নিউইয়র্ক ১০:২৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন :
মঙ্গলবারের পত্রিকা সাপ্তাহিক হককথা ও হককথা.কম এ আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন +1 (347) 848-3834
৭২ সদস্যের মন্ত্রী পরিষদের শপথ, এর মধ্যে ৩০ জন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী, পাঁচজন স্বতন্ত্র দায়িত্বপ্রাপ্ত এবং ৩৬ জন প্রতিমন্ত্রী

তৃতীয় বার ভারতের প্রধানমন্ত্রী হলেন মোদি

হককথা ডেস্ক
  • প্রকাশের সময় : ০২:২৩:৪৭ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১০ জুন ২০২৪
  • / ৩৬ বার পঠিত

টানা তৃতীয় মেয়াদে ভারতের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছেন নরেন্দ্র দামোদর দাস মোদি। নয়াদিল্লিতে প্রেসিডেন্ট ভবনে গতকাল সন্ধ্যায় এই শপথ গ্রহণ হয়। নরেন্দ্র মোদিকে শপথ পড়ান ভারতের প্রেসিডেন্ট দৌপদী মুর্মু। তৃতীয়বার প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ গ্রহণের মধ্য দিয়ে ভারতের প্রথম প্রধানমন্ত্রী ও কংগ্রেসের নেতা জওহরলাল নেহরুর রেকর্ড স্পর্শ করলেন নরেন্দ্র মোদি। জমকালো এই শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান উপলক্ষে নয়াদিল্লির নিরাপত্তাব্যবস্থা জোরদার করা হয়। শপথগ্রহণ অনুষ্ঠান চলার সময় যেকোনো অপরাধমূলক বা সন্ত্রাসী হুমকি রোধে দিল্লিতে নো-ফ্লাই জোন ঘোষণা করা হয়। এই বিধিনিষেধ আজও কার্যকর থাকবে।

এই অনুষ্ঠানে দেশ-বিদেশের প্রায় আট হাজার বিশিষ্টজনকে আমন্ত্রণ জানানো হয়। শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ ছাড়া উপস্থিত ছিলেন শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট রনিল বিক্রমাসিংহে, মালদ্বীপের প্রেসিডেন্ট মোহামেদ মুইজ্জু, সেশেলসের ভাইস প্রেসিডেন্ট আহমেদ আফিফ, মরিশাসের প্রধানমন্ত্রী প্রবীন্দ কুমার জগন্নাথ, নেপালের প্রধানমন্ত্রী পুষ্পকমল দহল প্রচ-, ভুটানের প্রধানমন্ত্রী শেরিং টোগবে।

নরেন্দ্র মোদির পাশাপাশি তার মন্ত্রীপরিষদের মন্ত্রীরাও শপথ গ্রহণ করেন। এবার প্রাথমিকভাবে ৭২ জনের মন্ত্রী সভা গঠন করেছেন মোদি। শরিক দলগুলো বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের দাবি জানালেও, গুরুত্বপূর্ণ চার মন্ত্রণালয়- স্বরাষ্ট্র, প্রতিরক্ষা, অর্থ ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বিজেপি নিজের হাতেই রেখেছে। মোদীর নতুন মন্ত্রিসভায় ঠাঁই পাওয়া ৭২ জনের মধ্যে ৩০ জন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী, পাঁচজন স্বতন্ত্র দায়িত্বপ্রাপ্ত এবং ৩৬ জন প্রতিমন্ত্রী। কে কোন মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পাচ্ছেন তা পরে ঘোষণা করা হবে।

