Mowlana Vashani

 
 

Maulana Abdul Hamid Khan Bhashani Facts

Maulana Abdul Hamid Khan Bhashani (1880-1976) was a Muslim leader who used non-violent, mass civil disobedience techniques to promote nationalism in Assam, Bengal, and Bangladesh in the northeastern part of the Indian subcontinent. Acatalyst of Muslim nationalism, Maulana Abdul Hamid Khan Bhashani did for the masses of the northeastern part of the Indian subcontinent what Mohandas Karamchand Gandhi accomplished for the teeming down-trodden people of north, central, and south India. Unswerving in his belief in God and human dignity, Bhashani crusaded, at times singlehandedly, against the vested interests in Assam,বিস্তারিত পড়ুন


মওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানী

মওলানা ভাসানী। পুরো নাম আব্দুল হামিদ খান ভাসানী। ডাক নাম চেগা মিয়া। দেশব্যাপী খ্যাতি মওলানা ভাসানী নামে হলেও তিঁনি কারো কাছে হুজুর বা পীর, কারো কাজে মজলুম জননেতা, কারো কাছে ‘খামোশ’ নামের আতঙ্ক, কারো কাছে ‘প্রফেট অব ভায়োলেন্স’। ১৭ নভেম্বর তাঁর ৩৮তম মৃত্যুবার্ষিকী। স্বাধীন বাংলাদেশের স্বপ্নদ্রস্টা মওলানা ভাসানী দেশের নিপীড়িত ও নির্যাতিত মানুষের মুক্তির জন্য সারা জীবন আন্দোলন, সংগ্রামে সামনের কাতারে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছেন। তিনি ছিলেন সামন্তবাদ, সাম্রাজ্যবাদ ও পুঁজিবাদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদী কণ্ঠ। স্বাধীন বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে তার ভূমিকা ছিলো প্রশংসনীয়। মওলানা ভাসানী দীর্ঘ কর্মময় জীবনের অধিকাংশ সময়ই টাঙ্গাইলের সন্তোষেবিস্তারিত পড়ুন


হুজুর মওলানা ভাসানীর ৩৮তম মৃত্যুবার্ষিকী

জিম্বাবুয়ের সঙ্গে টেস্ট ক্রিকেটে বাংলাদেশ দলের ঐতিহাসিক সিরিজ জয়ে অভিনন্দন জানাচ্ছি। মনোবলহীন জাতি যেমন কোনো কাজের নয়, ঠিক তেমনি কোনো রাজনৈতিক, সামাজিক ও ক্রীড়া দলও কোনো কাজে আসে না। সব কিছুর জন্য চাই বলিষ্ঠ মনোবল ও ভরপুর উদ্দীপনা। আমি খুব একটা ক্রিকেটবেত্তা নই, তবু বলতে পারি এই সময় সাকিব আল হাসান দলে না থাকলে বাংলাদেশ দল অতটা ঐক্যবদ্ধ হয়ে জিম্বাবুয়ের মতো একটি সুগঠিত দলকে বাংলাদেশের মাটিতে হোয়াইট ওয়াশ করতে পারত না। আমি তাদের বিজয়ে খুবই আনন্দিত। দেশবাসীর পক্ষ থেকে আবারও তাদের অভিবাদন, অভিনন্দন জানাচ্ছি। গতকাল (১৭ নভেম্বর) ছিল আফ্রো-এশিয়া, ল্যাটিনবিস্তারিত পড়ুন


শ্রদ্ধা ভালোবাসায় মওলানা ভাসানীর মৃত্যুবার্ষিকী পালিত

নানা আয়োজনে পালিত হল মজলুম জননেতা মওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানীর ৩৮তম মৃত্যুবার্ষিকী। এ উপলক্ষে ১৭ নভেম্বর সোমবার সকালে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন, দেশী-বিদেশী ভাসানীভক্তরা টাঙ্গাইলের সন্তোষে তার মাজারে পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন। দিবসটি উপলক্ষে দেয়াল পত্রিকা, কাঙালীভোজ, রক্তদান কর্মসূচী, আলোচনা সভা, মেলাসহ দিনব্যাপী নানা কর্মসূচি পালিত হয়। ১৯৭৬ সালের এ দিনে ৯৬ বছর বয়সে মৃত্যুবরণ করেন মওলানা ভাসানী। ঐদিন সকাল ৭টায় মওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক ড. আলাউদ্দিন মাজারে পুষ্পস্তবক অর্পণ ও মাজার জিয়ারতের মধ্য দিয়ে দিবসের কর্মসূচী শুরু করেন। পরে টাঙ্গাইল জেলা প্রশাসন,বিস্তারিত পড়ুন


