নিউইয়র্ক ০৭:৪৭ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১২ জুলাই ২০২৪, ২৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন :
মঙ্গলবারের পত্রিকা সাপ্তাহিক হককথা ও হককথা.কম এ আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন +1 (347) 848-3834

মেসির চোখে মার্টিনেজই বিশ্বসেরা গোলরক্ষক

হককথা ডেস্ক
  • প্রকাশের সময় : ০৭:৫৭:০৫ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ৬ জুলাই ২০২৪
  • / ২২ বার পঠিত

২০২১ সালের ২৪ জুন। অধিনায়ক লিওনেল মেসির হোটেল কক্ষে আর্জেন্টিনার পুরো স্কোয়াড একে একে প্রবেশ করলো। প্রত্যেকের হাতেই অধিনায়কের জন্য ছোট উপহার। সেদিন যে লিও মেসির জন্মদিন। খালি হাতে এলেন একজন। নাম তার এমিলিয়ানো মার্টিনেজ। অধিনায়ক মেসিকে তিনি উপহার দিতে চেয়েছিলেন শিরোপা। সত্যি সত্যি সেটাই করলেন দিনকয়েক পর।

গোলবারের নিচে অনন্য এমিলিয়ানো মার্টিনেজ এনে দিলেন ২০২১ সালের কোপা আমেরিকার শিরোপা। ২০২২ বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে নেদারল্যান্ডস আর ফাইনালে ফ্রান্সের বিপক্ষে অতিমানবীয় এমি আর্জেন্টিনাকে এনে দেন বিশ্বকাপের শিরোপাটাও।

চিত্রটা বদল হলো না ২০২৪ সালে এসেও। কোপা আমেরিকার কোয়ার্টার ফাইনালে ইকুয়েডরের বিপক্ষে লিওনেল মেসির পেনাল্টি মিস। আরও একবার পরাজয়ের শঙ্কা। কিন্তু সেখান থেকেই ঘুরে দাঁড়ায় আলবিসেলেস্তেরা। নেপথ্যের নায়ক সেই এমিলিয়ানো। ইকুয়েডরের দুই পেনাল্টি ঠেকিয়ে আবার প্রমাণ করলেন পেনাল্টিতে নিজের মুন্সিয়ানা।

মেসি এমিকে কতটা ভালোবাসেন তার নমুনা দেখা গিয়েছে অজস্রবার। আর গোলরক্ষক এমিলিয়ানো মেসিকে মানেন আদর্শ। তার জন্য যুদ্ধে যাওয়ার ঘোষণাটাও দিয়ে রেখেছিলেন এই গোলরক্ষক। মেসিকে আরও একবার এমিলিয়ানো রক্ষা করেছেন ইকুয়েডর ম্যাচে।

ম্যাচ শেষে মেসিও তাই কৃতজ্ঞতা জানালেন এমির প্রতি। নিজের ইনস্টাগ্রাম হ্যান্ডলে করা এক পোস্টে মার্টিনেজকে দিয়েছেন বিশ্বের সেরা গোলকিপারের স্বীকৃতি, ‘আরও একটি ধাপ…কঠিন এক প্রতিপক্ষের বিপক্ষে আমরা অনেক ভুগেছি। আমরা সেমিফাইনালে উঠেছি, সে জন্য সবাইকে ধন্যবাদ। আর সবচেয়ে বড় কথা হলো, আমাদের দলে আছে বিশ্বের সেরা গোলকিপার এমিলিয়ানো মার্তিনেজ। এগিয়ে যাও আর্জেন্টিনা।’

ইনস্টাগ্রামে এই পোস্টের আগে টেক্সাসে ইকুয়েডরকে হারানোর পর সংবাদমাধ্যমেও মার্তিনেজের প্রশংসা করেন মেসি, ‘আমি জানতাম, এ ধরনের সময়ে দিবু দাঁড়িয়ে যাবে। এ ধরনের মুহূর্তই ওর পছন্দ, যেটা তাকে বড় করে তুলেছে। ও গোলবারের নিচে থাকলে অন্য রকম হয়ে ওঠে।’

কোচ লিওনেল স্কালোনিও ম্যাচের পর মেতেছিলেন মার্টিনেজের বন্দনায়, ‘আমি গোলকিপিং কোচ নই। কিন্তু যখন তারা গোল সেইভ করে তারা বিপক্ষ দলের ওপর আধিপত্য দেখায়, খেলা থেকে ছিটকে দেয়। আর সে (এমি মার্টিনেজ) গোল বাঁচায়। এমনভাবে গোল ঠেকায়, যেন সে মাঠকেই আওয়াজ করতে বাধ্য করে। এটা ভাল দিক, সে আর্জেন্টাইন।’

এদিকে আজ আরও একবার পেনাল্টি শ্যুটআউট দেখেছে কোপা আমেরিকা। দ্বিতীয় কোয়ার্টার ফাইনালে নির্ধারিত সময়ের ম্যাচ ১-১ গোলে ড্র হওয়ার পর খেলা চলে যায় টাইব্রেকারে। যেখানে ভেনেজুয়েলাকে ৪-৩ ব্যবধানে হারিয়ে সেমির টিকিট কেটেছে কানাডা। বুধবার বাংলাদেশ সময় সকাল ছয়টায় নিউ জার্সিতে সেমিফাইনালে কানাডার মুখোমুখি হবে আর্জেন্টিনা। সূত্র: ঢাকা পোষ্ট।