এবার মোদির নতুন মন্ত্রিসভার সদস্যরা হলেন, রাজনাথ সিং, অমিত শাহ, নিতিন গড়করি, জেপি নাড্ডা, শিবরাজ সিং চৌহান, নির্মলা সীতারমন, সুব্রামানিয়াম জয়শঙ্কর, মনোহর লাল খট্টর, এইচডি কুমারস্বামী, পীযূষ গয়াল, ধর্মেন্দ্র প্রধান, জিতন রাম মাঞ্জি, রাজীব রঞ্জন সিং, সর্বানন্দ সোনোয়াল, বীরেন্দ্র কুমার, কিঞ্জরাপু রাম মোহন নাইডু, প্রহ্লাদ জোশী, জুয়াল ওরাম, গিরিরাজ সিং, অশ্বিনী বৈষ্ণব, জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া, ভূপেন্দর যাদব, গজেন্দ্র সিং শেখাওয়াত, অন্নপূর্ণা দেবী, কিরেন রিজিজু, হরদীপ সিং পুরী, মনসুখ মান্ডাভিয়া, জি কিষাণ রেড্ডি, চিরাগ পাসওয়ান, সি আর পাতিল, রাও ইন্দ্রজিৎ সিং, জিতেন্দ্র সিং, অর্জুন রাম মেঘওয়াল, প্রতা প্রাও যাদব, জয়ন্ত চৌধুরী, জিতিন প্রসাদা, শ্রীপাদ নায়েক, পঙ্কজ চৌধুরী, কৃষাণ পাল, রামদাস আটওয়ালে, রাম নাথ ঠাকুর, নিত্যানন্দ রায়, শপথ নিলেন সুকান্ত মজুমদার, রক্ষা খাড়সে, দুর্গাদাস উইকে, রভনীত সিংহ বিট্টু, সঞ্জয় শেঠ, সতীশচন্দ্র দুবে, ভগীরথ চৌধরি, কমলেশ পাসোয়ান, বন্দি সঞ্জয় কুমার, অজয় টামটা, এল মুরুগান, সুরেশ গোপী, শান্তনু ঠাকুর, বিএল বর্মা, কীর্তিবর্ধন সিংহ, শোভা করন্দলজে, এসপি সিংহ বঘেল, চন্দ্রশেখর পেম্মাসানি, ভি সোমান্না, অনুপ্রিয়া পটেল।

শরিক দলগুলোর থেকে মন্ত্রী হিসাবে শপথ নিলেন লোক জনশক্তি পার্টি (রামবিলাস)-র নেতা চিরাগ পাসোয়ান। চন্দ্রবাবু নায়ডুর টিডিপির নেতা কে রামমোহন নায়ডু। জেডিইউ-র রাজীবরঞ্জন সিংহ ওরফে লালন। নীতীশের দলের এই নেতা বিহারের মুঙ্গের আসন থেকে জয়ী হয়েছেন। হিন্দুস্থান আওয়াম মোর্চা (হাম)-র নেতা জিতনরাম মাঝিঁ। তিনি বিহারের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী। অনুপ্রিয়া পটেল, তিনি এনডিএ-র শরিক দল আপনা দল (সোনেলাল)। সূত্র: ইনকিলাব।

Tag :

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

৭২ সদস্যের মন্ত্রী পরিষদের শপথ, এর মধ্যে ৩০ জন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী, পাঁচজন স্বতন্ত্র দায়িত্বপ্রাপ্ত এবং ৩৬ জন প্রতিমন্ত্রী

তৃতীয় বার ভারতের প্রধানমন্ত্রী হলেন মোদি

প্রকাশের সময় : ০২:২৩:৪৭ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১০ জুন ২০২৪

টানা তৃতীয় মেয়াদে ভারতের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছেন নরেন্দ্র দামোদর দাস মোদি। নয়াদিল্লিতে প্রেসিডেন্ট ভবনে গতকাল সন্ধ্যায় এই শপথ গ্রহণ হয়। নরেন্দ্র মোদিকে শপথ পড়ান ভারতের প্রেসিডেন্ট দৌপদী মুর্মু। তৃতীয়বার প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ গ্রহণের মধ্য দিয়ে ভারতের প্রথম প্রধানমন্ত্রী ও কংগ্রেসের নেতা জওহরলাল নেহরুর রেকর্ড স্পর্শ করলেন নরেন্দ্র মোদি। জমকালো এই শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান উপলক্ষে নয়াদিল্লির নিরাপত্তাব্যবস্থা জোরদার করা হয়। শপথগ্রহণ অনুষ্ঠান চলার সময় যেকোনো অপরাধমূলক বা সন্ত্রাসী হুমকি রোধে দিল্লিতে নো-ফ্লাই জোন ঘোষণা করা হয়। এই বিধিনিষেধ আজও কার্যকর থাকবে।

এই অনুষ্ঠানে দেশ-বিদেশের প্রায় আট হাজার বিশিষ্টজনকে আমন্ত্রণ জানানো হয়। শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ ছাড়া উপস্থিত ছিলেন শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট রনিল বিক্রমাসিংহে, মালদ্বীপের প্রেসিডেন্ট মোহামেদ মুইজ্জু, সেশেলসের ভাইস প্রেসিডেন্ট আহমেদ আফিফ, মরিশাসের প্রধানমন্ত্রী প্রবীন্দ কুমার জগন্নাথ, নেপালের প্রধানমন্ত্রী পুষ্পকমল দহল প্রচ-, ভুটানের প্রধানমন্ত্রী শেরিং টোগবে।