স্মরণ: মওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানী

একদিনের দেখা যেনো শত বছরের চেনা

মওলানা ভাসানী। পুরো নাম আব্দুল হামিদ খান ভাসানী। ডাক নাম চেগা মিয়া। দেশব্যাপী খ্যাতি মওলানা ভাসানী নামে হলেও তিঁনি কারো কাছে হুজুর বা পীর, কারো কাজে মজলুম জননেতা, কারো কাছে ‘খামোশ’ নামের আতঙ্ক, কারো কাছে ‘প্রফেট অব ভায়োলেন্স’। ১৭ নভেম্বর তাঁর ৩৮তম মৃত্যুবার্ষিকী। স্বাধীন বাংলাদেশের স্বপ্নদ্রস্টা মওলানা ভাসানী দেশের নিপীড়িত ও নির্যাতিত মানুষের মুক্তির জন্য সারা জীবন আন্দোলন, সংগ্রামে সামনের কাতারে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছেন। তিনি ছিলেন সামন্তবাদ, সাম্রাজ্যবাদ ও পুঁজিবাদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদী কণ্ঠ। স্বাধীন বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে তার ভূমিকা ছিলো প্রশংসনীয়। মওলানা ভাসানী দীর্ঘ কর্মময় জীবনের অধিকাংশ সময়ই টাঙ্গাইলের সন্তোষেবিস্তারিত পড়ুন


নিউইয়র্কে আলোচনা ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন

মওলানা ভাসানীর মৃত্যুবার্ষিকী ১৭ নভেম্বর

আফ্রো-এশিয়া, ল্যাতিন আমেরিকার অবিসংবাদিত নেতা, স্বাধীন বাংলাদেশের স্বপ্নদ্রষ্টা, মজলুম জননেতা মওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানীর ৩৮তম মৃত্যুবার্ষিকী আগামী ১৭ নভেম্বর সোমবার। দিনটি স্মরণে নিউইয়র্কে পৃথক পৃথক আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে। ভাসানী স্মৃতি পরিষদ: মওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানীর মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষ্যে মওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানী স্মৃতি পরিষদ, নিউইয়র্ক-এর উদ্যোগে ঐদিন (১৭ নভেম্বর, সোমবার) সন্ধ্যঅ ৭টায় নিউইয়র্কের  জ্যাকসন হাইটস্থ পালকি পার্টি আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি থাকবেন বীর মুক্তিযোদ্ধা, বিশিষ্ট রাজনীতিক, সাবেক মন্ত্রী ও ঢাকা সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র সাদেক হোসেনবিস্তারিত পড়ুন


স্মরণ: মওলানা ভাসানী : কিছু স্মৃতি, কিছু কথা

পাক-ভারত-বাংলাদেশ উপমহাদেশের ৪ জন নেতাকে আমি বিশেষ ভাবে শ্রদ্ধা করি এবং তাদেরকে নিজের দৈনন্দিন জীবনে অনুসরণ করার চেষ্টা করি। তারা হলেন মওলনা ভাসানী, নেতাজী সুভাস বোস, শেরে বাংলা এ কে ফজলুর হক ও দেশবন্ধু চিত্তরঞ্জন দাস। পরবর্তী প্রজন্মের নেতাদের মধ্যে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও জ্যোতি বসু।একমাত্র মওলানা ভাসানী ছাড়া অন্য কারো সান্নিধ্যে আসার সুযোগ আমার হয়নি। যদিও ১৯৬০ সালে শেরে বাংলাকে তার ৮৭ বছর বয়সে একবার দেখার সুযোগ হয়েছিল। আমার প্রিয় নেতা মওলানা ভাসানীকে প্রথম দেখি ১৯৬৪ সালে। পাকিস্তানের তৎকালীন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে পাকিস্তানের প্রতিষ্ঠাতা মোহাম্মদ আলী জিন্নাহর ছোট বোনবিস্তারিত পড়ুন