Tag :

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

মেসির চোখে মার্টিনেজই বিশ্বসেরা গোলরক্ষক

প্রকাশের সময় : ০৭:৫৭:০৫ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ৬ জুলাই ২০২৪

২০২১ সালের ২৪ জুন। অধিনায়ক লিওনেল মেসির হোটেল কক্ষে আর্জেন্টিনার পুরো স্কোয়াড একে একে প্রবেশ করলো। প্রত্যেকের হাতেই অধিনায়কের জন্য ছোট উপহার। সেদিন যে লিও মেসির জন্মদিন। খালি হাতে এলেন একজন। নাম তার এমিলিয়ানো মার্টিনেজ। অধিনায়ক মেসিকে তিনি উপহার দিতে চেয়েছিলেন শিরোপা। সত্যি সত্যি সেটাই করলেন দিনকয়েক পর।

গোলবারের নিচে অনন্য এমিলিয়ানো মার্টিনেজ এনে দিলেন ২০২১ সালের কোপা আমেরিকার শিরোপা। ২০২২ বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে নেদারল্যান্ডস আর ফাইনালে ফ্রান্সের বিপক্ষে অতিমানবীয় এমি আর্জেন্টিনাকে এনে দেন বিশ্বকাপের শিরোপাটাও।

চিত্রটা বদল হলো না ২০২৪ সালে এসেও। কোপা আমেরিকার কোয়ার্টার ফাইনালে ইকুয়েডরের বিপক্ষে লিওনেল মেসির পেনাল্টি মিস। আরও একবার পরাজয়ের শঙ্কা। কিন্তু সেখান থেকেই ঘুরে দাঁড়ায় আলবিসেলেস্তেরা। নেপথ্যের নায়ক সেই এমিলিয়ানো। ইকুয়েডরের দুই পেনাল্টি ঠেকিয়ে আবার প্রমাণ করলেন পেনাল্টিতে নিজের মুন্সিয়ানা।

মেসি এমিকে কতটা ভালোবাসেন তার নমুনা দেখা গিয়েছে অজস্রবার। আর গোলরক্ষক এমিলিয়ানো মেসিকে মানেন আদর্শ। তার জন্য যুদ্ধে যাওয়ার ঘোষণাটাও দিয়ে রেখেছিলেন এই গোলরক্ষক। মেসিকে আরও একবার এমিলিয়ানো রক্ষা করেছেন ইকুয়েডর ম্যাচে।

ম্যাচ শেষে মেসিও তাই কৃতজ্ঞতা জানালেন এমির প্রতি। নিজের ইনস্টাগ্রাম হ্যান্ডলে করা এক পোস্টে মার্টিনেজকে দিয়েছেন বিশ্বের সেরা গোলকিপারের স্বীকৃতি, ‘আরও একটি ধাপ…কঠিন এক প্রতিপক্ষের বিপক্ষে আমরা অনেক ভুগেছি। আমরা সেমিফাইনালে উঠেছি, সে জন্য সবাইকে ধন্যবাদ। আর সবচেয়ে বড় কথা হলো, আমাদের দলে আছে বিশ্বের সেরা গোলকিপার এমিলিয়ানো মার্তিনেজ। এগিয়ে যাও আর্জেন্টিনা।’

ইনস্টাগ্রামে এই পোস্টের আগে টেক্সাসে ইকুয়েডরকে হারানোর পর সংবাদমাধ্যমেও মার্তিনেজের প্রশংসা করেন মেসি, ‘আমি জানতাম, এ ধরনের সময়ে দিবু দাঁড়িয়ে যাবে। এ ধরনের মুহূর্তই ওর পছন্দ, যেটা তাকে বড় করে তুলেছে। ও গোলবারের নিচে থাকলে অন্য রকম হয়ে ওঠে।’

কোচ লিওনেল স্কালোনিও ম্যাচের পর মেতেছিলেন মার্টিনেজের বন্দনায়, ‘আমি গোলকিপিং কোচ নই। কিন্তু যখন তারা গোল সেইভ করে তারা বিপক্ষ দলের ওপর আধিপত্য দেখায়, খেলা থেকে ছিটকে দেয়। আর সে (এমি মার্টিনেজ) গোল বাঁচায়। এমনভাবে গোল ঠেকায়, যেন সে মাঠকেই আওয়াজ করতে বাধ্য করে। এটা ভাল দিক, সে আর্জেন্টাইন।’

এদিকে আজ আরও একবার পেনাল্টি শ্যুটআউট দেখেছে কোপা আমেরিকা। দ্বিতীয় কোয়ার্টার ফাইনালে নির্ধারিত সময়ের ম্যাচ ১-১ গোলে ড্র হওয়ার পর খেলা চলে যায় টাইব্রেকারে। যেখানে ভেনেজুয়েলাকে ৪-৩ ব্যবধানে হারিয়ে সেমির টিকিট কেটেছে কানাডা। বুধবার বাংলাদেশ সময় সকাল ছয়টায় নিউ জার্সিতে সেমিফাইনালে কানাডার মুখোমুখি হবে আর্জেন্টিনা। সূত্র: ঢাকা পোষ্ট।