নিউইয়র্ক ০৭:৩২ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১২ জুলাই ২০২৪, ২৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন :
মঙ্গলবারের পত্রিকা সাপ্তাহিক হককথা ও হককথা.কম এ আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন +1 (347) 848-3834

মোদি-পুতিনের সাক্ষাতে যুক্তরাষ্ট্রের নজর

হককথা ডেস্ক
  • প্রকাশের সময় : ০৭:৩৯:৫৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১০ জুলাই ২০২৪
  • / ২৭ বার পঠিত

সোমবার (৮ জুলাই) মস্কোয় রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে দেখা করেন মোদি। ইউক্রেনে আগ্রাসন চালানো রাশিয়ার সঙ্গে ভারতের বন্ধুত্ব এখন আর গোপন বিষয় নয়। এ নিয়ে ওয়াশিংটনের সঙ্গে নয়াদিল্লির টানাপোড়েন চলছে।

পুনর্নিবাচিত হওয়ার পর এই ছিল মোদি ও পুতিনের প্রথম সাক্ষাৎ। সাক্ষাতেই মোদিকে আলিঙ্গন করেন পুতিন। রুশ প্রেসিডেন্টের বাসভবনে রাজকীয় নৈশভোজেও অংশ নেন ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী। বিষয়টি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে যুক্তরাষ্ট্র।

মোদির রাশিয়া সফর নিয়ে প্রশ্ন করা হলে মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ম্যাথিউ মিলার বলেন, ‘রাশিয়া সফরে গিয়ে নরেন্দ্র মোদি কী বক্তব্য রাখছেন, সেই বিষয়ে আমরা নজর রাখব। তবে আমরা জানাতে চাই, ভারতের সঙ্গে রাশিয়ার বন্ধুত্বের বিষয়ে ওয়াশিংটন ইতোমধ্যেই নিজেদের উদ্বেগের কথা জানিয়েছে দিল্লির কাছে।’

মিলার এদিন আরও বলেন, ‘আমেরিকা আশা করে, ভারত বা যেকোনো দেশ যখন রাশিয়ার সঙ্গে সম্পর্ক রাখছে, তখন তারা মস্কোকে যেন জাতিসংঘের চার্টার মেনে চলার কথা মনে করিয়ে দেয়।’

হিন্দুস্তান টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২০২২ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে হামলা চালায় রাশিয়া। এরপর বিগত দুই বছর ধরেই রাশিয়ার সঙ্গে ভারতের সম্পর্ক নিয়ে দিল্লির ওপর চাপ বাড়িয়ে চলেছে ওয়াশিংটন। তবে আমেরিকার চাপের কাছে ভারত মাথানত করেনি। উল্টো রাশিয়া থেকে এই দুই বছর ধরে কম দামে জ্বালানি তেল কিনে চলেছে ভারত। সেই তেল আবার ভারতে শোধন করে আমেরিকা এবং ইউরোপে রপ্তানি করে মোটা টাকা মুনাফা করছে দিল্লি।

এদিকে রাশিয়ার সঙ্গে ভারতের ঐতিহাসিক সম্পর্কের কথা উল্লেখ করে মার্কিন হস্তক্ষেপে আপত্তি জানিয়েছে দিল্লি। একইসঙ্গে জাতিসংঘে বিভিন্ন প্রস্তাবে রাশিয়ার বিরুদ্ধে ভোট দেওয়া থেকে বিরত থেকেছে ভারত। তবে বারবারই আলোচনার মাধ্যমে শান্তিপূর্ণভাবে ইউক্রেন যুদ্ধ বন্ধের আহ্বানও জানিয়ে এসেছে দিল্লি।

এই পরিস্থিতির মাঝেই তিন বছর পর ফের রাশিয়া সফরে গেলেন মোদি। পুতিনের সঙ্গে সাক্ষাতের পর নিজের এক্স হ্যান্ডেলে সেই ছবি পোস্ট করেছেন ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী। সফরকালে ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের পর্যালোচনা এবং ভবিষ্যতের সহযোগিতার জন্য একটি রোডম্যাপ তৈরি করতে দীর্ঘ আলোচনা করার কথা রয়েছে মোদির। সূত্র: দৈনিক ইত্তেফাক।