নরেন্দ্র মোদির পাশাপাশি তার মন্ত্রীপরিষদের মন্ত্রীরাও শপথ গ্রহণ করেন। এবার প্রাথমিকভাবে ৭২ জনের মন্ত্রী সভা গঠন করেছেন মোদি। শরিক দলগুলো বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের দাবি জানালেও, গুরুত্বপূর্ণ চার মন্ত্রণালয়- স্বরাষ্ট্র, প্রতিরক্ষা, অর্থ ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বিজেপি নিজের হাতেই রেখেছে। মোদীর নতুন মন্ত্রিসভায় ঠাঁই পাওয়া ৭২ জনের মধ্যে ৩০ জন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী, পাঁচজন স্বতন্ত্র দায়িত্বপ্রাপ্ত এবং ৩৬ জন প্রতিমন্ত্রী। কে কোন মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পাচ্ছেন তা পরে ঘোষণা করা হবে।

এবার মোদির নতুন মন্ত্রিসভার সদস্যরা হলেন, রাজনাথ সিং, অমিত শাহ, নিতিন গড়করি, জেপি নাড্ডা, শিবরাজ সিং চৌহান, নির্মলা সীতারমন, সুব্রামানিয়াম জয়শঙ্কর, মনোহর লাল খট্টর, এইচডি কুমারস্বামী, পীযূষ গয়াল, ধর্মেন্দ্র প্রধান, জিতন রাম মাঞ্জি, রাজীব রঞ্জন সিং, সর্বানন্দ সোনোয়াল, বীরেন্দ্র কুমার, কিঞ্জরাপু রাম মোহন নাইডু, প্রহ্লাদ জোশী, জুয়াল ওরাম, গিরিরাজ সিং, অশ্বিনী বৈষ্ণব, জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া, ভূপেন্দর যাদব, গজেন্দ্র সিং শেখাওয়াত, অন্নপূর্ণা দেবী, কিরেন রিজিজু, হরদীপ সিং পুরী, মনসুখ মান্ডাভিয়া, জি কিষাণ রেড্ডি, চিরাগ পাসওয়ান, সি আর পাতিল, রাও ইন্দ্রজিৎ সিং, জিতেন্দ্র সিং, অর্জুন রাম মেঘওয়াল, প্রতা প্রাও যাদব, জয়ন্ত চৌধুরী, জিতিন প্রসাদা, শ্রীপাদ নায়েক, পঙ্কজ চৌধুরী, কৃষাণ পাল, রামদাস আটওয়ালে, রাম নাথ ঠাকুর, নিত্যানন্দ রায়, শপথ নিলেন সুকান্ত মজুমদার, রক্ষা খাড়সে, দুর্গাদাস উইকে, রভনীত সিংহ বিট্টু, সঞ্জয় শেঠ, সতীশচন্দ্র দুবে, ভগীরথ চৌধরি, কমলেশ পাসোয়ান, বন্দি সঞ্জয় কুমার, অজয় টামটা, এল মুরুগান, সুরেশ গোপী, শান্তনু ঠাকুর, বিএল বর্মা, কীর্তিবর্ধন সিংহ, শোভা করন্দলজে, এসপি সিংহ বঘেল, চন্দ্রশেখর পেম্মাসানি, ভি সোমান্না, অনুপ্রিয়া পটেল।

শরিক দলগুলোর থেকে মন্ত্রী হিসাবে শপথ নিলেন লোক জনশক্তি পার্টি (রামবিলাস)-র নেতা চিরাগ পাসোয়ান। চন্দ্রবাবু নায়ডুর টিডিপির নেতা কে রামমোহন নায়ডু। জেডিইউ-র রাজীবরঞ্জন সিংহ ওরফে লালন। নীতীশের দলের এই নেতা বিহারের মুঙ্গের আসন থেকে জয়ী হয়েছেন। হিন্দুস্থান আওয়াম মোর্চা (হাম)-র নেতা জিতনরাম মাঝিঁ। তিনি বিহারের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী। অনুপ্রিয়া পটেল, তিনি এনডিএ-র শরিক দল আপনা দল (সোনেলাল)। সূত্র: ইনকিলাব।