতালের আনুষ্ঠানিকতা মেনে মরহুম কামাল আহমেদের মরদেহ পেতে বিলম্ব হওয়ায় তাঁর নামাজে জানাজা ও দাফন সম্পন্ন হতেও সময় লাগছে। তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন, তার মরদেহে আগামী শুক্রবার, ১০ এপ্রিল পাওয়ার পর দ্রæত জানাজা শেষে নিউইয়র্কের লং আইল্যান্ডস্থ ওয়াশিংটন মেমোরিয়াল কবর স্থানে দাফন করা হবে। তিনি আরো জানান, একই অবস্থা সোসাইটির অপর কর্মকর্তা মরহুম আজাদ বাকিরের। তার মরদেহ কবে পাওয়া যাবে তা এখনো নিশ্চত হওয়া যায়নি। আজাদ বাকের গত ৬ এপ্রিল, সোমবার ভোর রাত ৩.৪০মিনিটে এলমহার্স্ট হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন।
আজাদ বাকের

এদিকে সোসাইটির সভাপতি মরহুম কামাল আহমেদ ও কার্যকরী পরিষদ সদস্য মরহুম আজাদ বাকের সহ সদ্য প্রয়াত সকল প্রবাসী বাংলাদেশীর বিদেহী আতœার শান্তি কামনায় সোসাইটির পক্ষ থেকে ১০ এপ্রিল শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টায় টেলিকনফারেন্সের মাধ্যমে বিশেষ দোয়ার আয়োজন করা হয়েছে বলে সোসাইটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আব্দুর রহীম হাওলাদার ও সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমীন সিদ্দিকী জানিয়েছেন।
নিউইয়র্কর এলমহার্স্টে বসবাসকারী কামাল আহমেদ গত ৩০ মার্চ সোমবার অসুস্থবোধ করলে তাকে স্থানীয় এলহার্স্ট হাপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তার স্বাস্থ্য পরীক্ষার পর করোনা ভাইরাস পজেটিভ ধরা পড়লে তার চিকিৎসা চলতে থাকে। এরই মধ্যে তার কিডনী বিকল হয়ে যায় এবং তিনি হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে পড়েন। পরবর্তীতে চিকিৎসকদের সকল চেষ্টা ব্যর্থ করে তিনি ৫ এপ্রিল রোববার ভোরে না ফেরার দেশে চলে যান।
সিলেটের বিয়ানীবাজারের সন্তান কামাল আহমেদ দীর্ঘ প্রায় ৪০ বছর ধরে যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী। বসবাস করতেন নিউইয়র্কে। প্রবাসী জীবনে বিভিন্ন সামাজিক কর্মকান্ডের সাথে জড়িত ছিলেন। তিনি ছিলেন বাংলাদেশ বিয়ানীবাজার সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সমিতি ইউএসএ, জালালাবাদ এসোসিয়েশন অব আমেরিকা’র নির্বাচিত সভাপতি। এছাড়াও যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী বাংলাদেশীদের আ¤্রলো সংগঠন হিসেবে পরিচিত ‘বাংলাদেশ সোসাইটি’র দু’বারের নির্বাচিত সভাপতির দায়িত্ব পালন করে চলেছিলেন।
ব্যক্তিগত জীবনে কামাল আহমেদ একজন স্বল্পভাষী, নিরহংকারী, বিনয়ী, ন¤্র-ভদ্র ও পরোপকারী মানুষ ছিলেন। তিনি ‘জাতির জনক’ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শের রাজনীতি আওয়ামী লীগ করতেন। ছিলেন নিউইয়র্ক ষ্টেট আওয়ামী লীগের অন্যতম সহ সভাপতি। তবে কমিউনটি সেবায় ছিলেন সকল রাজনীতির উর্ধ্বেও একজন সমাজকর্মী মানুষ।