Tag :

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

মোদি-পুতিনের সাক্ষাতে যুক্তরাষ্ট্রের নজর

প্রকাশের সময় : ০৭:৩৯:৫৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১০ জুলাই ২০২৪

সোমবার (৮ জুলাই) মস্কোয় রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে দেখা করেন মোদি। ইউক্রেনে আগ্রাসন চালানো রাশিয়ার সঙ্গে ভারতের বন্ধুত্ব এখন আর গোপন বিষয় নয়। এ নিয়ে ওয়াশিংটনের সঙ্গে নয়াদিল্লির টানাপোড়েন চলছে।

পুনর্নিবাচিত হওয়ার পর এই ছিল মোদি ও পুতিনের প্রথম সাক্ষাৎ। সাক্ষাতেই মোদিকে আলিঙ্গন করেন পুতিন। রুশ প্রেসিডেন্টের বাসভবনে রাজকীয় নৈশভোজেও অংশ নেন ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী। বিষয়টি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে যুক্তরাষ্ট্র।

মোদির রাশিয়া সফর নিয়ে প্রশ্ন করা হলে মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ম্যাথিউ মিলার বলেন, ‘রাশিয়া সফরে গিয়ে নরেন্দ্র মোদি কী বক্তব্য রাখছেন, সেই বিষয়ে আমরা নজর রাখব। তবে আমরা জানাতে চাই, ভারতের সঙ্গে রাশিয়ার বন্ধুত্বের বিষয়ে ওয়াশিংটন ইতোমধ্যেই নিজেদের উদ্বেগের কথা জানিয়েছে দিল্লির কাছে।’

মিলার এদিন আরও বলেন, ‘আমেরিকা আশা করে, ভারত বা যেকোনো দেশ যখন রাশিয়ার সঙ্গে সম্পর্ক রাখছে, তখন তারা মস্কোকে যেন জাতিসংঘের চার্টার মেনে চলার কথা মনে করিয়ে দেয়।’

হিন্দুস্তান টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২০২২ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে হামলা চালায় রাশিয়া। এরপর বিগত দুই বছর ধরেই রাশিয়ার সঙ্গে ভারতের সম্পর্ক নিয়ে দিল্লির ওপর চাপ বাড়িয়ে চলেছে ওয়াশিংটন। তবে আমেরিকার চাপের কাছে ভারত মাথানত করেনি। উল্টো রাশিয়া থেকে এই দুই বছর ধরে কম দামে জ্বালানি তেল কিনে চলেছে ভারত। সেই তেল আবার ভারতে শোধন করে আমেরিকা এবং ইউরোপে রপ্তানি করে মোটা টাকা মুনাফা করছে দিল্লি।

এদিকে রাশিয়ার সঙ্গে ভারতের ঐতিহাসিক সম্পর্কের কথা উল্লেখ করে মার্কিন হস্তক্ষেপে আপত্তি জানিয়েছে দিল্লি। একইসঙ্গে জাতিসংঘে বিভিন্ন প্রস্তাবে রাশিয়ার বিরুদ্ধে ভোট দেওয়া থেকে বিরত থেকেছে ভারত। তবে বারবারই আলোচনার মাধ্যমে শান্তিপূর্ণভাবে ইউক্রেন যুদ্ধ বন্ধের আহ্বানও জানিয়ে এসেছে দিল্লি।

এই পরিস্থিতির মাঝেই তিন বছর পর ফের রাশিয়া সফরে গেলেন মোদি। পুতিনের সঙ্গে সাক্ষাতের পর নিজের এক্স হ্যান্ডেলে সেই ছবি পোস্ট করেছেন ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী। সফরকালে ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের পর্যালোচনা এবং ভবিষ্যতের সহযোগিতার জন্য একটি রোডম্যাপ তৈরি করতে দীর্ঘ আলোচনা করার কথা রয়েছে মোদির। সূত্র: দৈনিক ইত্তেফাক।